X
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
৮ ফাল্গুন ১৪৩০

একই অবকাঠামো শেয়ারের অনুমতি পাচ্ছেন ইন্টারনেট সেবাদাতারা

হিটলার এ. হালিম
০২ জুন ২০২২, ১৭:০৪আপডেট : ০২ জুন ২০২২, ১৭:৫৫

একই অবকাঠামো (পপ, লাস্ট মাইল ক্যাবল) শেয়ার করার অনুমোদন পেতে যাচ্ছে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো (আইএসপি)। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর আশ্বাস এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা-বিটিআরসির উদ্যোগে কাজটি বাস্তবায়িত হতে পারে বলে জানা গেছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটা চালু হলে ইন্টারনেট সেবার মান ভালো হবে। ঝুলন্ত তারের (ওভারহেড ক্যাবল) জঞ্জালও কমবে। 

দেশে মোবাইল ফোন অপারেটররা বিভিন্ন টাওয়ার শেয়ার করতে পারে। এ জন্য তৈরি হয়েছে টাওয়ার শেয়ারিং নীতিমালা। টাওয়ার সেবা দিচ্ছে তৃতীয় পক্ষ। এ জন্য গঠিত হয়েছে একাধিক কোম্পানি। তারা একটি টাওয়ার নির্মাণ করে বিভিন্ন মোবাইল অপারেটরের কাছে ভাড়া দিচ্ছে। একটি টাওয়ার বিভিন্ন অপারেটর শেয়ার করায় টাওয়ার স্থাপন খরচ, রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় কমেছে। কমেছে টাওয়ারের সংখ্যা। মোবাইল অপারেটরগুলোর জন্য এই সুবিধা থাকলেও তা নেই আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলোর। আইএসপিগুলো এমনিভাবে একজনের অবকাঠামো অন্যরা ব্যবহার করতে চান। এর ফলে ঝুলন্ত তারের জঞ্জালও কমবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। 

এ বিষয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, অ্যাক্টিভ শেয়ারিংয়ের বিষয়টি বিটিআরসি’র (নিয়ন্ত্রক সংস্থা) সঙ্গে আলাপ করে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিনি ইন্টারনেট ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করেন, আপনারা ইন্টারনেট সেবাদানে ঝুলন্ত তার (ওভারহেড ক্যাবল) ব্যবহার করবেন না। মাটির নিচ দিয়ে ক্যাবল টেনে ইন্টারনেট সেবা দেবেন। তাহলে ওভারহেড ক্যাবলের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি স্থায়িত্ব পাবেন। জঞ্জাল কমবে। শহর সুন্দর হবে।

জানতে চাইলে দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি’র সভাপতি ইমদাদুল হক বলেন, অ্যাক্টিভ শেয়ারিংয়ের বিষয়টির কোনও অনুমোদন নেই। ফলে চালুও হতে পারছে না। লাস্ট মাইল অ্যাক্টিভ শেয়ারিংয়ের অনুমতি দিলে ইন্টারনেট সেবাদান সংক্রান্ত সব খরচ কমে আসবে। তিনি বলেন, সবাইকে পপ (পয়েন্ট অব প্রেজেন্স)  তৈরি করতে হবে না। সংশ্লিষ্টরা পপ তৈরি করবে। পপ থেকে একই ক্যাবল ব্যবহার করে আইএসপিগুলো গ্রহীতাদের সেবা দেবে।

ইমদাদুল হক উদাহরণ দিয়ে বলেন, ধরা যাক কোনও একটি এলাকায় একটি পপ তৈরি করা আছে। ওখান থেকে সেই প্রতিষ্ঠান ক্যাবল টেনে কোনও গ্রাহককে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। ওই এলাকায় যদি অন্য কোনও প্রতিষ্ঠান সেবা দিতে চায় তাহলে নতুন করে ক্যাবল না টেনে ওই ক্যাবল ব্যবহার করেই ইন্টারনেট সেবা দেওয়া সম্ভব। এটা সব দিক থেকেই লাভজনক।

অ্যাক্টিভ শেয়ারিং চালু হলে দেখা যাবে কোনও এলাকায় ৫০টি প্রতিষ্ঠান যদি ইন্টারনেট সেবা দেয় এবং তাদের ৫০টি পপ তৈরি করতে হবে না। একটি পপ হলেই চলবে।

জানা গেলো, অ্যাক্টিভ শেয়ারিং চালু হলে পপ তৈরির সংখ্যা কমবে, পরিচালন ব্যয়ও কমবে, সম্পদের সুষম বণ্টন হবে, সেবার মান ভালো হবে। যার ফল পাবে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা।

আইএসপিএবি সূত্র জানিয়েছে, অ্যাক্টিভ শেয়ারিং চালুর বিষয়ে বিটিআরসির চেয়ারম্যানের কাছে সংগঠনটি মৌখিক অনুমোদন চাইলে তিনি তাদের লিখিতভাবে অনুরোধ পাঠাতে বলেন। বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।        

 

/আইএ/
সম্পর্কিত
সর্বশেষ খবর
উজবেকিস্তানে ভাষা আন্দোলনের গল্প শোনালেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত
উজবেকিস্তানে ভাষা আন্দোলনের গল্প শোনালেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বিশেষ দিনগুলোতে ফুল বিক্রি কমেছে
বিশেষ দিনগুলোতে ফুল বিক্রি কমেছে
সান্ত্বনার জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়িয়েছে আফগানিস্তান 
সান্ত্বনার জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়িয়েছে আফগানিস্তান 
সর্বাধিক পঠিত
কেন বারবার অকেজো হয় মেট্রো স্টেশনের টিকিট মেশিন?
কেন বারবার অকেজো হয় মেট্রো স্টেশনের টিকিট মেশিন?
চার মাস কারও সঙ্গে দেখা করবেন না খন্দকার মোশাররফ
চার মাস কারও সঙ্গে দেখা করবেন না খন্দকার মোশাররফ
আত্মীয় হলেই চাকরি মেলে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে!
আত্মীয় হলেই চাকরি মেলে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে!
বঙ্গবন্ধুর ছবি মুছে ব্যঙ্গচিত্র, জাবি ছাত্র ইউনিয়নের দুই নেতাকে বহিষ্কার
বঙ্গবন্ধুর ছবি মুছে ব্যঙ্গচিত্র, জাবি ছাত্র ইউনিয়নের দুই নেতাকে বহিষ্কার
‘ওমরের বিকল্প’ তৈরির লক্ষ্যে বিএনপিতে নতুন ধর্ম সম্পাদক!
‘ওমরের বিকল্প’ তৈরির লক্ষ্যে বিএনপিতে নতুন ধর্ম সম্পাদক!