X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব ছড়ালো যেভাবে

আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৪:০৪

পদ্মা সেতু পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে মানুষের কাটা মাথা লাগবে বলে সারাদেশে গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। এই গুজবকে কেন্দ্র করে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ‘ছেলে ধরা’ সন্দেহে মানুষকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনাও ঘটছে। এরইমধ্যে গুজব প্রতিরোধে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এধরনের গুজবে কাউকে বিভ্রান্ত না হতে অনুরোধ করেছে পুলিশ সদর দফতর। গুজব প্রতিরোধ ও রটনাকারীদের গ্রেফতার করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কাজ করছেন পুলিশের সাইবার গোয়েন্দারা।

পুলিশ সদর দফতর, সমাজকর্মী ও মানবাধিকারকর্মীরা বলছেন,  কুচক্রীমহল সব সময় ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়। এই চক্রের কোনও কিছুই বিশ্বাস করা যাবে না।

 গুজবকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে হত্যা

ছেলে ধরা সন্দেহে ঢাকার মোহাম্মদপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে দুজনকে পিটিয়ে হত্যা করেছে এলাকাবাসী। মোহাম্মাদপুরে এক নারীকে একই সন্দেহে বেদম মারধর করা হয়।  পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। এছাড়া, লক্ষ্মীপুর জেলার দালাল বাজারে  এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে পুলিশে দেয় জনতা। ঘটনার আগে ওই ব্যক্তি রায়পুর-লক্ষ্মীপুর সড়ক দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। ছেলে ধরা সন্দেহে  মারধরের এরকম আরও খবর পাওয়া যাচ্ছে।

 যেভাবে গুজব ছড়ালো

২০১৫ সালের ১ মার্চ নদীতে পশুর রক্ত ঢেলে পদ্মা সেতুর ভিত্তি স্থাপন কাজের উদ্বোধন করে চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি। মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় মূল সেতুর পরীক্ষামূলক ভিত্তি স্থাপনের সময় নদীতে গরু ও খাসির রক্ত ঢালতে দেখা যায় চাইনিজ ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের। ভাসিয়ে দেওয়া হয় কয়েকটি মুরগিও। তাদের বিশ্বাস, বড় কাজের শুরুতে পশু উৎসর্গের মাধ্যমে স্রষ্টার সন্তুষ্টি লাভ করা যায়, এড়ানো যায় বড় দুর্ঘটনা। তখন গণমাধ্যমেও এনিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল। সেই সময়ের রক্তের ছবি এখন ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়েছে একটি মহল। অসাধু ফেসবুক ব্যবহারকারীরা মূল তথ্য আড়াল করে পুরনো সেই ছবিকে মানুষের রক্তের ছবি বলে চালাতে থাকে।

পুলিশের সূত্র বলছে, ২০১৬- ২০১৭ সালে এই চক্রটি চুপচাপ ছিল। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথম এই গুজবের সূত্রপাত হয় । এরপর গত কয়েক মাস চুপচাপ থাকার এবছরের মার্চ মাস থেকে ফের শুরু হয় গুজব। বলা হয়, পদ্মা সেতু তৈরিতে মানুষের মাথা লাগবে।  একটি চক্র এ ধরনের মনগড়া বক্তব্য দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছে। পুলিশ সদর দফতর এই ব্যক্তিদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

 গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার ৫

এরইমধ্যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ নিয়ে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব।

শুক্রবার (১২ জুলাই)  দুপুরে  র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান ভূঁইয়া জানান, পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে গুজব ছড়ানোর দায়ে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) রাত পর্যন্ত পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে শহীদুল ইসলাম (২৫) নামে এক তরুণকে নড়াইল থেকে র‌্যাব-৬, আরমান হোসাইনকে (২০) চট্টগ্রাম থেকে র‌্যাব-৭, ফারুককে (৫০) মৌলভিবাজার থেকে র‌্যাব-১১ এবং রাজবাড়ীর পাংশা থেকে পার্থ আল হাসান (১৬) নামে এক কিশোরকে গ্রেফতার করেন র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা।

 

গুজব প্রতিরোধে করণীয়   

গুজব প্রতিরোধে সচেতন নাগরিক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে পাল্টা সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানোর সুপারিশ করেছেন মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট এলিনা খান। পাশাপাশি গুজবকারীদের বিষয়ে কঠোর হয়ে দেশের প্রচলিত আইনে বিচারের আওতায় আনতে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের গুজব মানুষ হত্যার হাতিয়ার। গুজব ছড়িয়ে মানুষ হত্যার ঘটনা ঘটছে। এর আগে আমরা ধর্মসহ বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে মানুষ হত্যা করতে দেখেছি। কিন্তু এধরনের গুজব এই প্রথম। গুজবকারীদের যেভাবেই হোক ধরে আইনের আওতায় আনতে হবে। তার আগে তাদের সতর্ক করতে হবে। আমাদের ডিজিটাল আইনেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যায়।’

এলিনা খান বলেন, ‘অভিভাবকদেরও মনে রাখতে হবে, এধরনের ভীতি যেন শিশুদের মনে না দেওয়া হয়। তাহলে শিশুরাও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’ এটা সম্পূর্ণ গুজব বলেও মনে করেন তিনি।

 পুলিশের হুঁশিয়ারি

পুলিশ সদর দফতর এ নিয়ে নাগরিকদের উদ্দেশে  বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘গুজবে বিভ্রান্ত হবেন না। পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে, এটা গুজব।’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা এধরনের গুজব ছড়াচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও জানিয়েছে পুলিশ।

এছাড়া, পুলিশ এই গুজবের বিরুদ্ধে গত ১০ জুলাই বিকাল থেকে ফেসবুকে প্রচারণা শুরু করেছে। পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার এআইজি সোহেল রানা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কিছু ব্যক্তি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে বলে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করছে। এটি পুরোপুরি মিথ্যা ও গুজব। এসব গুজবে কান না দেওয়ার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ জানানো হচ্ছে। এবিষয়ে গত ৯ জুলাই বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষও একটি নোটিশ জারি করেছে।’

পুলিশ সদর দফতর জানিয়েছে, পদ্মা সেতু  দেশের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প। এ প্রকল্পের সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি জড়িত। একটি মহল এই উন্নয়ন ব্যাহত করতে এ ধরনের গুজব রটিয়ে দেশবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, যা গুরুতর অপরাধ। অনেকে না বুঝেই এটি শেয়ার করে অপরাধের অংশীদার হচ্ছেন।

পুরো বিষয়টি নজরদারিতে রয়েছে উল্লেখ করে পুলিশের তরফে বলা হয়েছে— লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, কিছু মানুষ এ গুজবের বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে, যাদের সঙ্গে তাদের ব্যক্তিগত শত্রুতা আছে, তাদের নাম ও ছবি ব্যবহার করে,  গুজব ছড়ানোর জন্য তাদেরকে দায়ী করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন। যারা এবিষয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর গুজব ছড়াচ্ছেন, তাদের খুঁজে বের করতে এবং  আইনের আওতায় আনতে পুলিশের বেশ কয়েকটি বিশেষ সাইবার গোয়েন্দা দল অনুসন্ধান তৎপরতা শুরু করেছে বলে জানান এআইজি  সোহেল রানা।

তিনি বলেন, ‘দেশে অস্থিতিশীলতা তৈরির লক্ষ্যে এমন গুজব ছড়ানো একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। তাই এধরনের গুজব না ছড়াতে এবং তাতে কান না দেওয়ার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ।’

 পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষের বক্তব্য

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রচারণাকে ‘কুচক্রী মহলের গুজব’ বলে জানিয়েছে পদ্মা সেতু প্রকল্প কর্তৃপক্ষ।

এই গুজবের বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রচারের ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে মঙ্গলবার (৯ জুলাই) পদ্মা সেতু প্রকল্পের পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম সরকারের প্রধান তথ্য কর্মকর্তার কাছে লেখা চিঠিতে এ তথ্য জানান।

ওই চিঠিতে বলা হয়, পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ পরিচালনায় মানুষের মাথা লাগবে বলে একটি কুচক্রী মহল বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে অপপ্রচার চালাচ্ছে, তা প্রকল্প কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে।

আমরা স্পষ্টভাবে বলতে চাই, এটি একটি গুজব। এর কোনও সত্যতা নেই। এমন অপপ্রচার আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এ ধরনের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রকল্প পরিচালক চিঠিতে আরও জানান, গত ৩০ জুন পর্যন্ত মূল সেতুর বাস্তব কাজের অগ্রগতি ৮১ শতাংশ, নদীশাসন কাজের অগ্রগতি ৫৯ শতাংশ। এ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৭১ শতাংশ।

 

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ জনকে টিকা দেবে ডিএনসিসি

প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ জনকে টিকা দেবে ডিএনসিসি

পদোন্নতিপ্রাপ্ত  ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

পদোন্নতিপ্রাপ্ত ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:১৪

রাইড শেয়ার অ্যাপের সেই চালক শওকত আলম সোহেলকে একটি মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় আলহাজ শামসুল হক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন। শওকত রাজী থাকলে তিনি মোটরসাইকেলটি দ্রুত তাকে হস্তান্তর করবেন।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘‘আলহাজ শামসুল হক ফাউন্ডেশন মানুষের জন্য কাজ করে। আমাদের অনেকগুলো কর্মসূচির মধ্যে অন্যতম কর্মসূচির একটি হলো ‘কর্জে হাসানা প্রজেক্ট’। এই প্রজেক্টের মাধ্যমে  অনেককেই সাইকেল, ভ্যান দেওয়া হয়েছে।’

এই প্রজেক্টের কাজের জন্য একটা মোটরসাইকেল নেওয়া হয়েছিল। সেটি তাদের অফিসেই রয়েছে। সোমবার দুপুরে বাড্ডা লিংক রোডে শওকতের মোটরসাইকেল পোড়ানোর দৃশ্য দেখে নাসির উদ্দিন মর্মাহত হয়েছেন। তাই এই মোটরসাইকেলটি তিনি শওকতকে দিতে চান, যাতে তার জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতে পারেন।

নাছির উদ্দিন বলেন, ‘আমাদের প্রজেক্ট থেকে কেউ সহযোগিতা পেলে নিয়ম হচ্ছে সেটি ধীরে ধীরে শোধ করে দেওয়া। কিন্তু শওকতকে যেটি দেওয়া হবে, সেটার জন্য লোন শোধ করতে হবে না। আমি নিজেই তার দেনা শোধ করে দেবো। আমরা তাকে এটি উপহার দেবো।’

প্রসঙ্গত, সোমবার সকালে ট্রাফিক পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় শওকত। এরপর পুলিশ তাকে আটক করে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করেন। পুলিশের সঙ্গে কয়েক ঘণ্টা কথা বলার পর তিনি ছাড়া পেয়ে জানান, পুলিশ বারবার মামলা দেওয়ায় তিনি তার বাইকটি পুড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি আর রাইড শেয়ার করবেন না। রাগ থেকেই তিনি এটি পুড়িয়েছেন। 

/এআরআর/এনএইচ/

সম্পর্কিত

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

কন্যা দিবস আর কন্যাশিশু দিবসের বিভ্রান্তি

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০৮

ফেসবুকে কন্যা সন্তানের ছবি দিয়ে কমেন্টে ‘আজ কন্যাশিশু দিবস না’ লেখা পেয়ে কেউ মুছে ফেলছেন। আবার কেউ তর্ক করছেন, সেপ্টেম্বরের শেষ রবিবারই কন্যাশিশু দিবস। কেউবা বলছেন, ৩০ সেপ্টেম্বর কন্যাশিশু দিবস। 

তবে বিভ্রান্তি অন্য জায়গায়। একটি কন্যা দিবস (ডটার্স ডে) সেপ্টেম্বরের শেষ রবিবার আরেকটি জাতীয় কন্যাশিশু দিবস (গার্ল চাইল্ড ডে), যার জন্য নির্ধারিত দিন ৩০ সেপ্টেম্বর। আর আন্তর্জাতিক কন্যাসন্তান দিবস ১১ অক্টোবর যেটি জাতিসংঘভুক্ত দেশগুলো পালন করে। 

জেনে রাখা ভালো, কন্যা দিবস বাংলাদেশ পালন করে না। এটি ভারত তাদের জন্য তৈরি করেছে। দ্বিতীয়টি জাতীয়ভাবে বাংলাদেশে পালন করা হয়। 

কন্যা দিবস

ডটার্স ডে বা কন্যা দিবস সেপ্টেম্বর মাসে পালন করা হয়। সেই হিসেবে এবছর ২৬ সেপ্টেম্বর ছিল কন্যা দিবস। ভারতে এদিন পালনের চল শুরু হয়। কন্যা সন্তানদের গুরুত্ব ও তাদের বিষয়ে সচেতনতা তৈরির জন্য দিবসের উৎপত্তি। মেয়ে সন্তান ছেলে সন্তানের চেয়ে অগুরুত্বপূর্ণ নয় এবং তাদের জন্ম উদযাপনের বিষয়- এটি অভিভাবকদের বুঝানোই দিনটির উদ্দেশ্য। 

আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস 

বিশ্বজুড়ে জাতিসংঘ রাষ্ট্রসমূহ প্রতিবছর ১১ অক্টোবর তারিখে পালন করে। এই দিবসকে মেয়েদের দিনও বলা হয়। ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর তারিখে প্রথম এই দিবস পালন করা হয়। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল ‘কারণ আমি একজন মেয়ে’ (Because I Am a Girl) নামক আন্দোলনের ফলশ্রুতিতে এই দিবসের সূচনা ঘটে। ২০১১ সালের ১৯ ডিসেম্বর তারিখে এই প্রস্তাব রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় গৃহীত হয় ও ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর তারিখে প্রথম আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস পালন করা হয়।

জাতীয় কন্যাশিশু দিবস

প্রতিবছর ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক শিশু সপ্তাহ পালন করা হয়। শিশু সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন ৩০ সেপ্টেম্বরকে জাতীয় কন্যাশিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। 

কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের সম্পাদক নাসিমা আক্তার জলি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস ১১ অক্টোবর, সেটি সার্বজনীন। এর বাইরে প্রতিটি দেশ নিজেদের সুবিধা মতো জাতীয়ভাবে আরেকটি দিন কন্যাশিশু দিবস পালন করে। ডটার্স ডে’টা হঠাৎ-ই কয়েক বছর ধরে বিভ্রান্তি তৈরি করছে। এই ডটার্স ডে জাতিসংঘের নির্ধারিত দিবস না। বাংলাদেশেও এটা পালনের চল কোনোদিনই ছিল না। 

‘আমরা যারা শিশুদের নিয়ে কাজ করি তাদের ৫৪টি সংগঠন একসঙ্গে হয়ে একটি দিবসের পরিকল্পনা ছিল। ১৯৯০ সালে কন্যাশিশু দশক নির্ধারিত হয়। ২০০০ পর্যন্ত সেই দশক শেষ হলে সে বছর থেকেই বেসরকারিভাবে দিবস আকারে পালন শুরু হয়। যেহেতু শিশু অধিকার সপ্তাহ শুরু হয় ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর। সেহেতু মনে রাখার সুবিধার্থে শিশু সপ্তাহ শুরুর দ্বিতীয় দিনে জাতীয় কন্যাশিশু দিবস নির্ধারণ করা হয়। ২০০৩ সালে মন্ত্রণালয় সার্কুলার দিয়ে এই দিনটিকে সরকারিভাবে পালনের কথা ঘোষণা করে। এরপর থেকে সরকারিভাবে পালন করা হচ্ছে। তবে কয়েক বছর ধরে এসময়টায় প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকার কারণে পরবর্তীতে অক্টোবরের শুরুতে সুবিধাজনক দিনে উদযাপন করা হয়।’

/এনএইচ/ 

সম্পর্কিত

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৫

রাজধানীর সবুজবাগে নির্মাণাধীন ভবন থেকে ইট পড়ে ফুলি বেগম (৫৮) নামে এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। 

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে সবুজবাগের মায়াকানন মসজিদের পেছন দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় নির্মাণাধীন একটি ভবনের ৫ম তলা থেকে ইট মাথায় পড়লে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান ফুলি। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন সবুজবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসলাম আলী।  

তিনি বলেন, খবর পেয়ে সেখান থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়া শেষে রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। 

নিহত ফুলি জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম নয়াপাড়া গ্রামের মৃত ছবেদ আলীর মেয়ে। ছেলেকে নিয়ে সবুজবাগ মায়াকানন এলাকায় থাকতো সে। 

/এআরআর/এআইবি/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০৮

রাজধানীর বারডেম হাসপাতালের কেবিন থেকে আনজুম আরা (৭০) নামে এক রোগীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে হাসপাতালের ১৫ তলার ১৫২৭ নম্বর কেবিন থেকে ওই নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রমনা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. মিজানুর রহমান জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে জানা গেছে; গত ২৫ সেপ্টেম্বর ওই নারী ইউরিন ইনফেকশন, পেটে ব্যথা ও ডায়াবেটিকসহ কয়েকটি রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের কেবিনে ভর্তি হয়।

‘সন্ধ্যায় ওই নারীর স্বজনরা হাসপাতালের বাইরে ওষুধ কিনতে যায়। ফিরে এসে দেখে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ। অনেক ডাকাডাকির পর কোনও সাড়া না পেলে লোকজন কেবিনের দরজা ভেঙে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।’

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, কেবিনের দরজার ডোর ক্লোজারের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়। ধারণা করা হচ্ছে, বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে সহ্য করতে না পেরে সে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই নারী পরিবারের সঙ্গে ধানমন্ডি এলাকায় থাকতো। মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন আসলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

/এআরআর/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

নিম্নচাপ ও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

‘করোনাকালে তথ্য অধিকারের সংকোচন ঘটেছে’

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০১

মিরপুর এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ মানহীন চিকিৎসা সরঞ্জামসহ কালোবাজারি চক্রের মূলহোতা কাওছার হামিদ মুন্নাকে (২৯) আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৪)। 

আটক মুন্না দীর্ঘদিন ধরেই পরিকল্পিতভাবে বেশি মুনাফা লাভের আশায় নিম্নমানের চিকিৎসা সামগ্রী প্রতারণার উদ্দেশে লোকজনের কাছে বিক্রয় করে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছিল।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক (সিও) অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেক হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

আটক মুন্নার বাড়ি ফেনী। সে কালোবাজারি চক্রটির মূলহোতা। অভিযানে তাদের কাছ থেকে নিম্নমানের চিকিৎসা সরঞ্জামাদি ২ হাজার ৪৩০টি পালস্ অক্সিমিটার, ১৮৬টি ইনফারেড থার্মোমিটার জব্দ করা হয়।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৪ এর একটি দল রাজধানীর মিরপুর মডেল থানাধীন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে এই কালোবাজারি চক্রের মূলহোতাকে আটক করে। 

জব্দকৃত মালামাল

র‍্যাব-৪ এর সিও জানান, জব্দ মালামাল সম্পর্কে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, বোর্ডের অনুমোদন, ট্রেড লাইসেন্স কী ধরনের ব্যবসার উল্লেখ, জয়েন স্টক এক্সচেঞ্জের অনুমোদন, মহাপরিচালক ঔষধ প্রশাষন অধিদফতরের এনওসি, মহাপরিচালক ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত কোনও বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। 

জিজ্ঞাসাবাদে করোনা পরবর্তী সময়ে স্কুল-কলেজ খুললে জব্দকৃত জাম্পার পালস্ অক্সিমিটার এবং মিডেক্স নন কন্ট্রাক্ট ইনফারেড থার্মোমিটারের ব্যাপক চাহিদা থাকায় অধিক মুনাফা লাভের আশায় মজুদ রেখে বিক্রি করে আসছিল। 

তিনি জানান, জব্দ করা মালামাল ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের একজন প্রতিনিধির মাধ্যমে পরীক্ষা করে জানা যায়; জাম্পার পালস্ অক্সিমিটার এবং মিডেক্স নন কন্ট্রাক্ট ইনফারেড থার্মোমিটার সকলের দেহে একই তাপমাত্রা প্রদর্শন করে।  

তিনি আরও জানান, জাম্পার পালস্ অক্সিমিটার এবং মিডেক্স নন কন্ট্রাক্ট ইনফারেড থার্মোমিটার নিম্নমানের, যা ব্যবহার যোগ্য নয়। 

আটক আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি। 

/এআরআর/এনএইচ/

সম্পর্কিত

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

পদোন্নতিপ্রাপ্ত  ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

পদোন্নতিপ্রাপ্ত ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিরুদ্ধে চার্জশিট

প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ জনকে টিকা দেবে ডিএনসিসি

প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ জনকে টিকা দেবে ডিএনসিসি

পদোন্নতিপ্রাপ্ত  ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

পদোন্নতিপ্রাপ্ত ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

সর্বশেষ

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

সেই চালককে মোটরসাইকেল উপহার দিতে চায় শামসুল হক ফাউন্ডেশন

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: জয়

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: জয়

কন্যা দিবস আর কন্যাশিশু দিবসের বিভ্রান্তি

কন্যা দিবস আর কন্যাশিশু দিবসের বিভ্রান্তি

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

ভবন থেকে ইট পড়ে পথচারীর মৃত্যু

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

বারডেমের কেবিনে ঝুলছিলো রোগীর মরদেহ

© 2021 Bangla Tribune