X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

পদ্মার চরে চাষাবাদ, সবুজ দেখতে ভিড়

আপডেট : ২২ এপ্রিল ২০১৮, ১৪:৩২

পদ্মার চরে সবুজের সমারোহ

ভরা মৌসুমে পদ্মায় উত্তাল উত্তুঙ্গ থৈ থৈ ঢেউ, তারপর পড়ে অবিরত চর। শীত থেকে গরমের মাঝামাঝি কয়েক মাস পানি কম থাকে নদীতে। এ সময় পদ্মার পাড় সংলগ্ন এলাকায় জেগে ওঠে চর। আর সেই চরে ফলানো হয় সবুজ ফসল। সকাল-দুপুরের রোদের প্রকোপ শেষে বিকালের হাল্কা ঠাণ্ডা বাতাসে ফসলি জমির সবুজ সমারোহ ও মায়া ছড়ানো চরের সৌন্দর্য হাতছানি দিয়ে ডাকে দর্শনার্থীদের। নদীর বুকে ফসলের চাষাবাদ এবং নয়নাভিরাম সবুজের সমারোহ দেখতে পদ্মার চরে নিয়মিতই ভিড় জমাচ্ছেন বিনোদনপ্রেমী মানুষরা।

জানা গেছে, গত দুই বছর ধরে চরে জন্মানো আগাছা কেটে সেখানে রোপণ করা হয়েছে আবাদি ফসল। সেখানে রীতিমতো চাষ করে ধান, গম, মসুর, মটরসহ নানা ধরনের শাকসবজি চাষ করা হচ্ছে। এর ফলে বেড়েছে কর্মসংস্থান, বেড়েছে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড।

সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের মানুষগুলো সারাদিনের ব্যস্ততা শেষে বিকালে পদ্মার চরে ঘুরে বেড়ায়, সেখানে খুঁজে পায় গ্রামের সবুজ মাঠের স্পর্শ। প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হতে পদ্মার চরে ঘুরতে আসেন পর্যটকরা। প্রতিদিন শহর এবং শহরের বাইরে থেকে পরিবার-পরিজন বন্ধুবান্ধব নিয়ে ঘুরতে আসেন লোকজন।

সকাল থেকে দুপুর গড়িয়ে বিকাল হলেই বিনোদনপ্রেমী সকল মানুষের আনাগোনা শুরু হয় পদ্মার চরে। দুপুরের রোদ কমলে বিকালে নামতে থাকে মানুষের ঢল। তবে ছুটির দিনগুলোতে দ্বিগুণ হারে বেড়ে যায় বিনোদনপ্রেমীদের ভিড়। পদ্মার পাড় থেকে চর পর্যন্ত প্রায় সকল স্থানেই কমবেশি দেখা মেলে তাদের।

পদ্মার চরে দর্শনার্থীর ঢল

রাজশাহী শহরের প্রাণকেন্দের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি স্পটের মধ্যে আলুপট্টি, মুন্নুজান, পদ্মা গার্ডেন, মুক্তমঞ্চ এলাকা, বিজিবির সীমান্তে অবকাশ, সীমান্তে নোঙ্গর, আই-বাঁধ, টি-বাঁধ ইত্যাদি স্পটগুলোতে সবচেয়ে বেশি ভিড় থাকে। কেউ পরিবার-পরিজন, কেউ বন্ধু-বান্ধব মিলে আড্ডা দিতে; কেউবা নিছক প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করতে ভিড় জমায় চরে। দর্শণার্থীরা জানান, পদ্মার চরের বালুতে হাঁটতে কিংবা একটু পানির ছোঁয়া নিলেই ভরে যায় মন-প্রাণ। এর সঙ্গে মিলিয়ে পদ্মার চরে গড়ে ওঠা ভ্রাম্যমাণ দোকানে ফুচকা, চটপটি কিংবা ফলমূলের নানা স্বাদ নেওয়ার মজাই আলাদা।

রাজশাহী কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী হাসিনাথ বলেন, ‘আমাদের কলেজ ক্যাম্পাসের কাছেই এই পদ্মার চর। তাই সময় পেলেই বন্ধুরা মিলে বেড়াতে চলে আসি এখানে। পড়াশুনার মধ্যে মানুষের সুস্থ বিনোদনের দরকার রয়েছে, আর সেই সুস্থ বিনোদন এই পদ্মার চরে এলেই পাওয়া যায়। প্রকৃতিকে উপভোগ করা যায় মুগ্ধভাবে। বিকালের হাল্কা মিষ্টি বাতাসে চরের মধ্যে হাঁটতে অসম্ভব ভালো লাগে।’

পরিবারের দুই ছেলেকে নিয়ে বেড়াতে এসেছেন রাজশাহী নগরীর শিরোইল কলোনির বাসিন্দা সাবিনা নাজনিন। তিনি বলেন, ‘বাচ্চারা মাঝে মাঝে বেড়ানোর কথা বললেও ব্যস্ত থাকায় তেমনভাবে সময় দিতে পারি না। তাই যখন সময় পাই, তখনি চলে আসি এই চরে। গোটা শহরের মধ্যে মুক্ত বাতাসের জন্য প্রিয় এই পদ্মার চর। আগে চরে আসলে বাচ্চাদের নিয়ে বিবৃতকর অবস্থায় পড়তে হতো, ভয় কাজ করতো। তখন জঙ্গলের পাশ দিয়ে চলাচল করতে ভয় লাগতো। আর এখন গোটা চর গ্রামের মাঠে পরিণত হয়েছে। এখানে এলে বাচ্চারা গ্রামের আসল রূপ খুঁজে পায় এবং তাদের বিভিন্ন ফসলের সঙ্গেও পরিচিত করাতে পারছি। তবে কর্তৃপক্ষ যদি আরও ভালোভাবে গোটা চরটা সাজায়, তাহলে বাংলাদেশের মধ্যে বিনোদনের জন্য অন্যতম শ্রেষ্ঠ জায়গা হবে এই পদ্মার চর।’  

এ ব্যাপারে রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান বলেন, ‘বর্তমানে নদীর ধারের দোকানপাট অনেক বেড়ে গেছে। কোথাও কোথাও চলাচলের জন্য খুব কম জায়গা থাকছে, এর ফলে অনেক সমস্যা দেখা যাচ্ছে। বিষয়গুলো এখন থেকেই কর্তৃপক্ষের দেখা উচিত। আমি রাজশাহীর নাগরিক হিসেবে বলতে চাই, পরিকল্পিতভাবে এখন থেকেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত। বর্তমানে যদি এই অবস্থা হয় তাহলে সামনে ভরা বর্ষার মৌসুমে অনেক অসুবিধা পোহাতে হবে আমাদের।’

তিনি আরও বলেন, ‘সুস্থ বিনোদনের জন্য মানুষের হাঁটাচলার জায়গা থাকতে হবে, না হলে অনেক অসুবিধা সৃষ্টি হবে। তাই সুস্থ বিনোদনের জন্য এখন থেকেই এই সমস্যার সমাধান করা উচিত।’

 

 

 

 

/এএইচ/.

সম্পর্কিত

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

অন্যজনের সঙ্গে স্ত্রীর প্রেমের অভিযোগে স্বামীর 'আত্মহত্যা'

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:০১

কুমিল্লায় অন্যজনের সঙ্গে স্ত্রীর প্রেমের সম্পর্ক থাকার অভিযোগে ক্ষোভ-অভিমানে এমরান হোসেন মুন্না (২৯) নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন। গত বুধবার সন্ধ্যায় নগরীর বারপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে পুত্রবধূর বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগ এনে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা করেছেন মুন্নার বাবা মো. মতিউর রহমান।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউটে (বর্তমানে সরকারি সিটি কলেজ) পড়তেন মুন্না ও তার স্ত্রী। দুই জন এক বছরের সিনিয়র-জুনিয়র। এ সময় তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর ২০১৮ সালের ২৫ জানুয়ারি বিয়ে হয়। বিয়ের বছর খানেক পর থেকেই পারিবারিক জীবনে টানাপড়েন শুরু হয়। ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন তার স্ত্রী। এই সুবাদে বেশিরভাগ সময় ঢাকাতেই থাকতেন। কুমিল্লায় একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি শুরু করেন মুন্না। পরে চাকরি ছেড়ে কুমিল্লাতে ঠিকাদারি ব্যবসা শুরু করেন। দিন দিন তাদের সম্পর্কে ফাটল ধরে।

মুন্নার পরিবারের অভিযোগ, ঢাকায় একজনের সঙ্গে ওই নারীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর থেকে মুন্নাকে বিভিন্নভাবে মানসিক নির্যাতন করতেন তিনি। চাহিদা মতো টাকা দিতে না পারার অভিযোগে মুন্নাকে মরে যাওয়ার কথাও বলতেন। এতে আরও মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন মুন্না। গত বুধবার আত্মহত্যার প্রস্তুতি নিয়ে স্ত্রীকে ছবি পাঠান। এরপর নিজ কক্ষে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মুন্না। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে দরজা ভেঙে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল বাদ জোহর জানাজার পর তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনয়ারুল আজিম জানান, মুন্নার পরিবার আত্মহত্যার প্ররোচণার মামলা করেছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

বই ছেড়ে সংসার জীবনে ৩০ শতাংশ ছাত্রী 

বই ছেড়ে সংসার জীবনে ৩০ শতাংশ ছাত্রী 

কুবির বাস স্টাফকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালো ‘অ্যাম্বুলেন্স সিন্ডিকেট’ 

কুবির বাস স্টাফকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালো ‘অ্যাম্বুলেন্স সিন্ডিকেট’ 

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

কুমিল্লায় হচ্ছে ১১০০ উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়

কুমিল্লায় হচ্ছে ১১০০ উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১৯

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) এক ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম তাহমিদুর রহমান জামিল (২২)। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার শাহীবাগ এলাকার বজলার রহমানের ছেলে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে পাবনা শহরের একটি ছাত্রাবাস থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় কক্ষ থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, শহরের শালগাড়িয়া মেরিল বাইপাস এলাকার সাফল্য ছাত্রাবাসে থাকতেন জামিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর তার কোনও সাড়া-শব্দ পাননি সহপাঠীরা। পরে কক্ষের দরজা খুলে তাকে ফ্যানের হুকের সঙ্গে ব্যাগের বেল্ট গলায় পেঁচানো অবস্থায় ঝুলতে দেখে থানায় খবর দেন তারা। পরে পুলিশ পৌঁছে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

তিনি আরও জানান, জামিলের কক্ষ থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে ‘বাবা-মা ক্ষমা করো, গুড বাই’ এ রকম কিছু কথা লেখা রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মাধ্যমে পরিবারের কাছে তার লাশ হস্তান্তর করা হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৯

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কাঠালবাড়িয়া গ্রামের একটি মাটির বসতঘর থেকে ১৬টি বিষধর কেউটে সাপ ও ১৪টি ডিম পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের কাঠালবাড়িয়া গ্রামের বিনয় রঞ্জন মন্ডলের বাড়ির দেওয়াল খুঁড়ে এগুলো উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পর সাপগুলো মেরে ফেলা হয়েছে এবং ডিম নষ্ট করা হয়েছে।

বিনয় রঞ্জন জানান, বৃহস্পতিবার মাটির ঘরের দেওয়াল থেকে একটি কেউটে সাপের বাচ্চা বের হতে দেখে স্থানীয়রা। তারা কেউটের বাচ্চাটিকে লাঠির আঘাতে মেরে ফেলে। এরপর দেওয়াল ভেঙে একে একে ১৬টি কেউটের বাচ্চা উদ্ধার করা হয়। সেখানে আরও ১৪টি কেউটের ডিম পাওয়া যায়।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর একই ঘরের খাটের নিচ থেকে সাড়ে চার হাত লম্বা একটি কেউটে সাপ দেখতে পাওয়া যায়। পরে সেটাকে মেরে ফেলেন বাড়ির মালিক।

মুন্সীগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল বলেন, বিনয় রঞ্জনের মাটির বসতঘরের দেওয়াল খুঁড়ে ১৬টি বিষধর কেউটে সাপ ও ১৪টি ডিম পাওয়া গেছে। এর আগেও তার ঘরে সাপ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গ্রামবাসীর মাঝে সাপ আতঙ্ক বিরাজ করছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

যাত্রীবাহী গাড়িতে গুলি: ২৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪

বান্দরবানে যাত্রীবা‌হী চাঁদের গাড়িতে গুলি ছোড়ার ঘটনায় ২৩ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩‌ সে‌প্টেম্বর) রাঙামাটির রাজস্থলীর গাইদ্যা ইউনিয়নের য়চিং খই (৩৩) বা‌দী হয়ে বান্দরবান সদর থানায় এ মামলা করেন।

মামলার আসামিদের মধ্যে রয়েছেন—পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য ও জেএসএস নেতা কেএসমং মার্মা‌ (৬০), রাজস্থলীর কিনাধন তংচঙ্গ্যার ছে‌লে গর্জন ত্রিপুরা ও রাঙামাটি চন্দ্রঘোনার মংনুচিং মারমা (৫০)। 

য়চিং খই ব‌লেন, ‘গত ১৭ সেপ্টেম্বর এলাকার ক‌য়েকজন মিলে বান্দরবানের রুমাতে বেড়া‌তে যাই। পরের‌ দিন (১৮ সেপ্টেম্বর) আমরা বান্দরবান থেকে রাঙামা‌টির রাজস্থলীর নিজ বা‌ড়ি‌তে ফেরার পথে বান্দরবানের কুহালংয়ের গলাচিপা এলাকায় হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি ছোড়ে সন্ত্রাসীরা। তা‌দের গু‌লি‌তে আমা‌দের গা‌ড়ির চাকা ফে‌টে যায় এবং এ‌তে ছয়জন গু‌লি‌বিদ্ধ হ‌য়। গা‌ড়ি‌টি মেরামত কর‌তে ৫০ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।’

যাত্রীবাহী গাড়িটিতে সন্ত্রাসীদের ৪০-৫০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী ব‌লেন, যাত্রীবা‌হী চাঁদের গাড়িতে গুলির ঘটনায় ২৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। তদন্ত ক‌রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

বাস-ট্রাক-কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ৩ জনের

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩০

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরও একজন। 

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের ধলাটেঙ্গর এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এলেঙ্গা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন কর্মকর্তা মো. রাসেল জানান, মহাসড়কের ধলাটেঙ্গর এলাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে আসা একটি কাভার্ডভ্যানের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পেছন দিন থেকে আসা যাত্রীবাহী বাস কাভার্ডভ্যানটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে একজন মারা যান। আহত হন আরও তিনজন। তাদেরকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ মো. নবিন বলেন, আহত অবস্থায় তিনজনকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তাদের মধ্যে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। অপর একজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ছুটি নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে পুলিশ সদস্য নিহত

ছুটি নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে পুলিশ সদস্য নিহত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

কৃষকের ঘর ভেঙে ডোবায় ফেলে দিলেন মেম্বার

কৃষকের ঘর ভেঙে ডোবায় ফেলে দিলেন মেম্বার

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

বাউল শিল্পীর মাথা ন্যাড়া করে গ্রাম ছাড়ার হুমকি, গ্রেফতার ৩

বাউল শিল্পীর মাথা ন্যাড়া করে গ্রাম ছাড়ার হুমকি, গ্রেফতার ৩

রামেকের করোনা ইউনিটে ২২ দিনে ১৩৮ জনের মৃত্যু

রামেকের করোনা ইউনিটে ২২ দিনে ১৩৮ জনের মৃত্যু

সর্বশেষ

বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব

বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

এটি আমার পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান: সুমন

এটি আমার পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান: সুমন

অন্যজনের সঙ্গে স্ত্রীর প্রেমের অভিযোগে স্বামীর 'আত্মহত্যা'

অন্যজনের সঙ্গে স্ত্রীর প্রেমের অভিযোগে স্বামীর 'আত্মহত্যা'

ভারতে ৯ মাস ধরে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ২৮ জন আটক

ভারতে ৯ মাস ধরে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ২৮ জন আটক

© 2021 Bangla Tribune