X
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ খুঁজছে পুলিশ

আপডেট : ১৪ জুন ২০২১, ১৭:১১

কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্যে স্ত্রী-সন্তান ও এক যুবককে গুলি করে হত্যার কারণ খুঁজছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেফতার পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সৌমেন রায় জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে কিছুই জানাননি। পুলিশ সদস্য হয়েও কেন এমন ঘটনা ঘটালেন তা তদন্ত করছে পুলিশ।

রবিবার (১৩ জুন) বেলা ১১টার দিকে শহরের পিটিআই সড়কের কাস্টমস মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন কুমারখালী উপজেলার নাথুরিয়া বাশগ্রামের আমির আলীর মেয়ে সৌমেন রায়ের দ্বিতীয় স্ত্রী আসমা খাতুন (৩০), তার শিশুসন্তান রবিন (৬) ও সাঁওতা গ্রামের মেজবার খানের ছেলে বিকাশকর্মী শাকিল খান (৩৫)। আসমার বাড়ি কুমারখালীর নাথুরিয়া হলেও সন্তানকে নিয়ে কুষ্টিয়া শহরে বাবার বাড়িতে থাকতেন। তবে শাকিলের সঙ্গে আসমার সম্পর্কের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাব্বিরুল ইসলাম বলেন, এএসআই সৌমেন রায় মাগুরার বাসিন্দা। খুলনার ফুলতলা থানায় কর্মরত তিনি। জিজ্ঞাসাবাদে আসমাকে দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবি করেছেন সৌমেন। রবিন আসমার আগের ঘরের ছেলে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সৌমেনের স্ত্রী আসমার সঙ্গে বিকাশকর্মী শাকিলের কোনও সম্পর্ক কিংবা আর্থিক লেনদেনের ঝামেলা থাকতে পারে। আমরা সবগুলো বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ঘটনার তদন্ত করছি।

যা ঘটেছিল

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের কাস্টমস মোড়ে তিনতলা একটি ভবনের সামনে আসমা সন্তানকে নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। পাশে শাকিলও ছিলেন। হঠাৎ সেখানে গিয়ে সৌমেন প্রথমে আসমার মাথায় গুলি করেন। এরপর আসমার পাশে থাকা শাকিলের মাথায় গুলি করেন। ভয়ে শিশু রবিন দৌড়ে পালাতে গেলে তাকেও ধরে মাথায় গুলি করেন সৌমেন। আশপাশের লোকজন সৌমেনকে ধরতে গেলে দৌড়ে তিনতলা ভবনের ভেতরে ঢুকে যান। এরপর লোকজন জড়ো হয়ে ওই ভবন লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সৌমেন রায়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। একই সঙ্গে গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আসমাকে মৃত ঘোষণা করেন। অস্ত্রোপচার কক্ষে শাকিল ও রবিনের মৃত্যু হয়।

আসমার মা ও ভাই যা বললেন

আসমার ভাই হাসান জানান, তার বোনের আগে দুটি বিয়ে হয়েছিল। ভাগ্নে রবিন বোনের দ্বিতীয় স্বামীর সন্তান। পাঁচ বছর আগে পুলিশের এএসআই সৌমেনের সঙ্গে বোনের বিয়ে হয়। সৌমেন কয়েক মাস ধরে তার বোনকে নির্যাতন করতেন।

আসমার মা হাসিনা খাতুন বলেন, পাঁচ বছর আগে সৌমেন কুমারখালী থানায় কর্মরত ছিল। সেসময় আমরা একটি মামলায় পড়েছিলাম। সেই সূত্রে আমার মেয়ের সঙ্গে সৌমেনের পরিচয় হয়। এরপর সৌমেনের সঙ্গে বিয়ে হয়।

ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

বিকালে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে তিনজনের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে আবাসিক মেডিক্যাল কর্মকর্তা (আরএমও) তাপস কুমার সরকার বলেন, তিনজনকে দুটি করে ছয়টি গুলি করা হয়েছে। প্রত্যেকের মাথায় কাছ থেকে গুলি করা হয়েছে।

ছুটি না নিয়েই খুলনা থেকে কুষ্টিয়ায় সৌমেন

খুলনার ফুলতলা থানার এএসআই সৌমেন রায় কর্মস্থল থেকে ছুটি না নিয়েই কুষ্টিয়ায় যান। বিষয়টি তিনি সহকর্মীদেরও জানাননি। খুলনার পুলিশ সুপার (এসপি) মাহবুব হাসান জানান, ফুলতলা থানার পাশে তাজপুরে প্রথম স্ত্রী লাকী রায় ও দুই সন্তানকে নিয়ে বসবাস করেন সৌমেন। আসমা তার দ্বিতীয় স্ত্রী। ঘটনার পর লাকী রায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে আমাদের। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি অফিসিয়াল কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কে এই সৌমেন

এএসআই সৌমেনের বাড়ি মাগুরার শালিকা উপজেলার কসবা গ্রামে। তিনি ২০১৫ সালে কনস্টেবল থেকে এএসআই হন। ২০১৬ সালে কুমারখালী থানায় যোগ দেন। সেখান থেকে জেলার অন্যান্য থানায়ও কর্মরত ছিলেন। সর্বশেষ মিরপুর থানার হালসা ক্যাম্পে ছিলেন। এরপর বাগেরহাট হয়ে খুলনা ফুলতলা থানায় যোগ দেন।

সৌমেন বরখাস্ত, ঘটনা তদন্তে কমিটি

গ্রেফতারের পর এএসআই সৌমেন রায়কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুলনার পুলিশ সুপার (এসপি) মাহবুব হাসান। তিনি বলেন, সৌমেনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এরই মধ্যে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনায় খুলনা রেঞ্জ থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। খুলনা রেঞ্জের দুজন পুলিশ কর্মকর্তাসহ কুষ্টিয়ার এক পুলিশ কর্মকর্তাকে তদন্ত কমিটির সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

আরও খবর: স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা, পুলিশ কর্মকর্তা আটক

 
/এমএএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেফতার

গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেফতার

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০৩:৩২

বগুড়ার সোনাতলায় পুকুরে ডুবে দুই প্রতিবেশী শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৬ জুলাই) বিকালে উপজেলার তেকানী চুকাইনগর ইউনিয়নের পূর্ব তেকানী গ্রামে শিশু দুটি নিখোঁজ হওয়ার পর সন্ধ্যায় বাড়ির কাছের পুকুর থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

মৃত শিশুরা হলো- বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার পূর্ব তেকানী গ্রামের আসাদুল ইসলামের মেয়ে সাদিয়া খাতুন (৪) ও প্রতিবেশী মতিয়ার রহমানের ছেলে ইউসুফ আলী (৫)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকালে শিশু সাদিয়া ও শিশু ইউসুফ নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাদের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। সন্ধ্যার দিকে বাড়ির কাছে পুকুর পাড়ে সাবানের কেস ও গামছা দেখতে পাওয়া যায়। তখন সবার সন্দেহ হয়, গোসল করতে নেমে দুই শিশু পুকুরে ডুবে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে পুকুরে নেমে খোঁজ করলে দুই শিশুর নিথর দেহ পাওয়া যায়।

সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম রেজা জানান, অভিযোগ না থাকায় শিশু দুটির লাশ দাফনের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়। তাদের মৃত্যুতে গ্রামটিতে শোকের ছায়া নেমে আসে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের ৪০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের ৪০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন

ছাদ থেকে পড়ে আইনজীবীর মৃত্যু

ছাদ থেকে পড়ে আইনজীবীর মৃত্যু

কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

মধ্যনগরকে উপজেলা ঘোষণা করায় মিষ্টি বিতরণ

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০৩:১৭

প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) বৈঠকে সুনামগঞ্জ জেলার মধ্যনগর থানাকে উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে অভিনন্দন জানিয়ে মধ্যনগর বাজারে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে।

সোমবার (২৬ জুলাই) নিকারের বৈঠকে মধ্যনগর উপজেলা ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে বাজারটিতে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

মধ্যনগর বাজারের আরোগ্য ফার্মেসির সামনে মিছিল শেষে সভায় বক্তব্য দেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন নুরী, সহ-সভাপতি প্রবীর বিজয় তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক পরিতোষ সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ এবং আওয়ামী লীগের সদস্য সঞ্জীব তালুকদার টিটু।

অন্যদিকে, আনন্দ মিছিল শেষে বাজারের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আনন্দ সমাবেশ করেন মধ্যনগর উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদ ও মধ্যনগর উপজেলা বাস্তবায়ন যুব পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

এই সময় বক্তব্য রাখেন- মধ্যনগর থানা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মোবারক হোসেন তালুকদার, কুতুবউদ্দিন তালুকদার, মধ্যনগর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বিদ্যুৎ কান্তি সরকার এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল ইসলাম খান রনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০৩:০২

গাজীপুরের শ্রীপুরে গ্যাস সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডার জেরে পেট্রল ঢেলে দোকানে আগুন দেওয়ার ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ দোকানির ভাই আরিফ হোসেনের (২৪) মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনার চার দিন পর সোমবার (২৬ জুলাই) রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহতের ভাই সাখাওয়াত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আরিফ উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের উদয় খালি গ্রামের জজ মিয়ার ছেলে।  

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজ ইমতিয়াজ ভূঁইয়া বলেন, বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) রাত ৯টার দিকে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের চৌরাস্তায় ভাই ভাই ট্রেডার্স থেকে একটি গ্যাস সিলিন্ডার কেনেন তোফাজ্জল সরকার। গ্যাস সিলিন্ডারের দাম নিয়ে দোকান মালিক মোজাম্মেলের সঙ্গে তোফাজ্জলের বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে মারামারিতে জড়ান তারা। 

খবর পেয়ে তোফাজ্জলের ভাই মোফাজ্জল সরকার ও তাইজু সরকার এসে দোকানে হামলা চালিয়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে দোকান মালিক ও তার তিন ভাই অগ্নিদগ্ধ হন। এ ঘটনায় দোকান মালিক মোজাম্মেল হোসেনের ভাই তোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জনের নামে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে শ্রীপুর থানায় মামলা করেন। সোমবার রাতে অগ্নিদগ্ধ আরিফ হোসেনের মৃত্যু হয়েছে। ওই মামলা এখন হত্যা মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

ছাদ থেকে পড়ে আইনজীবীর মৃত্যু

ছাদ থেকে পড়ে আইনজীবীর মৃত্যু

বড়শি টেনে নিয়ে গেলো মাছ, উদ্ধারে নেমে মৃত্যু

বড়শি টেনে নিয়ে গেলো মাছ, উদ্ধারে নেমে মৃত্যু

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:৩২

করোনাভাইরাস রোধে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউনের মধ্যে যেকোনও জনসমাগম নিষিদ্ধ থাকলেও নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভা হলরুমে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের দুই শতাধিক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে চা-চক্রের আয়োজন করেছেন পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে সোমবার (২৬ জুলাই) বিকালে প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে এ চা-চক্রের আয়োজন করা হয়।

কাদের মির্জার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে চা-চক্র অনুষ্ঠানের চারটি ছবি আপলোড করলে, স্থানীয় সচেতন মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেন। স্থানীয়রা বলছেন, তার এ ধরনের কর্মকাণ্ড সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। একজন জনপ্রতিনিধির এমন কর্মকাণ্ডে এ ধরনের কাজে অনেকেই উৎসাহিত হবেন।

অনুষ্ঠানে নেতাকর্মীদের সমাগম

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য বুধবার (২৮ জুলাই) ভোর ৪টায় আমেরিকার উদ্দেশে উড়াল দেবেন বসুরহাটের পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বেলা ১১টায় কোম্পানীগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন। এ জন্য অনুসারীদের নিয়ে তিনি এ চা-চক্রের আয়োজন করেন।

লকডাউনে এমন অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে জানতে কাদের মির্জার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে চা-চক্র অনুষ্ঠানের পর নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে চারটি ছবি আপলোড করে কাদের মির্জা লেখেন, আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দর সঙ্গে চা-চক্রে দিকনির্দেশনামূলক আলোচনা হয়। কোম্পানীগঞ্জে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে ধৈর্য নিয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিই। আসুন, সবাই শান্তশিষ্ট কোম্পানীগঞ্জ প্রতিষ্ঠায় যে যার অবস্থান থেকে সহযোগিতা করি।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন ভঙ্গ করে এ ধরনের চা-চক্র করার কোনও সুযোগ নেই।

/এফআর/

সম্পর্কিত

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:২৭

করোনা মহামারির মধ্যে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে গত তিন মাসে ছয় হাজার ৫৬৮ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে করোনা রোগীও রয়েছেন। একই সময়ে ভারতীয় ও বাংলাদেশি মিলে ভারত গেছেন প্রায় দুই হাজার ১২০ জন।

সোমবার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, ভারতে যাওয়া যাবে সপ্তাহে সাত দিন ফেরা যাবে তিন দিন।

মুজিবুর রহমান বলেন, কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন থেকে অনাপত্তিপত্র নিয়ে গত ২৬ এপ্রিল থেকে ২৬ জুলাই পর্যন্ত অর্থ্যাৎ তিন মাসে ছয় হাজার ৫৬৮ জন বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত রয়েছেন ১৭ জন। অন্যদিকে বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ১২০ জন ভারতীয় ও বাংলাদেশি ভারতে গেছেন। তাদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আলী বলেন, ভারতফেরত যাত্রীরা নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকছেন। এসব পাসপোর্ট যাত্রীকে বেনাপোলের ১৪টি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। এছাড়া ঝিকরগাছার গাজিরদরগা, সাতক্ষীরা, নড়াইল, খুলনা, মাগুরা ও ঝিনাইদহে কয়েকটি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন রয়েছে। যাত্রীর পরিমাণ বাড়লে সেখানেও রাখা হয়।

তিনি বলেন, ভারতফেরত নারীদের নিরাপত্তায় পৃথক কোয়ারেন্টিন সেন্টার করা হয়েছে যশোর শহরের রেল রোডের জয়তী সোসাইটিতে। কোয়ারেন্টিনে নারী পুলিশ সদস্যের সঙ্গে সেখানকার নারী স্বাস্থ্যকর্মীরা দায়িত্বপালন করছেন। করোনা পজিটিভ ও গুরুতর অসুস্থদের যশোর জেনারেল হাসপাতাল ও বক্ষব্যাধিসহ অন্য হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

যেসব যাত্রী করোনায় আক্রান্ত কিংবা উপসর্গ নিয়ে দেশে ফিরছেন তাদের যশোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আলী।

/এএম/

সম্পর্কিত

রোগীকে ভর্তি না নেওয়ায় চিকিৎসককে পেটালেন স্বজনরা

রোগীকে ভর্তি না নেওয়ায় চিকিৎসককে পেটালেন স্বজনরা

রংপুরে করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

রংপুরে করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

সর্বশেষ

এবার লখনৌ অবরোধের হুঁশিয়ারি ভারতীয় কৃষকদের

এবার লখনৌ অবরোধের হুঁশিয়ারি ভারতীয় কৃষকদের

এখনই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবে না যুক্তরাষ্ট্র

এখনই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবে না যুক্তরাষ্ট্র

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

বগুড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

মধ্যনগরকে উপজেলা ঘোষণা করায় মিষ্টি বিতরণ

মধ্যনগরকে উপজেলা ঘোষণা করায় মিষ্টি বিতরণ

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সিলিন্ডারের দাম নিয়ে বাগবিতণ্ডায় দোকানে আগুন, যুবকের মৃত্যু

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

নাভালনি ও তার ঘনিষ্ঠদের ওয়েবসাইট ব্লক করলো রাশিয়া

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেফতার

গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেফতার

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১২ মৃত্যু

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১২ মৃত্যু

খুলনার চার হাসপাতালে আরও ১৪ মৃত্যু

খুলনার চার হাসপাতালে আরও ১৪ মৃত্যু

এক হাসপাতালেই ১১ মৃত্যু

এক হাসপাতালেই ১১ মৃত্যু

অলিম্পিকে অংশ নিতে দেশ ছেড়েছেন যবিপ্রবির জহির 

অলিম্পিকে অংশ নিতে দেশ ছেড়েছেন যবিপ্রবির জহির 

স্কুলশিক্ষার্থীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

স্কুলশিক্ষার্থীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

© 2021 Bangla Tribune