X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

আপডেট : ১৫ জুন ২০২১, ২২:৩৮
 
মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয়ে আছে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী। অভিযোগ উঠেছে, আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের তথ্য অনৈতিক এবং ভুলভাবে সংগ্রহ করেছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনইচসিআর)। আর এসব শরণার্থীদের ব্যক্তিগত তথ্য তাদের কোনও সম্মতি ছাড়াই মিয়ানমারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এমন গুরুতর অভিযোগ তুলেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। এ ঘটনা দ্রুত তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।
 
বিপুল সংখ্যাক রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিজ দেশ মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে দীর্ঘদিন ধরেই নেপিদোর কাছে বার্তা পাঠিয়ে আসছে বাংলাদেশ। কিন্তু প্রত্যাবাসন ইস্যুতে দীর্ঘদিন ধরেই টালবাহানা করেছে মিয়ানমার। এখনও আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। সম্ভাব্য প্রত্যাবাসন নিয়ে কাজ করছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। কিন্তু তাদের বেশি কিছু বিষয়ে গুরুতর অভিযোগ তুলে ধরেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা-এইচআরডব্লিউ।
 
এইচআরডব্লিউ'র অভিযোগ, রোহিঙ্গাদের ব্যক্তিগত তথ্য পাঠানোর প্রক্রিয়ায় ইউএনএইচসিআর তাদের প্রয়োজনীয় নীতিমালা অনুযায়ী পূর্ণাঙ্গ তথ্য প্রভাবের বিষয়টি মূল্যায়ন করেনি। কিছু ক্ষেত্রে তথ্য শেয়ারের বিষয়ে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সম্মতিও নেওয়া হয়নি। এ অবস্থায় রোহিঙ্গাদের সম্মতি ছাড়া মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার তথ্য পাঠানোর বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।
 
বাংলাদেশের কক্সবাজারসহ কয়েকটি আশ্রয়শিবিরে বহু রোহিঙ্গা শরণার্থীর নিবন্ধন করেছে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা। রোহিঙ্গাদের সেবা ও সহায়তা দেওয়ার প্রয়োজনে তাদের পরিচয়পত্র সরবরাহে এসব তথ্য সংগ্রহ করা হয়। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ তাদের প্রতিবেদনে বলছে, বাংলাদেশ সরকারের ব্যবহারের জন্য সংগৃহীত এসব তথ্য প্রতিবেশী মিয়ানমারকেও যে দেওয়া হবে তা রোহিঙ্গাদের অবগত করা হয়নি। সম্ভাব্য প্রত্যাবাসনের কথা বিবেচনায় নিয়ে মিয়ানমারের কর্তৃপক্ষকে রোহিঙ্গাদের বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে।

 

এ নিয়ে এইচআরডব্লিউ’র গবেষক বিলকিস উইলি বলেন, যেসব রোহিঙ্গার সঙ্গে কথা বলেছি, তাদের কারও কাছ থেকে সম্মতি চাওয়া হয়নি। অনেক রোহিঙ্গা আমাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।’

মানবাধিকার সংস্থাটির সংকট ও সংঘাত বিষয়ক পরিচালক লামা ফাকিহ বলেন, বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ কার্যক্রম জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার নিজস্ব নীতিমালার বিপরীত। এতে শরণার্থীদের আরও বড় ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, শরণার্থীদের বোঝার উপায় ছিল না যে ছবি, আঙুলের ছাপ ও বায়োগ্রাফিক উপাত্ত নেওয়া হচ্ছে, তা মিয়ানমারকেও দেওয়া হবে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ গত ফেব্রুয়ারি এবং এপ্রিলে ইউএনএইচসিআরের কাছে বিস্তারিত প্রশ্ন এবং এর গবেষণার ফলাফল পাঠায়। গত ১০ মে তারা ইউএনএইচসিআর-এর কাছ থেকে এর জবাব পায়। ইউএনএইচসিআর কোনও রকম ভুল বা নীতি লঙ্ঘনের বিষয়টি অস্বীকার করে জানিয়েছে যে, তারা তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রমের যাবতীয় উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করেছে এবং এ বিষয়ে সম্মতির ভিত্তিতেই কাজ করেছে। সংস্থাটির দাবি, তথ্য সংগ্রহের প্রচেষ্টার লক্ষ্য ছিল শরণার্থীদের জন্য দীর্ঘকালীন সমাধান খুঁজে বের করা এবং কোনও রোহিঙ্গা যেন ঝুঁকির মধ্যে না পড়ে, সেটি নিশ্চিত করা। ২০১৮ সালে বাংলাদেশ সরকার ইউএনএইচসিআর-এর সঙ্গে এক যৌথ নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু করে পূর্ববর্তী নিবন্ধনের সঙ্গে পরিপূরক হিসেবে যুক্ত করতে চেয়েছিল।

/এলকে/

সম্পর্কিত

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

পদত্যাগ করছেন ইউনিসেফ প্রধান হেনরিয়েটা

পদত্যাগ করছেন ইউনিসেফ প্রধান হেনরিয়েটা

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০১:২১

আফগানিস্তানে তালেবান যদি জোর করে ক্ষমতা দখল করতে চায় তাহলে তারা কখনোই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাবে না। ২৮ জুলাই বুধবার দিল্লিতে এমন মন্তব্য করেছেন ভারত সফররত মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে সঙ্গে নিয়ে এক যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। দুই মন্ত্রী জানান, তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনার মধ্যে সমাধান খোঁজাই সংকট উত্তরণের একমাত্র পথ বলে দুই দেশ বিশ্বাস করে।

যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানকে নিয়ে গঠিত যে 'কোয়াড' জোটকে নিয়ে চীন বেশ কিছুদিন ধরে আপত্তি জানিয়ে আসছে সেই প্ল্যাটফর্মেও সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও উভয় দেশ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে।

এ বছরের গোড়ার দিকে বাইডেন প্রশাসন ওয়াশিংটনে দায়িত্ব নেওয়ার পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের এটিই প্রথম ভারত সফর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিল্লি পৌঁছানোর পর বুধবার সকালে প্রথমেই তিনি ভারতের সুশীল সমাজের কয়েকজন প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন। তারপর একে দেখা করেন দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে। সবগুলো বৈঠকেই আলোচনার একটা বড় অংশজুড়ে ছিল আঞ্চলিক নিরাপত্তা তথা আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি।

পরে বিকালে দুই দেশের যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে আফগানিস্তান ইস্যুতে কথা বলেন ব্লিঙ্কেন। তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক যে গত সপ্তাহে আমরা বেশ কয়েকটি জেলা সদরে তালেবানের অগ্রযাত্রা দেখেছি। প্রাদেশিক কয়েকটি রাজধানীও তারা কব্জা করতে চাইছে। যেসব এলাকা তারা দখল করেছে সেখানে নির্যাতন চালানোরও খবর আসছে। এগুলো সত্যিই বিচলিত করার মতো। পাশাপাশি আমি এটাও বলবো, তালেবান কিন্তু বহুদিন ধরেই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চাইছে। চাইছে তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হোক এবং তাদের নেতারা যাতে দুনিয়াজুড়ে অবাধে ঘুরে বেড়াতে পারে। কিন্তু আফগানিস্তানে জোরপূর্বক ক্ষমতা দখল করতে গেলে বা নিজ দেশের মানুষের ওপর নির্যাতন করে সে লক্ষ্য পূরণ হবে না।’

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরু হলেও দেশটিতে শক্তিশালী একটি দূতাবাস ও নানা উন্নয়নমূলক ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের জোরালো প্রভাব ও উপস্থিতি থাকবে বলেও দাবি করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে তার ভারতীয় কাউন্টারপার্টের কথা থেকে স্পষ্ট, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারে ভারত হতাশ। কিন্তু এখন তারা সেই বাস্তবতা মেনে নিয়েই শান্তিপূর্ণ আলোচনার ওপর জোর দিতে চাইছে।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর বলেন, ‌‘গত ২০ বছর ধরে যেখানে একটা শক্তিশালী মার্কিন সামরিক উপস্থিতি ছিল। সেটি তুলে নেওয়া হলে অবশ্যই তার প্রভাব পড়বে, সেটা অবধরিত। কিন্তু এখন এটার ভালো-মন্দ বিচার করার সময় নয়। একটা নীতি গৃহীত হয়েছে এবং আমাদের সেটা মেনে নিয়েই চলতে হবে। সেই অনুযায়ী কূটনীতিও পরিচালিত হবে। আর এখানে আমরাসহ আফগানিস্তানের প্রায় সব প্রতিবেশী বিশ্বাস করে, হিংসার অবসান ঘটিয়ে রাজনৈতিক পথেই দেশটিতে শান্তি ফেরাতে হবে। হ্যাঁ, কোনও দেশ তার ব্যতিক্রমও আছে। কিন্তু সেই বাস্তবতাও তো নতুন কিছু নয়। বরং ২০ বছরের পুরনো।’

ভারত যেমন এখানে সরাসরি পাকিস্তানের নাম নেয়নি, তেমনি কোয়াড নিয়ে প্রশ্নের জবাবেও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একবারও চীন শব্দটি উচ্চারণ করেননি। কিন্তু এটা পরিষ্কার করে দিয়েছেন, এই জোট নিয়ে চীনের যতই আপত্তি থাকুক তাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বন্ধ হবে না।

অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, ‘কোয়াড আসলে খুবই সহজ একটা জিনিস। কিন্তু এটা আসলে যত সহজ, ঠিক ততটাই গুরুত্বপূর্ণ। চারটি সমমনা দেশ ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া একজোট হয়েছে যাতে একটি মুক্ত ও অবাধ ইন্দো-প্যাসিফিক গড়ে তোলা যায়। যাতে এই অঞ্চলের মানুষের নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করা যায়। তবে এটা কিন্তু কোনও সামরিক জোট নয়, বরং এটি আঞ্চলিক চ্যালেঞ্জগুলোর মোকাবিলায় ও আন্তর্জাতিক মূল্যবোধের প্রসারে একটি সহযোগিতার প্ল্যাটফর্ম।’

বুধাবর সকালেই দিল্লিতে তিব্বতি ধর্মগুরু দালাই লামার একজন প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করে চীনকেও একটি কড়া বার্তা দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এদিন ভারতের সুশীল সমাজের সঙ্গে ব্লিঙ্কেনের বৈঠকে আমন্ত্রিত ছিলেন দিল্লিতে দালাই লামার সাংস্কৃতিক কেন্দ্র টিবেট হাউসের প্রধান গেশে দোরজি। বৈঠক শেষে টুইটারে দেওয়া এ সংক্রান্ত পোস্টে তার ছবিও যুক্ত করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

তালেবানের বিরুদ্ধে জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতাকে হত্যার অভিযোগ

তালেবানের বিরুদ্ধে জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতাকে হত্যার অভিযোগ

রাজনীতি ছাড়ছেন ট্রাম্পের জামাই

রাজনীতি ছাড়ছেন ট্রাম্পের জামাই

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চীনের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করলো যুক্তরাষ্ট্র

চীনের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করলো যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০০:৩৭

যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশন পরিদর্শন করেছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক ‘দ্য জুলাই মিনিস্টিরিয়াল’-এ যোগদান শেষে বুধবার হাইকমিশন পরিদর্শনে যান তিনি। এ সময় সেখানকার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন মন্ত্রী।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম এবং পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন, হাইকমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ মন্ত্রীর সঙ্গে এই মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে আগামী নভেম্বর মাসে অনুষ্ঠেয় ২৬ তম জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলন বিষয়ে বাংলাদেশের প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলেন মন্ত্রী। তিনি এ উপলক্ষে আয়োজক দেশ যুক্তরাজ্যের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রাখতে সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ দেন।

পরিদর্শনকালে মন্ত্রী হাইকমিশনের মুজিব কর্নারে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে সম্মান জানান এবং দর্শনার্থী বইয়ে স্বাক্ষর করেন। উল্লেখ্য, কপ-২৬-এর সভাপতির আমন্ত্রণে মন্ত্রী পর্যায়ে ‘দ্য জুলাই মিনিস্টিরিয়াল’ সভা গত ২৫ ও ২৬ জুলাই যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়।

/এমপি/

সম্পর্কিত

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

তালেবানের বিরুদ্ধে জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতাকে হত্যার অভিযোগ

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০০:৩৪

আফগানিস্তানের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা নাজার মুহাম্মদ হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। গত ২২ জুলাই তিনি অপহরণ হন। নাজারের পরিবারের অভিযোগ, তাকে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবানের সদস্যরা হত্যা করেছে।

গত ২২ জুলাই আফগানিস্তানের এই জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা কান্দাহারের নিজ বাড়িতে থেকে নিখোঁজ হন। এরপর ২৩ জুলাই তার মৃতদেহ একটি গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে তাকে বলতে দেখা যায়, নিজ বাড়িতে ঈদ উদযাপন করছিলাম। তারপর তালেবানকে নিয়ে কৌতুক করেন তিনি। তখনই তার গালে চড় মারে কেউ। পাশ থেকে শোনা যায়, ‘এই শত্রুকে আমরা হত্যা করবো, আমরা তাকে বাঁচাতে পারবো না’।

কমেডিয়ান নাজার মোহাম্মদকে অপহরণ করে গলা কেটে হত্যা করে তালেবান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিওতে এই ঘটনার সত্যতা প্রমাণ মিলেছে। যদিও তালেবান এই অভিযোগ প্রত্যাখান করেছে।

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন ও ন্যাটোর সেনাদের প্রত্যাহারের মধ্যেই দেশটির বিভিন্ন জায়গায় নারকীয়তা চালাচ্ছে তালেবান গোষ্ঠী। নাজার মুহাম্মদ খাশা জাওয়ান নামে বেশি পরিচিতি। আফগান নিরাপত্তা বাহিনী আর বেসামরিক নাগরিকদের ওপর তালেবানের অভিযানের মধ্যেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটলো।

/এলকে/

সম্পর্কিত

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

তালেবান প্রতিনিধিদের চীন সফর, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

তালেবান প্রতিনিধিদের চীন সফর, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

রাজনীতি ছাড়ছেন ট্রাম্পের জামাই

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২৩:৩১
image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শীর্ষ উপদেষ্টা এবং জামাই জারেড কুশনার রাজনীতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন। বুধবার তার ঘনিষ্ঠদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, খুব শিগগিরই বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান চালু করতে যাচ্ছেন ইভাঙ্কা ট্রাম্পের স্বামী কুশনার।

কুশনার কোম্পানিজের সাবেক প্রধান নির্বাহী জারেড কুশনার হোয়াইট হাউজে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্টের শীর্ষ উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন। বর্তমানে তিনি অ্যাফিনিটি পার্টনারস নামের একটি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান খোলার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছেন। এর সদর দফতর হবে মিয়ামিতে।

ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে বিয়ে করা কুশনার তার নতুন প্রতিষ্ঠানের একটি কার্যালয় ইসরায়েলে খুলতে চান। এর মাধ্যমে তিনি ইসরায়েলের অর্থনীতির সঙ্গে ভারত, উত্তর আফ্রিকা এবং উপসাগরীয় এলাকার অর্থনীতির সংযোগড় ঘটাতে আঞ্চলিক বিনিয়োগ সমন্বয়ের পরিকল্পনা করছেন।

বিগত ছয় মাস ধরে মিয়ামিতে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন জারেড কুশনার। এই সময়ে নিজের হোয়াইট হাউজের অভিজ্ঞতা নিয়ে বই লিখেছেন তিনি। আশা করা হচ্ছে আগামী বছর বইটি প্রকাশ পাবে।

গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, সুদান ও মরক্কোর সঙ্গে ইসরায়েলের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি স্বাক্ষরে মধ্যস্ততা করেন জারেড কুশনার। যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো-কানাডা বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরেও ভূমিকা রাখেন তিনি।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চীনের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করলো যুক্তরাষ্ট্র

চীনের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করলো যুক্তরাষ্ট্র

এক ঘুমে হারিয়ে গেলো দুই দশক!

এক ঘুমে হারিয়ে গেলো দুই দশক!

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২২:৪৫
image

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর মানুষেরও খারাপ দিন আসে। সম্প্রতি সেরকম একটি খারাপ দিন গেছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের। এক ভিডিওতে তাকে ছাতা সামলাতে হিমশিম খেতে দেখা গেছে। দায়িত্বরত অবস্থায় মারা যাওয়া পুলিশ কর্মকর্তাদের এক স্মরণ অনুষ্ঠানে এমন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন তিনি।

ব্রিটিশ সম্প্রচারমাধ্যম স্কাই নিউজে প্রচারিত ভিডিওতে দেখা গেছে, অবাধ্য ছাতাটিকে বশে আনার চেষ্টা করছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। প্রথমে ছাতাটি খুলতে অস্বীকৃতি জানায়, পরে ধাক্কা দিয়ে খুলতে গেলে সেটি আবার উল্টে যায়। আর পাশে থেকে সেই দৃশ্য উপভোগ করেন প্রিন্স চার্লসসহ অন্য কর্মকর্তারা। এমনকি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীও হেসে ওঠেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হাসির কারণ হয়ে উঠেছে ভিডিওটি। এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, সরকার তাকে নতুন একটি ছাতা কিনে দিতে পারে। আবার অনেকেই নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া একই ধরনের ঘটনা শেয়ার করেছেন।

 

 

/জেজে/

সম্পর্কিত

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

সর্বশেষ

বাগেরহাটে পানিবন্দি হাজারো পরিবার, টর্নেডোতে বিধ্বস্ত বাড়িঘর

বাগেরহাটে পানিবন্দি হাজারো পরিবার, টর্নেডোতে বিধ্বস্ত বাড়িঘর

ক্যাম্প থেকে পালিয়ে কুড়িগ্রামে আটক ৯ রোহিঙ্গা

ক্যাম্প থেকে পালিয়ে কুড়িগ্রামে আটক ৯ রোহিঙ্গা

করোনায় আটকে আছে ত্রিদেশীয় বৈঠক

করোনায় আটকে আছে ত্রিদেশীয় বৈঠক

কিউকম ও রানার এর মধ্যে ব্যবসায়িক চুক্তি

কিউকম ও রানার এর মধ্যে ব্যবসায়িক চুক্তি

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বিলের মাঝখানে উপহারের ঘর, ডুবলো পানিতে

বিলের মাঝখানে উপহারের ঘর, ডুবলো পানিতে

নতুন রূপে ‘বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের’ পথ চলা

নতুন রূপে ‘বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের’ পথ চলা

পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৯ ওভারের ম্যাচটিও শেষ হলো না

পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৯ ওভারের ম্যাচটিও শেষ হলো না

দেয়ালেও করোনাভাইরাস, সাতক্ষীরা মেডিক্যালের ল্যাব বন্ধ

দেয়ালেও করোনাভাইরাস, সাতক্ষীরা মেডিক্যালের ল্যাব বন্ধ

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

সেই লাকী আক্তারের কণ্ঠে কন্যা ও কান্নার গল্প (ভিডিও)

সেই লাকী আক্তারের কণ্ঠে কন্যা ও কান্নার গল্প (ভিডিও)

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেখভালে জাতিসংঘ-সরকার একমত

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেখভালে জাতিসংঘ-সরকার একমত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

চলতি বছরে আফগানিস্তানে রেকর্ড সংখ্যক হতাহত: জাতিসংঘ

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

পদত্যাগ করছেন ইউনিসেফ প্রধান হেনরিয়েটা

পদত্যাগ করছেন ইউনিসেফ প্রধান হেনরিয়েটা

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

রাশিয়ার কাছ থেকে ২০ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে মিয়ানমার

রাশিয়ার কাছ থেকে ২০ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে মিয়ানমার

করোনার পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছেন সু চি

করোনার পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছেন সু চি

মিয়ানমারে শান্তি ফেরাতে নিজেদের অবস্থান জানালো রাশিয়া

মিয়ানমারে শান্তি ফেরাতে নিজেদের অবস্থান জানালো রাশিয়া

শহরে ঢুকে ২৫ জনকে হত্যা করলো মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী

শহরে ঢুকে ২৫ জনকে হত্যা করলো মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী

ফের মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

ফের মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

৬০০ কোটি ডলার বরাদ্দ পাচ্ছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন

৬০০ কোটি ডলার বরাদ্দ পাচ্ছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন

© 2021 Bangla Tribune