X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বন্যপ্রাণী হ্রাসের কারণে হুমকিতে বিশ্ব, নেপথ্যে মানুষের কর্মকাণ্ড

আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:১১
image

বিশ্বজুড়ে গত ৫০ বছরে বন্যপ্রাণীর সংখ্যা দুই তৃতীয়াংশ কমে এসেছে। ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড (ডব্লিউডব্লিউএফ) এর একটি প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, মানুষের ভোগ-বিলাস ও অর্থনৈতিক কার্যক্রমের পরিধি বেড়ে যাওয়ার কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

এই অবস্থাকে প্রকৃতির জন্য বড় হুমকি হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিজ্ঞানীরা। নিজেদের প্রয়োজনেই প্রকৃতি রক্ষায় এগিয়ে আসতে মানুষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

ডব্লিউডব্লিউএফ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ৫০ বছরে স্থলভূমির তিন-চতুর্থাংশ ও সাগরের ৪০ শতাংশ অংশ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সে কারণেই পরিবেশ-প্রকৃতির ক্ষতি অনেক দ্রুততর হয়েছে। এতে মানুষের স্বাস্থ্য ও বন্যপ্রাণীর অস্তিত্বের ওপর অবর্ণনীয় প্রভাব পড়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন উজাড় এবং কৃষির সম্প্রসারণের ফলে ১৯৭০-২০১৬ সময়ের মধ্যে ৪ হাজারের বেশি প্রজাতির মেরুদণ্ডী প্রাণীর সংখ্যা ৬৮ শতাংশের বেশি কমে গেছে। বন্যপ্রাণী কমে যাওয়ার হার অব্যাহত থাকলে এবং মানুষজনের উপস্থিতি বন্যপ্রাণীর আরও কাছে চলে গেলে ভবিষ্যতে নানা ধরনের মহামারির শঙ্কা আরও বেড়ে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।

ডব্লিউডব্লিউএফ ও জুলোজিক্যাল সোসাইটি অব লন্ডনের সমন্বয়ে ২০২০ লিভিং প্ল্যানেট রিপোর্টের ত্রয়োদশ সংস্করণটি করা হয়েছে। এতে ডব্লিউডব্লিউএফ ইন্টারন্যাশনালের মহাপরিচালক মার্কো ল্যাম্বারতিনি এএফপিকে জানান, ১৯৭০ সাল থেকে বিশ্বের জীববৈচিত্র্য ব্যাপকভাবে কমেছে। তিনি বলেছেন, ‘তিরিশ বছর ধরে আমরা জীববৈচিত্র্যের বিষয়টি লক্ষ্য করে আসছি। কমার গতি বাড়ছেই বাড়ছে। ভুল পথের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ২০১৬ সাল পর্যন্ত বন্যপ্রাণী ৬০ শতাংশ কমেছে বলে আমরা উল্লেখ করেছিলাম। এখন ৭০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।’

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী তানিয়া স্টিল বলেছেন, যে পৃথিবী আমাদের আবাস, আমরা তাকেই ধ্বংস করে ফেলেছি। এতে আমাদের স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা ও টিকে থাকাটা ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যাচ্ছে। এখন প্রকৃতি ব্যাকুল হয়ে আমাদের সংকেত বাণী পাঠাচ্ছে। কেননা সময় ফুরিয়ে আসছে। 

/জেজে/বিএ/

সম্পর্কিত

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০২

কিছু সময়ের জন্য আইসল্যান্ডবাসী ভেবে নিয়েছিলো যে, ইউরোপে প্রথমবারের মতো নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্লামেন্ট গড়েছে তারা। তবে পুনর্গননার পর দেখা গেলো ইতিহাস গড়া হয়নি তাদের।

দেশটির ৬৩ আসনের পার্লামেন্টের ৩০টি (৪৭.৬ শতাংশ) আসনে জয় পেয়েছে নারীরা। তবে আগে ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায় ৩৩টি (৫২ শতাংশ) আসনে নারীরা জয়ী হয়েছে।

ইউরোপের কোনও দেশেই এখন পর্যন্ত ৫০ শতাংশ আসনে নারীরা জয় লাভ করতে পারেনি। ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের তথ্য অনুসারে সবচেয়ে নিকটবর্তী সুইডেনের পার্লামেন্টের ৪৭ শতাংশ আসনে জিতেছে নারীরা।

অন্য অনেক দেশের মতো আইসল্যান্ডে নারী প্রতিনিধিত্বের কোনও আইনি কোটা নেই। তবে কয়েকটি রাজনৈতিক দল নুন্যতম নারী প্রার্থী রাখার বিধান রেখেছে।

নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্লামেন্ট গঠিত হওয়ার ঘোষণায় অনেকেই এই অর্জনকে মাইলফলক আখ্যা দেন। পুনর্গনণার আগে প্রেসিডেন্ট গাডনি জোহানেসন সম্প্রচারমাধ্যম আরইউভিকে বলেন, ‘ঐতিহাসিক এবং আন্তর্জাতিকতার আলোকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খবর হলো আইসল্যান্ডের পার্লামেন্টে প্রথমবার নারীরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ, আর ইউরোপেও এটা প্রথম। এটা ভালো খবর।’

লৈঙ্গিক সমতায় বিশ্বের শীর্ষ দেশ বিবেচিত হয়ে আসছে আইসল্যান্ড। গত ১২ বছর ধরে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের প্রতিবেদনে তারা এই সংক্রান্ত তালিকার শীর্ষে।

নারী ও পুরুষের জন্য সমান প্যাটার্নাল ছুটি দেয় দেশটি। এছাড়া সম বেতন নিশ্চিতে ১৯৬১ সালে আইন করে তারা। ১৯৮০’র দশকে বিশ্বে প্রথমবারের মতো নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয় দেশটিতে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৩৪

জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়ে ভুলভাবে ব্যালট ভাঁজ করলেন ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)'র চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট। লাশেট ভুলভাবে ব্যালট ভাঁজ করায় তা আর গোপন থাকেনি, তিনি কাকে ভোট দিয়েছেন। বিষয়টি ইতোমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

রিটার্নিং অফিসার জানিয়েছে, ভুল করে ব্যালট উল্টো দিকে ভাঁজ করা হয়েছিল। তাকে নতুন একটা ব্যালট পেপার দেওয়া উচিত ছিল। কিন্তু ব্যালট একবার বাক্সে ফেলে দিলে আর কিছু করার নেই। তার ভোট বৈধ।

এদিকে লাশেটের নেতৃত্বাধীন সিডিইউ শলৎসের এসপিডি-র থেকে পিছিয়ে পড়েছে। ভোট ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় জার্মানির জাতীয় নির্বাচনে নিজ দলকে বিজয়ী দাবি করেছেন বামপন্থী দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এসপিডি)র প্রার্থী ওলাফ শলৎস। 

যদিও ম্যার্কেলের ইউনিয়ন শিবিরের নেতা আরমিন লাশেট এখনও পরাজয় মেনে না নেওয়ায় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া জটিল হতে পারে। সমর্থনে বিশাল ঘাটতি সত্ত্বেও অ্যাঙ্গেলার সম্ভাব্য উত্তরসূরি আরমিন লাশেট এখনই সরকার গড়ার আশা ছাড়ছেন না। লাশেট মনে করেন, বেশি ভোট পেয়ে এগিয়ে থাকলেই জয়ী হওয়া যাবে না। পুরো বিষয়টা এখন অংকের হিসাব। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০৭

নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর করোনাভাইরাস মহামারিতে পশ্চিম ইউরোপে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ গড় আয়ু কমেছে। ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, চিলি থেকে শুরু করে ৩৯টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা গত বছর গড় আয়ু কমার পরিমাণ শনাক্ত করেছে।

সবচেয়ে বেশি গড় আয়ু কমেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুরুষদের। ২০১৯ সালের তুলনায় গত বছর তাদের গড় আয়ু কমেছে ২.২ বছর। এরপরে রয়েছে লিথুনিয়ার পুরুষেরা। তাদের কমেছে ১.৭ বছর।

অক্সফোর্ডের লেবারহাম সেন্টার ফর ডেমোগ্রাফিক সাইন্সের বিজ্ঞানীদের পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, মধ্য ও পূর্ব ইউরোপে গড় আয়ু কমার পরিমাণ কম।

গবেষণাটির সহ লেখক ড. জোসে আবুরতো বলেন, স্পেন, ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস, ইতালি, বেলজিয়ামের মতো পশ্চিম ইউরোপের দেশগেুলোতে এর আগে সবচেয়ে বেশি গড় আয়ু কমার ঘটনা ঘটে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়।

গবেষণাটি ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব এপিডেমিলোজিতে প্রকাশ হয়েছে। ড. জোসে আবুরতো বলেন, গবেষণার আওতায় থাকা ২২টি দেশে গড় আয়ু বেশি কমেছে ২০২০ সালের প্রথম ছয় মাসে। তিনি বলেন, আটটি দেশের নারী এবং ১১টি দেশের পুরুষদের আয়ু এক বছরের বেশি কমেছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৬

জার্মানির জাতীয় নির্বাচনে নিজ দলকে বিজয়ী দাবি করেছেন বামপন্থী দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এসপিডি)র প্রার্থী ওলাফ শলৎস। ম্যার্কেলের রক্ষণশীল দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)'র আর ক্ষমতায় থাকা উচিত হবে না মনে করছেন চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী শলৎস। নির্বাচনে এগিয়ে থেকে সোমবার তিনি বলেন, ‘সবুজ এবং লিবারেল পার্টির সঙ্গে জোট গঠনের সময় এসেছে’।

যদিও ম্যার্কেলের ইউনিয়ন শিবিরের নেতা আরমিন লাশেট এখনও পরাজয় মেনে না নেওয়ায় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া জটিল হতে পারে। সমর্থনে বিশাল ঘাটতি সত্ত্বেও অ্যাঙ্গেলার সম্ভাব্য উত্তরসূরি আরমিন লাশেট এখনই সরকার গড়ার আশা ছাড়ছেন না। লাশেট মনে করেন, বেশি ভোট পেয়ে এগিয়ে থাকলেই জয়ী হওয়া যাবে না। পুরো বিষয়টা এখন অংকের হিসাব। 

এদিকে প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি (২৫.৭ শতাংশ), ক্রিশ্চিয়ান গণতন্ত্রী সিডিইউ/সিএসইউ (২৪.১ শতাংশ), সবুজ দল (১৪.৮ শতাংশ), মুক্ত গণতন্ত্রী এফডিপি (১১.৫ শতাংশ), অভিবাসনবিরোধী এএফডি (১০.৩ শতাংশ), বাম দল (৫ শতাংশ) ও অন্যান্য (৮.৭ শতাংশ) ভোট পেয়েছে।

একটি জোট সরকার গঠনের চাবিকাঠি রয়েছে গ্রিন পার্টি এবং এফডিপি’র হাতে। দুটি দলের কেউই আলাদা করে ভালো ফল ঘরে না তুলতে পারলেও তাদের দুই দলের ভোট একসঙ্গে করলে জোট সরকার গঠনে চমক হতে পারে। জোট সরকার গঠন জার্মানিতে বর্তমানে একটি ঐতিহ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ, সরকার গঠনের মতো নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট কোনো দলই পায় না। যাই হোক না দীর্ঘ ১৬ বছর পর নতুন কোনও সরকার পেতে যাচ্ছে জার্মানরা।

এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ সময় পর জার্মানিতে ক্ষমতা হারাতে যাচ্ছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের রক্ষণশীল দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

কৃষকদের ধর্মঘটে অচল ভারত

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:২১

বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে ‘ভারত বনধ’ কর্মসূচি পালন করছেন কৃষকরা। সোমবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া এই কর্মসূচিতে দিল্লি-মিরুত মহাসড়কের প্রবেশপথ আটকে দিলে দিল্লি সীমান্তে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানাচ্ছে, এই ধর্মঘটে নেতৃত্ব দিচ্ছে ৪০টি খামারি সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত কিষাণ মোর্চা।

আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, জাতীয় মহাসড়কের কিছু অংশে তারা যান চলাচল করতে দেবেন না। এ অবস্থায় দিল্লি সড়ক অচল হয়ে পড়েছে। এতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।

দেশজুড়ে সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান, দোকান, শিল্প কারখানা এবং বাণিজ্যিক কার্যক্রম বন্ধের ডাক দেয় সংগঠনটি। এই বনধকে সমর্থন করেছে বাম, কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, আম আদমি পার্টি, টিডিপি-র মতো বিরোধী দলগুলো। ধর্মঘটে প্রভাব পড়েছে কলকাতাতেও।

কৃষকরা ইতোমধ্যেই দিল্লি থেকে উত্তরপ্রদেশে যাওয়ার সড়ক বন্ধ করে দিয়েছেন। দিল্লি-হরিয়ানা সড়কও বন্ধ করেছেন আন্দোলনকারীরা।

ধর্মঘটের কারণে দিল্লি-গুরুগ্রাম সীমান্তে দেড় কিলোমিটার যানজট

পাঞ্জাব ও হরিয়ানা সীমান্তেও অবস্থান করছেন অনেকে। নিরাপত্তার কথা ভেবে লালকেল্লার সামনে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

কৃষক নেতা শরণ সিং বলেছেন, দিল্লির সীমানায় কৃষক নেতারা প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। সরকার তাদের কথা শুনছে না। তাই তারা ভারত বনধ ডাকতে বাধ্য হয়েছেন। কর্মসূচি বিকাল ৪টা শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

আন্দোলনকারীরা বিজেপি সরকারের করা ৩টি আইন বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছেন। কৃষকদের আশঙ্কা, এই আইনের ফলে ন্যূনতম মূল্য সহযোগিতা বন্ধ করে দেওয়া হবে। ফলে তারা বড় বড় প্রতিষ্ঠানের মুখাপেক্ষী হতে বাধ্য হবেন। সরকার এখনও সরে না আসলেও কৃষকরা আইন বাতিলের দাবিতে অনড়।

/এলকে/

সম্পর্কিত

কৃষকদের ‘ভারত বন্ধ’ আজ, ট্রাফিক জ্যামের হুঁশিয়ারি পুলিশের

কৃষকদের ‘ভারত বন্ধ’ আজ, ট্রাফিক জ্যামের হুঁশিয়ারি পুলিশের

একশ’ কিলোমিটার গতিতে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় গুলাব

একশ’ কিলোমিটার গতিতে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় গুলাব

সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে ২০ বছরে পাঁচ খুন

সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে ২০ বছরে পাঁচ খুন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

কৃষকদের ধর্মঘটে অচল ভারত

কৃষকদের ধর্মঘটে অচল ভারত

রুশ যুদ্ধবিমানের ধাওয়ায় পালালো মার্কিন বোমারু বিমান

রুশ যুদ্ধবিমানের ধাওয়ায় পালালো মার্কিন বোমারু বিমান

কাবুলে বন্ধ হচ্ছে নারীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

কাবুলে বন্ধ হচ্ছে নারীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

আফগানিস্তানে নারীর অধিকার লঙ্ঘনে জাতিসংঘের দফতরে সামনে বিক্ষোভ

আফগানিস্তানে নারীর অধিকার লঙ্ঘনে জাতিসংঘের দফতরে সামনে বিক্ষোভ

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

বিশ্বকে শক্তির জানান দিতে বৃহৎ এয়ার শো আয়োজনে চীন

বিশ্বকে শক্তির জানান দিতে বৃহৎ এয়ার শো আয়োজনে চীন

সর্বশেষ

মাঠকর্মী হিসেবে মাদ্রাসা শিক্ষক ও ইমামদের টার্গেট করতেন রাগীব

মাঠকর্মী হিসেবে মাদ্রাসা শিক্ষক ও ইমামদের টার্গেট করতেন রাগীব

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

দুবাই যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

অভিযোগ করে ভোক্তারা পেয়েছেন প্রায় সোয়া কোটি টাকা

অভিযোগ করে ভোক্তারা পেয়েছেন প্রায় সোয়া কোটি টাকা

গণটিকার সরঞ্জাম পৌঁছে গেছে সারাদেশে

গণটিকার সরঞ্জাম পৌঁছে গেছে সারাদেশে

© 2021 Bangla Tribune