X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বাগবিতণ্ডার জেরে মসজিদে তালা, সংঘর্ষে আহত ৫

আপডেট : ২১ জুলাই ২০২১, ২২:১৫

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার চন্দ্রপাড়ার উত্তরপাড়া জামে মসজিদে প্রধান ফটকে তালা দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষে গুরুতর আহত মসজিদ কমিটির সভাপতি মাহবুবুল আলম (৬৫), স্থানীয় খালেকুজ্জামান (৩৪) ও জুয়েল রানাকে (২৮) কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। 

বুধবার (২১জুলাই) দুপুরে জোহরের নামাজের আগ মুহূর্তে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচ জন আহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ। 

তিনি বলেন, সকালে জামে মসজিদে ঈদুল আজহার নামাজ পড়াকে কেন্দ্র করে মসজিদ কমিটির সভাপতি মাহবুবুল আলম ও প্রতিবেশী শফিকুল ইসলাম শফিকের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এর জেরে ঈদ জামাতের পর একটি পক্ষ মসজিদের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। মসজিদ কমিটির সভাপতি মাহবুবুল আলমসহ স্থানীয় মুসুল্লিরা দুপুরে জোহরের নামাজ পড়তে গিয়ে দেখেন প্রধান ফটকে তালা ঝোলানো। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে আহত হয় পাঁচ জন। 

খবর পেয়ে কেন্দুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এ ঘটনায় কোনও মামলা দায়ের হয়নি।

কেন্দুয়া থানার এসআই আনিসুর রহমান বলেন, বুধবার বিকাল চারটার সময় ঘটনাস্থলে গিয়ে মসজিদে তালা ঝোলানো অবস্থায় দেখতে পাই। পরে স্থানীয়দের ডেকে ঘটনার বিষয়ে জানার চেষ্টা করি। কিন্তু তালা ঝোলানোর বিষয়ে একটি পক্ষ অপর পক্ষকে দায়ী করেছে। পরে মসজিদের প্রধান ফটকের তালা খুলে দিয়ে থানায় চলে আসি। এখন পর্যন্ত কেউ থানায় এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেননি বলে জানান তিনি।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

সৌদি থেকে ফিরে কৃষিকাজ করে মাসে আয় ৩ লাখ

সৌদি থেকে ফিরে কৃষিকাজ করে মাসে আয় ৩ লাখ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

উজিরপুরে ভুল চিকিৎসায় কাঠমিস্ত্রির মৃত্যুর অভিযোগ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৫:৫৫

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের পিরেরপাড় গ্রামে পল্লী চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় নিখিল চন্দ্র সরকার (৩৫) নামের ‍এক কাঠমিস্ত্রির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (২৪ জুলাই) রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিখিল ও‌‍ই গ্রামের মৃত নিত্যানন্দ সরকারের ছেলে।

রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে উজিরপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করার পর লাশ ‍উদ্ধার করে শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, আগে দিনমজুর ছিলেন বাসুদেব মুহুরি। পরবর্তীতে চালের মিলে শ্রমিকের কাজ করতেন। সর্বশেষ উপজেলার লোকনাথ বাজারে ফার্মেসির ব্যবসা শুরু করেন তিনি।‍ এরপর হয়ে যান পল্লী চিকিৎসক।‍ ‍পাশাপাশি হোমিও প্যাথিকেরও চিকিৎসা দিতেন বাসুদেব।  

নিখিলের স্ত্রী ‍উর্মিলা সরকার বলেন, তার স্বামী প্রতিদিনের মতো শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ঘরে আসলে কিছু সময় পর তার শরীরে এলার্জি দেখা দেয়। তখন পল্লী চিকিৎসক বাসুদেব মুহুরিকে খবর দিলে তিনি এসে চারটি ইনজেকশন দেন। এর কিছু সময় পরই নিখিলের মৃত্যু হয়। ঘটনার পর সাথে আনা ব্যাগ গুছিয়ে পালিয়ে যান বাসুদেব।

উজিপুর মডেল থানার ‍উপ-পরিদর্শক (এসআই) কমল চন্দ্র জানান, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর লাথ ‍উদ্ধার করে মর্গে নেওয়া হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এ বিষয়ে পল্লী চিকিৎসক বাসুদেবের সঙ্গে যোগাযোগ করতে তার চেম্বার খোলা পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনও বন্ধ পাওয়া গেছে।

এলাকার আরও কয়েকজন জানান, বাসুদেবের বিরুদ্ধে কিছু দিন আগেও ভুল চিকিৎসায় শিশুকন্যার মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পাওনাদারের লাশ নিয়ে দেনাদারের বাড়িতে স্বজনরা

পাওনাদারের লাশ নিয়ে দেনাদারের বাড়িতে স্বজনরা

হাসপাতালে ২৭ ঘণ্টা চিকিৎসা না পেয়ে সাংবাদিকের মায়ের মৃত্যু

হাসপাতালে ২৭ ঘণ্টা চিকিৎসা না পেয়ে সাংবাদিকের মায়ের মৃত্যু

সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ আর নেই

সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ আর নেই

রেজিস্ট্রার অফিসের বারান্দায় সন্তান প্রসব!

রেজিস্ট্রার অফিসের বারান্দায় সন্তান প্রসব!

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৫:৪৬

কঠোর বিধিনিষেধের তৃতীয় দিনে ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক অনেকটাই ফাঁকা দেখা গেছে। সড়কে মাঝে মধ্যে চলছে পণ্যবাহী যান, মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার আর কিছু ব্যক্তিগত যানবাহন। তবে সড়কে ছিল না কোনও গণপরিবহন। রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

এদিকে লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে রয়েছেন। শহরের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের প্রশ্নের উত্তর সন্তোষজনক না হলে অপ্রয়োজনে বের হওয়া ব্যক্তিদের জরিমানার আওতায় আনা হচ্ছে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘মহাসড়ক ফাঁকা। এ সড়কে পণ্যপরিবহনে নিয়োজিত আর কিছু ব্যক্তিগত যানবাহন চলাচল করছে।’ সড়কে দূরপাল্লার কোনও বাস নেই বলে জানান তিনি।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৫:২৬

সারাদেশে ১৪ দিনের কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনেও বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে বাংলাবাজার প্রান্ত থেকে নৌ রুটে যাত্রী ও যানবাহন আসছে শিমুলিয়া প্রান্তে। ফেরি থেকে নেমেই তারা বিভিন্নভাবে চলে যাচ্ছেন গন্তব্যে। রবিবার (২৫ জুলাই) সকাল থেকে শিমুলিয়া ঘাট বেশ ফাঁকা দেখা গেলেও বাংলাবাজার ঘাট থেকে ঢাকামুখী যাত্রীরা আসা শুরু করলে ভিড় বেড়ে যায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোহাম্মদ ফয়সাল জানান, শিমুলিয়া ঘাটে দক্ষিণাঞ্চলমুখী কোনও যান ও যাত্রী নেই। তবে, বাংলাবাজার ঘাট থেকে যান ও যাত্রী নিয়ে ফেরি চলছে। নৌ রুটে ছয়টি ফেরি চলছে বলে জানান তিনি।

 মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল কবির জানান, আমাদের শিমুলিয়া প্রান্তে যাত্রী কিংবা যানবাহনের চাপ নেই। তবে বাংলাবাজার থেকে আসা ফেরিগুলোতে যাত্রী ও ছোট বড় যানবাহন রয়েছে চোখে পড়ার মতো। ফেরি থেকে নেমেই রাজধানীমুখী যাত্রীরা বিভিন্ন মাধ্যমে স্ব স্ব গন্তব্যে চলে যাচ্ছে। আর স্বল্পতম সময়ের মধ্যেই শিমুলিয়া ঘাট ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৫:১৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে রোগীর চাপ। করোনার টেস্ট করাতে কোনও ধরনের স্বাস্থ্যবিধি বা নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখেই রোগীরা দীর্ঘ লাইনে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়েছেন। এ অবস্থায় রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি উপজেলা পর্যায়ে করোনার টেস্ট কমিয়ে দেওয়ার কারণে জেলা পর্যায়ে রোগীর চাপ বেড়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতিদিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালে এক থেকে দেড়শ’ রোগীর করোনা ভাইরাসের অ্যান্টিজেন টেস্ট করানো হতো। কিন্তু আজ সকাল ৮টার পর থেকে হঠাৎ করে রোগীর চাপ বেড়ে যায়। হাসপাতালে আসা বেশিরভাগ রোগীরই জ্বর, সর্দিসহ নানা উপসর্গ রয়েছে। তবে তারা নিরাপদ দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই গাদাগাদি করে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টেস্ট করাচ্ছেন। 

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. ওহায়িদুজ্জামান বলেন, হঠাৎ করে রোগীর চাপ বেড়েছে। অ্যান্টিজেন টেস্ট করতে আসা রোগীদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে আমি কিছুটা অবাক হয়েছি। তাই নিজেই হাসপাতালের উপরতলা থেকে নিচে নেমে এসেছি। হঠাৎ কেন রোগীর চাপ বেড়েছে বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি। তবে যেটুকু জেনেছি উপজেলা পর্যায়ে অ্যান্টিজেন টেস্ট কমিয়ে দেওয়ার কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে রোগীর চাপ বেড়েছে। 

 চাপ সামলানোর জন্য আগামীকাল সকাল ৮টা থেকে অতিরিক্ত আরও একজনকে দায়িত্ব দিয়ে করোনার অ্যান্টিজেন টেস্ট আরও বাড়ানো হবে। প্রতিদিন অন্তত দুইশ’ রোগীর যেন টেস্ট করানো যায়, সেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আগের মতো কারও ফোন কিংবা তদবির রাখা হবে না। লাইনে দাঁড়িয়েই সবাইকে করোনার অ্যান্টিজেন টেস্ট করাতে হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এখন পর্যন্ত ছয় হাজার ২৬৯ জন আক্রান্তের মধ্যে চার হাজার ১৮৯ জন সুস্থ হয়েছেন। কিন্তু এখনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক হাজার ৯৬৭ জন রোগী আইসোলেশনে আছেন। এর মধ্যে সেফ আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ৯৪০ জন। প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে চিকিৎসা পাচ্ছেন ২৭ রোগী। এখন পর্যন্ত জেলায় ৪৪ হাজার ৭৫৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। করোনা শনাক্ত হয়েছে সর্বমোট ছয় হাজার ২৬৯ জন। আর মারা গেছেন ৮৬ জন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৪:৪৭

করোনা সংক্রমণরোধে সরকারঘোষিত কঠোর লকডাউনেও বিধিনিষেধ অমান্য করে নৌ পথে উৎসবে মেতে উঠেছে উঠতি বয়সী তরুণরা। এতে স্বাস্থ্যবিধি যেমন উপেক্ষিত হচ্ছে, তেমনই বাড়ছে করোনা ঝুঁকি। এ অবস্থায় নৌ পথেও অভিযানের দাবি তুলেছেন নদী পাড়ের বাসিন্দারা।

জানা গেছে, প্রতিবছর ঈদের পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিতাস নদীর বিভিন্ন অংশে নৌকায় ডিজে পার্টির আয়োজন করে এক শ্রেণির উঠতি বয়সী তরুণ। এ বছরও চলমান কঠোর লকডাউনে তারা থেমে নেই। কোনও বাধা ছাড়ায় নৌকায় বিশাল বিশাল সাউন্ড বক্সে গান বাজিয়ে বিকট শব্দে আনন্দ-উৎসবে মেতে উঠছে তারা। এমন চিত্র সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তিতাস নদীর দুই প্রান্তে চোখে পড়ে। বিশেষ করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পূর্বাংশের তিতাস নদী এবং শহরের দক্ষিণাংশের কাউতলি কুরুলিয়া অংশে ডিজে পার্টির তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। 

এদিকে একই চিত্র দেখা গেছে নবীনগর উপজেলার তিতাস নদীর রসুলপুর এলাকা এবং একই নদীর বিজয়নগর উপজেলার রামপুর, মনিপুর, দত্তখোলা ও পত্তনে। সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর, ইসলামাবাদ ও আখাউড়া উপজেলার খরমপুর ও শ্যামনগর এলাকাতেও নৌকা ভাড়া করে এমন উৎসব করতে দেখা যায়। প্রতিদিন নদীর বিভিন্ন অংশে ইঞ্জিনচালিত নৌকা যোগে ডিজে পার্টির নামে উঠতি বয়সী তরুণরা গান বাজিয়ে নাচানাচি করে।

শহরের মেট্রো বাজার এলাকার ব্যবসায়ী মো. মাসুম মিয়া বলেন, সরকার সবুজ সড়কপথে কঠোরতা দেখালেও নৌ পথে অনেকটা উদাসীন। নৌ পথেও কঠোর হতে হবে। তা না হলে সাধারণ মানুষের চলাচল অনেকাংশে বাড়বে। আর এতে করোনা সংক্রমণও বাড়বে।

আরেক ব্যবসায়ীর আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ঈদ পরবর্তী সময়ে নদীতে এক শ্রেণির উঠতি বয়সের তরুণদের ডিজে পার্টির তৎপরতা বেড়েছে। বর্তমান করোনাকালে সরকারি কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিধিনিষেধ থাকলেও, নৌ পথে এসব তোয়াক্কা করছে না তারা। তাদেরকে জরিমানা পাশাপাশি আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

তিতাস পাড়ের বাসিন্দা কাশিনগর এলাকার নির্মল দাস জানান, প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নৌকায় ডিজে পার্টির নামে উঠতি বয়সী তরুণদের লাফালাফি আর বিকট শব্দে আমরা নদীর তীরের বাসিন্দারা অতিষ্ঠ। তাদেরকে ঠেকাবে কে?

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়ুয়া  জানান, নৌ পথে ডিজে পার্টির মতো উশৃঙ্খল কর্মকাণ্ড ঠেকাতে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশে প্রতিটি নৌ পথে অভিযান জোরদার করা হয়েছে। নবীনগরের তিতাস নদীতে ডিজে পার্টি চলাকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করা হয়েছে। নৌ পথে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একাধিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেক টিম তৎপর রয়েছে। কাউকেই স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে নৌ পথে ডিজে পার্টি করতে দেয়া হবে না।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

সর্বশেষ

উজিরপুরে ভুল চিকিৎসায় কাঠমিস্ত্রির মৃত্যুর অভিযোগ

উজিরপুরে ভুল চিকিৎসায় কাঠমিস্ত্রির মৃত্যুর অভিযোগ

দল ঢেলে সাজাচ্ছেন অলি আহমদ

দল ঢেলে সাজাচ্ছেন অলি আহমদ

থুতনিতে মাস্ক রেখে সিগারেট খাওয়ায় ৫০০ টাকা জরিমানা

থুতনিতে মাস্ক রেখে সিগারেট খাওয়ায় ৫০০ টাকা জরিমানা

মিসরকে হারিয়ে টিকে থাকলো আর্জেন্টিনা

অলিম্পিক ফুটবলমিসরকে হারিয়ে টিকে থাকলো আর্জেন্টিনা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

করোনায় কর্মহীনদের পরিবারে চাপা হাহাকার: জিএম কাদের

করোনায় কর্মহীনদের পরিবারে চাপা হাহাকার: জিএম কাদের

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

মৃত্যু ও সংক্রমণে এগিয়ে ঢাকা: স্বাস্থ্য অধিদফতর

মৃত্যু ও সংক্রমণে এগিয়ে ঢাকা: স্বাস্থ্য অধিদফতর

মেয়েদের এক নম্বরের বিদায়

অলিম্পিক টেনিসমেয়েদের এক নম্বরের বিদায়

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

ধান বেচে ১৯৮টি আবেদন করেছিলেন মনিরুল

ধান বেচে ১৯৮টি আবেদন করেছিলেন মনিরুল

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

সৌদি থেকে ফিরে কৃষিকাজ করে মাসে আয় ৩ লাখ

সৌদি থেকে ফিরে কৃষিকাজ করে মাসে আয় ৩ লাখ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে আরও ১৪ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে আরও ১৪ মৃত্যু

পানির অভাবে পাট পচাতে পারছেন না চাষিরা

পানির অভাবে পাট পচাতে পারছেন না চাষিরা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে মৃত্যু বেড়ে ২০

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে মৃত্যু বেড়ে ২০

৫০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

৫০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

সড়কে এবার ফেরার চাপ 

সড়কে এবার ফেরার চাপ 

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে জুলাইয়ে সবচেয়ে কম মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে জুলাইয়ে সবচেয়ে কম মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune