X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

শক্তিশালী শেয়ার বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়ছে

আপডেট : ১৮ জুন ২০২১, ১৭:০১

২০২০ সালের শুরুতেও পুঁজিবাজার ছিল হতাশার। সেই বাজার এখন শুধু ঘুরে দাঁড়াতেই শুরু করেনি, একটি শক্তিশালী পুঁজিবাজার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে অনেক পরিবর্তন এসেছে এই বাজারে। সুশাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চলছে প্রায় এক বছর ধরে। দুর্বলতাগুলোও ধীরে ধীরে দূর হচ্ছে। শেয়ার বাজার যে শক্ত ভিত্তির ওপরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, তার প্রমাণ মেলে বিএসইসির সর্বশেষ নেওয়া সিদ্ধান্তেই। বৃহস্পতিবারের (১৭ জুন) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের বেঁধে দেওয়া সর্বনিম্ন দাম বা ফ্লোর প্রাইস তুলে নেওয়া হয়েছে।

শেয়ারের দামের ভয়াবহ পতন ঠেকাতে গত বছরের ১৯ মার্চ তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর ফ্লোর প্রাইস আরোপ করা হয়। যাতে বেঁধে দেওয়া ওই সীমার নিচে কোনও শেয়ার নামতে না পারে।

এভাবে গত বছরের মার্চে শেয়ার বাজারের ভয়াবহ পতন থামিয়েছিল বিএসইসির তৎকালীন কমিশন। ওই কমিশনে চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন এম খায়রুল হোসেন। ফ্লোর প্রাইস আরোপের আগে ১৮ মার্চ দেশের প্রধান শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স নেমেছিল ৩ হাজার ৬০০ পয়েন্টে। এর কিছুদিনের মধ্যেই বিএসইসির নেতৃত্বেও বদল আসে। খায়রুল হোসেনের বিদায়ের পর বিএসইসির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে আসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলাম। নতুন নেতৃত্ব দায়িত্ব নেওয়ার পর শেয়ার বাজার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে।

শুধু তাই নয়, গত রবিবার (৬ জুন) বিগত সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে শেয়ার বাজারে সর্বোচ্চ লেনদেনের রেকর্ড হয়। তিন দিন পর বুধবার (৯ জুন) সেই রেকর্ড ভেঙে আরও উচ্চতায় উঠে। এদিন ইতিহাসের সর্বোচ্চ লেনদেনের কাছাকাছি চলে আসে। এর আগে ২০২০ সালে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে রেকর্ড পরিমাণ অর্থ উত্তোলন করেছেন উদ্যোক্তারা।

এ প্রসঙ্গে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দেশের বিনিয়োগ পরিস্থিতি যতদিন উন্নতি না হবে, ততদিন মানুষ শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করবে। তবে বাজারে যদি সুশাসন প্রতিষ্ঠিত করা সম্ভব হয়, সে ক্ষেত্রে শেয়ার বাজার একদিন শক্তিশালী বাজার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।’ 

এদিকে টানা ৯ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর গেল সপ্তাহে দেশের শেয়ার বাজারে কিছুটা দরপতন হয়েছে। এতে প্রধান শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা কমে গেছে।

গেল সপ্তাহে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবসই শেয়ার বাজারে দরপতন হয়। সেইসঙ্গে কমেছে সবকটি মূল্যসূচক। পাশাপাশি লেনদেনের গতিও কমেছে।

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৮ হাজার ১৩৪ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ৯ হাজার ৯৩৭ কোটি টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ১ হাজার ৮০৩ কোটি টাকা। আগের ৯ সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন বাড়ে ৫০ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা। এই হিসাবে অর্ধলাখ কোটি টাকার ওপরে বাড়ার পর ডিএসই’র বাজার মূলধন দুই হাজার কোটি টাকার মতো কমেছে।

এদিকে, গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসই’র প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১৩ দশমিক ৮৯ পয়েন্ট বা দশমিক ২৩ শতাংশ। আগের ৯ সপ্তাহ শেয়ার বাজার টানা ঊর্ধ্বমুখী থাকায় সূচকটি বাড়ে ৮১১ দশমিক ৮৬ পয়েন্ট। প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহজুড়ে কমেছে বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ এর সূচক। গেল সপ্তাহে এই সূচকটি কমেছে ৮ দশমিক শূন্য ৪ পয়েন্ট । আগের সপ্তাহে সূচকটি বেড়েছিল ১ দশমিক ৫১ পয়েন্ট।

অপরদিকে, ইসলামি শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচকও গত সপ্তাহে কমেছে। গত সপ্তাহে সূচকটি কমেছে ৮ দশমিক ৫৫ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ৬ দশমিক ৩১ পয়েন্ট।

সবকটি মূল্যসূচকের পতনের পাশাপাশি গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন অংশ নেওয়া বেশি সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে দাম বেড়েছে ১৪৮টি শেয়ারের দাম। দাম কমেছে ২১০টির। আর ১৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৯৫৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৪৩৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ৪৭৭ কোটি ৯১ লাখ টাকা। গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৯ হাজার ৭৯৮ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ১২ হাজার ১৮৮ কোটি ২৩ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ২ হাজার ৩৮৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বিদায়ী সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৪৪৪ কোটি ৮৪ লাখ ৮২ হাজার ২৩২ টাকা। এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৫২৭ কোটি ৪৫ লাখ ৮৯ হাজার ২৫৩ টাকা। লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৪২টির, কমেছে ১৭৬টির, আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। এতে সিএসইর প্রধান সূচক ১৫ পয়েন্ট কমে ১৭ হাজার ৫৭০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

টিসিবির ‘ট্রাকসেল’ সোমবার থেকে ফের শুরু

টিসিবির ‘ট্রাকসেল’ সোমবার থেকে ফের শুরু

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:৩৪

দারিদ্র্য বিমোচন, ক্ষুধামুক্তি এবং গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নের উদ্দেশ্যে পল্লী অঞ্চলে পর্যাপ্ত কৃষি ঋণ প্রবাহ বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন বাড়াতে চায় বাংলাদেশ ব্যাংক। 

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) নতুন কৃষিঋণ নীতিমালা ঘোষণা করেছে। নতুন এই মুদ্রানীতিতে এই তিনটি বিষয়কে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

নতুন অর্থবছরের জন্য কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালায় চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে কৃষকদের জন্য ২৮ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা ঋণ বরাদ্দ রেখেছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। যা আগের অর্থবছরের বরাদ্দের চেয়ে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা বেশি।

নী‌তিমালায় বলা হয়, করোনা মহামারির কারণে সৃষ্ট আর্থিক সংকট মোকাবিলায় এবং সরকারের কৃষি ও কৃষকবান্ধব নীতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দেশের টেকসই উন্নয়নের নির্ধারিত লক্ষ্যের কৃ‌ষি ও পল্লীঋণ নীতিমালায় তিনটি বিষয় জোর দেওয়া হয়েছে। এগুলো হলো দারিদ্র্য বিমোচন, ক্ষুধামুক্তি এবং গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নের উদ্দেশ্যে পল্লী অঞ্চলে পর্যাপ্ত কৃষিঋণ প্রবাহ বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন বাড়ানো। 

চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশ ব্যাংকের বার্ষিক কৃষি ও পল্লীঋণ বিতর‌ণের লক্ষ্য ঠিক ক‌রে‌ছে ২৮ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা। যা গত অর্থবছরের চেয়ে ৭ দশমিক ৯৮ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছর কৃষিঋণের লক্ষ্য ছিল ​২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকা।

এ নীতিমালায় আওতায় সোনালি মুরগী ও মহিষ এবং গাড়ল পালনের জন্য ঋণ দেওয়া হবে। কৃষিঋণের সুদহার ৮ শতাংশ।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, কৃষি ও পল্লী ঋণের ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনায় চলতি অর্থবছরে রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকসমূহের জন্য ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা এবং বেসরকারি ও বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ ১৭ হাজার ৩৪৬ কোটি টাকা কৃষি ও পল্লীঋণ বিতরণ করবে।  

গত ২০২০-২১ অর্থবছরে ব্যাংকসমূহ ২৫ হাজার ৫১১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা কৃষি ও পল্লীঋণ বিতরণ করেছে। যা লক্ষ্যমাত্রা ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকার ৯৭ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ।

গত অর্থবছরে মোট ৩০ লাখ ৫৫ হাজার ১৬৬ জন কৃষিঋণ পেয়েছেন। যার মধ্যে ব্যাংকসমূহের নিজস্ব নেটওয়ার্ক ও এমএফআই লিংকেজের মাধ্যমে ১৬ লাখ পাঁচ হাজার ৯৪৭ জন নারী প্রায় নয় হাজার ২৮৭ কোটি ৯৬ লাখ টাকা কৃষি ও পল্লীঋণ পেয়েছেন। একই অর্থবছরে ২২ লাখ ৪৫ হাজার ৫১২ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষি বিভিন্ন ব্যাংক থেকে প্রায় ১৭ লাখ ৬৩৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছেন এবং চর, হাওর প্রভৃতি অনগ্রসর এলাকার সাত হাজার ৭৯৬ জন কৃষক প্রায় ৩৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা কৃষি ও পল্লীঋণ পেয়েছেন।

 

/জিএম/এনএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:২৩

আবারও কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিবের কাছে আবেদন জানিয়েছে গার্মেন্টস মালিকরা। তারা সব ধরনের শিল্প-কারখানা খুলে দিতে সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক করে ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা এই দাবি জানান।

এর আগে গত ১৫ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সঙ্গে দেখা করে চিঠি দিয়ে শিল্প-কারখানা খোলা রাখার অনুরোধ জানিয়েছিলেন তারা।

মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সঙ্গে কথা বলে বেরিয়ে যাওয়ার সময় বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘আমরা ক্যাবিনেট সচিবের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলাম, সব ব্যবসায়ীর পক্ষ থেকে। এই যে লকডাউনটা আছে, এটা থেকে যেন সমস্ত ধরনের শিল্পকে কাজ করতে সুযোগ দেওয়া হয়। এটাই আমরা উনার কাছে অনুরোধ করতে আসছি।’

ফারুক হাসান জানিয়েছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর কাছে উনার (মন্ত্রিপরিষদ সচিব) মাধ্যমে এই অনুরোধটা আমরা করেছি। তিনি (মন্ত্রিপরিষদ সচিব) বলেছেন, উনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন। কথা বলে এই ডিসিশানটা খুব তাড়াতাড়ি দেবেন। করোনা পরিস্থিতি, সংক্রমণ, মৃত্যু সবকিছু মাথায় নিয়ে সরকারের কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছে। সরকার এটা বিবেচনা করবে বলে আমরা আশা করি।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৩ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ দিয়েছে সরকার। এই বিধিনিষেধ চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত। বিধিনিষেধে খাদ্যপণ্য উৎপাদন-প্রক্রিয়াকরণ, চামড়া পরিবহন-সংরক্ষণ ও ওষুধ খাত ছাড়া সব শিল্প-কারখানা বন্ধ রয়েছে।

 

/এসআই/এনএইচ/

সম্পর্কিত

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:০১

কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্টের নামের সঙ্গে মিল রেখে সারাদেশে খোলা হয়েছে অসংখ্য রেস্টুরেন্ট। আর ফেসবুকে খোলা হয়েছে অর্ধশতাধিক পেজ। এতে করে মূল কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্টের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছন প্রকৃত কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষ সেসব পেজের তালিকা কুটুমবাড়ির ফেসবুক পেজে প্রকাশ করে বিচার চেয়েছেন। 

কুটুমবাড়ির ফেসবুক পেজে গিয়ে দেখা যায় (বৃহস্পতিবার দুপুরে) পেজটির ফলোয়ারের সংখ্যা ৫ লাখ ২১ হাজার ৩৯৬।  পেজ থেকে বিভিন্ন সময় ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে পোস্ট দিয়েও এর প্রতিকার চাওয়া হয়েছে। 

কুটুমবাড়ি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাজী খালেদ ইবনে মোহাম্মদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্টের কপিরাইট পেয়েছি ২০১২ সালে, ট্রেডমার্ক নিবন্ধন করিয়েছি ২০১৩ সালে। তারপরও কুটুমবাড়ির নামে সারাদেশে রেস্টুরেন্ট চালু করা হয়েছে। সেইসব রেস্টুরেন্টের নামে ফেসবুকে পেজও খোলা হয়েছে। ফেসবুক বরাবর আমরা কপিরাইট, ট্রেডমার্ক নিবন্ধনের কপি পাঠিয়েছি, অভিযোগ করেছি বহুবার। তারপরও ওসব পেজ বন্ধ করা হয়নি।  এতে করে আমার প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে। আর্থিক দিক দিয়ে আমি দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।  

তিনি আরও জানান, এ পর্যন্ত ফেসবুকে ৬৮টি ভুয়া কুটুমবাড়ি পেজের তালিকা পাঠিয়েছেন। যদিও তার দাবি এ সংখ্যা ৮০ থেকে ৮৫টি। পরবর্তীতে সেসব তালিকাও পাঠানো হবে। 

গাজী খালেদ ইবনে মোহাম্মদের অভিযোগ, তিনি নিয়ম মেনে যথাযথ প্রক্রিয়ায় উপযুক্ত কাগজপত্রসহ একাধিকবার ফেসবুকের কাছে আবেদন করেছেন পেজটি ভেরিফায়েড করার জন্য কিন্তু ফেসবুক তার আবেদনটি মূল্যায়ন করেনি।  পেজটি ভেরিফায়েড হলে গ্রাহকরা বুঝতে পারতো কোনটি আসল। এ কাজটি না করায় ফেসবুক তার বিশাল ক্ষতি করেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে তিনি বিষয়টি সুরাহার জন্য আদালতের শরণাপন্ন হবেন বলে জানান। 

জানা গেছে, বর্তমানে কুটুমবাড়ির দুটি শাখা আছে। রাজধানীর লালমাটিয়ার শাখাটি করোনার প্রাদুর্ভাবের পরে ব্যবসায়িক চিন্তাভাবনা থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে কুটুমবাড়ির কোথাও কোনও শাখা নেই। অথচ প্রায় সারাদেশেই কুটুমবাড়ি নামের রেস্টুরেন্ট আছে। 

গাজী খালেদ ইবনে মোহাম্মদ জানান, চট্টগ্রামে কুটুমবাড়ি নামের রেস্টুরেন্টে টয়লেটের সামনে মুরগি প্রসেস করে সেই ছবি ফেসবুক পেজে শেয়ার করেছে। এতে করে গ্রাহকের কাছে কী বার্তা গেলো, যে কুটুমবাড়ি এ ধরনের কাজ করে।  কাজটি করলো অন্যরা আর ক্ষতির শিকার হলাম আমি। এটা তো মেনে নেওয়া যায় না।  

ফেসবুকের বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ

এর আগে ব্যবসায়িক ক্ষতির কারণে কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্ট লিমিটেড কর্তৃপক্ষ ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের কাছে আট লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি উকিল নোটিশ পাঠায়। ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর কুটুমবাড়ির পক্ষে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী কাজী জয়নাল আবেদীন নোটিশটি পাঠান। ওই নোটিশ পাওয়ার পরে ফেসবুকের পক্ষে ব্যারিস্টার তাজকিয়া লাবিবা করিম চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি জবাব দেন। জবাবে ফেসবুক বলে, ফেসবুক পরিষেবার শর্তাদি, কপিরাইট ও ট্রেডমার্কসহ অন্য কারও ইন্টেলেকচুয়াল সম্পত্তির অধিকার লঙ্ঘন করে এমন পোস্ট করার অনুমতি দেয় না।  

গাজী খালেদ ইবনে মোহাম্মদ বলেন, কিন্তু ওই পর্যন্তই। ফেসবুক কোনও ক্ষতিপূরণ তো দেয়ইনি, ওইসব ভুয়া পেজগুলো বন্ধের কোনও উদ্যোগ নেয়নি। বরং ২০১৪ সালে খোলা তাদের পেজটি এ পর্যন্ত কয়েকবার হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে।  

 

 

/এইচএএইচ/এনএইচ/   

সম্পর্কিত

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:৪৯

আবারও দাম বাড়লো এলপিজি ও অটোগ্যাসের। বেসরকারি পর্যায়ে এলপিজির দাম প্রতিকেজি ৭৭ টাকা ৪০ পয়সা ধরে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম মূসকসহ ৯৯৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা জুলাই মাসে ছিল ৮৯১ টাকা এবং জুন মাসে ছিল ৮৪২ টাকা। এদিকে প্রতি লিটার অটোগ্যাসের দাম প্রতি লিটার ৪৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪৮ টাকা ৭১ পয়সা নির্ধারণ করেছে হয়েছে। আগামী ১ আগস্ট থেকে এ দাম কার্যকর হবে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজির তৃতীয়বারের মতো দামের এই আদেশ দেয় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এসময় বিইআরসি’র চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল, কমিশনের সদস্য মোহাম্মদ আবু ফারুক, মকবুল-ই এলাহী, বজলুর রহমান, কামরুজ্জামান, সচিব রুবিনা ফেরদৌসীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এর বাইরে ৫.৫, ১২.৫, ১৫, ১৬, ১৮, ২০, ২৫, ৩০, ৩৩, ৩৫ ও ৪৫ কেজি এলপিজির দামও বিইআরসি আদেশে পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে সরকারি পর্যায়ে সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম আগের মতোই ৫৯১ টাকা থাকবে। যেহেতু এই দামের সঙ্গে সৌদি সিপির কোনও সম্পর্ক নেই। যা কমিশনের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

এদিকে আবাসিক এ শিল্পে কেন্দ্রীয়ভাবে এলপিজির ব্যবহার শুরু হয়েছে। নতুন পদ্ধতিতে একসঙ্গে বাসা বা কারখানার নিচে বা পাশে বড় সিলিন্ডার থেকে এলপি গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছে। এই সিলিন্ডার থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে বাসায় বাসায় বা কারখানায় সরবরাহ করা হচ্ছে গ্যাস। এটির দামও কমিশন পুনর্নির্ধারণ করে।

এই রেটিকুলেটেড সিস্টেমে সরবরাহ করা এলপিজির দাম ভোক্তা পর্যায়ে মূসক ছাড়া প্রতিকেজি ৬৭ টাকা ২৭ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৭৫ টাকা ১৯ পয়সা এবং মূসকসহ ৭১ টাকা ৯৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৮০ টাকা ৪৩ পয়সা অথবা লিটার হিসাবে প্রতি লিটার মূসক ছাড়া ০ দশমিক ১৪৯৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে ০ দশমিক ১৬৭১ টাকা এবং মূসকসহ প্রতি লিটার ০ দশমিক ১৫৯৭ টাকা থেকে বাড়িয়ে ০ দশমিক ১৭৮৭ টাকা পুনর্নির্ধারণ করেছে কমিশন।

বিইআরসি’র চেয়ারম্যান জানান, বিইআরসি আইনের অনুচ্ছেদ ক অনুযায়ী জুলাই মাসের জন্য সৌদি আরামকো কর্তৃক প্রোপেন ও বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপি যথাক্রমে প্রতি মেট্রিক টন ৬২০ ডলার এবং ৬২০ ডলার অনুযায়ী প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ অনুপাত ৩৫:৬৫ বিবেচনায় প্রোপেন ও বিউটেনের গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৬২০ ডলার বিবেচনা করে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।

জুন মাসে এই প্রোপেন ও বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপির দাম ছিল যথাক্রমে প্রতি মেট্রিক টন ৫৩০ ডলার এবং ৫২৫ ডলার। এ অনুযায়ী জুন মাসে প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ অনুপাত ৩৫:৬৫ বিবেচনায় প্রোপেন ও বিউটেনের গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৫২৬.৭৫ ডলার বিবেচনা করে দাম নির্ধারণ করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১২ এপ্রিল প্রথমবারের মতো এলপিজির দাম নির্ধারণের ঘোষণা দেয় কমিশন। সাধারণত সৌদি সিপি (কন্ট্রাক্ট প্রাইস) অনুযায়ী দেশে এলপিজির দাম নির্ধারিত হয়। প্রতি মাসের শেষে যখন সৌদি সিপির দাম পরিবর্তন হয়, তখন কমিশন এলপিজির দাম পরিবর্তনের বিষয়ে নতুন করে আদেশ দেয় কমিশন। 

বিইআরসি’র চেয়ারম্যান বলেন, দাম পূনঃনির্ধারণ করা হলেও গত ১২ এপ্রিল এলপিজির সংক্রান্ত অন্যান্য যেসব আদেশ কমিশন দিয়েছিল তা অপরিবর্তিত থাকবে।

দাম কার্যকরের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের একটি মাত্র অফিস, জনবল কম। সবার সহযোগিতা ছাড়া এই দাম একা কমিশনের পক্ষে বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। 

এলপিজি এসোসিয়েশন লোয়াব এই দাম মানতে চায় না। তারা নতুন করে দাম নির্ধারণের আবেদন করেছিল। সে বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন, ২০-২২টি লাইসেন্সি আবেদন করেছে। তা আমরা গ্রহণ করেছি। গ্রহণ করলে শুনানি করতে হয়। আমরা ৭ জুলাই শুনানির তারিখ ঠিক করলেও করোনার পরিস্থিতি বিবেচনা করে শুনানি পেছানো হয়েছে। অনলাইনে করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আবেদনকারীদের অনেকেই তাতে রাজি হয়নি। এই কারণে গত ২৭ জুলাই মিটিং করেছিলাম। সভায় আগামী ৫ তারিখ লকডাউন শেষ হলে দ্রুত শুনানির তারিখ দিয়ে শুনানি করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। 

 

 

/এসএনএস/এনএইচ/

সম্পর্কিত

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:২৮

অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) প্রদানের অনুমতি দেওয়ার জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) অনুরোধ করেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। ফেসবুকের স্থানীয় প্রতিনিধির মাধ্যমে পাঠানো এক চিঠিতে এই অনুরোধ করা হয়েছে।

বর্তমানে অনাবাসী বিদেশি সংস্থা হিসেবে তাদের বিদেশি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে সরাসরি কিংবা অনলাইনে অর্থ প্রদানের মাধ্যমে ভ্যাট পরিশোধের অনুমতি নেই।

বিদ্যমান প্রক্রিয়া অনুসারে, করদাতাদের চেকের মাধ্যমে নির্দিষ্ট ব্যাংকে ট্রেজারি চালানসহ ভ্যাট রিটার্ন দাখিল করতে হয়। কোভিড মহামারি পরিস্থিতিতে দীর্ঘ প্রক্রিয়ার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে অনলাইনে সরাসরি ভ্যাট গ্রহণ করার দাবি করেছে ফেসবুক।

এর আগে গত ১৩ জুন ভ্যাট পরিশোধ ও ভ্যাট রিটার্ন জমা দেওয়াসহ সরাসরি ভ্যাট সংক্রান্ত সেবা পেতে বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (বিআইএন) নেয় ফেসবুক। অনলাইনে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুক তিনটি পৃথক বিআইএন নিবন্ধন পেয়েছে। যে তিন প্রতিষ্ঠানের নামে নিবন্ধন নিয়েছে সেগুলো হচ্ছে- ফেসবুক টেকনোলজিস আয়ারল্যান্ড লিমিটেড, ফেসবুক আয়ারল্যান্ড লিমিটেড এবং ফেসবুক পেমেন্টস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

বর্তমানে ভ্যাট আইন অনুযায়ী, ভ্যাট পরিশোধের ক্ষেত্রে স্থানীয় ভ্যাট এজেন্টরা দায়বদ্ধ।

/জিএম/এমএস/

সম্পর্কিত

৩৩ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিলো টেপটেলস রেস্টুরেন্ট

৩৩ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিলো টেপটেলস রেস্টুরেন্ট

দেশে ফেসবুকনির্ভর উদ্যোক্তা ৫০ হাজার: সিপিডি

দেশে ফেসবুকনির্ভর উদ্যোক্তা ৫০ হাজার: সিপিডি

ভ্যাট কমলো রেস্তোরাঁয়

ভ্যাট কমলো রেস্তোরাঁয়

৫ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ ‘মেলোনেডস’ এর বিরুদ্ধে

৫ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ ‘মেলোনেডস’ এর বিরুদ্ধে

সম্পর্কিত

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

ছেলের জন্য আইসিইউ বেড ছেড়ে মারা গেলেন মা

ছেলের জন্য আইসিইউ বেড ছেড়ে মারা গেলেন মা

সর্বশেষ

টিকার নিবন্ধনে জনপ্রতি নেওয়া হয় দেড় হাজার টাকা!

টিকার নিবন্ধনে জনপ্রতি নেওয়া হয় দেড় হাজার টাকা!

ফাঁকা শহরে বৃষ্টির আগমন (ফটোস্টোরি)

ফাঁকা শহরে বৃষ্টির আগমন (ফটোস্টোরি)

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

টিসিবির ‘ট্রাকসেল’ সোমবার থেকে ফের শুরু

টিসিবির ‘ট্রাকসেল’ সোমবার থেকে ফের শুরু

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনও উদ্যোগই কাজে আসেনি

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনও উদ্যোগই কাজে আসেনি

© 2021 Bangla Tribune