X
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

‘দেশ এখন মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত হয়েছে’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০০:২২আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০০:২২

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, বাংলাদেশ এখন মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত হয়েছে। এই দেশ আমার দেশ নয়। যে দেশকে মা-বোনের রক্ত দিয়ে অর্জন করেছিলাম তা এখন মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত হয়েছে। আমরা সেই দেশ চাই, যেখানে মানুষ বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে না, বিনা খাদ্যে মারা যাবে না। শেখ হাসিনা দেশটাকে নিজের ইচ্ছেমতো শাসন করছেন। তাদের থাবা থেকে দেশকে রক্ষা করার জন্য আমরা লড়াই করছি।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত ‘আদিলুর- এলানের সাজা, সাইবার নিরাপত্তা আইন এবং বাংলাদেশের মানবাধিকার’ শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন তিনি।

মান্না আরও বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়া প্রয়োজন। অথচ সরকার তাকে বিদেশে যেতে দিচ্ছে না।...সরকার আমার পাসপোর্ট আটকে রেখেছে। বেগম জিয়ার মতো আমারও চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়া প্রয়োজন। পাসপোর্ট ফেরত দেবার জন্য আমি আবেদন করেছি কয়েক দফায়। অথচ বছর পেরিয়ে গেলেও সেই আবেদনের উপর শুনানি পর্যন্ত হয়নি। এভাবেই ক্ষমতাসীন সরকার দেশের বিচার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে সব সাংবিধানিক, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এবং মানবাধিকার হরণ করে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছে।

সেমিনারে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহদীন মালিক বলেন, প্রতিটি দেশেরই ভালো খারাপ দুইটি দিক থাকে। যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের শুরু থেকে বলা আছে, বাকস্বাধীনতা খর্ব করে এমন কোনও আইন কংগ্রেস পাস করতে পারবে না। যা আমাদের দেশে চিন্তাও করা যায় না। আমাদের মতো গণতন্ত্রহীন দেশে কটাক্ষ, মানহানি, অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার আইন আছে। একটি দেশে গণতন্ত্র আছে কিনা সেটা এসব আইন দেখে বোঝা যায়। আমাদের রাষ্ট্রটি কিছু লোকের লুটপাটের যন্ত্রে পরিণত হয়েছে। এই বাংলাদেশ আমি চাই না।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, বেশিরভাগ আইন সরকারের সুরক্ষার জন্য করা হচ্ছে, নাগরিকদের সুরক্ষার জন্য নয়। সরকারের মন্ত্রীরা প্রতিদিন যেসব বিদ্বেষমূলক, প্রতিহিংসা পরায়ণ, বিরোধী মত দমনের বক্তব্য দেন, সেজন্য তাদের বিরুদ্ধে শত শত মামলা হওয়া উচিত। সরকার এখন আর রাজপথে মোকাবিলা করতে পারে না। তারা বিরোধী মতকে দমন করার জন্য বিচার বিভাগকে হাতিয়ার বানিয়েছে। বিচার বিভাগসহ সবকিছুকে এই সরকার দলীয়করণ করেছে। তাই এই সরকারকে পরিবর্তন করতে হবে।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, আওয়ামী লীগ শুধু নিজের সুবিধা হাসিল করতে চায়। যারা আন্দোলন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা এনেছিল, তারাই আবার ক্ষমতায় গিয়ে সেটাকে সম্পূর্ণ গিলে খেয়েছে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে। তারা আসলে একটি ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্র গড়তে চায়। আইনের শাসনের নামে এই ফ্যাসিবাদকে ভেঙে দিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ আওয়ামী লীগের জমিদারি সম্পত্তি নয়।

ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, আজ দেশের এমন অবস্থা, সরকার মানুষের কণ্ঠরোধ করার জন্য, মানবাধিকারকর্মীরা যাতে আওয়াজ তুলতে না পারে, সেজন্য আদিলুর-এলানকে সাজা দেওয়া হয়েছে। এই সরকার কি বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে, শাপলা চত্বর ট্র্যাজেডিতে কেউ মারা যায়নি, কোনও হত্যাকাণ্ড হয়নি? বিচার বিভাগ নিয়ে আমি কথা বলতে চাই না। কারণ সরকার আগের দিন রাতে যা বলে, পরদিন বিচার বিভাগ সেটাই করে। আপনারা প্রস্তুত হোন, সোচ্চার হোন, এই সরকারকে ক্ষমতার মসনদ থেকে সরাতে হবে।

রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী হাসনাত কাইয়ুম বলেন, সাইবার সিকিউরিটি আইনে রাজনীতিকে অপরাধ হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের যে স্লোগান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তার বিরুদ্ধে কথা বললে, প্রশ্ন তুললে আপনার বিরুদ্ধে মামলা হবে। আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লুটপাট, গুম-খুন, বিচার বিভাগকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেতনা। এই চেতনার বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুললে আপনি অপরাধী হবেন। আপনার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হবে, সাজা হবে। আর আপনি অপরাধী কিনা সেটি ঠিক করছে একজন এসআই। এই আইনের বিরুদ্ধে স্পষ্টভাবে প্রতিবাদ করা প্রয়োজন।

এসময় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক শহিদ উদ্দীন মাহমুদ স্বপনসহ বিভিন্ন দলের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

/এএজে/এফএস/
সম্পর্কিত
শনিবার রাজধানীর যেসব সড়ক অর্ধবেলা বন্ধ থাকবে
ওয়ারীতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার
ডিএসসিসি ২৫ ভাগের বেশি বনায়ন সৃষ্টি করবে: মেয়র তাপস
সর্বশেষ খবর
নির্মাণের ২ মাস পর থেকেই বন্ধ চট্টগ্রামের একমাত্র এস্কেলেটর ফুটওভার ব্রিজটি
নির্মাণের ২ মাস পর থেকেই বন্ধ চট্টগ্রামের একমাত্র এস্কেলেটর ফুটওভার ব্রিজটি
সোহাগসহ পাঁচ জনকে ফিফার সাজা
সোহাগসহ পাঁচ জনকে ফিফার সাজা
টাকা না পেয়ে পোস্ট অফিসে নারীর আত্মহত্যার চেষ্টা
টাকা না পেয়ে পোস্ট অফিসে নারীর আত্মহত্যার চেষ্টা
ভিয়েতনামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪
ভিয়েতনামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪
সর্বাধিক পঠিত
নেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডনেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
কবে থেকে পরিকল্পনা ও কেন কলকাতায় হত্যা, জানালো ডিবি
এমপি আনার হত্যাকবে থেকে পরিকল্পনা ও কেন কলকাতায় হত্যা, জানালো ডিবি
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না আমার ভাই এমপি হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে: মেয়র সেলিম
এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না আমার ভাই এমপি হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে: মেয়র সেলিম