X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

ডেল্টায় সংক্রমণের বেশি ঝুঁকিতে তরুণরা

আপডেট : ০৭ জুলাই ২০২১, ২১:২৪

বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, করোনার অন্যান্য স্ট্রেইনের চেয়ে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের অধিক ঝুঁকিতে কম বয়সীরা। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় দেখা গেছে, হাসপাতালে ভর্তি থাকা ২০ শতাংশ কোভিডে আক্রান্ত রোগী ৩৫ বছরের নিচে। এমন পরিস্থিতিতে কম বয়সীদের ওপর ডেল্টার প্রভাব ফেলার আশঙ্কা রয়েছে মনে করছেন গবেষকরা।

অস্ট্রেলিয়ায় বাড়ছে করোনারভাইরাসের সংক্রমণ। বিশেষ করে অতিসংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে ছড়াচ্ছে। বুধবার নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ক্যারি চ্যান্ট জানান, তার রাজ্যে ৩৭ জন কোভিড রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ১৪ জনের বয়স ৫৫ বছরের কম; আর আটজন ৩৫-এর নিচে।

এই চিকিৎসক বলেন, আক্রান্তরা হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণ আছেন। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট কোন হালকা রোগ নয়। তবে কারও ক্ষেত্রে হালকা হলেও অনেককে হাসপাতালে ভর্তি এমকি মৃত্যুও ডেকে আনতে পারে’।

মুরডক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ক্যাসান্দ্রা বলেন, প্রাথমিক এক গবেষণা দেখা গেছে ডেল্টায় তরুণরা সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। এজন্য অস্ট্রেলিয়ায় শিশু এবং তরুণদের টিকার আওতায় আনা হচ্ছে। কারণ অস্ট্রেলিয়ায় ডেল্টার প্রকোপ বাড়তে থাকায় হাসপাতালে কম বয়সীদের ভর্তি চোখে পড়ার মতো।

তিনি আরও বলেন, আপনি যদি অস্ট্রেলিয়ায় টিকা শুরুর পূর্বের চিত্র লক্ষ্য করেন তবে দেখবেন করোনায় আক্রান্তদের বেশির ভাগই প্রবীণ ছিল। এখন ৭০ বছরের বয়সী ব্যক্তিদের মধ্যে ৭০ শতাংশই টিকা দেওয়া সম্পন্ন। তারা এখন অনেকটাই ঝুঁকি মুক্ত’।

এই বিশেষজ্ঞের মতে, 'এমন কোন সঠিক প্রমাণ নেই যে কম বয়সী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেই ডেল্টায় মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি।  তবে এই ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত সংক্রমণযোগ্য। কেউ গুরুতর অসুস্থও হয়ে হাসপাতালে ভর্তিও হতে পারে'।

অস্ট্রেলিয়ায় গত ১৬ জুন থেকে এ পর্যন্ত ৩৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩৭ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

বছর বছর নেওয়া লাগতে পারে করোনা টিকা, বলছেন ফাইজার সিইও

বছর বছর নেওয়া লাগতে পারে করোনা টিকা, বলছেন ফাইজার সিইও

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

হুমকির পর বাড়ানো হলো ডাচ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৮

নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুত্তের নিরাপত্তা ব্যাপক পরিমাণে বাড়ানো হয়েছে। পুলিশ মাদক ব্যবসা সংশ্লিষ্ট অপরাধীদের সম্ভাব্য হামলার ইঙ্গিত পাওয়ার পর এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে অবগত সূত্রের বরাতে এই খবর জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নেদারল্যান্ডসে বন্দুক সহিংসতার ঘটনা বেশ বিরল। তবে গত কয়েক বছরে আন্ডারওয়ার্ল্ডের লোকেরা কিছু এলাকার নিয়ন্ত্রণের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠায় মাদক ব্যবসা সংক্রান্ত হত্যাকাণ্ড ও সহিংসতার ঘটনা সাধারণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

সরকারি একটি সূত্র প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বাড়ানোর খবর নিশ্চিত করেছে। তবে ডাচ ন্যাশনাল সিকিউরিটি কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। ওই খবরের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুত্তে বলেন, ‘নিরাপত্তা এবং সুরক্ষার ইস্যুতে কখনোই প্রকাশে আলাপ করা যায় না।’

মার্ক রুত্তের রক্ষণশীল সরকার সংঘবদ্ধ অপরাধের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তবে গত ১১ বছর ধরে ক্ষমতাও থেকেও সীমিত পরিমাণ ব্যক্তিগত সুরক্ষা নিয়েছেন এই প্রধানমন্ত্রী। রাজধানী হেগের রাস্তায় প্রায়ই সাইকেল চালিয়ে বাড়ি থেকে সরকারি অফিসে যেতে দেখা যায় তাকে। সেই সময় পথচারীদের সেলফি তোলার আব্দারও মিটিয়ে থাকেন তিনি।

মাদক ব্যবসায় সহিংসতা বাড়ার ইঙ্গিত হিসেবে গত জুলাইতে আমস্টারডামে প্রকাশ্য দিনের আলোতে খুন হন সুপরিচিত ডাচ ক্রাইম রিপোর্টার পিটার আর দে ভ্রাইস। একটি চাঞ্চল্যকার মাদক মামলায় স্বাক্ষ্য দেওয়ার পর খুন হন তিনি। 

/জেজে/

সম্পর্কিত

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০২

কিছু সময়ের জন্য আইসল্যান্ডবাসী ভেবে নিয়েছিলো যে, ইউরোপে প্রথমবারের মতো নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্লামেন্ট গড়েছে তারা। তবে পুনর্গননার পর দেখা গেলো ইতিহাস গড়া হয়নি তাদের।

দেশটির ৬৩ আসনের পার্লামেন্টের ৩০টি (৪৭.৬ শতাংশ) আসনে জয় পেয়েছে নারীরা। তবে আগে ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায় ৩৩টি (৫২ শতাংশ) আসনে নারীরা জয়ী হয়েছে।

ইউরোপের কোনও দেশেই এখন পর্যন্ত ৫০ শতাংশ আসনে নারীরা জয় লাভ করতে পারেনি। ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের তথ্য অনুসারে সবচেয়ে নিকটবর্তী সুইডেনের পার্লামেন্টের ৪৭ শতাংশ আসনে জিতেছে নারীরা।

অন্য অনেক দেশের মতো আইসল্যান্ডে নারী প্রতিনিধিত্বের কোনও আইনি কোটা নেই। তবে কয়েকটি রাজনৈতিক দল নুন্যতম নারী প্রার্থী রাখার বিধান রেখেছে।

নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্লামেন্ট গঠিত হওয়ার ঘোষণায় অনেকেই এই অর্জনকে মাইলফলক আখ্যা দেন। পুনর্গনণার আগে প্রেসিডেন্ট গাডনি জোহানেসন সম্প্রচারমাধ্যম আরইউভিকে বলেন, ‘ঐতিহাসিক এবং আন্তর্জাতিকতার আলোকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খবর হলো আইসল্যান্ডের পার্লামেন্টে প্রথমবার নারীরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ, আর ইউরোপেও এটা প্রথম। এটা ভালো খবর।’

লৈঙ্গিক সমতায় বিশ্বের শীর্ষ দেশ বিবেচিত হয়ে আসছে আইসল্যান্ড। গত ১২ বছর ধরে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের প্রতিবেদনে তারা এই সংক্রান্ত তালিকার শীর্ষে।

নারী ও পুরুষের জন্য সমান প্যাটার্নাল ছুটি দেয় দেশটি। এছাড়া সম বেতন নিশ্চিতে ১৯৬১ সালে আইন করে তারা। ১৯৮০’র দশকে বিশ্বে প্রথমবারের মতো নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয় দেশটিতে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

হুমকির পর বাড়ানো হলো ডাচ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা

হুমকির পর বাড়ানো হলো ডাচ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৩৪

জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়ে ভুলভাবে ব্যালট ভাঁজ করলেন ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)'র চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট। লাশেট ভুলভাবে ব্যালট ভাঁজ করায় তা আর গোপন থাকেনি, তিনি কাকে ভোট দিয়েছেন। বিষয়টি ইতোমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

রিটার্নিং অফিসার জানিয়েছে, ভুল করে ব্যালট উল্টো দিকে ভাঁজ করা হয়েছিল। তাকে নতুন একটা ব্যালট পেপার দেওয়া উচিত ছিল। কিন্তু ব্যালট একবার বাক্সে ফেলে দিলে আর কিছু করার নেই। তার ভোট বৈধ।

এদিকে লাশেটের নেতৃত্বাধীন সিডিইউ শলৎসের এসপিডি-র থেকে পিছিয়ে পড়েছে। ভোট ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় জার্মানির জাতীয় নির্বাচনে নিজ দলকে বিজয়ী দাবি করেছেন বামপন্থী দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এসপিডি)র প্রার্থী ওলাফ শলৎস। 

যদিও ম্যার্কেলের ইউনিয়ন শিবিরের নেতা আরমিন লাশেট এখনও পরাজয় মেনে না নেওয়ায় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া জটিল হতে পারে। সমর্থনে বিশাল ঘাটতি সত্ত্বেও অ্যাঙ্গেলার সম্ভাব্য উত্তরসূরি আরমিন লাশেট এখনই সরকার গড়ার আশা ছাড়ছেন না। লাশেট মনে করেন, বেশি ভোট পেয়ে এগিয়ে থাকলেই জয়ী হওয়া যাবে না। পুরো বিষয়টা এখন অংকের হিসাব। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

গড় আয়ু কমিয়েছে করোনা মহামারি: জরিপ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০৭

নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর করোনাভাইরাস মহামারিতে পশ্চিম ইউরোপে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ গড় আয়ু কমেছে। ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, চিলি থেকে শুরু করে ৩৯টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা গত বছর গড় আয়ু কমার পরিমাণ শনাক্ত করেছে।

সবচেয়ে বেশি গড় আয়ু কমেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুরুষদের। ২০১৯ সালের তুলনায় গত বছর তাদের গড় আয়ু কমেছে ২.২ বছর। এরপরে রয়েছে লিথুনিয়ার পুরুষেরা। তাদের কমেছে ১.৭ বছর।

অক্সফোর্ডের লেবারহাম সেন্টার ফর ডেমোগ্রাফিক সাইন্সের বিজ্ঞানীদের পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, মধ্য ও পূর্ব ইউরোপে গড় আয়ু কমার পরিমাণ কম।

গবেষণাটির সহ লেখক ড. জোসে আবুরতো বলেন, স্পেন, ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস, ইতালি, বেলজিয়ামের মতো পশ্চিম ইউরোপের দেশগেুলোতে এর আগে সবচেয়ে বেশি গড় আয়ু কমার ঘটনা ঘটে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়।

গবেষণাটি ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব এপিডেমিলোজিতে প্রকাশ হয়েছে। ড. জোসে আবুরতো বলেন, গবেষণার আওতায় থাকা ২২টি দেশে গড় আয়ু বেশি কমেছে ২০২০ সালের প্রথম ছয় মাসে। তিনি বলেন, আটটি দেশের নারী এবং ১১টি দেশের পুরুষদের আয়ু এক বছরের বেশি কমেছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

হুমকির পর বাড়ানো হলো ডাচ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা

হুমকির পর বাড়ানো হলো ডাচ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

ইতিহাস গড়া হলো না আইসল্যান্ডের

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না ইতালি

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মানিতে জোট সরকার গড়তে চান ওলাফ শলৎস

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৬

জার্মানির জাতীয় নির্বাচনে নিজ দলকে বিজয়ী দাবি করেছেন বামপন্থী দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এসপিডি)র প্রার্থী ওলাফ শলৎস। ম্যার্কেলের রক্ষণশীল দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)'র আর ক্ষমতায় থাকা উচিত হবে না মনে করছেন চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী শলৎস। নির্বাচনে এগিয়ে থেকে সোমবার তিনি বলেন, ‘সবুজ এবং লিবারেল পার্টির সঙ্গে জোট গঠনের সময় এসেছে’।

যদিও ম্যার্কেলের ইউনিয়ন শিবিরের নেতা আরমিন লাশেট এখনও পরাজয় মেনে না নেওয়ায় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া জটিল হতে পারে। সমর্থনে বিশাল ঘাটতি সত্ত্বেও অ্যাঙ্গেলার সম্ভাব্য উত্তরসূরি আরমিন লাশেট এখনই সরকার গড়ার আশা ছাড়ছেন না। লাশেট মনে করেন, বেশি ভোট পেয়ে এগিয়ে থাকলেই জয়ী হওয়া যাবে না। পুরো বিষয়টা এখন অংকের হিসাব। 

এদিকে প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি (২৫.৭ শতাংশ), ক্রিশ্চিয়ান গণতন্ত্রী সিডিইউ/সিএসইউ (২৪.১ শতাংশ), সবুজ দল (১৪.৮ শতাংশ), মুক্ত গণতন্ত্রী এফডিপি (১১.৫ শতাংশ), অভিবাসনবিরোধী এএফডি (১০.৩ শতাংশ), বাম দল (৫ শতাংশ) ও অন্যান্য (৮.৭ শতাংশ) ভোট পেয়েছে।

একটি জোট সরকার গঠনের চাবিকাঠি রয়েছে গ্রিন পার্টি এবং এফডিপি’র হাতে। দুটি দলের কেউই আলাদা করে ভালো ফল ঘরে না তুলতে পারলেও তাদের দুই দলের ভোট একসঙ্গে করলে জোট সরকার গঠনে চমক হতে পারে। জোট সরকার গঠন জার্মানিতে বর্তমানে একটি ঐতিহ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ, সরকার গঠনের মতো নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট কোনো দলই পায় না। যাই হোক না দীর্ঘ ১৬ বছর পর নতুন কোনও সরকার পেতে যাচ্ছে জার্মানরা।

এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ সময় পর জার্মানিতে ক্ষমতা হারাতে যাচ্ছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের রক্ষণশীল দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

ভোট কেন্দ্রে ভুল করে বসলেন লাশেট!

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ম্যার্কেলের বিরোধীরা

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

জার্মান নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

বছর বছর নেওয়া লাগতে পারে করোনা টিকা, বলছেন ফাইজার সিইও

বছর বছর নেওয়া লাগতে পারে করোনা টিকা, বলছেন ফাইজার সিইও

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

২-৬ মাসের ব্যবধানে বুস্টার ডোজে বাড়ে কার্যকারিতা: জনসন অ্যান্ড জনসন

২-৬ মাসের ব্যবধানে বুস্টার ডোজে বাড়ে কার্যকারিতা: জনসন অ্যান্ড জনসন

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

অস্ট্রেলিয়ার পর ফ্রান্সের সঙ্গে সামরিক চুক্তি বাতিল করলো সুইজারল্যান্ড

বিমান ক্রয়ে ক্ষোভ, সুইস প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলেন ম্যাঁক্রো

তিন বিশ্ব শক্তির চুক্তিতে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হতে পারে: উ. কোরিয়া

আকাস চুক্তির কারণে অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরুর আশঙ্কা উ. কোরিয়ার

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

সাবমেরিন বিতর্কে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলো ফ্রান্স

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা বৈঠক বাতিল

সর্বশেষ

কবে খুলবে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়?

কবে খুলবে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়?

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় ৭ দিন বাড়লো

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় ৭ দিন বাড়লো

বাংলাদেশের চূড়ান্ত দলে নেই কিংসলে, চমক হৃদয়

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপবাংলাদেশের চূড়ান্ত দলে নেই কিংসলে, চমক হৃদয়

স্পিকারের সঙ্গে মালদ্বীপের হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

স্পিকারের সঙ্গে মালদ্বীপের হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

ফিক্সিং-কাণ্ড: শাস্তি কমলো আরামবাগের ফুটবলারদের

ফিক্সিং-কাণ্ড: শাস্তি কমলো আরামবাগের ফুটবলারদের

© 2021 Bangla Tribune