X
মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ডিএনসিসি হাসপাতালের রোগীরা ল্যাব টেস্ট করান আরেক হাসপাতালে

আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১৭:২৪

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫২ বছর বয়সী সাত্তার (ছদ্মনাম) ভর্তি হয়েছেন মহাখালীতে নবনির্মিত ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালে। এখানকার চিকিৎসক তাকে কিছু পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে সেসব পরীক্ষার সবগুলোর ব্যবস্থা নেই এই হাসপাতালে। সেই পরীক্ষার জন্য তাকে যেতে হয়েছে আরেক হাসপাতালে। আর সেজন্য গুনতে হয়েছে আবারও অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া। এভাবেই চিকিৎসা নিতে এসে বিভ্রাটে পড়ছেন ডিএনসিসি হাসপাতালের রোগীরা।

সাত্তার জানান, চিকিৎসকরা তাকে সিবিসি, সিআরপি, ইসিজি, আরবিএসসহ আরও কিছু পরীক্ষার জন্য পরামর্শপত্র দিয়েছেন। তার স্ত্রী চিকিৎসকের দেওয়া কাগজটি হাতে নিয়ে বাইরে এসে খোঁজা শুরু করলেন অ্যাম্বুলেন্স। অ্যাম্বুলেন্স চালক তার হাতের কাগজ দেখেই বলে দিলেন—এগুলো করাতে যেতে হবে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া কত জিজ্ঞাসা করলে চালক জানান, অক্সিজেনসহ তিন হাজার টাকা। কিছুক্ষণ  অসহায়ের মতো তাকিয়ে থাকলেন সাত্তারের স্ত্রী। একবার শুধু জানতে চাইলেন—আরেকটু কমে যাবে কিনা। কিন্তু চালকের সোজা জবাব, না। নিরূপায় হয়েই গাড়ি তৈরি করতে বললেন রোগীর স্ত্রী।

জানতে চাইলে সাত্তারের স্ত্রী বলেন, ‘আমার স্বামীর জন্য কিছু টেস্ট দিছে ডাক্তার। কিন্তু এগুলো নাকি এখানে হয় না। তাই অন্যখানে করাতে হবে। এজন্যই অ্যাম্বুলেন্স খুঁজতেছিলাম।’

এই হাসপাতালেই ভর্তি আরেকজন বয়স্ক রোগীর সিটিস্ক্যান করার প্রয়োজন হয়। তার পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে যেতে চান কাছেই তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালে। এজন্য তাদেরও প্রয়োজন হয় অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করার। হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় কিছুটা বিরক্ত ছিল সেই রোগীর পরিবার।

ডিএনসিসির এই হাসপাতালের সেবা নিতে আসা রোগীরা বলছেন, অন্যখানে পরীক্ষা করাতে গেলে যে টাকা লাগবে, সেটা থাকলে তো আমরা প্রাইভেট হাসপাতালেই চিকিৎসা করাতে পারতাম। কম খরচের জন্য সরকারি হাসপাতালে আসা। এখন অন্য হাসপাতালে যেতে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়ার পেছনে অতিরিক্ত টাকা যাচ্ছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পরিচালনায় এই হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয় মাত্র তিন দিন আগে। ছয়তলা ভবনটি প্রায় ২২ বিঘা জায়গার ওপর তৈরি করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, পুরো হাসপাতালটিতে শুধু করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের জন্য থাকবে এক হাজার বেড। যদিও প্রাথমিকভাবে সেবা দিতে হাসপাতালটির কার্যক্রম শুরু হয় ৫০ বেডের আইসিইউ আর ৫০ বেডের ইমারজেন্সি নিয়ে। ইমারজেন্সির বেডগুলোও অনেকটা আইসিইউর মতোই। এছাড়া আছে হাইফ্লো নাজাল ক্যানোলা, সেন্ট্রাল অক্সিজেনসহ সব ব্যবস্থা। ১৫০টি (সিঙ্গেল) রুমের আইসোলেশন ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। এই হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ ও সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

পরিকল্পনা অনুযায়ী এই হাসপাতালে থাকবে আইসিইউ সুবিধাসহ ২১২টি বেড, এরমধ্যে ১১২টি আইসিইউ এবং ১০০টি এইচডিইউ (হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট)। এছাড়া বিশেষ সুবিধাসহ আরও থাকবে ২৫০টি বেড। কেন্দ্রীয়ভাবে অক্সিজেন দেওয়ার এবং হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলার সুবিধা থাকবে। এছাড়া ডেডিকেটেড ৪৮৮টি বেডে সিলিন্ডার এবং অক্সিজেনের ব্যবস্থা থাকবে এবং জরুরি বিভাগে ৫০টি বেড ও ডায়ালাইসিস সুবিধাসহ ৪টি বেড থাকার কথা রয়েছে। হাসপাতালটিতে চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফসহ প্রায় দুই হাজার কর্মী নিয়োগ দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে।

ডিএনসিসির এই ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসিরুদ্দিন বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সবকিছু অল্প অল্প চালু করেছি আমরা। শুক্রবার বা শনিবার নাগাদ আরও হবে। আমাদের সব ইকুইপমেন্ট এখনও তৈরি না। যেমন- আমাদের সিটি স্ক্যান মেশিন বসাতে পারিনি। এক্সরের জন্য আপাতত পোর্টেবল মেশিন দিয়ে কাজ চালাচ্ছি। ল্যাবরেটরি যেগুলো জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজন সেগুলো চালু করেছি। আমরা সবকিছু সেট করছি, এগুলো তো আগে ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু টেস্ট হয়তো বাইরে গিয়ে করার প্রয়োজন হতে পারে। তবে সেটাও আমরা এখানে চালু করতে চেষ্টা করবো।’

আইসিইউ’র রোগীদের টেস্ট করানো হচ্ছে কীভাবে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আইসিইউর রোগীদের টেস্ট এখানেই হচ্ছে। যেগুলো মেজর দরকার সেগুলো আমরা এখানেই চালু করেছি। মাত্র তিন দিন হলো তো হাসপাতালের কার্যক্রম। আমাদের কিছু কিছু টেস্ট করার প্রয়োজন পড়ে প্রগ্রেস বোঝার জন্য। সেগুলো আমরা এখানেই শুরু করছি।’  

 

/এসও/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৩ আগস্টের ঘটনা।)

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কমনওয়েলথ সম্মেলনে বলেছেন, উপমহাদেশে স্থায়ী শান্তির অন্বেষায় আমরা রত, স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা নীরবে নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এশিয়ার নিরঙ্কুশ শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতি ঐকান্তিক প্রচেষ্টার সাথে আমরা একাত্ম হতে চাই উল্লেখ করে বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘আমরা সেই আকাঙ্ক্ষিত আন্তর্জাতিক পরিবেশকে স্বাগত জানাই, যেখানে সংঘর্ষের পরিবর্তে প্রতিষ্ঠিত হবে পারস্পরিক সমঝোতা ও সহযোগিতা।’ উপমহাদেশের দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার জন্য বাংলাদেশের প্রচেষ্টার কথা তিনি উল্লেখ করেন।

বঙ্গবন্ধু মন্তব্য করেন, যে বাস্তবতা সেখানে পাকিস্তানের ব্যর্থতাই উপমহাদেশে সমস্যাবলীর সমাধান এবং সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পক্ষে প্রধান অন্তরায় সৃষ্টি করেছে। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কমনওয়েলথ সম্মেলনে দ্ব্যর্থহীনভাবে বলেন যে, ‘শান্তির প্রতি আমাদের অঙ্গীকার সর্বাত্মক।’ বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘এইতো সেদিন আমরা যুদ্ধের ভয়াবহ ধ্বংসের শিকার হয়েছি। জনগণের ন্যায়সঙ্গত অধিকারকে দাবিয়ে রাখার জন্য প্রচুর শক্তি প্রয়োগের বিভীষিকার অভিজ্ঞতা যে কত মর্মান্তিক, তা আমরা জানি। শান্তির পথে আমাদের অঙ্গীকার সর্বাত্মক। আর এজন্যই উপমহাদেশের দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে তোলা এবং উপমহাদেশে নিরঙ্কুশ শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে ত্রুটি রাখিনি।’

দৈনিক ইত্তেফাক, ৪ আগস্ট ১৯৭৩ বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বর্বরতার গভীর ক্ষত সত্ত্বেও আমাদের প্রচেষ্টা হলো— এই ক্ষত ভুলে যাবার জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করা।’ তিনি বলেন, ‘আমি আমার জন্মভূমিকে একথা বুঝিয়েছি যে, অতীতের দিকে নয়, তাকাতে হবে ভবিষ্যতের দিকে নতুন দিগন্তে। উপমহাদেশের অনাবিল শান্তির অন্বেষণে আমাদের কাজ করে যেতে হবে।’

দেশগুলোকে সমস্যা ভাগ করে নিতে হবে

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কমনওয়েলথ সম্মেলনে উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন— ‘‘অনুন্নত দেশগুলোর সমস্যা ও উদ্বেগের ভাগ নেওয়ার জন্য। যে প্রক্রিয়ার ফলে গোটা বিশ্ব আজ  সীমাহীন হাহাকারের এক বিক্ষুব্ধ সমুদ্রে গুটিকয় ‘সব পেয়েছি’র দ্বীপে পরিণত হওয়ার সম্মুখীন হয়েছে, সেই চরম পরিণতি থেকে বিশ্বকে রক্ষার জন্য বিশ্বের উন্নত দেশগুলোকে অনুন্নত দেশগুলো সমস্যাবলী ও উদ্বেগের ভাগ নিতে হবে।’’

বাঙালিদের আটকে রাখার ফলে পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, ‘পাকিস্তানে বাঙালিদের দিনের পর দিন অন্যায়ভাবে আটকে রাখার ফলে পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটেছে। পাকিস্তান বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি চরম ধৃষ্টতা প্রদর্শন করেছে, তার সংবিধানে বাংলাদেশকে পাকিস্তানের অংশ হিসেবে চিহ্নিত করে।’ বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘বিশ্বের অনেক দেশ বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছে, দিচ্ছে। পাকিস্তান ঠিক তখনই তার সংবিধানে বাংলাদেশকে পাকিস্তানের অংশ হিসেবে চিহ্নিত করেছে।’

অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের আহ্বান

প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের জন্য আহ্বান জানান। অস্ত্র প্রতিযোগিতা ও পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধে কমনওয়েলথ জনমত গড়ে তুলবে— এই আশা প্রকাশ করেন তিনি। তিনি কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলো সম্পর্কে প্রশ্ন রাখেন— পৃথিবীতে শান্তির পরিবেশ সৃষ্টির জন্য আমরা কি সমন্বিত প্রচেষ্টা চালাতে পারি না?’ বঙ্গবন্ধু বিশ্ব শান্তির প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন এবং বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের ঐকান্তিক আগ্রহ ও প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন। ভিয়েতনাম প্রশ্নে প্যারিস শান্তি চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন এবং কম্বোডিয়ায় অবিলম্বে বোমা বর্ষণ বন্ধের আহ্বান জানান তিনি।

ডেইলি অবজারভার, ৪ আগস্ট ১৯৭৩ গ্রামীণ জনগণের প্রতি সমর্থন

দক্ষিণ আফ্রিকা, রোডেশিয়া ও মোজাম্বিক প্রভৃতি দেশের মুক্তিকামী জনগণের প্রতি দৃঢ় সমর্থন ঘোষণা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, ‘এসব দেশের নির্যাতিত জনগণ উপনিবেশবাদী, সাম্রাজ্যবাদী ও বর্ণবৈষম্যবাদ শক্তিগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করছে। তাদের জাতীয় মুক্তির জন্য যারা মানুষের মর্যাদা ও স্বাধীনতার মূল্য দিয়ে থাকেন। এসব দেশের জনগণের সংগ্রামে তাদের সমর্থন করতে হবে। উপনিবেশবাদ ও বর্ণবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামরত নির্যাতিত মানুষের প্রতি আমাদের সমর্থন রয়েছে। বঙ্গবন্ধু মোজাম্বিকের সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের নিন্দা করেন এবং বলেন, ‘ইসরায়েল কর্তৃক অব্যাহতভাবে আরব এলাকা দখল শান্তির প্রতি এক দারুন হুমকি।’

এদিকে হাজারো কর্ম ব্যস্ততার মধ্যেও দেশবাসীর খোঁজ নেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সৈয়দ নজরুল ইসলামের সঙ্গে প্রথম সুযোগেই তিনি যোগাযোগ করেন এবং দেশ সম্পর্কে খোঁজখবর নেন। কথাবার্তা বলার সময় তিনি শিল্পমন্ত্রীকে জানান যে, তিনি ভালোই আছেন এবং ১৩ আগস্ট দেশে ফিরবেন।

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বিদেশে নিজের অবস্থান জানান দিলেন বঙ্গবন্ধু

বিদেশে নিজের অবস্থান জানান দিলেন বঙ্গবন্ধু

প্রথমবারের মতো কমনওয়েলথ সম্মেলনে যোগ দিতে অটোয়ায় বঙ্গবন্ধু

প্রথমবারের মতো কমনওয়েলথ সম্মেলনে যোগ দিতে অটোয়ায় বঙ্গবন্ধু

শোকাবহ আগস্ট

শোকাবহ আগস্ট

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

প্রবাসী কর্মীদের জন্য ঢাকায় ‘সাময়িক আবাসন’ করবে সরকার 

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০১:২৬

বিদেশগামী কর্মী কিংবা বিদেশ থেকে প্রত্যাগত কর্মীদের জন্য ঢাকায় একটি ‘সাময়িক আবাসনের’ ব্যবস্থা করবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এ ছাড়া প্রবাসী কর্মীদের জন্য ঢাকার ভাটারায় ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের জায়গায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। 

সোমবার (২ আগস্ট) রাতে তিনি এই তথ্য জানান। 

ইমরান আহমদ বলেন, আমরা বিদেশগামী কর্মী কিংবা বিদেশ ফেরত কর্মী যারা ঢাকার বাইরে থেকে আসবেন কিংবা ঢাকার বাইরে যাবেন তাদের জন্য ঢাকায় সাময়িক আবাসনের ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছি। এ ছাড়া প্রবাসী কর্মীদের পাঠানো রেমিট্যান্স থেকে কিছু টাকা রেখে এবং তার সঙ্গে সরকারের প্রণোদনা যোগ করে কীভাবে তাদের জন্য একটি সেভিংস তহবিল করা যায়- সেটা নিয়েও আমরা কাজ করছি। 

মন্ত্রী বলেন, আমরা সর্বশক্তি দিয়ে আপনাদের পাশে আছি এবং থাকবো। আমরা চাই দেশের বাইরে সৎ পরিশ্রমী কর্মীরাও সুনাগরিক হিসেবে দায়িত্বশীল হবে এবং দেশের ভাবমূর্তি বিদেশের মাটিতে আরও উজ্জ্বল করবে। যারা বিদেশ যাবেন যেকোনো কাজে জেনে বুঝে দক্ষ হয়ে যাবেন। দালালের খপ্পরে পড়ে মিথ্যা প্রলোভনে পা বাড়াবেন না। 

 

/এসও/এনএইচ/

সম্পর্কিত

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

ভ্যাকসিন উৎপাদনে সরকার, ইনসেপটা ও সিনোফার্মার মধ্যে চুক্তি শিগগিরই

ভ্যাকসিন উৎপাদনে সরকার, ইনসেপটা ও সিনোফার্মার মধ্যে চুক্তি শিগগিরই

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০০:২৪

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত টিকা দেওয়া হয়েছে মোট এক কোটি ৩৭ লাখ ৬৬ হাজার ৭৫৮ ডোজ। এরমধ্যে টিকার এক ডোজ নিয়েছেন ৯১ লাখ ৬৯ হাজার ৭৫৯ জন এবং দুই ডোজ নিয়েছেন ৪৩ লাখ ৬৭ হাজার ৯২৯ জন। এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার ও মডার্নার টিকা। সোমবার (২ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। এদিন মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ৬ হাজার ৯৭৪ ডোজ।       

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, সোমবার অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন ২০ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৭ হাজার ২৮ জন। এ পর্যন্ত অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৫৩ জন।  দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪৩ লাখ ৬ হাজার ৮৮৭ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যমতে, প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া বাকি আছে। এদের অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোনও সিদ্ধান্ত দেয়নি।  

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ কাউকে দেওয়া হয়নি এবং  দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৯১৮ জন। এ পর্যন্ত ফাইজারের টিকা দেওয়া হয়েছে মোট ৫৩ হাজার ৪২৩ ডোজ।

এছাড়া ২৭ লাখ ৪২ হাজার ১৮৬ ডোজ সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এখন পর্যন্ত। এরমধ্যে  প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ২৬ লাখ ৮৪ হাজার ৩১২ জনকে, আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৫৭ হাজার ৮৭৪ জনকে।

এ পর্যন্ত মডার্নার টিকা দেওয়া হয়েছে মোট ৮ লাখ ৪৪ হাজার ২০৯ ডোজ। এরমধ্যে সোমবার দেওয়া হয়েছে ৭৯ হাজার ৯৮৪ ডোজ।

সোমবার পর্যন্ত সারাদেশে টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন মোট ১ কোটি ৬০ লাখ ৫৮ হাজার ৫২৬ জন।

 

/এসও/এপিএইচ/এমওএফ/  

সম্পর্কিত

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

ভ্যাকসিন উৎপাদনে সরকার, ইনসেপটা ও সিনোফার্মার মধ্যে চুক্তি শিগগিরই

ভ্যাকসিন উৎপাদনে সরকার, ইনসেপটা ও সিনোফার্মার মধ্যে চুক্তি শিগগিরই

অন্তঃসত্ত্বা ও প্রসূতি মায়েদের টিকা দেওয়ার সুপারিশ পরামর্শক কমিটির

অন্তঃসত্ত্বা ও প্রসূতি মায়েদের টিকা দেওয়ার সুপারিশ পরামর্শক কমিটির

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২০:০৯

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৯৮৯ জন। রবিবার (১ আগস্ট) এ সংখ্যা ছিল ১৪ হাজার ৮৪৪ জন এবং তার আগের দিন শনিবার (৩১ জুলাই) শনাক্ত হয়েছিলেন ৯ হাজার ৩৬৯ জন। সরকারি হিসাবে দেশে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত হলেন ১২ লাখ ৮০ হাজার ৩১৭ জন।

করোনা সংক্রমণের এই ঊর্ধ্বগতিতে রাজধানী ঢাকায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৬৬০ জন, যা কিনা ৮ বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪৮ জনের মধ্যে মৃত্যুও সবচেয়ে বেশি হয়েছে এ বিভাগেই। ঢাকা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৭৬ জন। অন্য বিভাগগুলোর মধ্যে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৬৯১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে তিন হাজার ৩১৫ জন, রাজশাহী বিভাগে ৭২৪ জন, রংপুর বিভাগে ৫৭৫ জন, খুলনা বিভাগে এক হাজার ৩৭৩ জন, বরিশাল বিভাগে ৭৯৮ জন এবং সিলেট বিভাগে ৮৫৩ জন।

অপরদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪৮ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৭৬ জন,  চট্টগ্রাম বিভাগের ৬৪ জন, রাজশাহী বিভাগের ২২ জন, খুলনা বিভাগের ৩০ জন, বরিশাল বিভাগের ১৬ জন, সিলেট বিভাগের ১৪ জন, রংপুর বিভাগের ১৪ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন ১০ জন।

 

/জেএ/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

টিকা নেওয়া আক্রান্তদের ৭, না নেওয়াদের ২৩ শতাংশ হাসপাতালে: আইইডিসিআর

টিকা নেওয়া আক্রান্তদের ৭, না নেওয়াদের ২৩ শতাংশ হাসপাতালে: আইইডিসিআর

ভ্যাকসিন উৎপাদনে সরকার, ইনসেপটা ও সিনোফার্মার মধ্যে চুক্তি শিগগিরই

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২০:১৫

চীনের সিনোফার্মার সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার ও ইনসেপটার যৌথ উৎপাদনের দ্রুত চুক্তি হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। সোমবার (২ জুলাই) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘তারা (চীন) যৌথ উৎপাদনের প্রস্তাব করেছে। এ সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক তারা দিয়েছে এবং আমরা পেয়েছি। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে তা আছে। তাদের এটি সই করার কথা।’

মন্ত্রী বলেন, এটি দেরি করা ঠিক হবে না। কারণ, সই করার পরও মাস দুয়েক লাগবে। এই চুক্তিটি আহামরি কিছু না যে অনেক আইনজীবী লাগবে। যত দ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এটি শেষ করা উচিত বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘তিনটি প্রতিষ্ঠান সই করবে এবং তারা হচ্ছে ওষুধ কোম্পানি, বাংলাদেশ সরকার এবং সিনোফার্মা। ওষুধ কোম্পানিটি হচ্ছে ইনসেপটা। তারা বড় আকারে আমদানি করে এখানে বটলিংসহ অন্যান্য কাজ করবে। এটি অনেক কম দাম পড়বে। আমার আশা এটি যেকোনও মুহূর্তে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, সিনোফার্মার ৭০ লাখ টিকা আসছে এবং আরও আসবে। আজ তাদের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘তাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে যখন আলোচনা হয় তখন তিনি বলেছিলেন, টিকা সরবরাহ মসৃণ হবে। এ জন্য তারা কয়েকটা প্রস্তাব দিয়েছে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে যতটুকু দরকার সেটি যেন আগে জানানো হয়। কারণ, তাদের ওষুধের চাহিদা অনেক বেশি। আগে না বললে জোগান নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না বলে তারা জানিয়েছেন।’

/এসএসজেড/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

অন্তঃসত্ত্বা ও প্রসূতি মায়েদের টিকা দেওয়ার সুপারিশ পরামর্শক কমিটির

অন্তঃসত্ত্বা ও প্রসূতি মায়েদের টিকা দেওয়ার সুপারিশ পরামর্শক কমিটির

১ কোটি ৩১ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া শেষ

১ কোটি ৩১ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া শেষ

জাপান থেকে এলো অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় চালান

জাপান থেকে এলো অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় চালান

সর্বশেষ

১৫ মিনিট হেঁটেই দেখুন

১৫ মিনিট হেঁটেই দেখুন

লক্ষ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি দিচ্ছেন দোকান মালিকরা!

লক্ষ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি দিচ্ছেন দোকান মালিকরা!

শেষের আগেই 'শেষ' লকডাউন!

শেষের আগেই 'শেষ' লকডাউন!

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

ইউনেসকো'র বাংলাদেশ অফিসে চাকরি

ইউনেসকো'র বাংলাদেশ অফিসে চাকরি

উন্নত প্রযুক্তির নিরাপত্তা পণ্য ভালো শর্তে ক্রয়ে আগ্রহী বাংলাদেশ

উন্নত প্রযুক্তির নিরাপত্তা পণ্য ভালো শর্তে ক্রয়ে আগ্রহী বাংলাদেশ

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৪ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৪ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

বাংলাদেশের 'বিশ্বকাপ' শুরু তো আজ থেকেই!

বাংলাদেশের 'বিশ্বকাপ' শুরু তো আজ থেকেই!

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

সোমবার টিকা দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ডোজ

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় শনাক্ত ৭৬৬০ জন

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়ালো

টিকা নেওয়া আক্রান্তদের ৭, না নেওয়াদের ২৩ শতাংশ হাসপাতালে: আইইডিসিআর

টিকা নেওয়া আক্রান্তদের ৭, না নেওয়াদের ২৩ শতাংশ হাসপাতালে: আইইডিসিআর

হাসপাতাল থেকে টিকাকেন্দ্র সরানো হবে: স্বাস্থ্যের ডিজি

হাসপাতাল থেকে টিকাকেন্দ্র সরানো হবে: স্বাস্থ্যের ডিজি

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বাড়লো মৃত্যু ও শনাক্ত

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বাড়লো মৃত্যু ও শনাক্ত

সরকারকে জীবন-জীবিকা ব্যালেন্স করতে হয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সরকারকে জীবন-জীবিকা ব্যালেন্স করতে হয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune