X
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে বিএনপির অপরাজনীতি ব্যর্থ হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ০৫ জুলাই ২০২১, ১৭:৩২

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে বিএনপির অপরাজনীতি ব্যর্থ হয়েছে। ইতোমধ্যে দেশে এসেছে প্রায় ৪৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন। সময় মতো আরও ভ্যাকসিন আসবে।

তিনি বলেন, দেশের জন্য সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে ভ্যাকসিন সংগ্রহ দেশের জনগণের প্রতি শেখ হাসিনা সরকারের ডিপ অ্যান্ড এবাইডিং কমিটমেন্টের সুস্পষ্ট প্রতিফলন।

সোমবার (৫ জুলাই) সরকারি বাসভবন থেকে ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কূটনৈতিক দক্ষতা এবং দূরদর্শী নেতৃত্বে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভ্যাকসিন সংগ্রহে বাংলাদেশ সফল হবে ইনশাআল্লাহ।

দেশে অক্সিজেন নিয়ে কোনও সংকট নেই জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, হয়তো কোথাও সমন্বয়ের অভাব হতে পারে, তবে যেসব এলাকায় অক্সিজেন সরবরাহ জরুরি সেসব এলাকায় সমন্বয় জোরদারের মাধ্যমে সরবরাহ নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন ।

সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা রোধে ঘরে ঘরে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তোলার বিকল্প নেই জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, জীবনের প্রয়োজনে, বেঁচে থাকার জন্য হলেও আমরা সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করি।

সদ্য শেষ হওয়া জাতীয় সংসদের ১৩তম অধিবেশনে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্যে বিএনপির সমালোচনার জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির এই সমালোচনা বরাবরের মতো দীপ্যমান সত্যকে অস্বীকার করার কসরত মাত্র।

তিনি বলেন, বিএনপি ঢালাওভাবে মন্তব্য করলেও সংসদ নেতার কোন বক্তব্যটি অসত্য তা স্পষ্টভাবে বলতে পারেনি, প্রকৃতপক্ষে সংসদ নেতার ভাষণ ছিল ইতিহাসের কঠিন সত্যপাঠ।

যারা মিথ্যার ওপর আশ্রয় নিয়ে ও মিথ্যায় ভর করে রাজনীতি করে, সত্য-প্রকাশিত হলে বিএনপির গাত্রদাহ হওয়াটাই স্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

বাংলাদেশের রাজনীতিকে ষড়যন্ত্র, হত্যা আর অগণতান্ত্রিক পথে চালনাকারী বিএনপি কখনও সত্য মেনে নিতে পারে না দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সত্য ও সঠিক ইতিহাস তুলে ধরলে ইতিহাস বিকৃতির জনকদের মর্মজ্বালা বেড়ে যাওয়াই স্বাভাবিক।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নেতারা ভুলে গেছেন বেগম জিয়া একজন দণ্ডিত আসামি, মাসের পর মাস অযথা সময়ক্ষেপণ করে বিএনপিই তো বেগম জিয়ার মামলার বিচার প্রক্রিয়াকে বিলম্বিত করছে।

ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের প্রশ্ন রেখে বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের করা মামলাটি যদি মিথ্যা হয়ে থাকে তাহলে বিএনপির আইনজীবীরা তা প্রমাণ করতে পারলেন না কেন?

বেগম জিয়ার মামলা, কারামুক্তি এবং চিকিৎসা নিয়ে বিএনপি নেতারা এক ধরনের রহস্যময় খেলা খেলছেন বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বেগম জিয়াকে আপনারা নিজ নিজ পদ রক্ষার জন্য দাবার ঘুঁটি বানাবেন, আর দায় নিবে সরকার, তা হবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেগম জিয়ার বিষয়ে অধিকতর মানবিক আচরণ করেছেন দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাঁর বয়স ও স্বাস্থ্য বিবেচনায় সাজা স্থগিত করে তাঁকে ঘরে অবস্থান করে চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তাই শেখ হাসিনার ঔদার্যের প্রতি আপনাদের কৃতজ্ঞ থাকা উচিত।

বেগম জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে সাজানো মামলায় সাজা দেওয়া হয়েছে, বিএনপি নেতাদের এ ধরনের কল্পিত অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ভালো করেই জানে এ মামলা শেখ হাসিনা সরকার করেনি, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের করা এই মামলা। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কোনও বিষয় নয় এখানে।

আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় বিশ্বাসী নয়; বরং বিএনপিই এ দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতির পথপ্রদর্শক মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, রাজনীতি বা দেশ পরিচালনায় ওয়ার্কিং রিলেশন থাকাটা জরুরি, তাই তো শেখ হাসিনা কষ্ট চেপে বারবার উদারতার হাত বাড়িয়েছেন। আপনারা দরজা বন্ধ করে গুটিয়ে ছিলেন দেয়ালের আড়ালে, পর্দার আড়ালের রাজনীতিই আপনাদের পছন্দের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মনে করেন, নেতিবাচকতার দাবানল বিএনপির রাজনীতিকে পত্র-পুষ্পহীন মরুময়তার দিকে নিয়ে যাচ্ছে ক্রমশ।

/পিএইচসি/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

৪২ বছরেও গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি ছাত্রদল

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৫৮

২০০১ সালের মার্চে ছাত্রদলের তৎকালীন সভাপতি নাসির উদ্দিন পিন্টু বলেছিলেন, ‘ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) যা বলবেন—সেটাই আমাদের গঠনতন্ত্র’। সংগঠনের স্বীকৃত গঠনতন্ত্র না থাকার প্রসঙ্গে পিন্টুর এই বক্তব্যের পর পেরিয়ে গেছে ২০ বছর, পিন্টু প্রয়াত হয়েছেন ছয় বছর। ১৯৭৯ সালের ১ জানুয়ারি আত্মপ্রকাশের পর থেকে সবমিলিয়ে ৪২ বছর ধরে খসড়া গঠনতন্ত্র দিয়েই চলছে বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদল। ২০১৯ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর বর্তমান কমিটি নির্বাচনের আগে গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া শুরু হলেও অদ্যাবধি তা শেষ হয়নি।

ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র কয়েকজন নেতা জানান, ১৯৯৭-৯৮ সালের কমিটির সময় খসড়া গঠনতন্ত্র প্রণয়ন করা হয়। কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হওয়ায় সাংগঠনিক গঠনতন্ত্রের স্থায়ীরূপ দেওয়া হয়নি। বিএনপির শীর্ষ মহল থেকেও কোনও চাপ ছিল না, আবার যারা দায়িত্বে এসেছেন—তাদের কাছেও বিষয়টি উপেক্ষিত থেকেছে।  

খসড়া গঠনতন্ত্রে কোনও কমিটি কত সদস্য, মেয়াদ কেমন হবে ইত্যাদি বিষয়গুলো ছিল; তবে তা কখনও ফলো করা হয়নি জানিয়ে সংগঠনের উচ্চপর্যায়ের একজন সাবেক দায়িত্বশীল বলেন, উচ্চপর্যায় থেকে যখন যাকে প্রয়োজন মনে করা হয়েছে, সেভাবেই নেতৃত্বে আনা হয়েছে। আর এ কারণে গঠনতন্ত্র করার কোনও চাপ তৈরি হয়নি, চূড়ান্ত করা হয়নি গঠনতন্ত্র; যখন যেভাবে মনে করা হয়েছে সেভাবে সংশোধন করা হয়েছে। আর ছাত্রদলের কোনও কমিটি তা পাশও করেনি।

ছাত্রদলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা একাধিক নেতা জানান, ২০১৯ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর কাউন্সিলের আগেই গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়। বর্তমান সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে একটি টিম এই প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত।

সংগঠন সূত্র বলছে, কমিটি গঠনের পর ২০২০ সাল থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণজনিত সাংগঠনিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের পাশাপাশি গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করার কাজটিও পিছিয়ে যায়। তবে এরইমধ্যে গঠনতন্ত্রের খসড়া চূড়ান্ত করার পথে।

কী আছে খসড়ায়

ছাত্রদলের একাধিক নির্ভরযোগ্য দায়িত্বশীল জানান, আগামী ১ জানুয়ারি সংগঠনের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে পূর্ণাঙ্গ গঠনতন্ত্র প্রকাশ করতে পারে ছাত্রদল। এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে যাবতীয় প্রস্তুতি এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

দায়িত্বশীল নেতারা জানান, বিএনপির সহযোগী সংগঠন হিসেবে দলের লক্ষ্য ও আদর্শ বাস্তবায়নের কাজ করলেও ছাত্রদল মৌলিকভাবে ছাত্রকেন্দ্রীক। ফলে গঠনতন্ত্রে ছাত্রত্ব, বয়সের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। খসড়া গঠনতন্ত্রের ১৭ ধারায় ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট সদস্যের কথা উল্লেখ থাকলেও মন্ত্রণালয়ভিত্তিক সম্পাদকমণ্ডলী থাকার কারণে এই সংখ্যা বেড়েছে এবং গঠনতান্ত্রিকভাবেও তা বাড়ানো হবে। সংগঠনের নির্বাহী ক্ষমতা গঠনতান্ত্রিক ও সাংবিধানিকভাবে সরাসরি মূল দলের ‘চেয়ারম্যান’র  কাছে অর্পিত থাকবে। এ ছাড়া কমিটির মেয়াদ দুই বছর পর্যন্ত থাকলেও পূর্ণাঙ্গ গঠনতন্ত্রে তা বেড়ে তিন বছর হতে পারে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের অক্টোবরে ছাত্রদলের এক সভায় তারেক রহমানকে খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে সাংগঠনিক ‘অভিভাবক’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। খসড়া গঠনতন্ত্রের ১৮ অনুচ্ছেদে মূল দলের চেয়ারপারসনকে কমিটি বাতিল, সংযোজন, বিয়োজন, নতুন কমিটি গঠন—সবকিছুর সর্বময় ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।  

গঠনতন্ত্রের কাজের সঙ্গে যুক্ত কেন্দ্রীয় একজন নেতা জানান, ‘গঠনতন্ত্রে যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে।’ বর্তমান খসড়া গঠনতন্ত্রে ৩১ টি অনুচ্ছেদ থাকলেও চূড়ান্ত পর্বে তা বাড়তে পারে।

ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন,‘গঠনতন্ত্রের কাজ সাবেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দরা মোটামুটি চূড়ান্ত করেছেন। কিছু-কিছু বিষয় ‘ফিক্স’ করার কোনও সুযোগ নাই। সে কারণে সে বিষয়গুলো কী কী, সেটা এখনও ঠিক হয়নি। কাজটি একটি চলমান প্রক্রিয়া, ওভাবেই আছে এখনও। পুরো কাজ শেষ হলে বই আকারে প্রকাশ করা হবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক শাজাহান শাওন মনে করেন, একটি সংগঠনের জন্য গঠনতন্ত্র খুবই প্রয়োজন। ছাত্রদলের গঠনতন্ত্র কবে হবে—এটা আমাদের অভিভাবক যখন ঠিক করবেন, তখনই হবে।

যদিও ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল মনে করছেন, ছাত্রদলের মতো সংগঠনকে দালিলিক ফ্রেমে নিয়ে আসা কঠিন। বিশেষ করে সংগঠনকে পরিবেশ, প্রেক্ষাপট ও সময় বিবেচনা করে পরিচালনা করার কারণে দালিলিক ফ্রেমে নিয়ে আসা সাংঘর্ষিক হতে পারে।

ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, ‘ছাত্রদলের খসড়া একটি গঠনতন্ত্র আছে। খসড়া দিয়েই চলবে। আর আমাদের এজেন্ডার মধ্যে এটা নেই।’  

জানুয়ারির আগে পূর্ণাঙ্গ কমিটি

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে (১৯ সেপ্টেম্বর) ছাত্রদলের বর্তমান কেন্দ্রীয় সংসদের মেয়াদ শেষ হবে। ২০১৯ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর সরাসরি ভোটে সংগঠনের সভাপতি হিসেবে ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন ইকবাল হোসেন শ্যামল। এর ২ মাস পর ৬০ সদস্যের ‘আংশিক’ কমিটি ঘোষিত হলেও তা ‘আংশিকই’ রয়ে গেছে। গত ৩ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছিলেন, ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তারা কমিটি জমা দিতে আশাবাদী।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটির খসড়ার কাজ চূড়ান্ত হয়ে গেছে। এখন কেন্দ্রীয় নেতারা জমা দেওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন। বিএনপির শীর্ষ মহলের ‘গ্রিন সিগন্যাল’ পেলেই জমা দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় কমিটির একজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের মধ্যে আলোচনা আছে ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ দেওয়া হবে। কিন্তু আজ পর্যন্ত (১৭ সেপ্টেম্বর) কোনও আপডেট নেই।’

জানতে চাইলে ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, এখনও কয়েকটি জেলা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার কাজ বাকি রয়েছে। দফতর বিভাগে কিছু কমিটি জমা হয়েছে। এসব শেষ করার পর পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটির বিষয়টি আসবে।’

তিনি বলেন, ‘দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সময় দেওয়ার বিষয় রয়েছে। এসব কিছু ঠিক হলেই আমরা প্রস্তাব জানাবো। আমরা আশা করছি, আগামী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি আসবে।’

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

সব দলের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের দাবি

সব দলের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের দাবি

আ.লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা ৯ সেপ্টেম্বর

আ.লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা ৯ সেপ্টেম্বর

বিএনপির আন্দোলন মানে ভাঙচুর: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির আন্দোলন মানে ভাঙচুর: ওবায়দুল কাদের

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:২৫

ঢাবির অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম এম আকাশ বলেছেন, ৬২ তে ছাত্রদের রক্তের সঙ্গে শ্রমিকের রক্ত মিশে শিক্ষা আন্দোলন সফল হয়েছিল। বর্তমান সময়েও কোন আন্দোলন শুধু ছাত্রদের রক্ত দিয়ে সফল হবে না, শ্রমিক-কৃষকদের রক্তও ছাত্রদের রক্তের সঙ্গে মিশতে হবে। তবে সেরকম আন্দোলন ছাত্রদের আগে শুরু করতে হবে। 

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল চারটায় শিক্ষা দিবস উপলক্ষে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট (বাসদ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত ছাত্র সমাবেশে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থেকে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, আজ ৬২’র শিক্ষা আন্দোলনের এত বছর পর দেশে প্রাইভেট মেডিক্যাল, বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। আর সেখানকার বেতন আর সরকারি বেতনের মধ্যে পার্থক্য আছে। করোনাকালে সরকারি স্কুলের শিক্ষকরা বেতন পেলেও বেসরকারিরা পাননি। এমনকি প্রাইভেট স্কুলের ছেলেরা পড়তেও পারেনি। 

‘সবচেয়ে দুঃখের বিষয় সরকার আপনাকে তো পড়াতে পারছে না। উল্টো ভ্যাট আদায় করছে। সরকার নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছিল বিএ পর্যন্ত লেখাপড়া অবৈতনিক করা হবে। কিন্তু এখন বিএ ক্লাস তো দূরের কথা স্কুলেও আপনার হাতের টাকার ওপর নির্ভর করে। সুতরাং এইখানে একটা বিরাট আন্দোলন আপনাদের করতে হবে। একইসঙ্গে আপনাদের একটি দাবি তুলতে হবে, শিক্ষা বাজেটে জিডিপির ৪% দিতে হবে।’ 

আলোচনা সভায় বক্তারা চারটি দাবি পেশ পেশ করেন। তাদের দাবিগুলো হলো: সেশনজট নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা, সকল শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত ও হেল্থকার্ড প্রদান করা, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওপর কর প্রত্যাহার কর ও ভ্যাকসিনের আওতায় এনে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া।

সমাবেশে শিক্ষাকে সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে না মন্তব্য করেছেন তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর জাতীয় রক্ষা কমিটির সদস্য সচিব ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আনু মুহাম্মদ বলেন, ৬২ সালে শিক্ষার অধিকার নিয়ে আমরা আন্দোলন করেছি কিন্তু আমরা এখনও শিক্ষার অধিকার ফিরে পাইনি। শিক্ষাকে সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে না। পৃথিবীর বহু দেশে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক বেশি লোক করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরেও এদেশে যতদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ততদিন বন্ধ আর কোথাও ছিল না। 

আলোচনা সভায় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. কাবেরী গায়েন বলেন, ১৯৭৪ সাল থেকে শিক্ষাকে অসাম্প্রদায়িক, বিজ্ঞানভিত্তিক ও সার্বজনীন শিক্ষা ব্যবস্থার কথা বলা হলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। দেশে বর্তমান সময়ে প্রায় ১০ ধরণের শিক্ষা পদ্ধতি প্রচলিত আছে। করোনার সময় এই বৈষম্য প্রকট আকার ধারণ করেছে। 

তিনি বলেন, অসংখ্য শিক্ষার্থী এই করোনার সময়ে ঝরে পড়েছে। পরিসংখ্যান বলছে, গতবছর তিন হাজার আট শ’ মেয়ের বাল্যবিয়ে হয়েছে। তারা কোনোদিন আর শিক্ষা কার্যক্রমে ফিরে আসতে পারবে না। এর কারণ রাষ্ট্রের কোনও রূপরেখা নেই। আমরা দেখবো এই ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের ফিরিয়ে আনতে সরকার কী করবে? 

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ ও সঞ্চালন করেন সাধারণ সম্পাদক দীপক শীল। 

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

৪২ বছরেও গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি ছাত্রদল

৪২ বছরেও গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি ছাত্রদল

বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা চায় ‘ইশা ছাত্র আন্দোলন’

বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা চায় ‘ইশা ছাত্র আন্দোলন’

৬২'র শিক্ষা আন্দোলন ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্ট: ন্যাপ

৬২'র শিক্ষা আন্দোলন ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্ট: ন্যাপ

আল্লামা শফীর মৃত্যুর এক বছর: দোয়ার অনুরোধ

আল্লামা শফীর মৃত্যুর এক বছর: দোয়ার অনুরোধ

জাপা নেতা লুৎফুর রেজাকে বহিষ্কার

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১১

জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান লুৎফুর রেজা খোকনকে পার্টির সকল পদ-পদবি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের এ সিদ্ধান্ত নেন। 

এদিন বিকালে তার প্রেস সেক্রেটারি-২ খন্দকার দেলোয়ার জালালী বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। 

খন্দকার জালালী জানান, জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক লুৎফুর রেজা খোকনকে পার্টির প্রাথমিক সদস্যসহ সকল পদ-পদবি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে কুমিল্লা উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। গঠনতন্ত্রের ২০/১(১)ক ধারা মোতাবেক জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই সিদ্ধান্ত ইতোমধ্যেই কার্যকর হয়েছে।

/এসটিএস/এনএইচ/

সম্পর্কিত

৪২ বছরেও গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি ছাত্রদল

৪২ বছরেও গঠনতন্ত্র পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি ছাত্রদল

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা চায় ‘ইশা ছাত্র আন্দোলন’

বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা চায় ‘ইশা ছাত্র আন্দোলন’

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা চায় ‘ইশা ছাত্র আন্দোলন’

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৮

দক্ষ জাতি গঠনে বিজ্ঞানভিত্তিক কর্মমুখী সার্বজনীন শিক্ষাব্যবস্থা চায় ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) শাহবাগ জাতীয় যাদুঘর চত্বরে সংগঠনটির উদ্যোগে জাতীয় শিক্ষা দিবস উপলক্ষে ‘বিদ্যমান শিক্ষা কাঠামো সংস্কার ও চলমান সংকট নিরসনের’ দাবিতে শিক্ষা সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়।

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নূরুল করীম আকরাম বলেন,  বাংলাদেশ ৫০ বছরে পা রাখলেও এখনও আমরা শিক্ষার সংকট থেকে বের হতে পারিনি। এখনও সার্বজনীন শিক্ষা কাঠামো প্রণয়নের জন্য আমাদেরকে রাজপথে নামতে হচ্ছে। ইশা ছাত্র আন্দোলন প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই আমরা রাষ্ট্রযন্ত্রকে বিভিন্নভাবে বলে আসছি আদর্শ ও দক্ষ জাতি গঠনে চাই বিজ্ঞানভিত্তিক কর্মমুখী সার্বজনীন ইসলামী শিক্ষা ব্যবস্থা।

সেক্রেটারি জেনারেল শেখ মুহাম্মাদ আল-আমিন অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন। ‘শিক্ষা সংস্কার প্রস্তাবনা’ উপস্থাপন করেন করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি শরীফুল ইসলাম রিয়াদ। ‘চরম পত্র’ পাঠ করেন সেক্রেটারি জেনারেল শেখ মুহাম্মাদ আল-আমিন।

সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্র সংগঠনটির যুগ্ম সম্পাদক জেনারেল গাজী মুহাম্মাদ ওসমান গণী, সাংগঠনিক সম্পাদক এম এম শোয়াইব, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক কে এম শরীয়াতুল্লাহ, প্রকাশনা সম্পাদক ইব্রাহীম হুসাইন, প্রচার ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক নূরুল বশর আজিজী, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক এম এ হাছিব গোলদার প্রমুখ।

/সিএ/এনএইচ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

৬২'র শিক্ষা আন্দোলন ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্ট: ন্যাপ

৬২'র শিক্ষা আন্দোলন ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্ট: ন্যাপ

আল্লামা শফীর মৃত্যুর এক বছর: দোয়ার অনুরোধ

আল্লামা শফীর মৃত্যুর এক বছর: দোয়ার অনুরোধ

সব দলের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের দাবি

সব দলের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের দাবি

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২২

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীতে সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সংসদে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্য সম্পর্কে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যথার্থই বলেছেন, জিয়ার লাশ কেউ দেখেননি। 

হাছান মাহমুদ বলেন, 'আমি রাঙ্গুনিয়ার মানুষ, যেখানে জিয়াকে প্রথম সমাহিত করা হয় বলে বিএনপি দাবি করে। রাঙ্গুনিয়া উপজেলার তখনকার চেয়ারম্যান জহির সাহেব এখনও জীবিত। তিনি বলেছেন, তিনটি লাশ সেখান থেকে তোলা হয়েছিল, তার মধ্যে জিয়াউর রহমানের লাশ ছিল না। এরশাদ সাহেব এবং জিয়াউর রহমানের ঘনিষ্ঠজন মীর শওকত দুজনেই বলেছেন, তারা কেউ জিয়ার লাশ দেখেননি।'

চন্দ্রিমা থেকে কবরটি সরিয়ে ফেলার বিষয়ে প্রশ্ন করলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, লাশ ছাড়া কবর দাবি করা যেমন জনগণের সঙ্গে প্রতারণা, তেমনি ইসলামের নিয়ম-নীতি বিরুদ্ধ। লাশ ছাড়া কবর রাখার কোনও কারণ আছে কিনা, সেটিই জনগণের প্রশ্ন।   

এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মন্তব্য 'আওয়ামী লীগ চিরস্থায়ী ক্ষমতার জন্য বিএনপির ওপর নির্যাতন করছে'-এর জবাবে ড. হাছান বলেন, 'আওয়ামী লীগ জনগণের ক্ষমতায় বিশ্বাসী, জনগণ যতদিন চাইবে ততদিন আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনা করবে, এর একদিনও বেশি নয়।

তিনি বলেন, গত ১৩ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যেভাবে দেশ এগিয়েছে, প্রতিটি নাগরিকের ভাগ্যের উন্নয়ন হয়েছে; তাতে মানুষ বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আওয়ামী লীগের ওপর সন্তুষ্ট। পেট্রোলবোমা দিয়ে জীবন্ত, ঘুমন্ত মানুষ পুড়িয়ে হত্যাকারী; অবরোধের নামে মানুষকে অবরুদ্ধকারী বিএনপির সঙ্গে তো জনগণের থাকার কথা নয়। বিএনপি নিজেরাই জনগণের প্রতিপক্ষ হয়ে নানা কর্মসূচি দিয়ে তাদের কাছ থেকে অনেক দূরে সরে গেছে।'

'বিরোধী দল দমনেও আওয়ামী লীগ বিশ্বাসী নয়' উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, 'সন্ত্রাসী, পেট্রোলবোমা নিক্ষেপকারী বা ফৌজদারি অপরাধের আসামির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে যদি বিএনপি অপরাধীদের পক্ষ নেয়, তাহলে তো দেশে কোনও ফৌজদারি আইনই কার্যকর করা যাবে না; বিচারও থাকবে না। সুতরাং বিএনপির এসব কথা হাস্যকর।' 

/ইএইচএস/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা হাস্যকর: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা হাস্যকর: ওবায়দুল কাদের

পাবনা ও নাটোরে আ.লীগের  সম্মেলন ২০ ও ২১ নভেম্বর

পাবনা ও নাটোরে আ.লীগের  সম্মেলন ২০ ও ২১ নভেম্বর

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

চন্দ্রিমায় জিয়ার লাশ থাকার কোনও প্রমাণ কোথাও নেই: তথ্যমন্ত্রী

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

আগামী দিনের রাজনীতি হতে হবে জ্ঞাননির্ভর: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

নিয়মিত অসত্য বক্তব্য বিএনপি রেওয়াজে পরিণত করেছে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা হাস্যকর: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা হাস্যকর: ওবায়দুল কাদের

পাবনা ও নাটোরে আ.লীগের  সম্মেলন ২০ ও ২১ নভেম্বর

পাবনা ও নাটোরে আ.লীগের  সম্মেলন ২০ ও ২১ নভেম্বর

সরকারের বিষোদ্গার করে বিএনপি নেতারা মনের শান্তি খোঁজে: ওবায়দুল কাদের

সরকারের বিষোদ্গার করে বিএনপি নেতারা মনের শান্তি খোঁজে: ওবায়দুল কাদের

এদিক-ওদিক না ঘুরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন, বিএনপিকে ওবায়দুল কাদের

এদিক-ওদিক না ঘুরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন, বিএনপিকে ওবায়দুল কাদের

গুজব-অপপ্রচার রোধে অনলাইন টিম তৈরি করছে আওয়ামী লীগ

গুজব-অপপ্রচার রোধে অনলাইন টিম তৈরি করছে আওয়ামী লীগ

সর্বশেষ

ইভ্যালির রাসেল হাসপাতালে

ইভ্যালির রাসেল হাসপাতালে

অভিনেত্রী রিমি করিমের কণ্ঠ পুরুষের মতো!

অভিনেত্রী রিমি করিমের কণ্ঠ পুরুষের মতো!

ফ্রান্সের ২৪টি পুরাতন বিমান কিনতে যাচ্ছে ভারত

ফ্রান্সের ২৪টি পুরাতন বিমান কিনতে যাচ্ছে ভারত

বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্য ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা শিথিল

বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্য ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা শিথিল

আফগান নারী মন্ত্রণালয় এখন তালেবানের ‘পাপ ও পুণ্য’ মন্ত্রণালয়

আফগান নারী মন্ত্রণালয় এখন তালেবানের ‘পাপ ও পুণ্য’ মন্ত্রণালয়

© 2021 Bangla Tribune