X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ট্রেনে ভিড়হীন যাত্রা

আপডেট : ১৮ জুলাই ২০২১, ১৭:২৬

স্বাভাবিক ঈদের মতো ভিড় নেই রাজধানী ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে। অন্য যেকোনও সময়ের চেয়ে এবারের ঈদ যাত্রা অনেকটা আলাদা। শুধু নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী ছাড়া স্টেশনে অন্য ঘরমুখো মানুষের ভিড় দেখা যাচ্ছে না। এতে রেল কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি খুশি সাধারণ যাত্রীরাও। সাধারণ যাত্রীরা বলছেন, অন্যান্য পরিবহনেও যদি এ ধরনের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা যেতো তাহলে করোনার সংক্রমণ কমে আসতো।

স্টেশন সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে, এ বছর করোনা মহামারির কারণে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখেই চলছে ঈদযাত্রা। নির্ধারিত আসনের সব টিকিট অনলাইনে বিক্রি করা হয়েছে। কাউন্টারে শুধু মেইল কমিউটার ট্রেনগুলোর টিকিট দেওয়া হচ্ছে। যে কারণে আগের মতো ভিড় নেই। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট নিয়ে কাড়াকাড়িও নেই এবারের ঈদযাত্রাতে।

সকালে কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ সারোয়ার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সকাল পর্যন্ত ১২টির মতো ট্রেন ছেড়ে গেছে। সব ট্রেনে আসন সংখ্যা অর্ধেক আসন তথা শুধু বিজোড় সংখ্যার আসনের টিকিট বিক্রি করা হয়েছে। স্টেশন ও ট্রেনে প্রবেশের সময় হ্যান্ড স্যানিটাইজার করা হচ্ছে। মাস্ক ছাড়া কোনও যাত্রীকে স্টেশন ও ট্রেনে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। সব যাত্রী অত্যন্ত সুন্দর ও নিরিবিলিভাবে ভ্রমণ করতে পারছেন।

সকালে কমলাপুর স্টেশনে গিয়ে দেখা গেছে যাত্রীরা সারিবদ্ধভাবে স্টেশনে প্রবেশ করছেন। প্রবেশ পথে রেলওয়ের কর্মীরা প্রত্যেক যাত্রীর হাত স্যানিটাইজ করাচ্ছেন। একইভাবে ট্রেনে প্রবেশ করার সময়ও যাত্রীর হাত স্যানিটাইজ করানো হচ্ছে।

সকালে রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেসের যাত্রী সামছুদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বাসে অনেক ঝুঁকি। রাস্তাঘাটও ভালো না। অনেক যানজট। তাই ট্রেনই আমাদের জন্য অনেক নিরাপদ। অনলাইনে বারবার চেষ্টা করার পর টিকিট পেয়েছি। এখন বাড়িতে যাওয়ার জন্য এসেছি। একটু পর ট্রেন ছেড়ে যাবে। পরিবেশ দেখে অনেক ভালো লাগছে।

যাত্রী হাবিবা নাসরিন বুসরা বলেন, ট্রেনে অন্যান্য বছর যেমন ছাদে করেও যাত্রী বহন করা হতো এ বছর সেই ঝুঁকি নেই। এক আসনে বসলে আরেক আসন ফাঁকা। সব পরিবহনে যদি এমন ব্যবস্থা চালু করা যেতো তাহলে অবশ্যই ভালো হতো।

রেলওয়ের উপ-পরিচালক (অপারেশনস) মো. রেজাউল হক বলেন, বেশ কিছু নিয়ম মেনে ট্রেন চলাচল করছে। যাত্রার দিনসহ ৫ দিন আগে আন্তনগর ট্রেনগুলোর অগ্রিম টিকিট ইস্যু করা হয়। আন্তনগর ট্রেনের সব টিকিট একসঙ্গে অনলাইন এবং মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়েছে। কাউন্টার থেকে কোনও টিকিট বিক্রি করা হয়নি। অনলাইন এবং মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করা টিকিট রিফান্ড করা যাবে না বা ফেরত নেওয়া হবে না। আন্তনগর ট্রেনে সব ধরনের স্ট্যান্ডিং টিকিট ইস্যু সম্পূর্ণভাবে বন্ধ।

তিনি আরও বলেন, যাত্রীদের সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কোচের ধারণ ক্ষমতার শতকরা ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি করা হয়েছে। রাত্রীকালীন ট্রেনে বেডিং সরবরাহে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে জারিকৃত সব বিধিনিষেধ পালন নিশ্চিত করা হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যমান স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেনে চা, কফি, বোতলজাত পানি, প্যাকেটজাত খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

 

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

স্বাস্থ্যবিধি: ট্রেনে মোটামুটি, বাসে অর্ধেক, লঞ্চে নেই

স্বাস্থ্যবিধি: ট্রেনে মোটামুটি, বাসে অর্ধেক, লঞ্চে নেই

মধ্যরাত থেকে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ

মধ্যরাত থেকে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ

শুক্রবার থেকে রাজশাহীগামী ট্রেন চলাচল বন্ধ

শুক্রবার থেকে রাজশাহীগামী ট্রেন চলাচল বন্ধ

নেই করোনার ভয়, বেপরোয়া মানুষ

নেই করোনার ভয়, বেপরোয়া মানুষ

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৩:০০

গতবছরের ২৫ অক্টোবর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পান জুনায়েদ হোসেন। একমাস পর আসে নেগেটিভ রিপোর্ট। এ সময় তাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি। বাসায় থেকেই চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধসহ খাওয়াদাওয়া ও ব্যায়াম করে সুস্থ হয়েছেন।

করোনামুক্ত হওয়ার প্রায় আট মাস পরও ধকলমুক্ত হতে পারেননি জুনায়েদ। বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আগে উচ্চরক্তচাপ ছিল না, এখন সেটাও ধরা পড়েছে। টানা দু’মাস ওষুধ খেতে হয়েছে। তবু মাঝে মাঝে হৃৎস্পন্দন বেড়ে যায়। সঙ্গে যোগ হয়েছে ভুলে যাওয়ার সমস্যা। করোনা কেটে যাওয়ার প্রথম দুমাস এ সমস্যা ছিল। মাঝে ছিল না। সাত-আট মাস পর এখন আবার প্রকট হয়েছে।

জুনায়েদ বলেন, ‘কাউকে হয়তো কল করার জন্য ফোন হাতে নিয়েছি, কিন্তু ভুলে গেলাম কেন ফোন হাতে নিয়েছি।’ এ সময়ে তার ওজনও কমেছে প্রায় পাঁচ কেজি। ক্ষুধাও চলে গেছে। এ কারণে খাওয়া হয় না সময়মতো।

‘তবে বড় সমস্যা হচ্ছে প্যানিক অ্যাটাক। এটা এক দুর্বিসহ যন্ত্রণা।’ বললেন জুনায়েদ।

আরও জানালেন, ‘কেমন একটা মৃত্যুভয় সবসময় তাড়িয়ে বেড়ায়। তখন ওষুধ খেয়ে ঘুমিয়ে যাওয়া ছাড়া উপায় থাকে না।’

৩০ বছরের রুবেল করোনায় আক্রান্ত হন জুনের প্রথম সপ্তাহে। দুবলর্তা, ক্ষুধা না লাগা, ভুলে যাওয়ার সমস্যায় ভুগছেন এখনও।

বেসরকারি চাকরিজীবী ফাহমিদা আক্তার গত ডিসেম্বরে করোনায় আক্রান্ত হন বাড়ির পাঁচ সদস্যসহ। ফাহমিদা বলেন, তারা করোনা থেকে সেরে উঠেছেন, কিন্তু প্রভাবমুক্ত হতে পারেননি।

আগে সমস্যা না থাকলেও ফাহমিদার এখন মাঝে মাঝে শ্বাসকষ্ট হয়। ওষুধ খেতে হয় প্রতিদিন চারটা করে। রাতে ওষুধ খেতে ভুলে গেলেই ভোররাতে শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। ‘এ কষ্ট কত তীব্র, বোঝানো যাবে না’, বলেন ফাহমিদা।

করোনা সারলেও দীর্ঘমেয়াদী বিভিন্ন জটিলতা থেকেই যায়। একে লং কোভিড বলে আসছেন চিকিৎসকরা।

তারা বলছেন, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রোগী বিভিন্ন জটিলতায় ভুগছেন, তাদের মধ্যে শর্ট ও লং টার্ম জটিলতা রয়েছে। চিকিৎসাবিজ্ঞানে একে বলা হয় লং কোভিড বা লং হলার্স। এর মধ্যে আছে সিভিয়ার মেন্টাল হেলথ সমস্যা, অনিদ্রা, স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া, ক্রনিক ফ্যাটিগ বা ভীষণ অবসাদগ্রস্ত, দুর্বলতা, হৃৎস্পন্দন বেড়ে যাওয়া, ক্রনিক হাইপোক্সিয়া (অক্সিজেনের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কম), মাংসপেশীতে ব্যথা, চুল পড়ে যাওয়ার মতো ইত্যাদি।

বিদেশের মেডিক্যাল জার্নালসহ আমাদের চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, করোনায় যখন কেউ আক্রান্ত হন তখন শরীরের কিছু কিছু অঙ্গ যেমন হৃৎপিণ্ড, কিডনি, মস্তিষ্ক, লিভার, ফুসফুসে ড্যামেজ হচ্ছে। কিন্তু করোনা সেরে গেলেও ওই অঙ্গগুলো সেরে উঠছে না।

যুক্তরাষ্ট্রের শ্বাসতন্ত্র বিষয়ক চিকিৎসক ডা. ডিয়াজ বলেন, ‘লং কোভিডে কতজন আক্রান্ত হয়েছেন, কী কারণে এমন হচ্ছে তা নিয়ে আরও গবেষণা লাগবে।গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি ১০ জনে ১ জন আক্রান্তের মধ্যে এক মাস পরও দীর্ঘমেয়াদী উপসর্গ থাকে। তবে কতদিন সেটা স্থায়ী হবে তা জানা যায়নি। বিশেষ করে বয়স্ক ও আগে থেকে জটিলতায় ভোগা মানুষরা এতে আক্রান্ত হচ্ছেন বেশি।

তবে আক্রান্তদের সবার পরিস্থিতিই যে একইরকম হয় না, তা জানিয়ে ডিয়াজ বললেন, রোগের তীব্রতার মাত্রা একেক জনের একেক রকম। শিশুদেরও এটা হতে পারে।

তিনি জানান, কোভিড-পরবর্তী জটিলতার মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় অবসাদ। এ ছাড়া রয়েছে, উত্তেজিত হওয়ার জটিলতা, মনযোগ না থাকা, স্মৃতিশক্তি কমা, শ্বাসকষ্ট, বুক ধড়ফড় করা ও স্নায়বিক সমস্যা। এমনটা কি ভাইরাসের কারণে নাকি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ভিন্নতার কারণে হচ্ছে, তা জানতে আরও গবেষণা দরকার।

বাংলাদেশে লং কোভিড নিয়ে পরিপূর্ণ তথ্য নেই, কিন্তু অনেকেই চিকিৎসকদের কাছে যাচ্ছেন এই সমস্যা নিয়ে। কারও দীর্ঘসময় জ্বর এবং কারও ফ্যাটিগ (ক্লান্তি বা অবসাদ বোধ করা) থেকে যাচ্ছে। বাংলা ট্রিবিউনকে এমনটা বললেন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. রোবেদ আমিন।

তিনি বলেন, অনেকে করোনা থেকে সেরে ওঠার ১২ সপ্তাহ পরও ফুসফুস ও হার্টের সমস্যায় ভুগছেন।

‘করোনামুক্ত হওয়ার পর হার্টের সমস্যা নিয়ে এসেছেন এমন কয়েকজন রোগীকে আমি নিজেই চিকিৎসা করছি’ জানিয়ে রোবেদ আমিন বলেন, ‘যারা কোভিড থেকে সেরে উঠছেন তাদের প্রথম ফলোআপটা যেন দুসপ্তাহের ভেতরেই হয়। তাদের অন্তত দুই থেকে আড়াই বছর ফলোআপে রাখতেই হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনা থেকে একবার সেরে উঠলেই যে সম্পূর্ণ প্রটেকশন পেয়ে গেছেন এটা ভাবারও সুযোগ নেই। সেরে উঠলেও সব স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। কারন এখন অনেক ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে।’

 

 

/জেএ/এফএ/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাঁচ দিনব্যাপী যুগোস্লাভিয়া সফরের উদ্দেশ্যে ২৬ জুলাই সকালে বাংলাদেশ বিমানবন্দরে একটি বিশেষ বিমানে রওনা হবেন। এই বেলগ্রেড যাত্রার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হচ্ছে শান্তির সন্ধানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর নতুন অভিযাত্রা। বঙ্গবন্ধু শান্তির সন্ধানে তার এই নতুন অভিযাত্রায় বিশ্ববাসীর জন্য শান্তির বাণী নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি জানাতে যাচ্ছেন, বাংলাদেশে শান্তি চায়, যুদ্ধবিধ্বস্ত অর্থনীতি গড়ে তুলতে চায়।

বাসসের খবরে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুগস্লাভ প্রেসিডেন্ট মার্শাল টিটো এবং প্রধানমন্ত্রী জামাল বিয়েদিসের আমন্ত্রণে পাঁচ দিনব্যাপী এক সরকারি সফরের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন।

যুগস্লাভ সফর শেষে বঙ্গবন্ধু ৩১ জুলাই থেকে কানাডার রাজধানী অটোয়ায় রওনা হবেন কমনওয়েলথ রাষ্ট্রপ্রধানদের সম্মেলনে যোগদানের উদ্দেশ্যে। যুগোস্লাভিয়া সফরকালে মার্শাল টিটো ও বিয়েদিসের কার্যালয়ে তাদের সঙ্গে মিলিত হবেন বঙ্গবন্ধু। আশা করা যাচ্ছে যে, বঙ্গবন্ধু যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সঙ্গে বাংলাদেশ-যুগোস্লাভিয়া দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক এবং উপমহাদেশের পরিস্থিতি ও আলজিয়ার্সে আসন্ন জোটনিরপেক্ষ সম্মেলনের বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবেন।

এই সফরে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন, পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি কমিশনার নুরুল ইসলাম ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব তোফায়েল আহমেদসহ আরও অনেকে।

২৬ জুলাই, ১৯৭৩ সালের পত্রিকার একাংশ স্বীকৃতি প্রশ্নে প্রেসিডেন্ট ভুট্টো

লন্ডনে এইদিন পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ভুট্টো আবারও বলেন, বাংলাদেশে পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের নীতি পরিহার করলে তিনি বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানে ইচ্ছুক রয়েছেন। লোক বিনিময় সম্পর্কে তিনি বলেন, পাকিস্তান পাঁচ লক্ষ বাঙালিকে বাংলাদেশ প্রত্যাবর্তনের অনুমতি দানে প্রস্তুত আছে। তবে বিহারিদের পাকিস্তানে ফেরত নেওয়ার প্রস্তাব তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে আবারও প্রত্যাখ্যান করেন। প্রেসিডেন্ট দুই দিনব্যাপী তার সফর সম্পূর্ণ সফল হয়েছে বলে দাবি করেন। জানা গেছে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট উপমহাদেশের ঘটনাপ্রবাহ, আফগানিস্তানের অভ্যুত্থান, পারস্য উপসাগরীয় পরিস্থিতি সম্পর্কে আলোচনা করেন। প্রেসিডেন্ট লন্ডন থেকে ফ্রান্সে যান। সেখানে তার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ভারত-পাকিস্তানের যুদ্ধবন্দিসহ উপমহাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি সম্পর্কে আলোচনা করার কথা আছে।

পিন্ডির আলোচনা অব্যাহত থাকবে

ভারত-পাকিস্তান পর্যায়ের বৈঠক প্রসঙ্গ স্বদেশ প্রত্যাবর্তন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়। ২৭ জুলাই ভুট্টো পাকিস্তানে প্রত্যাবর্তন করবেন। দুদিন আগে উভয়দেশের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়। এদিন বিকালে আলোচনা অনুষ্ঠানের কথা ছিল। কিন্তু উভয়পক্ষই বিকালের আলোচনা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেন।

২৬ জুলাই, ১৯৭৩ সালের পত্রিকার একাংশ একদিন পরে পূর্ণাঙ্গ বৈঠক শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে। পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বলেন, আলোচনার সময়সীমা বলে কিছু নির্দিষ্ট নেই এবং ভারতীয় প্রতিনিধিদল আলোচনায় যোগ দিতে প্রয়োজনে আরও বেশি সময় অবস্থান করতে প্রস্তুত আছে।

আবারও বন্যার কবলে দেশ

পাঁচদিনের প্রবল বর্ষণে আসাম থেকে পাহাড়ি ঢল নেমে আসায় এদেশে প্রধান নদীসমূহ দ্রুতগতিতে পানি বাড়তে শুরু করেছে। এর আগে জুনে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়েছিল দেশ। সেই দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ বিভাগ থেকে জানানো তথ্য বলছে, প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকলে দুই-তিন দিনের মধ্যে আবার বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নেবে।

তিনদিনের হিসাবে ঢাকায় ১৭ ইঞ্চি এবং চট্টগ্রামে ১৬ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। চট্টগ্রামের মৌসুমের সর্বাধিক বৃষ্টিপাত হয় বলে জানানো হয়। সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৭ দশমিক ছয় ইঞ্চি।

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

অনলাইনে ভিসা সেবা দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৭

করোনা পরিস্থিতি শুরুর পর থেকেই ভিসা ও পাসপোর্ট সেবা দিতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ। কিন্তু সবক্ষেত্রে অনলাইন সেবা না চালু না থাকায় বিদেশি বিনিয়োগকারীসহ সেবা গ্রহণকারীরা নানামুখী জটিলতায় পড়ছিলেন। অবশেষে এসব ভিসা জটিলতা নিরসনে অনলাইন সেবা চালু করার বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সুরক্ষা সেবা বিভাগ। এ জন্য এ বিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়ে আগামী ২২ আগস্টের মধ্যে এ সেবা চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরইমধ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) সঙ্গে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা ছাড়পত্র অনলাইনে দেওয়া শুরু করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দ্বৈত নাগরিকত্ব, অন-অ্যারাইভাল ভিসা প্রদান, বিদেশে পাসপোর্ট পাঠানো, ভারতে চিকিৎসার জন্য যাওয়াসহ কোন কোন বিষয়ের আবেদন অনলাইনে নেওয়া সম্ভব সেটা যাচাই করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ জন্য মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের যুগ্ম-সচিব মো. যাহিদ হোসেন, উপ-সচিব মুহাম্মদ আবদুল হাই মিলটন, উপ-সচিব তরফদার মাহমুদুর রহমান এবং আইসিটি সেলের প্রোগ্রামার আইয়ুব হোসেনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামী ২২ আগস্টের মধ্যে এ অনলাইন সেবা চালু করার উদ্যোগ নিতে তাদের বলা হয়েছে।

অন অ্যারাইভাল ভিসা জটিলতা নিয়ে গত ৮ জুলাই বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। চিঠিতে করোনা পরিস্থিতির কারণে সুরক্ষা সেবা বিভাগ থেকে গত ১৬ জুন এক চিঠিতে শুধুমাত্র বিদেশি বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী ছাড়া সকল দেশের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে আগমনী (অন-অ্যারাইভাল) ভিসা প্রদান স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তাই, আগমনী ভিসা প্রদান স্থগিত রাখার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠান ও এয়ারলাইন্সকে জরুরি ভিত্তিতে অবহিত করার অনুরোধ জানানো হয়।

অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে নৌ বন্দরগুলো থেকে বাংলাদেশের এন্ট্রি ভিসা নিতে সমুদ্রগামী জাহাজের বিদেশি ক্যাপ্টেন, নাবিক ও ক্রুদের বেশ কিছু নির্দেশনা মেনে চলতে হয়। এ বিষয়েও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে সমুদ্রগামী জাহাজের নাবিকদের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত নির্দেশনায় বলা হয়, সমুদ্রগামী জাহাজের পাইলট ও নাবিক ও ক্রুরা 'নেক্সট এভেইলেবল ফ্লাইট' না পাওয়া পর্যন্ত জাহাজ থেকে সাইন অফ করে এন্ট্রি ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন। ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের নিয়ম অনুযায়ী ক্রুরা কোনও দেশে বিশেষ কারণে আটকা পড়লে তাদের হোটেল অথবা অন্য কোনও স্বাস্থ্যসম্মত জায়গায় থাকার ব্যবস্থা করা সেই দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরাপত্তা ও বহিরাগমন অনুবিভাগ) আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আজ হোক আর কাল হোক, সব সেবাই অনলাইনে চালু করতে হবে। সেজন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।এরইমধ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) সঙ্গে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের যে নিরাপত্তা ছাড়পত্র দিতে হয় সেটা অনলাইনে দেওয়া হচ্ছে। এই কার্যক্রম পুরোপুরিই অনলাইনে চলছে। আর অন্যগুলোর সেবা অনলাইনে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে কবে নাগাদ এ কার্যক্রম শেষ করা যাবে সেটা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

/এমআর/

সম্পর্কিত

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১০:০৩

কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় বাংলাদেশকে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা পাঠানোর জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোতিগি তোশিমিতসুর কাছে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন তিনি।

শনিবার (২৪ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে আজ বিকালে ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকা নিয়ে ক্যাথে প্যাসিফিকের একটি ফ্লাইট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নাওকি ইতো এই টিকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের কাছে হস্তান্তর করেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চিঠিতে মন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশ ও জাপানের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করার জন্য দুদেশই কাজ করে যাচ্ছে। দুদেশের কমপ্রিহেনসিভ রিলেশনসকে উন্নততর স্ট্র্যাটেজিক স্তরে নেওয়ার জন্য কাজ চলছে।

চিঠিতে জাপানকে ‘প্রকৃত বন্ধু’ হিসেবে উল্লেখ করে আব্দুল মোমেন আশা করেন, কোভিড সহযোগিতা দুদেশের সম্পর্ককে আরো মজবুত ও গভীর করবে। তিনি টেকিওতে চলমান অলিম্পিক আসরের সর্বতো সাফল্য কামনাও করেন।

আরও পড়ুন:

দেশে পৌঁছালো জাপানের দেওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা 

/এসএসজেড/ইউএস/

সম্পর্কিত

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

করোনামুক্ত হয়েও ধকল বয়ে বেড়াচ্ছেন তারা

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:০১

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এক কোটি ১ লাখ ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৭৬৮ ডোজ। এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন। শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়। এদিন মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার ২৯ ডোজ।

এখন পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ২ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন এসেছে। সেই অনুযায়ী এখন মাত্র কোভিশিল্ডের ৮১ হাজার ৮৮১ ডোজ ভ্যাকসিন অবশিষ্ট আছে। শনিবার কাউকেই কোভিশিল্ড দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, এখন পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো তথ্য থেকে আরও জানা যায়, প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছ সংকট। এদের সবাইকেই অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোন সিদ্ধান্ত দেয়নি। তবে দেশে আজ আড়াই লাখ ডোজ অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জাপান সরকার কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাঠিয়েছে।    

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১৩ জনকে আর এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৫০ হাজার ২১৭ জনকে।

এছাড়া ১১ লাখ ৭৭ হাজার ১৭১ ডোজ সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এখন পর্যন্ত। এর মধ্যে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১ লাখ ৭২ হাজার ৬২৪ জনকে আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ৫৪৭ জনকে।  

মডার্নার টিকা এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ৬ হাজার ১২৩ ডোজ, আর আজকে দেওয়া হয়েছে ৩৬ হাজার ৫৮৬ ডোজ।

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

সর্বশেষ

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

জাতীয় বায়োটেকনোলজি কুইজ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

জাতীয় বায়োটেকনোলজি কুইজ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

দাঁড়াতে পারছেন না শুভ, বিছানায় এক সপ্তাহ

দাঁড়াতে পারছেন না শুভ, বিছানায় এক সপ্তাহ

বাসাবাড়িতে চুরি করতে গৃহকর্মী নিয়োগ!

বাসাবাড়িতে চুরি করতে গৃহকর্মী নিয়োগ!

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আমি নেতা বানাইনি: চুমকি

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আমি নেতা বানাইনি: চুমকি

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

এক সেকেন্ডেই ৫০ হাজার মুভি ডাউনলোড

এক সেকেন্ডেই ৫০ হাজার মুভি ডাউনলোড

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

লীগ শব্দ জুড়ে দিয়েই আ.লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্তের সুযোগ নেই: ওবায়দুল কাদের

লীগ শব্দ জুড়ে দিয়েই আ.লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্তের সুযোগ নেই: ওবায়দুল কাদের

পর্নো ছবির প্রস্তাব পেয়েছিলেন এই তারকারাও!

পর্নো ছবির প্রস্তাব পেয়েছিলেন এই তারকারাও!

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ‘ফাইনাল’

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ‘ফাইনাল’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

স্বাস্থ্যবিধি: ট্রেনে মোটামুটি, বাসে অর্ধেক, লঞ্চে নেই

স্বাস্থ্যবিধি: ট্রেনে মোটামুটি, বাসে অর্ধেক, লঞ্চে নেই

মধ্যরাত থেকে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ

মধ্যরাত থেকে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ

শুক্রবার থেকে রাজশাহীগামী ট্রেন চলাচল বন্ধ

শুক্রবার থেকে রাজশাহীগামী ট্রেন চলাচল বন্ধ

নেই করোনার ভয়, বেপরোয়া মানুষ

নেই করোনার ভয়, বেপরোয়া মানুষ

© 2021 Bangla Tribune