X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কৃষকের কান্নায় ভারী হয়েছে হাওরের আকাশ

আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২১, ১৫:২৪

কৃষকের কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে নেত্রকোনার হাওর অঞ্চলের আকাশ। রবিবার (৪ এপ্রিল) রাতের কয়েক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ে হাজারো কৃষকের স্বপ্ন মুহূর্তে বিলীন হয়ে গেছে। ঝড়ে শীষের ধান ঝরে পড়েছে, এখন জমিতে শুধু গাছ দাঁড়িয়ে আছে। এ অবস্থায় সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল থেকে হাওর অঞ্চলে চলছে কৃষকদের বিলাপ আর কান্না।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বোরো মৌসুমে মদন পৌর এলাকাসহ উপজেলার ৮ ইউনিয়নে এবার ১৭ হাজার ৩৪০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ধানের ফলন ভালো হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদন হবে বলে আশা ছিল কৃষকদের।

২৮ ধানের পাশাপাশি কাটা শুরু হয়েছে বিভিন্ন জাতের হাইব্রিড ধান। কষ্টে ফলানো সোনার ফসল ঘরে তুলতে অনেকেই ব্যস্ত সময় পার করছিলেন। ধান ঘরে তুলতে দিন-রাত কাজ করছেন চাষিরা। কিন্তু গত রাতের কয়েক মিনিটের ঝড় ও গরম বাতাস কৃষকদের সব স্বপ্ন নষ্ট করে দিয়েছে। ধার-দেনা করে এক ফসলি জমির ফসল হারিয়ে এখন পথে বসা ছাড়া আর কোনও উপায় নেই কৃষকদের।

তিয়শ্রী ইউনিয়নের বাগজান গ্রামের কৃষক নূরুল ইসলাম, শামীম আহম্মেদ, কোঠুরীকোনা গ্রামের রোজ আলী, পৌর সভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সবুজ মিয়াসহ অনেকেই জানান, হাওরের এক ফসলি বোরো জমির ফসল দিয়ে সারা বছর পরিবার নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। তবে রবিবার রাতের কয়েক মিনিটের গরম বাতাসে জমির সব ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। ঋণ করে ফসল উৎপাদন করেছিলেন তারা। এখন সারা বছর কি খাবেন ও কিভাবে ধার পরিশোধ করবেন, এ নিয়েই তাদের যত চিন্তা।

কৃষকরা বলেন, সরকার যদি আমাদের পাশে না দাঁড়ায়, পথে বসা ছাড়া আর কোনও উপায় থাকবে না।

এদিকে সকালে মদন উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কদ্দুছসহ কৃষি বিভাগের লোকজন হাওর অঞ্চল পরিদর্শন করেছেন।

ভারপ্রাপ্ত কৃষি অফিসার ও কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার রায়হানুল হক জানান, গত রাতের কালবৈশাখী ঝড়ে কৃষদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে, তা অপূরণীয়। আমাদের লোকজন মাঠে আছে। ক্ষয়ক্ষতির সঠিক তথ্য এখনও বলা যাচ্ছে না।



/টিটি/

সম্পর্কিত

১০ বছর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা তুলেছেন রাজাকার

১০ বছর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা তুলেছেন রাজাকার

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৫৬

চট্টগ্রাম বন্দরে কোকেন জব্দের ঘটনায় চোরাচালান আইনে দায়ের করা মামলার চার্জ গঠন পিছিয়েছে। আগামী ১০ নভেম্বর মামলাটির পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) দুপুরে অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ (তৃতীয়) মো. জসিম উদ্দিন এ আদেশ দেন। 

মহানগর দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মো. ফখরুদ্দিন আহমদ বলেন, ‘কোকেন উদ্ধারের ঘটনায় দায়ের করা চোরাচালান মামলায় আজ আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের দিন ধার্য ছিল। শারীরিক অসুস্থ বোধ করায় আজ বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট ফরিদুল আলম সাক্ষ্য প্রদানে অনীহা প্রকাশ করায় আজ শুনানি হয়নি। আদালত আগামী ১০ নভেম্বর মামলাটির পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন।’

২০১৫ সালের ৬ জুন চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের তৎকালীন অতিরিক্ত উপকমিশনার এস এম তানভির আরাফাতের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কোকেন সন্দেহে চট্টগ্রাম বন্দরে সূর্যমুখী তেলের চালান জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। এরপর ২৭ জুন তেলের চালানের ১০৭টি ড্রামের মধ্যে একটি ড্রামের নমুনায় কোকেন শনাক্ত হয়। বলিভিয়া থেকে আসা চালানটির প্রতিটি ড্রামে ১৮৫ কেজি করে সূর্যমুখী তেল ছিল। পরে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি), মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের রাসায়নিক পরীক্ষাগারসহ চারটি পরীক্ষাগারে তেলের চালানের দুটি ড্রামের নমুনায় কোকেন শনাক্ত হয়। পরে এ ঘটনায় চট্টগ্রামের বন্দর থানায় ওই বছরের ২৭ জুন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়। একই মামলায় চোরাচালান আইনে আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়। দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০২০ সালের ২৫ জুন ওই মামলায় চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় অভিযোগপত্র জমা দেয় মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব-৭। আজ ওই মামলায় চার্জ গঠনের কথা ছিল।

মামলায় অভিযুক্ত ১০ জন হলেন– আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রামের খানজাহান আলী লিমিটেডের চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ ও তার ভাই মোস্তাক আহমদ, কসকো-বাংলাদেশ শিপিং লাইনসের ব্যবস্থাপক এ কে এম আজাদ, সিকিউরিটিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মেহেদী আলম, সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, আবাসন ব্যবসায়ী মোস্তফা কামাল, প্রাইম হ্যাচারির ব্যবস্থাপক গোলাম মোস্তফা সোহেল, পোশাক রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মণ্ডল গ্রুপের বাণিজ্যিক নির্বাহী আতিকুর রহমান, লন্ডন প্রবাসী চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জের ফজলুর রহমান ও মৌলভীবাজারের বকুল মিয়া।

তাদের মধ্যে গোলাম মোস্তফা সোহেল ও আতিকুর রহমান কারাগারে আছেন। জামিনে আছেন– মেহেদী আলম, এ কে এম আজাদ, সাইফুল ইসলাম ও মোস্তফা কামাল। জামিনে গিয়ে পালিয়ে গেছেন নুর মোহাম্মদ। এ ছাড়া মোস্তাক আহমদ, ফজলুর রহমান ও বকুল মিয়া শুরু থেকেই পলাতক আছেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টা মামলার ১৬ আসামি রিমান্ডে 

চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টা মামলার ১৬ আসামি রিমান্ডে 

নোয়াখালীতে হামলা: বিএনপি-জামায়াত নেতাসহ গ্রেফতার ১১

নোয়াখালীতে হামলা: বিএনপি-জামায়াত নেতাসহ গ্রেফতার ১১

অপহরণের ৫ মাসেও খোঁজ মেলেনি নুর উদ্দিনের

অপহরণের ৫ মাসেও খোঁজ মেলেনি নুর উদ্দিনের

চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টা মামলার ১৬ আসামি রিমান্ডে 

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৬

চট্টগ্রামের জেএম সেন হল পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার ঘটনায় আরও ১৬ জনকে একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার (২৫ অক্টোবর) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হোসেন মোহাম্মদ রেজা শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘১৬ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আমরা সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেছিলাম। শুনানি শেষে আদালত প্রত্যেক আসামির এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- দেলোয়ার হোসেন, মাসুদ পারভেজ, মো. হুমায়ুন, জাবেদুল ইসলাম, ইফতেখার উদ্দিন, তৌহিদুল আলম, খালিদ বিন ওয়ালিদ, সৈয়দ মঈন উদ্দিন, মো. রাসেল, ওমর ফারুক, নুরুল ইসলাম, মো. সোহাগ, আইয়ুব আলী, আমির হোসেন ও খোরশেদ আলম।

কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে গত ১৬ অক্টোবর দুপুরে জুমার নামাজের পর একটি মিছিল থেকে ঐতিহাসিক জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে গেটে হামলা হয়। হলের গেটের ব্যানার ও কাপড় ছেঁড়ার পাশাপাশি ওই দিন মিছিল সহকারে আসা যুবকরা মণ্ডপে ঢিল ছোড়ে। পরে এ ঘটনায় ৮৪ জনের নাম উল্লেখ করে কোতোয়ালি থানায় মামলা করা হয়। এসআই আকাশ মাহমুদ ফরিদ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি করেন। মামলায় অজ্ঞাত আরও অন্তত ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এই মামলায় ইতোমধ্যে ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতার আসামিদের মধ্যে প্রথম দফায় শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সাত জনকে একদিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছিলেন আদালত। এই সাত আসামি বাংলাদেশ যুব পরিষদের মহানগর শাখার বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন। তাদের মধ্যে একজন শনিবার (২৩ অক্টোবর) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

রিমান্ডে নেওয়া সাত আসামি হলেন- যুব অধিকার পরিষদের চট্টগ্রাম মহানগর শাখার আহ্বায়ক মো. নাছির, সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক মো. রাসেল, কর্মী ইয়াসিন আরাফাত, হাবিবুল্লাহ মিজান, ইমন ও ইমরান হোসেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

নোয়াখালীতে হামলা: বিএনপি-জামায়াত নেতাসহ গ্রেফতার ১১

নোয়াখালীতে হামলা: বিএনপি-জামায়াত নেতাসহ গ্রেফতার ১১

অপহরণের ৫ মাসেও খোঁজ মেলেনি নুর উদ্দিনের

অপহরণের ৫ মাসেও খোঁজ মেলেনি নুর উদ্দিনের

৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া মাদ্রাসাশিক্ষকের জামিন

৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া মাদ্রাসাশিক্ষকের জামিন

হাজীগঞ্জে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫৪

হাজীগঞ্জে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫৪

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১১

দিনাজপুরের হিলি সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধপথে ভারত থেকে দেশে অনুপ্রবেশকালে শ্রী নেপাল চন্দ্র সরকার (৩৩) নামে এক বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে হিলি সীমান্তের ২৮৫ নম্বর মেইন পিলারের ৭ নম্বর সাবপিলার সংলগ্ন বালুরচড় নামক এলাকা থেকে তাকে আটক করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। তিনি পার্বতীপুর উপজেলার তেরআনিয়া গ্রামের শ্রী নিতাই চন্দ্র সরকারের ছেলে।

বিজিবির হিলি আইসিপি ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার সাইদুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, হিলি সীমান্তের বালুরচড় নামক এলাকা দিয়ে প্রাচীর টপকে অনুপ্রবেশ করেন নেপাল চন্দ্র। এ সময় কর্তব্যরত বিজিবি সদস্য তাকে আটক করেন। 

তিনি চিকিৎসার জন্য কিছুদিন আগে ভারতে গিয়েছিলেন। এরপর পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হওয়ায় অবৈধপথে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসছিলেন তিনি। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশের অপরাধে মামলা করে  হাকিমপুর থানায় সোপর্দের প্রক্রিয়া চলছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

১০ বছর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা তুলেছেন রাজাকার

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৫

দীর্ঘদিন ধরে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ির রায়ের বাজার এলাকার তারা মিয়াকে স্থানীয়রা বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবেই জানতেন। পেতেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার ভাতা। সারাক্ষণই বসে থাকতেন হুইল চেয়ারে। তবে হঠাৎ মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তিনি গ্রেফতার হওয়ায় অবাক এলাকাবাসী। যেন বহুদিন পর তাদের ঘোর ভেঙেছে। জেনেছেন নতুন সত্য।

জানা গেছে, যুদ্ধাপরাধ মামলায় গ্রেফতার তারা মিয়া গত ১০ বছর ধরে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা উত্তোলন করে আসছেন। এর মধ্যে গত পাঁচ বছর ধরে ৩০ হাজার টাকা করে মাসিক ভাতা উত্তোলন করছেন। এর আগে প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা করে পেয়েছিলেন। এ ১০ বছরে তিনি মুক্তিযোদ্ধার ভাতা হিসেবে প্রায় ৩০ লাখ টাকা উত্তোলন করেছেন। ১০ বছর আগে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার শাহ নেওয়াজের পুত্র মুক্তিযোদ্ধা তারা মিয়ার (মুক্তিযুদ্ধ নাম্বার ৯৭৯৩) নাম ব্যবহার করে গ্রেফতার শমসের আলীর পুত্র তারা মিয়া মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে প্রতারণা করে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সেজে এই ভাতা উত্তোলন করে আসছেন। সর্বশেষ মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই করতে গিয়ে গ্রেফতার তারা মিয়ার প্রতারণা ফাঁস হয়ে যায়। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারোবাড়ী ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রঞ্জন ঘোষ রানা। 

রায়ের বাজার এলাকার বাসিন্দা কামাল হোসেন বলেন, ‘তাকে আমরা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবেই জানতাম। সারাক্ষণ হুইলচেয়ারে বসে থাকতেন। সব সরকারি অনুষ্ঠানেই তাকে ডেকে সম্মান দেওয়া হয়েছে। এখন গ্রেফতার হওয়ার পর মানুষ অবাক। কীভাবে একজন যুদ্ধাপরাধী মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম লেখালেন, আর কীভাবেই যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ভাতা পাচ্ছেন, এটা স্থানীয়দের প্রশ্ন।’

স্থানীয় স্কুলশিক্ষক কলিম উদ্দিনের অভিযোগ, তারা মিয়া শুধু মানুষকে না, প্রশাসন এবং সরকারকে ধোঁকা দিয়েছে। এরকম তারা মিয়া মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় আরও আছে কি-না তা খতিয়ে দেখার সময় এসেছে। এ ধরনের প্রতারককে খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা জামাল উদ্দিন বলেন, ‘তারা মিয়া পাশের উপজেলা গৌরীপুরের ঠিকানা ব্যবহার করে তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা হয়েছেন। তার ভারতীয় প্রামাণ্য দলিল নম্বর ৯৭৯৩। লাল মুক্তিবার্তা নম্বর ০১১৫১১০২৪৩। তিনি যুদ্ধ না করেও প্রতারণার মাধ্যমে গৌরীপুরে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম উঠিয়েছেন। গৌরীপুরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতারা সহায়তা করেছেন। স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা বারবার কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা  সংসদে তারা মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনলেও এ বিষয়ে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। সরষের মধ্যে ভূত থাকলে, সেই ভূত তাড়ানো কখনও সম্ভব না।’

গৌরীপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার ও পৌর মেয়র আব্দুস সাত্তার বলেন, ‘গ্রেফতার তারা মিয়া স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও প্রশাসনকে প্রভাবিত করে নিজে মুক্তিযোদ্ধা সেজেছেন এবং ভাতা নিয়েছেন। তিনি ছোটবেলা থেকেই ঈশ্বরগঞ্জের পৈতৃক বাড়িতে না থেকে নানার বাড়ি গৌরীপুরে থাকতেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ধোঁকা দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম লিখিয়েছেন। সেজেছেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা। এ ধরনের ঘটনা আমাদের জন্য লজ্জাজনক।’

জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার আব্দুর রব বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘পাপ বাপকেও ছাড়ে না। তারা মিয়া একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তান বাহিনীর দোসর ছিলেন। মানবতাবিরোধী অপরাধের সঙ্গে জড়িত থেকে অনেক পাপ করেছেন। দীর্ঘদিন পর হলেও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করায় তারা মিয়া গ্রেফতার হয়েছেন। এটাই আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য স্বস্তির বিষয়। তবে এ ধরনের তারা মিয়া মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অনেক আছে। এদেরকে খুঁজে বের করা এখন সময়ের দাবি।’

তবে তারা মিয়ার স্ত্রী রাবেয়া খাতুনের দাবি, তার স্বামী গৌরীপুরে নানার বাড়িতে থেকে বড় হয়েছেন এবং মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতে গিয়ে ট্রেনিং নিয়ে যুদ্ধ করেছেন। যুদ্ধ করার সময় গুলিতে আহত হয়েছেন বলেই যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার ভাতা পাচ্ছেন। বিয়ের পর থেকেই তিনি শুনে আসছেন, তার স্বামী মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তার স্বামী কখনও যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে জড়িত এ ধরনের তথ্য তার কাছে নেই।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল কাদের জানান, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তদন্ত শেষে গত বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল ১২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। সেটি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত তারা মিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

রংপুরের পীরগজ্ঞের মাঝিপাড়ায় হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর থেকে ছাত্রশিবির নেতা মামুন মণ্ডলসহ আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে, এ ঘটনায় গ্রেফতার হয়ে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা ১৩ আসামিকে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র জানান, আসামি মামুনকে তদন্তে এবং ভিডিও ফুটেজ দেখে চিহ্নিত করে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরজন হচ্ছেন ওমর ফারুখ সনেট। তাদের দুজনের বাড়ি পার্শ্ববর্তী গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর এলাকায়। সোমবার বিকালে তাদের রংপুরের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আনা হয়েছে।

এ ঘটনায় গ্রেফতার হয়ে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক থাকা ১৩ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালতে। রংপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফজলে এলাহী খান রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাহবুবুর রহমান পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে বিচারক তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোর্ট সিএসআই শহিদুল ইসলাম।

পীরগঞ্জ থানার ওসি জানান, গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর থেকে গ্রেফতার হওয়া ছাত্রশিবিরের নেতা মামুন মণ্ডল ও ওমর ফারুখ সনেট পীরগঞ্জে মাঝিপাড়ার ঘটনায় সরাসরি অংশ নিয়েছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন।

এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ৬৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তিনটি মামলাসহ মোট চারটি মামলা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

১০ বছর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা তুলেছেন রাজাকার

১০ বছর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতা তুলেছেন রাজাকার

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

এক জেলায় ১০ মাসে সড়কে ঝরলো ১৩৬ প্রাণ

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

আমদানি কমায় বাড়লো পেঁয়াজের দাম  

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

নৌকার জনসভায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলার অভিযোগ

টেকনাফে উত্ত্যক্তের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ১০

টেকনাফে উত্ত্যক্তের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ১০

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

নীলফামারীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ক্ষতি ১৫ কোটি টাকা

নীলফামারীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ক্ষতি ১৫ কোটি টাকা

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

রূপসার শিয়ালীর মন্দিরে হামলা মামলায় ২৩ আসামি জেলে

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

সর্বশেষ

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ অক্টোবর

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ অক্টোবর

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

কোকেন মামলার চার্জ গঠন পেছালো

৫ জেলায় ৫ জনের মৃত্যু

৫ জেলায় ৫ জনের মৃত্যু

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে পদযাত্রা

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে পদযাত্রা

শিশুশ্রম নিরসনে ১১২ এনজিও’র সঙ্গে চুক্তি কাল

শিশুশ্রম নিরসনে ১১২ এনজিও’র সঙ্গে চুক্তি কাল

© 2021 Bangla Tribune