X
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

সেকশনস

দিতির দীঘল চুল এবং কন্যার স্মৃতিকথা

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০১৬, ১৩:৩৭

এভাবেই চুল জমাতেন দিতি। ছবি: লামিয়া চৌধুরী চলচ্চিত্রের বরেণ্য অভিনেত্রী দিতি এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে যাচ্ছেন। ভারতের মাদ্রাজ ইনস্টিটিউট অব অর্থোপেডিকস অ্যান্ড ট্রমাটোলজিতে(এমআইওটি) জীবন-মৃত্যুর সংকটে আছেন। হাসপাতালে তার সঙ্গে আছেন তার মেয়ে লামিয়া ও ছেলে সাফায়েত চৌধুরী। মায়ের বর্তমান পরিস্থিতি প্রসঙ্গে মেয়ের ভাষ্য এমন- ‘বিষয়টি এখন এমন, যা নিয়ে আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের আর কিছুই করার নেই।’ লামিয়ার ভাষায় এটি তার মায়ের, ‘অন্তিম মুহূর্ত’।
এ শ্বাসরুদ্ধকর সময়ে মাকে নিয়ে লম্বা স্মৃত্বিচারণ করেছেন তিনি। মঙ্গলবার মধ্যরাতে তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেছেন মাকে নিয়ে মর্মস্পর্শী কিছু স্মৃতিকথা। ইংরেজি থেকে সেটার অনুবাদ তুলে ধরা হলো-

মায়ের মাথাভর্তি দীঘল কালো চুলগুলো যখন ঝরে পড়া শুরু করল (কেমোথেরাপির কারণে), তিনি সেগুলো তার ব্যাগে পরম যত্নে সংগ্রহ করতে শুরু করলেন। তার চেহারায় কোনও ভাবান্তর হতো না। হাসপাতালের সব চিকিৎসকরা চমকে যেতেন। তারা বিভিন্ন সময়ই সাবধান করে বলতেন, এটা খুব স্পর্শকাতর বিষয়।
মা তো একজন অভিনেত্রী। আর যাই হোক, অভিনেত্রীর কাছে বাহ্যিক সৌন্দর্য অনেক কিছু। কিন্তু মা তা পরোয়া করতেন না। বলতেন, এটা শুধুই চুল। কখনও আসবে কখনও যাবে। চিন্তার কিছু নেই।
মা বেশ মজা করে বলতেন, তিনি এই চুলগুলো গুছিয়ে রাখবেন। এগুলো দিয়ে দুটি পরচুলা বানাবেন। একটি তার চুল কমওয়ালা এক বন্ধুর জন্য। অপরটি তার জন্য।
চুলগুলো পড়ে যাওয়ার অনেক আগে তিনি একটি ঘটনা বলেছিলেন, একবার নাকি শ্যুটিং করতে গিয়ে তার চুল ফ্যানে জড়িয়ে গিয়েছিল। তখন পুরো চুল কেটে তাকে উদ্ধার করতে হয়। আরও একবার তার চুল পড়ে গিয়েছিল, কেমিক্যাল বিক্রিয়ার ফলে।
হয়তো মা তার আবেগগুলো মনে চাপা দিয়ে রাখতেন। তিনি এগুলোর জন্য সময় নষ্ট করতে চান না। আমার তো মনে হয়, তিনি একনিষ্ঠ এক সৈনিক; যে সামনের দিকে মনোবল শক্ত করে এগিয়ে যান। এগুলো নিয়ে তার কোনও ভাবান্তর হয় না। তার কোনও অনুযোগও ছিল না। তার পদচ্যুতও হতো না। আবার মা কখনও ভাগ্যকে দোষারোপও করেননি। তিনি নিজের কাছেই কখনও ‘স্যরি’ বলেননি। তার এই দৃঢ়তা আমাকে অবাক করত। আবার উৎসাহীও করত। কখনও চরম বিরক্তও হতাম।
সত্যি বলতে, আমি এ বিষয়গুলো কিছুতেই বুঝতে পারিনি। তিনি যখন মনে মনে কষ্ট পেতেন, আমি রাগ করতাম। আমি আরও রাগান্বিত হতাম, তিনি কখনওই এ বিষয়গুলো বুঝতে চাইতেন না। আসলে তিনি আমার মা, যে সারাটি জীবন এভাবেই পার করেছেন। অপ্রতিরোধ্যভাবে।
তার এই উদ্যম কখনওই মারা যাবে না।
প্রসঙ্গত, সোমবার লামিয়া তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে জানান, মাদ্রাজের চিকিৎসকরা সব আশা ছেড়ে দিয়েছেন। জীবন-মুত্যর সন্ধিক্ষনে আছেন দিতি। যা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দিতি: দোয়া চাইলেন লামিয়া-এ শিরোনামে প্রকাশ করেছে বাংলা ট্রিবিউন। দিতি
/এম/এমএম/

সর্বশেষ

মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে সিলেটের পাহাড়ে ১০ হাজার মানুষের বসবাস

মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে সিলেটের পাহাড়ে ১০ হাজার মানুষের বসবাস

বাবুল আক্তারের দুই সন্তানকে তদন্ত কর্মকর্তার কাছে হাজিরের নির্দেশ

বাবুল আক্তারের দুই সন্তানকে তদন্ত কর্মকর্তার কাছে হাজিরের নির্দেশ

রোহিঙ্গাদের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছে মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থীরা

রোহিঙ্গাদের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছে মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থীরা

আফগানিস্তান ত্যাগের পর তুরস্ককে হিসাব করবে যুক্তরাষ্ট্র: এরদোয়ান

আফগানিস্তান ত্যাগের পর তুরস্ককে হিসাব করবে যুক্তরাষ্ট্র: এরদোয়ান

পরীমণি জানালেন ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্তর নাম

পরীমণি জানালেন ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্তর নাম

দিনাজপুর সদর উপজেলা লকডাউন

দিনাজপুর সদর উপজেলা লকডাউন

৩০ জুন পর্যন্ত ভারতীয় সীমান্ত বন্ধ

৩০ জুন পর্যন্ত ভারতীয় সীমান্ত বন্ধ

স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ

স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ

ব্যবসা সহজীকরণের উদ্যোগ চায় বিজিএমইএ

ব্যবসা সহজীকরণের উদ্যোগ চায় বিজিএমইএ

কিস্তি মেয়াদোত্তীর্ণ গ্রাহকরা আমদানি পরবর্তী ঋণ পাবেন না

কিস্তি মেয়াদোত্তীর্ণ গ্রাহকরা আমদানি পরবর্তী ঋণ পাবেন না

পুতিনই ঠিক, বললেন বাইডেন

পুতিনই ঠিক, বললেন বাইডেন

শিশুদের দিয়ে যৌনব্যবসা বন্ধে কঠোর নজরদারি চায় নারী আইনজীবী সমিতি

শিশুদের দিয়ে যৌনব্যবসা বন্ধে কঠোর নজরদারি চায় নারী আইনজীবী সমিতি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পরীমণি জানালেন ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্তর নাম

পরীমণি জানালেন ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্তর নাম

পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা, প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচারের আবেদন

পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা, প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচারের আবেদন

১৯ বছর পর জায়েদ খানের ফেরা

১৯ বছর পর জায়েদ খানের ফেরা

শুধু অবসাদ নয়, অন্য কারণেও অভিনয় ছাড়তে চেয়েছিলেন সুশান্ত

শুধু অবসাদ নয়, অন্য কারণেও অভিনয় ছাড়তে চেয়েছিলেন সুশান্ত

বঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে নওশাবার অন্যরকম এক বিকাল

বঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে নওশাবার অন্যরকম এক বিকাল

চলে গেলেন কণ্ঠশিল্পী-প্রচ্ছদ ডিজাইনার বৃহান

চলে গেলেন কণ্ঠশিল্পী-প্রচ্ছদ ডিজাইনার বৃহান

রান্নাটা নাকি জানতেই হবে: বিদ্যা বালান

রান্নাটা নাকি জানতেই হবে: বিদ্যা বালান

‘সাইকেল বালক’ দিয়ে শুরু জ্যোতির ‘রে হাউজ’

‘সাইকেল বালক’ দিয়ে শুরু জ্যোতির ‘রে হাউজ’

রিতার সঙ্গে গাইবেন লোপেজ

রিতার সঙ্গে গাইবেন লোপেজ

বাগদান হলো প্রসূনের

বাগদান হলো প্রসূনের

© 2021 Bangla Tribune