জামায়াত আমিরের বক্তব্য ভুল-উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: এবি পার্টি

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৫৮, জুন ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০১, জুন ২৮, ২০২০

নতুন গঠিত আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পাটি) নিয়ে অনলাইন কর্মী-সম্মেলনে জামায়াতের আমির ডা. শফিকুর রহমানের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটি। রবিবার (২৮ জুন) বিকালে এবি পার্টির সহকারী সদস্য সচিব এবিএম খালিদ হাসান স্বাক্ষরিত প্রতিবাদলিপিতে গত ২২ জুন দেওয়া জামায়াত আমিরের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানানো হয়। এতে বলা হয়, ডা. শফিকুর রহমানের বক্তব্য ভুল ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। একইসঙ্গে সংগঠনটি বিবৃতিতে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে, জামায়াত আমির যেন তার বক্তব্যের সত্যতা প্রমাণ করেন।

রবিবার বিকালে এবি পার্টির প্রতিবাদ বিবৃতির কথা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান দলটির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মনজু। তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলা ট্রিবিউনসহ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে দেখেছি জামায়াতের আমির এবি পার্টি নিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। তার বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতেই আমাদের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া পাঠানো হয়েছে।

 উল্লেখ্য, বাংলা ট্রিবিউনে গতকাল শনিবার (২৭ জুন) রাতে 'জামায়াতের সঙ্গে এবি পার্টির দ্বন্দ্ব এবার প্রকাশ্যে'  শীর্ষক সংবাদ প্রকাশ করে।

এবি পার্টির সহকারী সদস্য সচিব এবিএম খালিদ হাসান স্বাক্ষরিত এবি পার্টি নিয়ে জামায়াত আমীরের বক্তব্যের প্রতিবাদ’ শীর্ষক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ডা. শফিকুর রহমান বলেছেন- মে মাসের ২ তারিখে এবি পার্টি গঠন করেছেন। সে সময় তারা তাদের দলীয় মেনিফেস্টো ঘোষণার সময় বলেছেন- এবি পার্টির নীতি ও কর্মকৌশল হবে তিনটি জিনিসের ওপর ভিত্তি করে সাম্য, সামাজিক সুবিচার ও মানবাধিকার। এটার ওপরে তারা কাজ করবেন। তারা তাদের সেশনে পরিষ্কার করে বলেছে যে, তাদের কর্মসূচিতে তাদের এজেন্ডায় ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধের এই চাপ্টার থাকবেনা। এটাকে বাদ দিয়েই হবে তাদের সবকিছু।’

 বিবৃতিতে দাবি করা হয়, ‘ডা. শফিকুর রহমানের এই বক্তব্যে প্রদত্ত তথ্য ভুল, বিভ্রান্তিকর ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত বলে আমরা মনে করি। তাই আমরা এর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই।’

এতে বলা হয়, ‘তিনি একজন জাতীয় পর্যায়ের নেতা এবং দায়িত্বশীল পদে আসীন বিধায় আমরা তার জ্ঞাতার্থে ও জাতির সামনে এ ব্যপারে সঠিক তথ্য তুলে ধরছি।’

এতে বলা হয়, ‘এবি পার্টি ২ মে দলের যে ৭ দফা কর্মসূচি ঘোষনা করেছে তার প্রথম দফা হলো ‘জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা’। যেখানে বলা হয়েছে ‘বাংলাদেশের নাগরিকদের মধ্যকার বিভেদ ও বিভাজন সৃষ্টিকারী সকল মত ও পথ পরিহার করে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে উল্লেখিত সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার এই তিন মূলনীতির ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করা।’

আরও বলা হয়, ‘আমাদের কর্মসূচির একটি দফাকে তিনি সম্ভবত: ভুলবশত: পুরো দলের মূলনীতি ও কর্মকৌশল হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তাছাড়া এই তিন মূলনীতি মূলত: মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশ গঠনের প্রতিশ্রুত মূলনীতি। যেখানে ‘মানবিক মর্যাদা’র বিষয়টিকে তিনি অসাবধানতাবশত ‘মানবাধিকার’ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি আরও বলেছেন ‘এবি পার্টির কর্মসূচিতে ও এজেন্ডায় ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধের এই চাপ্টার থাকবেনা। এটাকে বাদ দিয়েই হবে তাদের সবকিছু।’

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, ‘তার এই তথ্য ও বক্তব্য সম্পূর্ণ অসত্য এবং কল্পনাপ্রসূত। এ ধরণের কোনও কথা বা ঘোষণা আমাদের ২ তারিখের ঘোষিত মেনিফেস্টো, কর্মসূচি বা এজেন্ডায় উল্লেখ নেই। তিনি কিসের ভিত্তিতে এই ধরনের কল্পিত তথ্য উপস্থাপন করলেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। আমরা চ্যালেঞ্জ করছি তিনি যেন তার বক্তব্যের সত্যতা প্রমাণ করে নৈতিকতার পরিচয় দেন।’

সহকারী সদস্য সচিব এবিএম খালিদ হাসান উল্লেখ করেন, ‘এবি পার্টির প্রথম ও তৃতীয় দফা কর্মসূচি যে কোন সাধারণ মানুষ পড়লেই বুঝতে পারবেন যে, এখানে মুক্তিযুদ্ধের ঘোষনা পত্রে প্রদত্ত অঙ্গীকার বাস্তবায়ন এবং ধর্মীয় ও মানবিক মূল্যবোধকে কতটুকু গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। অথচ ডা. শফিকুর রহমান অকপটে বললেন আমাদের কর্মসূচিতে ও এজেন্ডায় ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধের চাপ্টার থাকবেনা। এটাকে বাদ দিয়েই হবে আমাদের সবকিছু। তার মতো একজন দলীয় প্রধানের এহেন ভিত্তিহীন বক্তব্যে আমরা বিস্মিত ও হতবাক।’

তবে বিবৃতিতে জামায়াতের আমিরকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলা হয়, ‘জামায়াতের আমীরকে আমরা ধন্যবাদ জানাই যে, তিনি তার বক্তব্যে স্পষ্ট করেছেন যে, তাদের সাথে আমাদের আদর্শিক পথ একেবারে আলাদা।’

এবি পার্টির বিবৃতিতে জামায়াত আমির ও দলটির নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, ‘একটি রাজনৈতিক দলের নেতা হিসেবে ডা. শফিকুর রহমান ও তার অনুসারীদের নিকট থেকে আমরা গণতান্ত্রিক রীতিনীতি ও শিষ্ঠাচার প্রত্যাশা করি। আশাকরি তিনি ও তার দলের কর্মীরা এ ব্যপারে সততা ও পরমত সহিষ্ণুতার স্বাক্ষর রাখবেন।’

 

/এসটিএস/এফএএন/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ