X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

যে কারণে ব্রাজিলের করোনা পরিস্থিতি এত খারাপ

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২১, ২১:০০

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সর্বাধিক মৃত্যু হওয়া দেশগুলোর তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের পরই ব্রাজিলের অবস্থান। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে তিন লাখ ত্রিশ হাজারের বেশি মানুষের। বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলছেন, আগামী কয়েক সপ্তাহেও দেশটি সংক্রমণের চূড়ায় পৌঁছাবে না।

করোনার দ্রুতগতিতে সংক্রমণ ছড়ায় এমন ধরন প্রথম ব্রাজিলে শনাক্ত হয়। যা বিশ্বে সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার বড় কারণ।

প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো ক্রমাগত ভাইরাসের ভয়াবহতাকে খাটো করে তুলে ধরে আসছিলেন। কিন্তু এখন সেই তিনিই দেশজুড়ে ভ্যাকসিন কর্মসূচিতে মনোনিবেশ করছেন। যদিও তার সমালোচকরা বলছেন, অনেক দেরি হয়ে গেছে।

করোনা নিয়ে যা যা বলেছেন বলসোনারো?

মহামারি মোকাবিলায় দৃঢ় পদক্ষেপ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে বড় ধরনের সংশয়ের কথা জানিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট:

  • করোনাকে তিনি লিটল ফ্লু বলে আখ্যায়িত করেছেন
  • গরিবরা আরও গরিব হবে দাবি করে দেশজুড়ে লকডাউন জারির বিরোধিতা করেছেন
  • লকডাউন জারি করা রাজ্য গভর্নর ও মেয়রদের 'অত্যাচারী' ডেকেছেন
  • ভ্যাকসিন নেবেন না জানিয়ে এর নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা সম্পর্কে সংশয় প্রকাশ করেছেন
  • ফাইজারের ভ্যাকসিনে মানুষ কুমিরে পরিণত হতে পারে কৌতুক করেছেন
  • লাখো ডোজ ভ্যাকসিন কেনার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন
  • জনগণকে বলেছেন পরিস্থিতি নিয়ে ঘেনঘেনানি বন্ধ করতে

বলসোনারো লকডাউনের বিরোধিতা করেই যাচ্ছেন। যদিও তার সরকার দেশটির ২০ কোটির বেশি জনগণের জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিয়েছে।

বিশ্বের প্রতি চার মৃত্যুর একটি ব্রাজিলে

করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত লাতিন আমেরিকায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে ব্রাজিলে। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত প্রতি চারজনের একজন ব্রাজিলের।

জনসংখ্যার অনুপাতে মৃত্যুর হিসাবে পেরু ও মেক্সিকোর পরেই আছে ব্রাজিল। কিন্তু দেশটিতে দৈনিক মৃত্যু দ্রুতগতিতে বাড়ছে। মহামারির সময়ে যে কোনও মাসের তুলনায় দ্বিগুণ মৃত্যু হয়েছে মার্চ মাসে। সংক্রামক নতুন নতুন ধরণে আক্রান্ত হওয়ার ফলে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা চলমান রয়েছে।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের একটি পুর্ভাবাসে বলা হয়েছে, জুলাই মাসে ব্রাজিলে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে।

আঞ্চলিক নেতারা বলছেন, ভয়াবহতা নিয়ে মিশ্র বার্তা ও লকডাউন প্রতিরোধের কারণে জাতীয়ভিত্তিতে বিধিনিষেধ কার্যকরভাবে বাস্তবায়ন কঠিন করে তুলেছে।

হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ারের বেড পূর্ণ হয়ে গেছে বা সামর্থ্যের একেবারের কাছাকাছি।

ডিউক ইউনিভার্সিটির নিউরোসায়েন্সের এক ব্রাজিলীয় অধ্যাপক ড. মিগুয়েল নিকোলেলিস বলেন, ব্রাজিলের হাসপাতাল ব্যবস্থা ভেঙে পড়ছে। দেশের ইতিহাসে এই প্রথমবার জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়লো।

তিনি আরও বলেন, আমরা যদি ব্যাপক পরিমাণে ভ্যাকসিন পাই তাহলে কেবল পরিস্থিতি কিছুটা প্রশমিত করতে পারব।

ভ্যাকসিন স্বল্পতা

লাতিন আমেরিকার অনেক দেশের তুলনায় ভ্যাকসিন কর্মসূচি পরিচালনায় ব্রাজিলের ভালো রেকর্ড রয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্যসেবা খাতের অবকাঠামো বেশ শক্তিশালী। কিন্তু করোনার ভ্যাকসিন উদ্যোগ চিলি ও উরুগুয়ের পেছনে পড়ে গেছে। অথচ ভ্যাকসিনের প্রতি ব্রাজিলীয়দের আস্থা বিশ্বের মধ্যে অন্যতম বেশি। কিন্তু সরবরাহ মন্থর।

ব্রাজিলীয় মাইক্রোবায়োলজিস্ট নাটালিয়া পাস্টারনাক বলেন, আমাদের অনেক ভালো ভ্যাকসিন কর্মসূচি ছিল, যা বিশ্বের অন্যতম সেরা। যদি পর্যাপ্ত ডোজ থাকত তাহলে কী করতে হবে তা আমাদের জানা আছে। আমাদের বিশেষজ্ঞ ও অবকাঠামো রয়েছে। শুধু প্রয়োজন ভ্যাকসিন।

মার্চের শেষ পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রা ৪৬ মিলিয়নের অর্ধেক ভ্যাকসিন ডোজ পাওয়া গেছে।

এখন ব্রাজিল দেশটির সব জনগণের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক ডোজের অর্ডার দিয়েছে। কিন্তু সমালোচকরা বলছেন, অনেক দেরিতে এই চুক্তি হলো। কারণ অনেক বড় দেশ, যাদের ভ্যাকসিন কেনার সামর্থ্য রয়েছে তারা এগিয়ে গেছে।

আগস্টে ব্রাজিল সরকার ফাইজারের ৭ কোটি ডোজ ভ্যাকসিনের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। সম্প্রতি দেশটি ফাইজারের ১০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন অর্ডার দিয়েছে। কিন্তু বছরের দ্বিতীয়ার্ধের আগে তা ব্রাজিলে পৌঁছাবে না।

অতীতে বলসোনারো সমালোচনা করলেও শেষ পর্যন্ত ব্রাজিল সরকার চীনা কোম্পানি সিনোভ্যাকের কাছ থেকে ১০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন কেনার অর্ডার দিয়েছে। নভেম্বরে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, দেশে চীনা ভ্যাকসিনটির পরীক্ষা স্থগিত করা ছিল তার জন্য আরেকটি জয়।

ব্রাজিলে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন উৎপাদিত হচ্ছে। সরকার জানিয়েছে, কয়েক লাখ ভ্যাকসিন তারা উৎপাদন করবে। কিন্তু উপাদানের অভাবের কারণে ব্রাজিলের কারখানায় উৎপাদন সীমিত আছে।

করোনার ব্রাজিলীয় ধরনের ঝুঁকি

ব্রাজিলের জনস্বাস্থ্য ইন্সটিটিউট ফিওক্রজ জানিয়েছে, দেশটিতে করোনাভাইরাসের ৯২টি ধরণ শনাক্ত হয়েছে। বিশেষ করে পি.১ ধরনটি উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ এটি মূল করোনার চেয়ে অনেক বেশি সংক্রামক এবং লাতিন আমেরিকাসহ বিশ্বে অনেক দ্রুত ছড়াচ্ছে।

বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, করোনার ব্রাজিলীয় ধরনের বিরুদ্ধে এখনকার ভ্যাকসিনগুলো কার্যকর। কিন্তু তা হয়ত যথেষ্ট নাও হতে পারে। এছাড়া ভবিষ্যতে নতুন ধরন শনাক্ত হতে পারে।

ড. নিকোলেলিস বলেন, বিশ্বজুড়ে মহামারির একমাত্র এপিসেন্টার শুধু নয়, মহামারি ঠেকানোর পুরো আন্তর্জাতিক উদ্যোগকেও ভেস্তে দিতে পারে ব্রাজিল। প্রতি সপ্তাহে আমরা নতুন ধরন শনাক্ত করছি। সূত্র: বিবিসি

/এএ/

সম্পর্কিত

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়েছে

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:২২

গাছ কাটা ঠেকাতে অনেকসময় বৃক্ষকে ঘিরে দেওয়া হয় মানববেষ্টনী। মানে একজন আরেকজনের হাত ধরে প্রতীকী একটা বেড়া বানানো হয়। মেক্সিকোর সান্তা মারিয়া দেল তুলে শহরে গেলে পাওয়া যাবে একখানা দশাসই গাছ। গাছটার অফিসিয়াল নাম ‘এল আরবল দেল তুলে’ ওরফে ‘তুলের গাছ’। আর ওটাকে যদি কখনও মানববেষ্টনী দিতে হয়, তবে হাতে হাত রেখে ঘিরে দাঁড়াতে হবে অন্তত ৩০ জন মানুষকে!

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ হিসেবে স্বীকৃত এই গাছের পরিধি এখন ৪২ মিটার। ‘এখন’ বলা হচ্ছে, কারণ দিনকে দিন গাছটা মোটা হচ্ছেই। বিজ্ঞানীরা প্রথমে ভেবেছিলেন দুটো বা তিনটে গাছ বুঝি একসঙ্গে মিশে এমনটা হয়েছে। কিন্তু ডিএনএ পরীক্ষায় দেখা গেলো এখানে একটাই গাছ। মন্টেজুমা সাইপ্রাস প্রজাতির এ গাছের বয়স কমসে কম দুই হাজার বছর।

তুলের গাছ-এর জন্য এলাকাটা হয়ে গেছে বিখ্যাত। এই একটি গাছের সুবাদেই পুরো এলাকা এখন বিশ্বখ্যাত পর্যটন স্পট। আর তাতেই বেশ আয়-রোজগার করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

 

/এফএ/

/এফএ/

সম্পর্কিত

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:২৪

জান্তা সরকার মিয়ানমারে গণহত্যা চালাচ্ছে উল্লেখ করে জাতিসংঘকে সতর্ক করেছেন সংস্থাটিতে নিয়োজিত রাষ্ট্রদূত কিওয়া মোয়ে তুন। এক চিঠিতে তিনি বলেন, অবৈধ সরকার দেশটিতে গণহত্যা মেতে ওঠেছে। জান্তা তাকে রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে বহিষ্কার করলেও দায়িত্ব থেকে সরে যেতে অস্বীকৃতি জানান তিনি।

অবৈধ উপায়ে ক্ষমতা গ্রহণের পর ৬ মাস পার করলো মিয়ানমারের জান্তা সরকার। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়লেও ক্ষমতা ছাড়তে নারাজ। এই সরকারের বিরুদ্ধে এবার নিজেই গুরুতর অভিযোগ এনেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত।

সংস্থাটির মহাসচিব আন্থোনিও গুতেরেসকে এক চিঠিতে জানান, গত জুলাইয়ে মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সাগাইং রাজ্যের কানি শহরে ৪০ জনের লাশ পাওয়া গেছে। আর এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে জান্তা সরকারের হাত রয়েছে বলে নালিশ করেছেন তিনি। বুধবার ফরাসি নিউজ এজেন্সি এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য এসেছে।

সামরিক বাহিনী ও সাধারণ মানুষের সংঘর্ষ

যদিও মিয়ানমারের জেনারেলরা এমন অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে। তবে এএফপি বলছে, সাগাইং অঞ্চলে জান্তা সরকার মোবাইল নেটওয়ার্ক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় তারা স্বাধীনভাবে প্রতিবেদনগুলোর সত্যতা যাচাই করতে পারছে না।

গুতেরেসকে লেখা চিঠিতে মোয়ে তুন অভিযোগ করেন, সেখানকার একটি গ্রামে সৈন্যদের অমানবিক নির্যাতনে গত ৯ থেকে ১০ জুলাইয়ে তাদের মৃত্যু হয়। এরপরই ওই এলাকা থেকে ১০ হাজার নাগরিক পালিয়ে যেতে বাধ্য হন।

চিঠিতে তিনিও আরও জানান, গত ২৬ জুলাই কানিতে স্থানীয় যোদ্ধা ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে তুমুল লড়াইয়ের পর আরও ১৩ জনের মরদেহ পাওয়া যায়। আর ২৮ জুলাই কানির কটি গ্রামে শিশুসহ ১১ জনকে হত্যা করে সেনারা। শুধু তাই নয়, গ্রামটিতে আগুন ধরিয়ে দিলে ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা দেয়।

এমন পরিস্থিতি বর্ণনা দিয়ে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানান এই রাষ্ট্রদূত। নৃশংস পরিস্থিতি মিয়ানমারে চলতে দেওয়া যায় না বলেও উদ্বেগ জানান তিনি। এই সংকটে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে মানবিক সহায়তার জন্য বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

গত ১ ফেব্রয়ারি মিয়ানমারের সু চি সরকারকে অবৈধভাবে ক্ষমতাচ্যুত করে ক্ষমতা দখলে নেয় জান্তা সরকার। এই সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে দেশটির নাগরিকরা। সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত হাজারো মানুষ নিহত হয়েছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং

মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:০৯

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজ বলেছেন, ইরানে হামলা চালাতে তার দেশ প্রস্তুত রয়েছে। উপসাগরে একটি বেসামরিক বাণিজ্যিক জাহাজে ড্রোন হামলার ঘটনায় সৃষ্ট উত্তেজনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার তিনি এই মন্তব্য করেছেন। ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্ট এখবর জানিয়েছে।

ইরানে হামলা চালাতে ইসরায়েল প্রস্তুত কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে গান্তজ বলেন, ‘হ্যা’।

তিনি বলেছেণ, ইসরায়েল, মধ্যপ্রাচ্য ও সারাবিশ্বের জন্য হুমকি ইরান।

ইরানের পরামণবিক কর্মসূচি ইসরায়েলের সবচেয়ে বড় উদ্বেগের কারণ। তেহরান সব সময় পারমাণবিক অস্ত্র উৎপাদনের কথা অস্বীকার করে আসছে। তবু ইসরায়েলের ধারণা, ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির সক্ষমতা অর্জনের পথে রয়েছে এবং পারমাণবিক ওয়্যারহেড বহনে সক্ষম ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করছে।

ড্রোন হামলার কথা তুলে ধরে গান্তজ বলেন, ইরান আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সমস্যা। শুক্রবার এই হুমকির উদাহরণ দেখেছে বিশ্ব। এমনটি যে কারও ক্ষেত্রে ঘটতে পারে।

বৃহস্পতিবার ইরানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে কট্টরপন্থী ইব্রাহিম রাইসি দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। গান্তজ মনে করেন, এতে করে ইরান আঞ্চলিক ও নিরাপত্তা নীতির আরও বেশি আগ্রাসী হয়ে উঠতে পারে। তার কথায়, আমি বিশ্বকে বলছি, মনযোগ দিন। হুমকি আসছে।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, ইসরায়েলের ইরান বহুমাত্রিক হুমকি। তারা লেবানন ও গাজা এবং সিরিয়া ও ইরাকে উপস্থিতি বাড়াচ্ছে। ইয়েমেনে সমর্থন অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে হামলা শুরু করেছে ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান। দেশটির দাবি, বৃহস্পতিবার প্রতিবেশী দেশটি থেকে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রকেট হামলার প্রতিক্রিয়ায় এই অভিযান শুরু করা হয়েছে। যেসব স্থান থেকে রকেট হামলা হয়েছে এবং সন্ত্রাসীদের অবকাঠামো রয়েছে, সেসব স্থানে বিমান হামলা চালানো হচ্ছে।

/এএ/

সম্পর্কিত

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:০১
image

লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে হামলা শুরু করেছে ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান। ইসরায়েলের দাবি, বৃহস্পতিবার প্রতিবেশী দেশটি থেকে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রকেট হামলার প্রতিক্রিয়ায় এই অভিযান শুরু করা হয়েছে। যেসব স্থান থেকে রকেট হামলা হয়েছে এবং সন্ত্রাসীদের অবকাঠামো রয়েছে, সেসব স্থানে বিমান হামলা চালানো হচ্ছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েল। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান নিয়মিত গাজায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠীর ওপর এবং সিরিয়ায় সন্দেহভাজন হিজবুল্লাহ কিংবা ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালিয়ে থাকে। কিন্তু ২০১৪ সালের পর এবারই প্রথম দেশটি লেবাননে বিমান হামলা চালালো। এর আগে বিভিন্ন সময়ে কামানের গোলাবর্ষণের কথা স্বীকার করেছে ইসরায়েল।

২০০৬ সালে ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে ইসরায়েল। লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে আধিপত্য রয়েছে হিজবুল্লাহর। ২০০৬ সালের যুদ্ধের পর থেকে বেশিরভাগ সময় নীরবই থেকেছে লেবানন-ইসরায়েল সীমান্ত।

হিজবুল্লাহ পরিচালিত লেবাননের আল-মানার টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় রাত ১২টা ৪০ মিনিটে ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান মাহমুদিয়া শহরের বাইরে দুটি অভিযান চালিয়েছে। সীমান্ত থেকে এই শহরটি প্রায় ১১ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

লেবাননের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমও ইসরায়েলি বিমান হামলার কথা নিশ্চিত করেছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি।

এর আগে বুধবার লেবানন থেকে ছোড়া তিনটি রকেটের জবাবে দেশটিতে গোলাবর্ষণ করে ইসরায়েল। এ ঘটনায় দু’দেশের সীমান্তে কড়া নজরদারি শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী।

/জেজে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

বুস্টার ডোজ নিয়ে ডব্লিউএইচও’র আহ্বান উপেক্ষা ফ্রান্স ও জার্মানির

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:২৭

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)-এর আহ্বান উপেক্ষা করে করোনা টিকার বুস্টার ডোজ প্রয়োগ জারি রাখবে জার্মানি ও ফ্রান্স। সেপ্টেম্বর থেকে এই দুটি দেশ বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু করবে। বিশ্বের সব মানুষ টিকার আওতার আসার আগ পর্যন্ত বুস্টার ডোজ না দিতে ডব্লিউএইচও’র আহ্বান উপেক্ষা করেই এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে দেশ দুটি। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর জানিয়েছে।

বুধবার ডব্লিউএইচও’র  প্রধান টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস বলেছেন, ধনী ও দরিদ্র দেশগুলোর মধ্যে টিকাদানের ব্যবধান ক্রমেই বাড়ছে। আর তা কমিয়ে আনতেই বুস্টার ডোজের প্রয়োগ বন্ধ রাখার তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট মোকাবিলায় টিকার বুস্টার ডোজ প্রয়োগের উপর জোর দিচ্ছে বিভিন্ন দেশ। আর সেই সময়েই তা প্রয়োগ বন্ধ রাখার তাগিদ দিলো ডব্লিউএইচও।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ জানান, বয়স্ক ও ঝুঁকিপূর্ণ মানুষের জন্য সেপ্টেম্বর থেকে বুস্টার ডোজ প্রয়োগের জন্য কাজ করছে ফ্রান্স।

তিনি বলেন, তৃতীয় একটি ডোজ হয়ত প্রয়োজনীয়। কিন্তু তা সবার জন্য না। সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা ও বয়স্কদের জন্য।

জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দেশটি রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়া খুব বয়স্ক ও নার্সিং হোমের বাসিন্দাদের বুস্টার ডোজ দেওয়ার পরিকল্পনা করছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, মে মাসে বিশ্বের ধনী দেশগুলো প্রতি ১০০ জন মানুষের জন্য প্রায় ৫০ ডোজ টিকা প্রয়োগ করেছে। এরপর এই সংখ্যা আরও বেড়েছে। কিন্তু নিম্ন আয়ের দেশগুলো সরবরাহ ঘাটতির কারণে প্রতি ১০০ জনের জন্য মাত্র ১.৫ ডোজ টিকা দিতে সক্ষম হয়েছে।

/এএ/

সম্পর্কিত

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

চেক রিপাবলিকে দুই ট্রেনের ভয়াবহ সংঘর্ষ, দুই চালকই নিহত

চেক রিপাবলিকে দুই ট্রেনের ভয়াবহ সংঘর্ষ, দুই চালকই নিহত

বিক্ষোভে উত্তাল জার্মানি, আটক অর্ধসহস্রাধিক

বিক্ষোভে উত্তাল জার্মানি, আটক অর্ধসহস্রাধিক

সর্বশেষ

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়েছে

ইন্দোনেশিয়ায় করোনায় মৃতের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে

ইন্দোনেশিয়ায় করোনায় মৃতের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

উহানের সব বাসিন্দার করোনা পরীক্ষা করবে চীন

উহানের সব বাসিন্দার করোনা পরীক্ষা করবে চীন

চীনে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট

চীনে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট

© 2021 Bangla Tribune