X
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২
২২ আশ্বিন ১৪২৯

সরকারকে আর টিকতে দেওয়া যায় না: মির্জা ফখরুল

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
০৭ আগস্ট ২০২২, ১৮:০৫আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ১৮:৩৪

বর্তমান সরকারকে আর টিকতে দেওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘আমাদের স্পষ্ট কথা, আর হবে না। দেশের মানুষ আর এভাবে দেশ চালাতে দেবে না। আমাদের রাজনীতিকে তারা ধ্বংস করেছে, আমাদের অর্থনীতিকে তারা ধ্বংস করেছে, আমাদের ভবিষ্যৎকে তারা ধ্বংস করেছে। সুতরাং এই সরকারকে আর টিকতে দেওয়া যায় না।”

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাবের কথা তুলে ধরে রবিবার (৭ আগস্ট) রাজধানীর নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে কৃষক দলের সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। গত ৩১ জুলাই ভোলার সমাবেশে পুলিশের গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুর রহিম ও ছাত্রদলের নুরে আলমের মৃত্যু এবং জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে কৃষক দলের উদ্যোগে এই সমাবেশ হয়। ভোলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত পুলিশ কর্মকর্তার অবিলম্বে গ্রেফতার ও বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব।

ফখরুল বলেন, ‘‘আমাদের দেশে বাইক চালায় যারা, মোটরসাইকেল চালায় যারা, যারা তাদের পরিবারকে একটু পালে, বউ-বাচ্চার খরচ জোগায়, তারা এখন চোখে অন্ধকার দেখছে। চোখে অন্ধকার দেখছে আমাদের কৃষক ভাইয়েরা, ডিজেলের দাম বাড়লে কীভাবে সেচের কাজ করবেন? এটাতে সরকারের কোনও কিছু যায় আসে না। কারণ, জনগণের তাদের দরকার নেই। তাদের আছে পুলিশ বাহিনী, বন্দুক বাহিনী, বিজিবি বাহিনী—এই বাহিনী দিয়ে সে দেশ চালাবে।”

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘‘আমরা সবাই সংঘবদ্ধ হচ্ছি, ঐক্যবদ্ধ হচ্ছি। গতকাল আমি সব রাজনৈতিক দলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছি, আসুন আর নিজেদের মধ্যে ছোটখাটো বিভেদ সৃষ্টি না করে আমরা ঐক্যবদ্ধ হই। ঐক্যবদ্ধ হয়ে ১৯৭১ সালে আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের যে আকাঙ্ক্ষা ছিল— জনগণের একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা, গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা তৈরি করা এবং একটা সাম্য তৈরি করা, সেটা করি।” সরকারকে আর টিকতে দেওয়া যায় না: মির্জা ফখরুল

তিনি বলেন, ‘সরকারকে বলবো, অবিলম্বে পদত্যাগ করুন এবং পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন, সংসদ বিলুপ্ত করুন। একটি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে তার মাধ্যমে জনগণের পার্লামেন্টে জনগণের প্রতিনিধি নির্বাচিত হবে—তারাই সরকার প্রতিষ্ঠা করবে। এটাই হচ্ছে আমাদের একমাত্র পথ, আর অন্য কোনও পথ নাই। আসুন আমরা সেই লক্ষ্যে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাই।”

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘‘দেশে কিছু মানুষকে আপনারা ধনী থেকে আরও ধনী বানিয়েছেন। আর কিছু মানুষকে গরিব থেকে গরিবের দিকে নিয়ে গেছেন। বড় বড় বড়াই করেন, মিথ্যা তথ্য দেন। তাদের একটা তথ্যও সঠিক না। এসব হচ্ছে জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য।”

তিনি বলেন, ‘‘পেট্রোল-ডিজেল-অকটেন সবকিছুর দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। গ্যাসের দাম বাড়িয়েছেন, পানির দাম বাড়িয়েছেন, সারের বাড়িয়েছেন। কোথায় যাবে মানুষ?”

গ্রামে গ্রামে গিয়ে কৃষক দলকে সংগঠিত করার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘গ্রামে গ্রামে সংগঠনকে সংগঠিত করুন। ইনশাআল্লাহ জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে, আমাদের নেতা তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে আমরা এখানে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করবো।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ফলে সারের দাম বাড়বে, যাতায়াত খরচ বেড়ে যাবে- সবকিছুর দাম বাড়বে। অর্থনীতিতে একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এবং অর্থনীতি খারাপের দিকে যাবে? তেলের দাম কেন বাড়ালেন? বলছেন পেট্রোলিয়াম করপোরেশন লোকসানে যাচ্ছে। লোকসানে কেন যাবে? ৫ বছর তো এই প্রতিষ্ঠান লাভ করেছে প্রায় ৩৯ হাজার কোটি টাকা। তখন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কম ছিল। কিন্তু আপনারা কমাননি।”

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু বলেন, ‘‘আমরা একযুগ ধরে বাংলাদেশের উন্নয়ন উন্নয়ন শুনে আসছি। এই উন্নয়নটা কীসের উন্নয়ন? এই উন্নয়নটা হচ্ছে বাংলাদেশে ধর্ষণের জোয়ার, এটা কোনও উন্নয়নের জোয়ার না, বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির জোয়ার, এটা কোনও উন্নয়নের জোয়ার না, বাংলাদেশে মানুষের অধিকার হরণের জোয়ার, কোনও উন্নয়নের জোয়ার না।”

কৃষক দলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুলের পরিচালনায় সমাবেশে বিএনপির শামসুজ্জামান দুদু, আমান উল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, রুহুল কবির রিজভী, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ফজলুল হক মিলন, আবদুস সালাম আজাদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মোনায়েম মুন্না, ঢাকা মহানগর বিএনপি দক্ষিণের রফিকুল আলম মজনু, উত্তরের আমিনুল হকসহ কৃষক দলের নাসির হায়দার,  জামাল উদ্দিন খান মিলন, মামুনুর রশিদ খান, এসএম ফয়সাল,  খন্দকার নাসিরুল ইসলাম, ভিপি ইব্রাহিম, সৈয়দ অলি উল্লাহ সিদ্দিকী, ওবাইদুর রহমান টিপু, মাহমুদা হাবিবা, মেহেদি হাসান পলাশসহ কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য রাখেন।

/এসটিএস/এমএস/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
২৪ ঘণ্টায় রাশিয়ার ২০টি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি ইউক্রেনের
২৪ ঘণ্টায় রাশিয়ার ২০টি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি ইউক্রেনের
স্বাস্থ্যকর সবজি ও সঠিক মূল্য নিশ্চিতে ডিএসসিসির ‘কৃষকের বাজার’
স্বাস্থ্যকর সবজি ও সঠিক মূল্য নিশ্চিতে ডিএসসিসির ‘কৃষকের বাজার’
সম্মেলনে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮
সম্মেলনে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮
রঙিন ছাতার আড়ালে স্মৃতির ফটক (ফটো স্টোরি)
ঢামেকের ঐতিহাসিক আমতলা গেটরঙিন ছাতার আড়ালে স্মৃতির ফটক (ফটো স্টোরি)
বাংলাট্রিবিউনের সর্বাধিক পঠিত
প্রস্তুত হন, চেরাগ জ্বালিয়ে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
প্রস্তুত হন, চেরাগ জ্বালিয়ে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
আলিবাবার জ্যাক মা পারলে আমরা পারবো না কেন: শামীমা নাসরিন
আলিবাবার জ্যাক মা পারলে আমরা পারবো না কেন: শামীমা নাসরিন
গোলমাল বাধলে ঘর স্ত্রীর নামে যাবে, স্বামীর নামে না: প্রধানমন্ত্রী
গোলমাল বাধলে ঘর স্ত্রীর নামে যাবে, স্বামীর নামে না: প্রধানমন্ত্রী
মেট্রোরেলে চাকরির সুযোগ, বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ
মেট্রোরেলে চাকরির সুযোগ, বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ
চোখের সামনে পড়েছিল কয়েকজনের লাশ, মৃত্যুর হাত থেকে ফিরলাম
চোখের সামনে পড়েছিল কয়েকজনের লাশ, মৃত্যুর হাত থেকে ফিরলাম