X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে

আপডেট : ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৩৫

মূল্যস্ফীতি

আগস্টের তুলনায় গত সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে দশমিক ৫ ভাগ। এই বছরের সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৫ দশমিক ৫৪ ভাগ, যা আগস্টে ছিল শতকরা ৫ দশমিক ৪৯ ভাগ। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৫ দশমিক ৪৩ ভাগ।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে এসব তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।  

পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, আগস্টের তুলনায় সেপ্টেম্বরে দেশের বাজারে শাক-সবজি, মাছ, পেঁয়াজ, রসুন, শুকনা মরিচ, ব্রয়লার মুরগি ও অন্যান্য খাদ্যের মূল্য বেড়েছে।

সেপ্টেম্বরে গ্রামীণ পর্যায়ে মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৫ দশমিক ৪১ ভাগ, যা আগস্টে ছিল শতকরা ৫ দশমিক ৩৪ ভাগ। আর শহরে সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৫ দশমিক ৮০ ভাগ, আগস্টে ছিল ৫ দশমিক ৭৫ ভাগ।

গত এক বছরের (২০১৮ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর) চলন্ত গড় মূল্যস্ফীতির হার নিরূপিত হয়েছে শতকরা ৫ দশমিক ৫০ ভাগ। একই সময়ে আগের এক বছরের (২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর) চলন্ত গড় মূল্যস্ফীতির হার ছিল শতকরা ৫ দশমিক ৬৮ ভাগ।

পর্যালোচনায় দেখা গেছে- খাদ্যবহির্ভূত উপখাতে শিক্ষা উপকরণ, চিকিৎসা সেবা, বিবিধ দ্রব্যাদি ও জ্বালানি কাঠ ইত্যাদি উপখাতের দ্রব্য সামগ্রীর মূল্য আগস্টের তুলনায় সেপ্টেম্বরে বেড়েছে।

সেপ্টেম্বরে খাদ্য ও খাদ্য বহির্ভূত উপখাতে মূল্যস্ফীতি হয়েছে যথাক্রমে ৫ দশমিক ৩০ ও ৫ দশমিক ৯২ ভাগ, যা আগস্টে ছিল যথাক্রমে শতকরা ৫ দশমিক ২৭ ও ৫ দশমিক ৮২ ভাগ।

 

/এসআই/ এএইচ/

সম্পর্কিত

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায়  সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায় সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

মগবাজার বিস্ফোরণ

লিকেজ সারিয়ে তড়িঘড়ি রাইজার খুলে নেয় তিতাস

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৭:৪৩

রাজধানীর মগবাজারের রাখীনীড় ভবনে ভয়াবহ বিস্ফোরণের দুদিন পর নিজেদের অবহেলা আড়াল করতে তড়িঘড়ি করে গ্যাস লিকেজ মেরামত করেছিল তিতাস। তিতাসের কর্মীরা সড়কের নিচে থাকা মূল গ্যাসলাইন থেকে ওই ভবনের সংযোগ স্থায়ীভাবে বন্ধও করে দেয়। যা কিনা মূলত ২০১৪ সালেই বন্ধ করার কথা ছিল। তিতাসের কর্মীদের অবহেলার কারণে ওই লাইন থেকে গ্যাসের লিকেজ হয়েছিল। ঘটনার পর গ্যাস পরিমাপক যন্ত্র দিয়ে সেখানে ৮-১২ শতাংশ মিথেনের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) পুলিশ সদর দফতরের গঠিত তদন্ত কমিটি এসব তথ্য উল্লেখ করে আইজিপি বেনজীর আহমেদের কাছে ২১ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে বিস্ফোরণের ধরন ও কারণ অনুসন্ধানের পাশাপাশি আগাম ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশও করা হয়েছে।

প্রতিবেদনের বিস্তারিত জানতে চাইলে সাত সদস্যের এই কমিটির কেউ আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করতে রাজি হননি। কমিটির সভাপতি পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট- সিটিটিসির প্রধান মো. আসাদুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমরা বিস্ফোরণের কারণসহ বিস্তারিত বিবরণ প্রতিবেদনে উল্লেখ করে জমা দিয়েছি। এখন কর্তৃপক্ষ এই প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা নিতে পারবে।

এদিকে একাধিকবার যোগাযোগ করেও এ প্রসঙ্গে তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তিতাসের এক কর্মকর্তা গ্যাস লিকেজ মেরামত ও রাইজার খুলে নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

গত ২৭ জুন সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে মগবাজারের ওয়্যারলেস গেট এলাকার একটি তিনতলা ভবনের নিচতলায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে ১২ জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হন অর্ধশতাধিক ব্যক্তি। এই ঘটনায় পুলিশের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিস, বিস্ফোরক অধিদফতর, তিতাস, পেট্রোবাংলা ও বিআইআরসি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। পুলিশের তদন্ত কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন সিটিটিসির দুই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

এই বিস্ফোণের ঘটনায় অবহেলাজনিত মৃত্যুর ধারা উল্লেখ করে রমনা থানায় পুলিশ বাদি হয়ে যে মামলা দায়ের করেছে, সেই মামলাটিও তদন্ত করছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, তারা এতদিন পুলিশ সদর দফতরের গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এখন প্রতিবেদনের গাইডলাইন অনুযায়ী মামলার তদন্ত করা হবে।

তবে কমিটির প্রতিবেদন ও মামলার তদন্ত আলাদা বিষয়। তদন্ত প্রতিবেদনে প্রতিষ্ঠানের দায় বা অবহেলা উল্লেখ করা যাবে। আবার মামলার তদন্তে অবহেলার কারণে বিস্ফোরণ হয়ে থাকলে সুনির্দিষ্ট ব্যক্তিকে খুঁজে বের করতে হবে।

ঘটনাস্থলে তিতাসের যে কর্মী বা কর্মকর্তা এই এলাকার দায়িত্বে ছিলেন, সংযোগটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করার দায়িত্ব ছিল যার ওপর তাকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। তাকে শনাক্ত করতে পারলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চালানো হবে বলছিলেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা।

ভয়াবহ এই বিস্ফোরণের ঘটনায় মোট ছয়টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এর মধ্যে সর্বপ্রথম তিতাস, এরপর ফায়ার সার্ভিস ও সর্বশেষ পুলিশের কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। বাকি তিনটি কমিটি এখনো তদন্ত শেষ করতে পারেনি।

তিতাস তাদের প্রতিবেদনে নিজেদের দায় এড়িয়ে এলপিজি সিলিন্ডার থেকে নির্গত গ্যাসের কারণে শর্মা হাউজের কিচেন থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে উল্লেখ করলেও ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ বলছে, তিতাসের লিকেজ থেকে গ্যাস জমাট বেঁধে বিস্ফোরণ হয়েছে।

পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বেঙ্গল মিটের একটি চিলার রুম হলো বিস্ফোরণের কেন্দ্রস্থল। তিতাসের গ্যাস লিকেজ হয়ে জেনারেটর রুমের ভেতর দিয়ে চিলার রুমে জমতে থাকে। পরে সেখানকার বৈদ্যুতিক কোনও স্পার্ক থেকে বিস্ফোরণ ঘটে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কমিটির এক সদস্য বলেন, মূল সড়ক থেকে ওই ভবনের তিতাসের যে সংযোগ লাইন ছিল, তা ২০১৪ সালে বিচ্ছিন্ন করা হয়। সাধারণত গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলে তা স্থায়ীভাবে বিচ্ছিন্ন করে রাইজারসহ সংযোগটি খুলে নিয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু তিতাস তা না করে শুধু রাইজার থেকে বাসার ভেতরের লাইন বিচ্ছিন্ন করেছে। একারণে লাইন লিকেজ হয়েছিল। বিস্ফোরণের দুদিন পর তিতাস কর্তৃপক্ষ রাইজার ও সংযোগ লাইন খুলে নিয়ে যায়।

প্রতিবেদনে যেসব সুপারিশ করা হয়েছে

ভবিষ্যতে এমন দুর্ঘটনা এড়াতে বেশ কয়েকটি সুপারিশ করা হয়েছে পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে। এর মধ্যে অবৈধ সংযোগ স্থায়ীভাবে বন্ধ ও জড়িতদের শাস্তি, ঝুঁকিপূর্ণ লাইনে নিয়মিত তদারকি ও মেরামত, যে কোনও লিকেজ দ্রুত শনাক্ত ও কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া ও গ্যাস ব্যবহারকারীদের সচেতনতা বাড়াতে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া তিতাসকে জরুরি সেবা প্রদানকারী ৯৯৯-এর আওতায় আনা উচিত বলেও মন্তব্য করেছে তদন্ত কমিটি। কারণ কোথাও গ্যাস নির্গত হতে দেখলে যাতে যে কেউ দ্রুত জরুরি নম্বরে কল করতে পারে।

সুপারিশে গ্যাস বিস্ফোরণজনিত দুর্ঘটনা তদন্তে পুলিশের সক্ষমতা বাড়ানোরও সুপারিশ করেছেন কমিটির সদস্যরা।

/এফএ/

সম্পর্কিত

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে অপপ্রচারকারী সেফুদার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল: র‌্যাব

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে অপপ্রচারকারী সেফুদার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল: র‌্যাব

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে অপপ্রচারকারী সেফুদার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল: র‌্যাব

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৭:৩৮

উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মাধ্যমে সুনাম নষ্ট করেছে ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর। এ ছাড়া খ্যাতি লাভের আশায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে সম্মানিত ব্যক্তিদের বিব্রত করতেন। একটি উচ্চাভিলাষী উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে নানা ধরনের অবৈধ পন্থা, অপকৌশল ও প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য পাওয়া গেছে জানিয়ে শুক্রবার (৩০ জুলাই) উত্তরা র‌্যাব সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, অপকৌশল হিসেবে কখনও মাদার তেরেসা, পল্লী মাতা-প্রবাসী মাতা হিসেবে পরিচিতি পেতে জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলেন। জাহাঙ্গীর’র পৃষ্ঠপোষকতায় সংঘবদ্ধ একটি চক্র ভুয়া খেতাবের অপপ্রচার চালাতে। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততা রেখে নিজেকে বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতো সে। 

উত্তরা র‌্যাব সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন।

আল মঈন বলেন, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেওয়া প্রবাসী আলোচিত সেফুদা সঙ্গে ছিল হেলেনা জাহাঙ্গীরের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। তার সঙ্গে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নিয়মিত যোগাযোগ এবং আর্থিক লেনদেন ছিল বলেও প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে র‌্যাব। আলোচিত সেফুদা হেলেনা জাহাঙ্গীরকে নাতনী বলেও সম্বোধন করতো।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে ফেসবুক লাইভে এসে অযাচিত কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করতেন। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বিভিন্ন সম্মানিত ব্যক্তিদের কটাক্ষ উত্যক্ত করতো হেলেনা জাহাঙ্গীর। বিভিন্ন ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে তার অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেন। 

 

/আরটি/এনএইচ/

সম্পর্কিত

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায়  সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায় সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৬:৫৬

করোনা মহামারিকালে সবচেয়ে ভয়াবহ সময় পার করছে দেশ। এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান রয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ। সড়কে মোতায়েন রয়েছে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনী। অথচ যাত্রাবাড়ীর মাছের আড়ত দেখে বোঝার উপায় নেই দেশে করোনার ভয়াবহতা চলছে! শুক্রবার (৩০ জুলাই) সাপ্তাহিক ছুটির দিনে দেখা গেছে, নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বেচাকেনায় সরকারের নির্দিষ্ট আইন থাকলেও সেটা মানছেন না সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বিক্রেতারা। যে যার মত চলাফেরা করছেন। স্বাস্থ্যবিধি মানা তো দূরের কথা বেশিরভাগের মুখেই নেই মাস্ক। গাদাগাদি করেই চলছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাছ দরদাম।

ছবিতে দেখুন বিস্তারিত...

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়তে মাছ বেচে ফিরছেন বিক্রেতারা।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়তে যাচ্ছেন ক্রেতারা।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

যাত্রাবাড়ী মাছের আড়ত।

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

ডিএনসিসিতে দেড় হাজার কর্মহীন পরিবহন শ্রমিকের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

ডিএনসিসিতে দেড় হাজার কর্মহীন পরিবহন শ্রমিকের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

ডিএনসিসিতে ৩৬ মামলায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

ডিএনসিসিতে ৩৬ মামলায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৭:০৫

কুমিল্লা-৭ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক আলী আশরাফ মারা গেছেন। শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকাল ৪টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলী আশরাফের একান্ত সচিব আব্দুল কুদ্দুস হাওলাদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আজ বিকাল চারটার দিকে স্যারকে মৃত ঘোষণা করা হয়।’

আলী আশরাফ বার্ধক্যজনিত কারণে বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। ডায়াবেটিসেও ভুগছিলেন তিনি।

সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফকে গত ১০ জুলাই স্কয়ার হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ১৩ জুলাই তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। ২১ জুলাই তাকে ‘লাইফ সাপোর্টে’ নেওয়া হয়।

৭৩ বছর বয়সী এই সংসদ সদস্য বর্তমানে পঞ্চমবারের মত জাতীয় সংসদে কুমিল্লার ভোটারদের প্রতিনিধিত্ব করছেন। বর্তমান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ২০০১ সালে স্পিকারের দায়িত্বে পেলে ওই সময় ডেপুটি স্পিকার হন আলী আশরাফ।

আলী আশরাফ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক। এ ছাড়া কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন।

/ইএইচএস/এনএইচ/

সম্পর্কিত

চাঁদা দাবি করে প্রতিবন্ধীর দোকান বন্ধের অভিযোগ, পুলিশের উদ্যোগে ফের চালু

চাঁদা দাবি করে প্রতিবন্ধীর দোকান বন্ধের অভিযোগ, পুলিশের উদ্যোগে ফের চালু

চট্টগ্রামের সিআরবি এলাকার বৈশিষ্ট্য বজায় রাখতে আইনি নোটিশ

চট্টগ্রামের সিআরবি এলাকার বৈশিষ্ট্য বজায় রাখতে আইনি নোটিশ

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

টেকনাফে কোস্টগার্ডের অভিযানে আন্দামান গোল্ড বিয়ার জব্দ

টেকনাফে কোস্টগার্ডের অভিযানে আন্দামান গোল্ড বিয়ার জব্দ

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৬:২২

আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেছেন সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে সালেহ আহমেদ বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে ৯টায় কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের আখড়া বাজার ব্রিজ সংলগ্ন সৈয়দ নজরুল ইসলাম চত্বরে অবস্থিত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ম্যুরালটি দুর্বৃত্তরা ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় কিশোরগঞ্জ পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী মো. আসাদুজ্জামান বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েকজনের নামে বিশেষ ক্ষমতা আইনে কিশোরগঞ্জ সদর থানায় মামলা করলে এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘একটি সভ্য সমাজে এভাবে ম্যুরাল ভাঙচুর অকল্পনীয়। স্থানীয়ভাবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে থাকা পুলিশ, প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি কেউই এই ঘটনার দায় এড়াতে পারে না। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করছি, একইসাথে অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি দাবি জানাচ্ছি।’

/এসটিএস/এমএস/

সম্পর্কিত

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

ডিএনসিসিতে দেড় হাজার কর্মহীন পরিবহন শ্রমিকের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

ডিএনসিসিতে দেড় হাজার কর্মহীন পরিবহন শ্রমিকের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

ডিএনসিসিতে ৩৬ মামলায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

ডিএনসিসিতে ৩৬ মামলায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

সর্বশেষ

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে অপপ্রচারকারী সেফুদার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল: র‌্যাব

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে অপপ্রচারকারী সেফুদার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল: র‌্যাব

বগুড়ায় একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু

বগুড়ায় একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু

নাগালের বাইরে চলে গেছে যে সব পণ্যের দাম

নাগালের বাইরে চলে গেছে যে সব পণ্যের দাম

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

রংপুর মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

রংপুর মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

প্রেমিকের পরিকল্পনায় স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

প্রেমিকের পরিকল্পনায় স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

জোকোভিচের সোনার স্বপ্ন শেষ

অলিম্পিক টেনিসজোকোভিচের সোনার স্বপ্ন শেষ

ক্যান্সারে আক্রান্ত হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী ফিরোজ বাঁচতে চায় 

ক্যান্সারে আক্রান্ত হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী ফিরোজ বাঁচতে চায় 

লক্ষ্মীপুরে একদিনে রেকর্ড শনাক্ত

লক্ষ্মীপুরে একদিনে রেকর্ড শনাক্ত

জমির ভাগ নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় বাবার মৃত্যু

জমির ভাগ নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় বাবার মৃত্যু

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

অলিম্পিকে সেরা টাইমিং পেলেন বাংলাদেশের আরিফুল

অলিম্পিকে সেরা টাইমিং পেলেন বাংলাদেশের আরিফুল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায়  সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

‘গেলো ৫ বছরের তুলনায় সড়কে এবার ঈদে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে’

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

মাদক ভয়ংকর-৫কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে মৃত্যু: চার পরিবার পেলো ১ কোটি টাকা

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে মৃত্যু: চার পরিবার পেলো ১ কোটি টাকা

প্রযুক্তি সহায়ক শিক্ষাব্যবস্থা প্রবর্তনের আহ্বান ইউজিসির

প্রযুক্তি সহায়ক শিক্ষাব্যবস্থা প্রবর্তনের আহ্বান ইউজিসির

নগরবাসীর কাছে ১০ মিনিট সময় চান আতিকুল ইসলাম

নগরবাসীর কাছে ১০ মিনিট সময় চান আতিকুল ইসলাম

© 2021 Bangla Tribune