X
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়াতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

আপডেট : ১৬ জুন ২০২১, ১৮:৪৮

স্বাধীন সার্বভৌম ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি বাংলাদেশের অকুণ্ঠ সমর্থনের বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। একই সঙ্গে তিনি দেশটির জনগণের জন্য মুসলিম বিশ্বের প্রতি ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার আহ্বান করেছেন। তিনি বলেন, ‘পুরো বিশ্ব যখন জীবন ও জীবিকার মারাত্মক ক্ষতির সঙ্গে ধ্বংসাত্মক মহামারির মধ্য দিয়ে চলছে, তখন ফিলিস্তিনে আমাদের ভাই-বোনেরা মানবসৃষ্ট দুর্যোগের মুখোমুখি হয়েছেন। তারা আমাদের কাছ থেকে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা আশা করছেন।’

বুধবার (১৬ জুন) ‘দ্বিতীয় ওআইসি সামিট অন সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে’ বঙ্গভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

মুসলিম দেশগুলোর শীর্ষ সংগঠন ওআইসির আয়োজনে এবারের সম্মেলনের মূল্য প্রতিপাদ্য ‘সায়েন্স, টেকনোলজি অ্যান্ড ইনোভেশন: ওপেনিং নিউ হরাইজন।’

২০১৭ সালে প্রথমবার এই সামিট অনুষ্ঠিত হয় কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায়, যার বর্তমান নাম নুর সুলতান। ওই আয়োজনে যোগ দেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ইসরায়েলি দখলদার বাহিনীর বারবার আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশ দুর্গত এবং ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছে।’

রোহিঙ্গা ইস্যু বাংলাদেশ, ওআইসি এবং বিশ্বের জন্য ক্রমাগত উদ্বেগের বিষয় উল্লেখ করে আবদুল হামিদ বলেন, ‘আমি ওআইসি ভ্রাতৃত্ব ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারের এই সমস্যা সমাধানের  আহ্বান জানাচ্ছি, যাতে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী সুরক্ষা এবং মর্যাদার সঙ্গে নিজ দেশে ফিরে যেতে পারে।’

বাংলাদেশ বৈজ্ঞানিক গবেষণা, টেকসই ও পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তিতে গুরুত্ব দেয় উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি মুসলিম বিশ্বকে বিজ্ঞানভিত্তিক জীবন গ্রহণের আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বুদ্ধিবৃত্তিক নেতৃত্ব ফিরিয়ে আনতে আমাদের বিজ্ঞানভিত্তিক জীবন গ্রহণ করতে হবে। বৈজ্ঞানিক জ্ঞান ও আবিষ্কারের নতুন ক্ষেত্র উন্মোচিত করতে হবে। সুসংহত ও একনিষ্ঠভাবে গবেষণায় মনোনিবেশ করতে হবে। যাতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের বাস্তবতায় আমরা এগিয়ে থাকতে পারি।’

রাষ্ট্রপতি দারিদ্র্য বিমোচন ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে ‘গেইম চেঞ্জার’ উল্লেখ করে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোকে এ ক্ষেত্রে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।

কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট কাশিম-জোমার্ট তোকায়েভ, ওআইসি মহাসচিব ইউসেফ বিন আহমদ আল- ওসাইমিনসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা সম্মেলনে বক্তব্য দেন।

সম্মেলনের শুরুতে ওআইসি সামিট অন সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির নতুন চেয়ারম্যান সংযুক্ত আরব আমিরাতকে দায়িত্ব হস্তান্তর করে কাজাখস্তান।

/ইএইচএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৩১ জুলাইয়ের ঘটনা।)

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পাঁচ দিন যুগোস্লাভিয়া সফর শেষে ঢাকা ও বেলগ্রেড থেকে যুগপতভাবে প্রকাশিত এক যুক্ত ইস্তেহারে সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে এবং পারস্পরিক আলোচনার মাধ্যমে উপমহাদেশে সকল অমীমাংসিত সমস্যা সমাধানের আহ্বান জানানো হয়। ইশতেহারে উল্লেখ করা হয় যে, যুগোস্লাভিয়া প্রধানমন্ত্রী ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর উদ্ভূত সমস্যাগুলো সমাধানে বাংলাদেশের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং তিনি মনে করেন, বাংলাদেশ উপমহাদেশের মানবিক সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, সেগুলো উপমহাদেশে স্থায়ী শান্তি জন্য সুনির্দিষ্ট ও গঠনমূলক পদক্ষেপ।

এতে উল্লেখ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান উপমহাদেশের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন এবং পাকিস্তানের জোর করে আটকে রাখা বাঙালিদের অবস্থার অবনতির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। বঙ্গবন্ধু উল্লেখ করেছেন শান্তির প্রতীক বাংলাদেশের গভীর আগ্রহের কথা। উপমহাদেশের সকল অমীমাংসিত সমস্যা সমাধান এবং উপমহাদেশে স্বাভাবিক সম্পর্ক ফিরিয়ে আনা ও স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য বাংলাদেশ সরকার যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন তার উল্লেখ করা হয় এতে। উভয়ই পক্ষের মধ্যে অনুষ্ঠিত ব্যাপকভিত্তিক আলোচনার কথা উল্লেখ করা হয়।

১ আগস্ট, ১৯৭৩ সালের পত্রিকার একাংশ এতে বলা হয়, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং যুগোস্লাভিয়া প্রধানমন্ত্রী বিয়েদিস আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে উত্তেজনা হ্রাস এবং আলোচনা পদ্ধতিকে স্বাগত জানান। এ প্রসঙ্গে ইউরোপের যে বাস্তব ফল পাওয়া গেছে প্রধানমন্ত্রীদ্বয় তার উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রী যুদ্ধের অবসান ও ভিয়েতনাম-লাওস শান্তি স্থাপন এবং ভিয়েতনামে জনগণের স্বাধীন-সার্বভৌমভাবে নিজেদের সমস্যা সমাধানের উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টির জন্য যে অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে তাকে স্বাগত জানান। প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, উত্তেজনা হ্রাস এবং আলোচনার পদ্ধতি বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলেও সম্প্রসারিত হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বিয়েদিস উল্লেখ করেন, উত্তেজনা হ্রাস করার জন্য বিশ্বের বৃহৎ শক্তিবর্গের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন গুরুত্বপূর্ণ। তারা আরও গুরুত্ব আরোপ করেন যে, উত্তেজনা হ্রাস ও আলোচনার প্রক্রিয়া জন্য উল্লেখযোগ্য আন্তর্জাতিক প্রশ্নের সমাধানে সব রাষ্ট্রের পূর্ণ ও সমান অংশগ্রহণ একান্ত জরুরি।

টিটো ঢাকায় আসবেন

যুগোস্লাভিয়ার প্রেসিডেন্ট টিটো বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই আমন্ত্রণ জানান। প্রেসিডেন্ট টিটো ও ম্যাডাম টিটো কোনও এক সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশে সফরে আসবেন। যুগোস্লাভিয়ায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ দিন রাষ্ট্রীয় সফর শেষে যুক্ত ইস্তেহারে এ কথা বলা হয়। বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও তার নিজের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু প্রেসিডেন্ট ও ম্যাডাম টিটোকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। প্রেসিডেন্ট টিটোও বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবু সাঈদ চৌধুরীকে যুগোস্লাভিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানান।

১ আগস্ট, ১৯৭৩ সালের পত্রিকার একাংশ ১৮ আগস্ট দিল্লিতে আবার বৈঠক

ভারত ও পাকিস্তান সে বছর ১৮ আগস্ট নয়াদিল্লিতে তাদের আলোচনা পুনরায় শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়। দূত পর্যায়ে বৈঠকের সময় কতিপয় সমস্যা দেখা দিয়েছে এবং এসব সমস্যা উভয় পক্ষেরই আরও বিবেচনা করে দেখার প্রয়োজন বলে তারা আলোচনা মুলতবি রাখতে রাজি হয়েছে। প্রকাশিত এক যুক্ত বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়।

১৯৭১ সালের বিরোধ থেকে উদ্ভূত মানবিক সমস্যাগুলোর ওপর সপ্তাহব্যাপী আলোচনা শেষে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, আলোচনায় উভয় পক্ষেরই পারস্পরিক সমঝোতা পরিলক্ষিত হয়েছে। আগস্টে নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত শেষ বৈঠকের পর সিমলা চুক্তি বাস্তবায়নের অগ্রগতি উভয়পক্ষই পর্যালোচনা করবে। উভয়পক্ষ ১৭ এপ্রিল প্রকাশিত ভারত-বাংলাদেশ যৌথ ঘোষণার অন্তর্ভুক্ত মানবিক সমস্যাবলী নিয়ে আলোচনা করে। পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, এ দিন সকালে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়ে উভয়পক্ষ ১৮ আগস্ট দিল্লিতে পাক-ভারত আলোচনা শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়।

/আইএ/

সম্পর্কিত

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৯:৪৮

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ প্রকোপ কমাতে সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। এসময় সবধরনের শিল্পকারখানা বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। তবে সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই রবিবার (১ আগস্ট) থেকে পোশাক কারখানা খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে ৫ আগস্টের আগে ঢাকার বাইরের শ্রমিকদের পোশাক কারখানায় যোগ দেওয়ার কোনও বাধ্যবাধকতা নেই বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তিনি বলেন, ‌‌‘এ ক্ষেত্রে শ্রমিকদের চাকরি চলে যাওয়া নিয়ে কোনও চিন্তা করতে হবে না।’

শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাতে একাত্তর টেলিভিশনের নিয়মিত অনুষ্ঠান-একাত্তর জার্নালে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে যুক্ত অতিথিদের প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘পোশাক কারখানার মালিকদের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। তারা বলেছেন, শুধু ঢাকায় অবস্থানরত শ্রমিকরা কারখানায় যোগদান করবে। ঢাকার বাইরে থেকে কেউ আসবে না। কোনও গণপরিবহন চলবে না। ঢাকার বাইরের শ্রমিকরা যে যেখানে আছে সে সেখানেই থাকবে। ৫ আগস্টের পর শ্রমিকরা পর্যায়ক্রমে কারাখানায় আসবে এবং কাজে যোগ দেবে। কারো চাকরি হারানোর ভয় নেই।’ 

কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে কেন কারখানা খুলে দেওয়া হলো এমন প্রশ্নের জবাবে ফরহাদ হোসেন বলেন, ‌‘আমাদের ‌অর্থনীতির কথাও ভাবতে হবে। রফতানিমুখী শিল্পের মধ্যে গার্মেন্টস অন্যতম। ৪০ থেকে ৫০ লাখ শ্রমিক এ খাতে কাজ করে। বাইরে থেকে অর্ডার নিতে হয়। অর্ডার বন্ধ হয়ে গেলে শিল্প ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। অসংখ্য মানুষ কাজ হারাবে। অর্থনীতিতে এর একটা প্রভাব পড়বে।’

তিনি বলেন, ‘‌আমরা সবসময় চ্যালেঞ্জের মধ্যে আছি। চ্যালেঞ্জ নিয়েই আমাদের কাজ করতে হচ্ছে।’

/আইএ/

সম্পর্কিত

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০২:০০

অস্ট্রিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং ভিয়েনাস্থ জাতিসংঘের সংস্থাসমূহ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মুহাম্মদ আবদুল মুহিত ভিয়েনায় এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশসমূহের গ্রুপ (এপিজি)-এর সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভিয়েনায় জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থাসমূহ ও অন্যান্য বৈশ্বিক প্রক্রিয়ায় ৫৪ সদস্য রাষ্ট্রের অনন্য ও বৈচিত্র্যময় এই গ্রুপের অবস্থান সমন্বয়ের ক্ষেত্রে গ্রুপটির সভাপতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

ওয়েবিনারে অতিথিরা একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশ সদ্য সাবেক সভাপতি আফগানিস্তানের কাছ থেকে সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহণ করে। সেখানে ভিয়েনায় নিযুক্ত এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশসমূহের স্থায়ী প্রতিনিধিগণ এবং অন্যান্য কূটনীতিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মুহিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি), জলবায়ু পরিবর্তন রোধ, পারমাণবিক প্রযুক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহার, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্প উন্নয়ন, সন্ত্রাস মোকাবিলা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ, দুর্নীতি দমন এবং চলমান করোনা মহামারি মোকাবিলা ও কোভিড-পরবর্তী সবুজ পুনরুদ্ধারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশসমূহের স্বার্থ সংরক্ষণে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।     

 

 

 

/এসএসজেড/আইএ/

সম্পর্কিত

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২০:৩৮

নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) মন্ত্রী ঢাকায় তার সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।  

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কিছু আইপি টিভি অনেক সময় গুজব রটানোতে যুক্ত হয়, অসত্য তথ্য পরিবেশন ও ভাঁড়ামোতে লিপ্ত হয়। আবার দেখা যায় অনুমোদন পাবার আগেই কেউ কেউ টেলিভিশন চ্যানেলের মতো অফিস খুলে বসেছে, জেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দিচ্ছে। এসব বিষয়কে একটা নিয়মনীতির মধ্যে আনা প্রয়োজন।’ 

দেশব্যাপী ব্যাঙের ছাতার মতো আইপি টিভি খুলে যার যেমন ইচ্ছে তেমন করবে, সেটা কখনও আইনসম্মত বা বাঞ্ছনীয় নয় উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘ভালো মানের আইপি টিভি অনুমোদন পাবে এবং যেগুলোর বিষয়ে নানা অভিযোগ আছে, সেগুলো খতিয়ে দেখে সহসাই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ 

সম্প্রচারমন্ত্রী জানান, মন্ত্রণালয় আইপি টিভিগুলোর কাছ থেকে রেজিস্ট্রেশনের জন্য দরখাস্ত আহ্বান করেছিল। প্রায় পাঁচ শতাধিক দরখাস্ত জমা পড়েছে এবং সেগুলো যাচাই-বাছাইয়ের কাজও আমরা গুছিয়ে এনেছি। যেগুলোর মান ভালো, সেগুলোর রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে। 

এ সময় জয়যাত্রা নামের আইপি টিভি পরিচালনাকারী হেলেনা জাহাঙ্গীর সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ফাঁকফোকর দিয়ে দলের উপ-কমিটিতে এ ধরনের কারও ঢোকা সমীচীন হয়নি। এদের কমিটিতে রাখার বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া প্রয়োজন ছিল। যারা সুপারিশ করেছেন, তাদেরও আরও জানা-শোনার দরকার ছিল। তার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং তার আইপি টিভির বিষয়ে অভিযোগগুলো আমরা খতিয়ে দেখবো। সত্যতা পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’  

তথ্যমন্ত্রী এরপর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস এবং বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজারের সঙ্গে দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের নানাদিক নিয়ে আলোচনা করেন।

 

/ইএইচএস/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

করোনায় আরও ২১২ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৮৬২

করোনায় আরও ২১২ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৮৬২

করোনায় আরও ২১২ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৮৬২

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৮:৫১

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২১২ জন। এছাড়া একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৮৬২ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃত্যু ২০ হাজার ৪৬৭ জন এবং শনাক্ত হয়েছে ১২ লাখ ৪০ হাজার ১১৫ জন। 

শুক্রবার (৩০ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এদিন সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৯৭৫ জন এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১০ লাখ ৬৪ হাজার ১৯৫ জন। 

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪৮ হাজার ৫৬৮টি। অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৫ হাজার ৪৪টি। এখন পর্যন্ত ৭৭ লাখ ৯ হাজার ৯১৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। 

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ৩০ দশমিক ৭৭ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ০৮ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৮১ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৬৫ শতাংশ। 

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ১১৯ জন পুরুষ এবং নারী ৯৩ জন। এখন পর্যন্ত পুরুষ ১৩ হাজার ৮৬৯ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন ৬ হাজার ৫৯৮ জন। 

বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায় যায়, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ৬ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৩২ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৬৯ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৪৮ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ২৫ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৫ জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ জন মারা গেছেন। 

বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৬৫ জন, চট্টগ্রামে ৫৩ জন, রাজশাহীতে ১৩ জন, খুলনায় ৩৬ জন, বরিশালে ১১ জন, সিলেটে ১৭ জন, রংপুরে ৯ জন এবং ময়মনসিংহে ৮ জন।

২৪ ঘণ্টায় সরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ১৫৪ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৪৮ জন, বাসায় ৯ জন। হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে মারা গেছেন ১ জন।

/এসও/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

সর্বশেষ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ১৬ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ১৬ জনের মৃত্যু

করোনায় চট্টগ্রামে আরও ৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৭৪২

করোনায় চট্টগ্রামে আরও ৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৭৪২

কক্সবাজারে নেমে যাচ্ছে বন্যার পানি, খাদ্য সংকট

কক্সবাজারে নেমে যাচ্ছে বন্যার পানি, খাদ্য সংকট

ইসলামপুরে লকডাউনেও পশুর হাট

ইসলামপুরে লকডাউনেও পশুর হাট

টিকার টার্গেট এক কোটি, তবে পরিকল্পনায় আসতে পারে পরিবর্তন

টিকার টার্গেট এক কোটি, তবে পরিকল্পনায় আসতে পারে পরিবর্তন

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আরও এক মামলা

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আরও এক মামলা

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

৭৮ বছর বয়সে টিকটকে ভাইরাল

৭৮ বছর বয়সে টিকটকে ভাইরাল

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

গাদ্দাফির ছেলে জীবিত, প্রেসিডেন্ট হওয়ার ইঙ্গিত!

গাদ্দাফির ছেলে জীবিত, প্রেসিডেন্ট হওয়ার ইঙ্গিত!

ওমান উপকূলে জাহাজে হামলায় ইরান দায়ী: ইসরায়েল

ওমান উপকূলে জাহাজে হামলায় ইরান দায়ী: ইসরায়েল

সিনহা হত্যা: সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ

সিনহা হত্যা: সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

সার্বভৌম ক্ষমতার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের আহ্বান

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

মাল্টার জেলে বন্দি ১৬৫ বাংলাদেশির ভাগ্যে কী আছে?

মার্কিন সিনেটর মেনেন্দেজের সাথে সালমান এফ রহমানের বৈঠক

মার্কিন সিনেটর মেনেন্দেজের সাথে সালমান এফ রহমানের বৈঠক

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune