ব্যাটিং ব্যর্থতায় মাহমুদউল্লাহদের হার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২৮, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩৭, অক্টোবর ১৭, ২০২০

 

আরেকটি উইকেট গেল মাহমুদউল্লাহদের, উচ্ছ্বসিত নাজমুলের দল           -ছবি: বিসিবি ইমরুল-মাহমুদউল্লাহ-মুমিনুল-লিটন দাসদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় শেষ পর্যন্ত হারতে হলো মাহমুদউল্লাহর দলকে। শনিবার মিরপুরে তারা নাজমুল একাদশের কাছে হেরেছে ১৩১ রানের বিশাল ব্যবধানে।

২৬৪ রানের জবাবে খেলতে নেমে ১৩৩ রানে অলআউট অভিজ্ঞতাপুষ্ট মাহমুদউল্লাহ একাদশ। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই টপ অর্ডার ব্যর্থ হচ্ছে। ইমরুল-লিটন-মুমিনুলদের নিয়ে গড়া টপ অর্ডারের ব্যর্থতাই মাহমুদউল্লাহর দলের পরাজয়ের কারণ। এই হারে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়লো মাহমুদউল্লাহ একাদশ।

২৬৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই ফিরে যান ইমরুল। ১৩ রানে ওপেনিং জুটি ভাঙার পর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। ‘বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান’ বলে পরিচিত লিটনও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। পাঁচ চারে ২৭ বলে ২৭ রান করে ফিরে যান লিটন। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর একই পথে হাঁটেন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল (১৩)। যুব বিশ্বকাপজয়ী বাংলাদেশ দলের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদুল হাসানও ব্যর্থ। ২৮ বলে ১৩ রান করে নাসুমের শিকারে পরিণত হন মাহমুদুল। মিডল অর্ডারের নুরুল হাসানের অপরাজিত ২৭ রানের সুবাদে একশো পেরোতে পারে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। ৩২.১ ওভার ব্যাট করে ১৩৩ রানে অলআউট মাহমুদউল্লাহর দল।

নাজমুল একাদশের বোলারদের মধ্যে ২৩ রানে ৩ উইকেট নিয়ে নাসুম আহমেদ দলের সেরা বোলার। এছাড়া আবু জায়েদ রাহি তিনটি, রিশাদ আহমেদ দুটি এবং আল আমিন হোসেন একটি উইকেট নেন। এর আগে টসে হেরে ব্যাটিং করা নাজমুল একাদশ ৩১ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে। তবে মুশফিক-আফিফের চতুর্থ উইকেটে ১৪৭ রানের জুটি দলকে বিপদমুক্ত করার পাশাপাশি স্কোরবোর্ড সমৃদ্ধ করেছে। দুজনই বড় ইনিংসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দলীয় ১৭৮ রানে মুশফিকের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার হন আফিফ (৯৮)। মাহমুদউল্লাহর দারুণ ফিল্ডিংয়ে হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় আফিফকে। তবে আফিফের রান আউটে মুশফিকের ভুলটাই বেশি চোখে পড়ে।

১০৮ বলে ১২ চার ১ ছক্কায় সাজানো আফিফের ইনিংসটি। পুরো মাঠেই দৃষ্টিনন্দন সব শট খেলে দিনটি নিজের করে নিয়েছেন। ৬৯ বলে ৬ চারে ফিফটি পূর্ণ করেন আফিফ।

তরুণ এই অলরাউন্ডারের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি মুশফিকও। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া মুশফিক ৯২ বলে ৫২ রান করে ফিরে যান ড্রেসিংরুমে। শেষদিকে তৌহিদ হৃদয় ২৯ বলে ২৭ ও ইরফান শুক্কুরের ৩১ বলে ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংসে ৮ উইকেটে ২৬৪ রান সংগ্রহ করে নাজমুল একাদশ। ইরফানের ৪৫ রানের ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ২টি ছক্কা।

মাহমুদউল্লাহ একাদশের বোলারদের মধ্যে সফলতম রুবেল হোসেন ৪৯ রানে ৩ উইকেট নেন। এছাড়া ইবাদত হোসেন ৬০ রানে ২টি এবং সুমন খান ৫২ রানে একটি উইকেট নিয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নাজমুল একাদশ: ৫০ ওভারে ২৬৪/৮ (আফিফ ৯৮, মুশফিক ৫২, ইরফান ৪৮, তৌহিদ ২৭, পারভেজ ১৯; রুবেল ৩/৪৯, ইবাদত ২/৬০, সুমন ১/৫২) মাহমুদউল্লাহ একাদশ: ৩২.১ ওভার ১৩৩/১০(নুরুল ২৭*, লিটন ২৭, মিরাজ ১৬, মুমিনুল ১৩, মাহমুদুল ১৩; নাসুম ৩/২৩, আবু জায়েদ ৩/৩৪, রিশাদ ২/২৬, আল আমিন ১/২০)

ম্যাচ সেরা: আফিফ হোসেন, সেরা ব্যাটসম্যান: আফিফ হোসেন, সেরা বোলার: রিশাদ আহমেদ, সেরা ফিল্ডার: নাজমুল হোসেন

 

/আরআই/পিকে/

লাইভ

টপ