X
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

ডিএনসিসি হাসপাতালের রোগীরা ল্যাব টেস্ট করান আরেক হাসপাতালে

আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১৭:২৪

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫২ বছর বয়সী সাত্তার (ছদ্মনাম) ভর্তি হয়েছেন মহাখালীতে নবনির্মিত ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালে। এখানকার চিকিৎসক তাকে কিছু পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে সেসব পরীক্ষার সবগুলোর ব্যবস্থা নেই এই হাসপাতালে। সেই পরীক্ষার জন্য তাকে যেতে হয়েছে আরেক হাসপাতালে। আর সেজন্য গুনতে হয়েছে আবারও অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া। এভাবেই চিকিৎসা নিতে এসে বিভ্রাটে পড়ছেন ডিএনসিসি হাসপাতালের রোগীরা।

সাত্তার জানান, চিকিৎসকরা তাকে সিবিসি, সিআরপি, ইসিজি, আরবিএসসহ আরও কিছু পরীক্ষার জন্য পরামর্শপত্র দিয়েছেন। তার স্ত্রী চিকিৎসকের দেওয়া কাগজটি হাতে নিয়ে বাইরে এসে খোঁজা শুরু করলেন অ্যাম্বুলেন্স। অ্যাম্বুলেন্স চালক তার হাতের কাগজ দেখেই বলে দিলেন—এগুলো করাতে যেতে হবে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া কত জিজ্ঞাসা করলে চালক জানান, অক্সিজেনসহ তিন হাজার টাকা। কিছুক্ষণ  অসহায়ের মতো তাকিয়ে থাকলেন সাত্তারের স্ত্রী। একবার শুধু জানতে চাইলেন—আরেকটু কমে যাবে কিনা। কিন্তু চালকের সোজা জবাব, না। নিরূপায় হয়েই গাড়ি তৈরি করতে বললেন রোগীর স্ত্রী।

জানতে চাইলে সাত্তারের স্ত্রী বলেন, ‘আমার স্বামীর জন্য কিছু টেস্ট দিছে ডাক্তার। কিন্তু এগুলো নাকি এখানে হয় না। তাই অন্যখানে করাতে হবে। এজন্যই অ্যাম্বুলেন্স খুঁজতেছিলাম।’

এই হাসপাতালেই ভর্তি আরেকজন বয়স্ক রোগীর সিটিস্ক্যান করার প্রয়োজন হয়। তার পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে যেতে চান কাছেই তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালে। এজন্য তাদেরও প্রয়োজন হয় অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করার। হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় কিছুটা বিরক্ত ছিল সেই রোগীর পরিবার।

ডিএনসিসির এই হাসপাতালের সেবা নিতে আসা রোগীরা বলছেন, অন্যখানে পরীক্ষা করাতে গেলে যে টাকা লাগবে, সেটা থাকলে তো আমরা প্রাইভেট হাসপাতালেই চিকিৎসা করাতে পারতাম। কম খরচের জন্য সরকারি হাসপাতালে আসা। এখন অন্য হাসপাতালে যেতে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়ার পেছনে অতিরিক্ত টাকা যাচ্ছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পরিচালনায় এই হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয় মাত্র তিন দিন আগে। ছয়তলা ভবনটি প্রায় ২২ বিঘা জায়গার ওপর তৈরি করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, পুরো হাসপাতালটিতে শুধু করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের জন্য থাকবে এক হাজার বেড। যদিও প্রাথমিকভাবে সেবা দিতে হাসপাতালটির কার্যক্রম শুরু হয় ৫০ বেডের আইসিইউ আর ৫০ বেডের ইমারজেন্সি নিয়ে। ইমারজেন্সির বেডগুলোও অনেকটা আইসিইউর মতোই। এছাড়া আছে হাইফ্লো নাজাল ক্যানোলা, সেন্ট্রাল অক্সিজেনসহ সব ব্যবস্থা। ১৫০টি (সিঙ্গেল) রুমের আইসোলেশন ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। এই হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ ও সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

পরিকল্পনা অনুযায়ী এই হাসপাতালে থাকবে আইসিইউ সুবিধাসহ ২১২টি বেড, এরমধ্যে ১১২টি আইসিইউ এবং ১০০টি এইচডিইউ (হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট)। এছাড়া বিশেষ সুবিধাসহ আরও থাকবে ২৫০টি বেড। কেন্দ্রীয়ভাবে অক্সিজেন দেওয়ার এবং হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলার সুবিধা থাকবে। এছাড়া ডেডিকেটেড ৪৮৮টি বেডে সিলিন্ডার এবং অক্সিজেনের ব্যবস্থা থাকবে এবং জরুরি বিভাগে ৫০টি বেড ও ডায়ালাইসিস সুবিধাসহ ৪টি বেড থাকার কথা রয়েছে। হাসপাতালটিতে চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফসহ প্রায় দুই হাজার কর্মী নিয়োগ দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে।

ডিএনসিসির এই ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসিরুদ্দিন বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সবকিছু অল্প অল্প চালু করেছি আমরা। শুক্রবার বা শনিবার নাগাদ আরও হবে। আমাদের সব ইকুইপমেন্ট এখনও তৈরি না। যেমন- আমাদের সিটি স্ক্যান মেশিন বসাতে পারিনি। এক্সরের জন্য আপাতত পোর্টেবল মেশিন দিয়ে কাজ চালাচ্ছি। ল্যাবরেটরি যেগুলো জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজন সেগুলো চালু করেছি। আমরা সবকিছু সেট করছি, এগুলো তো আগে ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু টেস্ট হয়তো বাইরে গিয়ে করার প্রয়োজন হতে পারে। তবে সেটাও আমরা এখানে চালু করতে চেষ্টা করবো।’

আইসিইউ’র রোগীদের টেস্ট করানো হচ্ছে কীভাবে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আইসিইউর রোগীদের টেস্ট এখানেই হচ্ছে। যেগুলো মেজর দরকার সেগুলো আমরা এখানেই চালু করেছি। মাত্র তিন দিন হলো তো হাসপাতালের কার্যক্রম। আমাদের কিছু কিছু টেস্ট করার প্রয়োজন পড়ে প্রগ্রেস বোঝার জন্য। সেগুলো আমরা এখানেই শুরু করছি।’  

 

/এসও/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়,  উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়, উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

পাতার রসে সারবে করোনা!

পাতার রসে সারবে করোনা!

গাছ লাগিয়ে গাছ কাটার প্রতিবাদ

গাছ লাগিয়ে গাছ কাটার প্রতিবাদ

ডিএনসিসির অভিযানে অনিয়মের খেসারত দিলেন ব্যবসায়ীরা

ডিএনসিসির অভিযানে অনিয়মের খেসারত দিলেন ব্যবসায়ীরা

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

চিকিৎসক ছাড়া চলছে দুপচাঁচিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স!

চিকিৎসক ছাড়া চলছে দুপচাঁচিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স!

প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেবে নাগরিক সমাজ

প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেবে নাগরিক সমাজ

সর্বশেষ

ব্যক্তি নয়, রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প ও সমবায় সংস্থাকে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত

ব্যক্তি নয়, রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প ও সমবায় সংস্থাকে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত

নারায়ণগ‌ঞ্জের মে‌রিনা লন্ড‌নের অ্যাসেম্বলি মেম্বার নির্বাচিত

নারায়ণগ‌ঞ্জের মে‌রিনা লন্ড‌নের অ্যাসেম্বলি মেম্বার নির্বাচিত

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

সুহিতা সুলতানা

সুহিতা সুলতানা

আপনার শুভেচ্ছা বার্তায় আমি আপ্লুত: প্রধানমন্ত্রীকে মমতা

আপনার শুভেচ্ছা বার্তায় আমি আপ্লুত: প্রধানমন্ত্রীকে মমতা

আজ বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস

আজ বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

থ্যালাসেমিয়া রোগনিয়ন্ত্রণে প্রতিরোধের কোনও বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী

থ্যালাসেমিয়া রোগনিয়ন্ত্রণে প্রতিরোধের কোনও বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী

মালদ্বীপ যাওয়ার আগে উজ্জীবিত বসুন্ধরা

মালদ্বীপ যাওয়ার আগে উজ্জীবিত বসুন্ধরা

বাড়ি দখলে মালিকের বিরুদ্ধে শকুনের 'যুদ্ধ ঘোষণা'

বাড়ি দখলে মালিকের বিরুদ্ধে শকুনের 'যুদ্ধ ঘোষণা'

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়,  উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়, উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু ৩৭ জন

পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু ৩৭ জন

যত টিকা তত পরিকল্পনা

যত টিকা তত পরিকল্পনা

কোটি কোটি টাকার ওষুধ মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পথে!

কোটি কোটি টাকার ওষুধ মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পথে!

মাস্ক ব্যবহারে সরকারের ৮ নির্দেশনা

মাস্ক ব্যবহারে সরকারের ৮ নির্দেশনা

© 2021 Bangla Tribune