X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

মাদকসেবীদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌ইয়াবাই‌ ‌সবচেয়ে‌ ‌জনপ্রিয়,‌ ‌পাওয়া‌ ‌যাচ্ছে‌ ‌অনলাইনেও‌

আপডেট : ২৫ জুন ২০২১, ০০:২০

‌দেশে‌ ‌মাদকাসক্তদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌সবচেয়ে‌ ‌জনপ্রিয়‌ ‌হচ্ছে‌ ‌ইয়াবা।‌ ‌অন্য‌ ‌যে‌ ‌কোন‌ ‌মাদকের‌ ‌চেয়ে‌ ‌এটি‌ ‌সহজলভ্য,‌ ‌সহজে‌ ‌বহনযোগ্য।‌ ‌এমনকি‌ ‌ইদানিং‌ ‌অনলাইনেও‌ ‌ইয়াবা‌ ‌কেনা‌ ‌যায়,‌ ‌এর‌ ‌হোম‌ ‌ডেলিভারিও‌ ‌হয়ে‌ ‌থাকে।‌ ‌মাদক‌ ‌নিয়ে‌ ‌কাজ‌ ‌করা‌ ‌সংশ্লিষ্টরা‌ ‌বলছেন,‌ ‌মাদকসেবনকারীদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌আশঙ্কাজনক‌ ‌হারে‌ ‌বেড়েছে‌ ‌ইয়াবাসেবীদের‌ ‌সংখ্যা।‌ ‌তাদের‌ ‌মতে,‌ ‌ইয়াবার‌ ‌আগ্রাসন‌ ‌নিয়ন্ত্রণ‌ ‌করা‌ ‌সম্ভব‌ ‌হচ্ছে‌ ‌না‌ ‌মূলত‌ ‌গডফাদারদের‌ ‌ধরতে‌ ‌না‌ ‌পারার‌ ‌কারণে।‌ ‌আর‌ ‌এই‌ ‌ইয়াবার‌ ‌কারণে‌ ‌ঘটছে‌ ‌নানা‌ ‌ধরনের‌ ‌অপরাধ।‌ ‌

এক‌ ‌পরিসংখ্যানে‌ ‌দেখা‌ ‌যায়,‌ ‌দেশে‌ ‌মাদকাসক্তের‌ ‌সংখ্যা‌ ‌৮০‌ ‌লাখের‌ ‌উপরে।‌ ‌এর‌ ‌মধ্যে‌ ‌৬৫‌ ‌শতাংশই‌ ‌ইয়াবাসেবী।‌ ‌ইয়াবার‌ ‌জনপ্রিয়তা‌ ‌বর্তমানে‌ ‌এতটাই‌ ‌বেশি‌ ‌যে,‌ ‌সংশ্লিষ্টদের‌ ‌মতে‌ ‌এর‌ ‌চাহিদা‌ ‌কমাতে‌ ‌না‌ ‌পারলে‌ ‌যতই‌ ‌সাঁড়াশি‌ ‌অভিযান‌ ‌চালানো‌ ‌হোক‌ ‌না‌ ‌কেন,‌ ‌কার্যত‌ ‌কোন‌ ‌ফল‌ ‌আসবে‌ ‌না।‌ ‌ ‌

নাম‌ ‌প্রকাশে‌ ‌অনিচ্ছুক‌ ‌একজন‌ ‌মাদকসেবী‌ ‌তার‌ ‌অভিজ্ঞতা‌ ‌জানাতে‌ ‌গিয়ে‌ ‌বলেন,‌ ‌আড্ডা‌ ‌ও‌ ‌বন্ধুদের‌ ‌পাল্লায়‌ ‌পড়ে‌ ‌শুরুতে‌ ‌টুকটাক‌ ‌সিগারেট‌ ‌টানাতাম।‌ ‌কিছুদিন‌ ‌পর‌ ‌আরও‌ ‌কয়েকজন‌ ‌বন্ধুর‌ ‌সাথে‌ ‌নিছক‌ ‌কৌতূহল‌ ‌থেকেই‌ ‌ইয়াবা‌ ‌সেবন‌ ‌করি।‌ ‌তারপর‌ ‌থেকেই‌ ‌ইয়াবায়‌ ‌আসক্ত‌ ‌হয়ে‌ ‌পড়ি।‌ ‌এই‌ ‌নেশার‌ ‌কারণে‌ ‌অনেকের‌ ‌সাথে‌ ‌বন্ধুত্ব‌ ‌নষ্ট‌ ‌হয়।‌ ‌এক‌ ‌পর্যায়ে‌ ‌অবস্থা‌ ‌এমন‌ ‌হয়‌ ‌যে,‌ ‌ইয়াবা‌ ‌না‌ ‌নিলে‌ ‌শারীরিক‌ ‌বিভিন্ন‌ ‌সমস্যা‌ ‌হতো।‌ ‌এভাবে‌ ‌একসময়‌ ‌প্যাথিড্রিন‌ ‌নেওয়াও‌ ‌শুরু‌ ‌করি।‌ ‌মাঝে‌ ‌কিছুদিন‌ ‌নিরাময়‌ ‌কেন্দ্রে‌ ‌চিকিৎসাধীন‌ ‌ছিলাম।‌ ‌এরপর‌ ‌কিছুটা‌ ‌কাটিয়ে‌ ‌উঠার‌ ‌চেষ্টা‌ ‌করেছি।‌ ‌কিন্তু‌ ‌বর্তমানে‌ ‌ঘন‌ ‌ঘন‌ ‌সেবন‌ ‌না‌ ‌করলেও‌ ‌মাঝে‌ ‌মাঝে‌ ‌এখনো‌ ‌পরিবার‌ ‌ও‌ ‌বন্ধুবান্ধবের‌ ‌অগোচরে‌ ‌সেবন‌ ‌করি।‌ ‌চাইলেই‌ ‌পাওয়‌ ‌যাচ্ছে।‌ ‌এছাড়া‌ ‌ফেসবুকের‌ ‌বিভিন্ন‌ ‌পেইজের‌ ‌মাধ্যমে‌ ‌ডেলিভারি‌ ‌দেওয়া‌ ‌হচ্ছে‌ ‌ইয়াবা।‌ ‌এক‌ ‌পরিসংখ্যানে‌ ‌দেখা‌ ‌গেছে,‌ ‌দেশে‌ ‌মাদকসেবীদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌যুবসমাজের‌ ‌সদস্যই‌ ‌বেশী,‌ ‌প্রায়‌ ‌৮০‌ ‌শতাংশ।‌ ‌এদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌তরুণীদের‌ ‌সংখ্যাও‌ ‌একেবারে‌ ‌ কম‌ ‌নয়।‌ ‌নারী‌ ‌মাদকসেবীদের‌ ‌সংখ্যা‌ ‌বাড়ছে‌ ‌আশঙ্কাজনক‌ ‌হারে।

‌এথেনা‌ ‌লিমিটেড‌ ‌মাদক‌ ‌নিরাময়‌ ‌কেন্দ্রের‌ ‌পরিচালক‌ ‌ডা.‌ ‌ইফতেখার‌ ‌সিদ্দিকী‌ ‌শোভন‌ ‌বাংলা‌ ‌ট্রিবিউনকে‌ ‌বলেন,‌ ‌মাদকে‌ ‌আসক্তদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌তরুণ-তরুণীর‌ ‌সংখ্যাই‌ ‌বেশি।‌ ‌এদের‌ ‌বয়স‌ ‌২০‌ ‌থেকে‌ ‌৩০‌ ‌এর‌ ‌মধ্যে।‌ ‌এই‌ ‌বয়সের‌ ‌ছেলে‌ ‌মেয়েরা‌ ‌মাদকে‌ ‌আসক্ত‌ ‌হয়ে‌ ‌পড়লে‌ ‌বিপদগ্রস্ত‌ ‌হয়ে‌ ‌পড়ে‌ ‌তাদের‌ ‌পরিবার।‌ ‌তখন‌ ‌তাদের‌ ‌দুর্ভোগের‌ ‌কোন‌ ‌সীমা‌ ‌থাকে‌ ‌না।‌ ‌

মাদক‌ ‌ও‌ ‌ধূমপান‌ ‌বিরোধী‌ ‌সংগঠন‌ ‌মানস‌ ‌এর‌ ‌প্রতিষ্ঠাতা‌ ‌সভাপতি‌ ‌ডাক্তার‌ ‌অরূপ‌ ‌রতন‌ ‌চৌধুরী‌ ‌বাংলা‌ ‌ট্রিবিউনকে‌ ‌বলেন,‌ ‌১৫‌ ‌বছরের‌ ‌উপরের‌ ‌তরুণদের‌ ‌মাঝে‌ ‌মাদকের‌ ‌প্রতি‌ ‌আসক্তি‌ ‌লক্ষ্য‌ ‌করা‌ ‌যাচ্ছে।‌ ‌সাম্প্রতিক‌ ‌সময়ে‌ ‌যে‌ ‌কিশোর‌ ‌গ্যাং‌ ‌দেখা‌ ‌যাচ্ছে,‌ ‌এদের‌ ‌বয়স‌ ‌১২‌ ‌থেকে‌ ‌২০‌ ‌এর‌ ‌মধ্যে,‌ ‌এরা‌ ‌প্রায়‌ ‌সবাই‌ ‌মাদকে‌ ‌আসক্ত।‌ ‌গ্যাং‌ ‌কালচার‌ ‌এদেরকে‌ ‌মাদকের‌ ‌প্রতি‌ ‌আগ্রহী‌ ‌করে‌ ‌তুলেছে।‌ ‌ছেলে‌ ‌কিংবা‌ ‌তরুণদের‌ ‌পাশাপাশি‌ ‌মেয়েদের‌ ‌মধ্যেও‌ ‌আশঙ্কাজনক‌ ‌হারে‌ ‌বেড়েছে‌ ‌ইয়াবা‌ ‌সেবনের‌ ‌প্রবণতা।‌ ‌শরীরকে‌ ‌চাঙ্গা‌ ‌রাখতে‌ ‌ইয়াবার‌ ‌চাহিদার‌ ‌বিষয়টি‌ ‌বেশি‌ ‌দেখা‌ ‌যায়।‌ ‌যে‌ ‌হারে‌ ‌মাদকাসক্তের‌ ‌সংখ্যা‌ ‌বাড়ছে,‌ ‌মাদকের‌ ‌ভয়াবহতা‌ ‌বন্ধ‌ ‌করা‌ ‌না‌ ‌গেলে‌ ‌আগামী‌ ‌১০‌ ‌বছরে‌ ‌মাদকসেবীদের‌ ‌সংখ্যা‌ ‌কোটি‌ ‌ছাড়িয়ে‌ ‌যাবে‌ ‌বলে‌ ‌আশঙ্কা‌ ‌প্রকাশ‌ ‌করেন‌ ‌তিনি।‌ ‌

বঙ্গবন্ধু‌ ‌শেখ‌ ‌মুজিব‌ ‌মেডিকেল‌ ‌বিশ্ববিদ্যালয়ের‌ ‌সাইকোথেরাপি‌ ‌বিভাগের‌ ‌কাউন্সেলর‌ ‌নুসরাত‌ ‌সাবরীন‌ ‌চৌধুরী‌ ‌বাংলা‌ ‌ট্রিবিউনকে‌ ‌বলেন,‌ ‌মাদকে‌ ‌আসক্ত‌ ‌হয়ে‌ ‌যারা‌ ‌সেবা‌ ‌নিতে‌ ‌আসেন,‌ ‌তাদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌ইয়াবা‌ ‌আসক্তই‌ ‌বেশি।‌ ‌বন্ধুদের‌ ‌পাল্লায়‌ ‌পড়ে,‌ ‌কৌতূহলবশত‌ ‌তারা‌ ‌প্রথমত‌ ‌এই‌ ‌দিকে‌ ‌ঝোঁকে।‌ ‌তাছাড়া‌ ‌আমাদের‌ ‌এখানে‌ ‌এই‌ ‌বয়সীদের‌ ‌জন্য‌ ‌রিক্রিয়েশনের‌ ‌পর্যাপ্ত‌ ‌ব্যবস্থা‌ ‌না‌ ‌থাকাও‌ ‌এধরনের‌ ‌মাদকে‌ ‌আসক্ত‌ ‌হওয়ার‌ ‌একটা‌ ‌কারণ‌ ‌হতে‌ ‌পারে।‌ ‌সন্তানদের‌ ‌মাদকের‌ ‌মরণনেশা‌ ‌থেকে‌ ‌দূরে‌ ‌রাখতে,‌ ‌পরিবারকে‌ ‌সব‌ ‌সময়‌ ‌সাবধানে‌ ‌চলাফেরা‌ ‌এবং‌ ‌কার‌ ‌সাথে‌ ‌মিশছে‌ ‌সে‌ ‌বিষয়ে‌ ‌মনোযোগী‌ ‌হওয়া‌ ‌দরকার‌ ‌বলে‌ ‌তিনি‌ ‌মত‌ ‌প্রকাশ‌ ‌করেন।‌ ‌

মাদকদ্রব্য‌ ‌নিয়ন্ত্রণ‌ ‌অধিদপ্তরের‌ ‌মহাপরিচালক‌ ‌মোঃ‌ ‌আহসানুল‌ ‌জব্বার‌ ‌বাংলা‌ ‌ট্রিবিউনকে‌ ‌বলেন,‌ ‌মাদকের‌ ‌রুট‌ ‌ও‌ ‌ব্যাপকতা‌ ‌ঠেকাতে‌ ‌সীমান্তবর্তী‌ ‌এলাকা‌ ‌ছাড়াও‌ ‌সারাদেশে‌ ‌নজরদারি‌ ‌রয়েছে‌ ‌অধিদপ্তরের‌ ‌কর্মকর্তাদের।‌ ‌অভিযান‌ ‌পরিচালনা‌ ‌করে,‌ ‌মাদক‌ ‌ও‌ ‌মাদক‌ ‌ব্যবসায়ী‌ ‌জড়িতদের‌ ‌আইনের‌ ‌আওতায়‌ ‌আনা‌ ‌হচ্ছে।‌ ‌বর্তমান‌ ‌সময়ে‌ ‌মাদকে‌ ‌জড়িয়ে‌ ‌পড়া‌ ‌তরুণ-তরুণীদের‌ ‌মধ্যে‌ ‌ইয়াবা‌ ‌আসক্তের‌ ‌সংখ্যাই‌ ‌বেশি।‌ ‌ইয়াবা‌ ‌আসক্ত‌ ‌হয়ে‌ ‌যারা‌ ‌বিভিন্ন‌ ‌মাদক‌ ‌নিরাময়‌ ‌কেন্দ্র‌ ‌গুলোতে‌ ‌চিকিৎসা‌ ‌নিচ্ছে,‌ ‌সেসব‌ ‌বিষযয়ে‌ ‌আমাদের‌ ‌নজরদারি‌ ‌রয়েছে।‌ ‌নিরাময়‌ ‌কেন্দ্র‌ ‌গুলোর‌ ‌প্রতিও‌ ‌মনিটরিং‌ ‌জোরদার‌ ‌রয়েছে।‌ ‌

র্যাবের‌ ‌আইন‌ ‌ও‌ ‌গণমাধ্যম‌ ‌শাখার‌ ‌পরিচালক‌ ‌কমান্ডার‌ ‌খন্দকার‌ ‌আল‌ ‌মঈন‌ ‌বাংলা‌ ‌ট্রিবিউনকে‌ ‌বলেন,‌ ‌আইনশৃঙ্খলা‌ ‌বাহিনীর‌ ‌চলমান‌ ‌অভিযানে‌ ‌ইয়াবা‌ ‌ব্যবসায়ীরা‌ ‌নিত্যনতুন‌ ‌কৌশল‌ ‌অবলম্বন‌ ‌করছে।‌ ‌ইয়াবা‌ ‌ব্যবসায়ীরা‌ ‌যতই‌ ‌কৌশল‌ ‌পাল্টাক‌ ‌না‌ ‌কেন‌ ‌বিভিন্ন‌ ‌অভিযান‌ ‌এ‌ ‌আমরা‌ ‌তাদের‌ ‌গ্রেফতার‌ ‌করছি‌ ‌এবং‌ ‌মাদক‌ ‌উদ্ধার‌ ‌করছি।‌ ‌

তবে‌ ‌বিশেষজ্ঞরা‌ ‌মনে‌ ‌করেন,‌ ‌শুধু‌ ‌গ্রেফতার‌ ‌বা‌ ‌বল‌ ‌প্রয়োগ‌ ‌করে‌ ‌নয়,‌ ‌মাদকাসক্তি‌ ‌প্রতিরোধের‌ ‌কার্যকর‌ ‌উপায়‌ ‌হচ্ছে‌ ‌মাদকদ্রব্য‌ ‌ও‌ ‌মাদকাসক্তির‌ ‌বিরুদ্ধে‌ ‌সামাজিক‌ ‌সচেতনতা‌ ‌গড়ে‌ ‌তোলা।‌

‌/এমকে/

সম্পর্কিত

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

কপ-২৬ মন্ত্রিপর্যায়ের বৈঠকে পরিবেশমন্ত্রী

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২২:০০

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় অভিযোজন সম্পর্কিত বৈশ্বিক লক্ষ্য অর্জনের জন্য দীর্ঘমেয়াদি এবং পর্যাপ্ত আর্থিক সহায়তা একটি পূর্বশর্ত। তিনি বলেন, ‘অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অভিযোজন কর্মকাণ্ড কার্যকরভাবে বাস্তবায়ন করার জন্য সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত উন্নয়নশীল দেশগুলোকে প্রযুক্তিগত এবং আর্থিক— উভয় সহায়তা সরবরাহ করা দরকার।’

রবিবার (২৫ জুলাই) লন্ডনে অনুষ্ঠিত কপ-২৬ প্রেসিডেন্সির ‘দ্য জুলাই মিনিস্টিরিয়াল’ এর উদ্বোধনী ও পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

রবিবার মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন কপ-২৬ প্রেসিডেন্ট অলোক শর্মা। অনুষ্ঠানে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো.মোস্তফা কামাল এবং পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিনসহ আমন্ত্রিত বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী এবং প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, ‘অভিযোজন এবং সহিষ্ণুতা ক্ষমতা বাড়িয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের ঝুঁকি হ্রাস করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ন্যাশনাল এডাপটেশন প্ল্যান (এনএপি) গঠন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে ন্যাপ বাস্তবায়নের জন্য সম্পদের সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে আমরা সচেতন। অভিযোজনের জন্য পর্যাপ্ত এবং কার্যকর সহায়তা প্রয়োজন।’

 

/এসএনএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২১:৩৪

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদৎ বার্ষিকীতে দেশব্যাপী যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে জাতীয় শোক দিবস (১৫ আগস্ট) পালনের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জাতীয় কর্মসূচির আলোকে নির্দেশনা দিয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণলয় থেকে গত ১৯ জুলাই এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

নির্দেশনা অনুযায়ী, এবারের কর্মসূচিতে দফতর, সংস্থা, বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা কার্যালয়, সকল পিটিআই, প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শিশু কল্যাণ ট্রাস্টের স্কুলগুলোতে ১৫ আগস্ট জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখতে হবে।

দফতর, সংস্থা এবং পিটিআইয়ের মসজিদে বাদ জোহর সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে বিশেষ মোনাজাত করতে হবে। মন্দির, গির্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সুবিধাজনক সময়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করতে হবে।

বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, সিক্রেট ডকুমেন্ট অব ইন্টেলিজেনস ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আমার দেখা নয়া চীন ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমির শিশুদের জন্য প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক ২৬টি গ্রন্থ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিনবে এবং পাঠের ব্যবস্থা করবে। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম ও কৃতি শিক্ষার্থীদের এসব বই উপহার হিসেবে দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে হবে। জাতীয় শোক দিবসে আয়োজিত সকল প্রতিযোগিতায় বইগুলো উপহার হিসেবে দিতে হবে।

প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেনা বইয়ের তালিকার একটি প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক।

এছাড়া দফতর ও সংস্থা ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে।

/এসএমএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

মোটরবাইক এখন দূরপাল্লার বাহন!

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২২:০৮

যশোর থেকে জাহিদ হাসান, পাবনা থেকে শহিদুল, দিনাজপুর থেকে নাহিদ আলম ঢাকায় এসেছেন। লকডাউনে বাস চলছে না, তাই বিকল্প পরিবহন হিসেবে মোটরসাইকেলে তারা ঢাকায়  এসেছেন।  টাকা একটু বেশি খরচ হলেও কোনও বাধাবিপত্তি ছাড়াই তারা ঢাকায় চলে এসেছেন।

রবিবার (২৫ জুলাই) দিনভর গাবতলীতে দেখা গেলো, যারা ঢাকায় আসছেন তাদের অধিকাংশ মোটরসাইকেলে এসেছেন। যারা ঢাকা ছাড়ছেন তারাও মোটরসাইকেলে যাচ্ছেন। তবে মোটরসাইকেলে এলেও তাদের কয়েক দফা ভেঙে ভেঙে আসতে হয়েছে। আর যাদের নিজের মোটরসাইকেল আছে, তারা আসছেন সরাসরি। আমিনবাজার ব্রিজের ওপর যাত্রী নেওয়ার জন্য দাঁড়িয়ে থাকছেন ভাড়ায় চলা মোটরসাইকেলগুলো। এসব মোটরসাইকেল দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের ফেরিঘাট আর উত্তরবঙ্গের মানুষদের চান্দুরা পর্যন্ত পৌঁছে দেয়।

গাবতলিতে ঢাকামুখী মানুষের ভিড়

যাত্রীরা বলছেন,  বাস বন্ধ থাকায় মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কারের চাহিদা বেড়েছে। যে কারণে চাইলেও ভাড়ায় পাওয়া যাচ্ছে না সময় মতো। লম্বা পথ একই মোটরসাইকেল না এলেও কয়েক দফায় মোটরসাইকেলে ভরসা। যদিও স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া গুনতে হয়েছে।

আমিনবাজার ব্রিজের ওপর মোটরসাইকেল স্ট্যান্ডে পরিণত হয়েছে। হাঁকডাক দিয়েই যাত্রী ডাকছেন চালকরা। গাবতলীতে আমিনবাজার ব্রিজের পূর্ব প্রান্তে ঢাকা মহানগর পুলিশের চেকপোস্ট। অন্যদিকে আমিনবাজার ব্রিজের পশ্চিম প্রান্তে থেকে একটু দূরেই ঢাকা জেলা পুলিশের চেক পোস্ট। অনায়াসে ঢাকা জেলা পুলিশের চেকপোস্ট পার হয়ে যাত্রী নামাচ্ছে ব্রিজের কাছে। তবে যাত্রী নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের চেকপোস্ট পার হওয়ার চেষ্টা করে না মোটরসাইকেলগুলো।

পাবনা থেকে ঢাকায় এসেছেন মজিবুর আহমদ। প্রথম একটি মোটরসাইকেলে বঙ্গবন্ধু সেতু পার হয়েছেন, তারপর আরেক মোটরসাইকেলে চড়ে টাঙ্গাইল। এরপর কিছুটা পথ ভ্যানে। আবারও পেয়ে গেলেন  মোটরসাইকেল। সেটিতে চড়ে একেবারে আমিনবাজার পর্যন্ত আসেন তিনি। মজিবুর বলেন, রাস্তায় গাড়ি নেই, তাই মোটরসাইকেলই ভরসা। ভেঙে আসতে হয়েছে, এজন্য সময়ও বেশি লেগেছে।

রিকশা-ভ্যানে চড়ে বাড়ি থেকে বঙ্গবন্ধুর সেতুর পূর্ব প্রান্ত পর্যন্ত এসেছেন সবুজ কুমার রায়। সেখান থেকে চান্দুরা পর্যন্ত আসতে মোটরসাইকেলে ১৫০০ টাকা ভাড়া দিয়েছেন তিনি। তার সঙ্গে ছিলেন আরেক যাত্রী। তিনিও দিয়েছেন ১৫০০ টাকা। আর চান্দুরা থেকে আমিনবাজার ব্রিজ পর্যন্ত ৬০০ টাকা ভাড়া দিয়েছেন তিনি।

মোটরসাইকেল চালকরা জানালেন, মূলত যারা উবার পাঠাওয়ে কাজ করতেন তারাই বেশি যাত্রী পরিবহন করছেন। অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতিতে চাকরি হারিয়ে, ব্যবসায় লোকসানের মুখে পড়া অনেকেই আয়ের জন্য এসেছেন এ পথে।

হাফেজ মাসুদুর রহমান সাভারে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করতেন। এখন মাদ্রাসা বন্ধ তাই আয়ও নেই। পরিবারের খরচ জোগাতে মোটরবাইকে যাত্রী পরিবহন করেন তিনি। মাসুদুর রহমান বলেন,  বেঁচে থাকতে একটা কাজ করতে হবে। চাইলে তো কোনও ব্যবসা করতে পারবো না, আমার পুঁজি নেই। তাই মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন করছি।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে। ৫ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ কার্যকর থাকবে। বন্ধ রয়েছে গণপরিবহন। কঠোর বিধিনিষেধে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে বের হলে তাকে শাস্তির আওতায় নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সরকার।

/সিএ/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

থুতনিতে মাস্ক রেখে সিগারেট খাওয়ায় ৫০০ টাকা জরিমানা

থুতনিতে মাস্ক রেখে সিগারেট খাওয়ায় ৫০০ টাকা জরিমানা

রামপুরায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রামপুরায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২১:২২

বিদিশা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বিদিশা বলেছেন, প্রতিদিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কর্মহীন ও অসহায়দের মাঝে খাদ্যসামগ্রী এমনকি রান্না করা খাবার মুখে তুলে দেবো আমরা। তিনি বলেন, ‘করোনায় কর্মহীন অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্ট। আজ  থেকে তাদের গোপনে নগদ অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। দেশের যে প্রান্ত থেকে কর্মহীনরা সাহায্য চাইবেন নাম প্রকাশ না করেই, তাদের ডাকে সাড়া দেবে আমাদের টিম।’ 

রবিবার (২৫ জুলাই) গুলশানে অসহায় নিম্নবিত্ত কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সম্প্রতি এরিক এরশাদ ঘোষিত ‘নতুন জাতীয় পার্টি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ও এরশাদ ট্রাস্ট্রের চেয়ারম্যান কাজী মো. মামুনুর রশীদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। তারা গুলশান এলাকা ঘুরে কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

 

 

/এসটিএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২০:৩১

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, শিল্প মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের পূর্বপ্রস্তুতি ও সার্বিক তত্ত্বাবধায়নের কারণে এবারের কোরবানির চামড়া নিয়ে কোনও ধরনের বিশৃঙ্খলা বা অব্যবস্থাপনা তৈরি হয়নি।

রবিবার (২৫ জুলাই) শিল্প মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সংস্থাগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদুল আজহার পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি  যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, অতিরক্ত সচিব  শিবনাথ রায়, শাহ ইমদাদুল হক, বিসিআইসির চেয়ারম্যান মোশতাক হাসান বক্তৃতা করেন। 

এ সময় শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা মহামারির মাঝেও শিল্প মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। শিল্প খাতের মঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা প্রতিপালন করে সুস্থ থাকতে হবে এবং সচেতন হতে হবে।’

অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, ‘কোরবানির চামড়া কীভাবে সংরক্ষণ ও স্থানান্তর করতে হবে, এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়  যথাসময়ে সিদ্ধান্ত ও যথাযথ কার্যক্রমের  গ্রহণের কারণে এ বছর চামড়া নিয়ে আমরা কোনও অভিযোগ পাইনি। ব্যবসায়ীরা চামড়ার সঠিক দাম পেয়েছেন।’

সভাপতির বক্তব্যে শিল্প সচিব বলেন, ‘শিল্প মন্ত্রণালয়, বিসিক এবং মাঠ পর্যায়ায়ের প্রশাসনের সহায়তায় এবং কর্মকর্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিক সহযোগিতায় এবারের কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণ প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

১৫ আগস্টে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

প্রতিদিন রান্না করা খাবার তুলে দেবো কর্মহীনদের: বিদিশা

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

সর্বশেষ

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

কোভিড মোকাবিলায় সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

কোভিড মোকাবিলায় সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাহস করে মারতে হয়: শামীম

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাহস করে মারতে হয়: শামীম

সম্প্রচারের আগে কাদা মেখে বিতর্কে জার্মান সাংবাদিক

সম্প্রচারের আগে কাদা মেখে বিতর্কে জার্মান সাংবাদিক

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

কপ-২৬ মন্ত্রিপর্যায়ের বৈঠকে পরিবেশমন্ত্রীদুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

‌‘ইত্যাদি’ এবার মেট্রোরেলের ডিপোতে!

‌‘ইত্যাদি’ এবার মেট্রোরেলের ডিপোতে!

সরকারের ভুলেই করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: মির্জা ফখরুল

সরকারের ভুলেই করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: মির্জা ফখরুল

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও  ব্রুনাইয়ের সুলতানের জন্য আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও  ব্রুনাইয়ের সুলতানের জন্য আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে হাইকোর্টের বিচার

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে হাইকোর্টের বিচার

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাভার্ডভ্যান ছিনতাই, আটক ১

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাভার্ডভ্যান ছিনতাই, আটক ১

‘নেইমারকে ব্যঙ্গ করতে’ কুকুর নির্যাতন, ৪ কিশোর আটক

‘নেইমারকে ব্যঙ্গ করতে’ কুকুর নির্যাতন, ৪ কিশোর আটক

© 2021 Bangla Tribune