X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বিদেশে সামান্য ভুল নষ্ট করে রোজগার ও অবস্থান

আপডেট : ২২ জুলাই ২০২১, ১৪:৪৩

প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির সমীকরণে প্রতিনিয়ত যুদ্ধে টিকে থাকতে হচ্ছে প্রবাসীদের। পরিবারের সুখের আশায় বিদেশে পড়ে থাকতে হয় তাদের। দেশে থাকা পরিবার-পরিজনদের আকাশচুম্বী চাওয়া-পাওয়ার অনেকটাই নির্ভর করে তাদের উপার্জনের ওপর। হাসিমুখে তারা সর্বোচ্চটুকু দিয়ে যাচ্ছে দেশকে। কেউ কেউ পরিবারের মুখে হাসি ও স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনলেও অনেকেই প্রবাসে অসহায়ত্বের গ্লানি টানছেন। পদে পদে তারা প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। অথচ দেশ গড়ার পেছনে এ সারথিদের রয়েছে অগ্রণী ভূমিকা। তারাই উর্ধ্বগতি নিয়ে এসেছেন দেশের রিজার্ভ ফান্ডে।

বিদেশে ভিসা না থাকলে, যদি ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি না করা হয় বা ভিসার অপব্যবহার হলে বিদেশে গ্রেফতার হতে হয়, শাস্তি হয় এবং নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সে দেশের আইন, রীতি নীতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতিকে কটাক্ষ করলে বা সামাজিক উৎপাত সৃষ্টি করলে বা মানুষের অসন্তোষের কারণ হলে তাকে সে দেশে অবস্থান করতে দেওয়া হয় না। এমনকি সে দেশের স্থানীয় রাজনীতিতে জড়িত হলে বা সরকারের কোনও নীতির সমালোচনা করলে বা মিছিল মিটিং ইত্যাদিতে অংশ নিলেও সে দেশে অবস্থান করা যায় না। গোপনে অবৈধ ব্যবসা, পণ্যপাচার, মানবপাচার বা যৌন ব্যবসায় কাউকে বাধ্য করা হলে সেটাও আইন বিরোধী এবং সে দেশে থাকার সুযোগ থাকে না। অর্থাৎ অপরাধ কাজে জড়িত হলে আইনের আওতায় আসতেই হবে। অনেকে অজান্তে বা জেনে বুঝেই নানা অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে যায়। যেমন: চুরি, ছিনতাই, অপহরণ, ডাকাতি, মাস্তানি, মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা ইত্যাদি। এতে সে দেশে অবস্থান করার সুযোগ নষ্ট হয় এবং নিজ দেশের ইমেজ নষ্ট হয়। কোনও দেশে প্রবেশ করার বিশেষ শর্ত থাকে, সে শর্ত মেনেই ভিসার জন্য আবেদন করা হয় এবং সে অনুযায়ী ভিসা ইস্যু করে। এই ভিসার শর্ত ভঙ্গ হলেই সে দেশে অবস্থান করার সুযোগ নষ্ট হয় এবং আইনের আওতায় চলে আসে।

প্রবাসী শ্রমিক বৈধ ও অবৈধভাবে অন্তত ৮ থেকে সাড়ে ৮ লাখের মতো বাংলাদেশি রয়েছেন মালয়েশিয়ায়। দেশটির ১৩টি প্রদেশে পামওয়েল আর রাবার প্ল্যান্ট, মেটাল, মেনুফ্যাকচারিং, কন্সট্রাকশন, হাই স্কিলড স্পেসিফিক ওয়ার্ক, তেল-গ্যাস ও রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিসহ সবজায়গাতেই বাংলাদেশিরা দক্ষতার সঙ্গে কাজ করছেন, কুড়াচ্ছেন সম্মানও। স্বাধীনতার পর থেকে বন্ধুপ্রতীম দেশ মালয়েশিয়ার সঙ্গে বাংদেশের রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক। এ সম্পর্কের ধারা বজায় রেখে শ্রম রফতানি, ব্যবসা-বাণিজ্য, পর্যটনে দু’দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে বেঁধে দেওয়া সরকারের বিধিনিষেধ ভঙ্গ করে অধিক সংখ্যক লোক জমায়েত হয়ে ঈদের নামাজ আদায় করাকে মালয়েশিয়ার নাগরিকরা ভালোভাবে নেননি। তাদের ধারণা মালয়েশিয়াকে তোয়াক্কা করেননি বিদেশি নাগরিকরা এবং এটি জাতীয় ইস্যুতে পরিণত হয়েছে। ফলে একটি প্রাদেশিক পুলিশ প্রধান জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। পুলিশ কঠোর অবস্থানে গিয়ে গ্রেফতার করেছে। এর পূর্বে করোনাকালে বিধিনিষেধের মধ্যেও পুলিশ সহানুভূতি দেখিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এই একটি ঘটনা যেন পাল্টে দিলো সবকিছুকে।

প্রবাসী শ্রমিক একইভাবে ঈদের রাতে নিয়ম ভেঙে বাসস্থানে জমায়েত হয়ে আনন্দ করেন প্রবাসীরা। এতে শঙ্কিত প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে গ্রেফতার করে। শুধু বর্তমান পরিস্থিতিতে নিয়ম কানুন তোয়াক্কা না করার ফলে আইনের আওতায় যেতে হয়েছে অনেককে। এতে মালয়েশিয়া সরকার বলেছে যারা এস ও পি মানেনি তাদের শাস্তি দেবে এবং নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেবে। সময়ের প্রেক্ষিতে এই কঠোর বিষয়গুলো বিবেচনা না করার কুফল ভোগ করতে হচ্ছে।

এ ধরনের নানান কর্মকাণ্ড বিদেশে থাকা অন্যান্য পেশার নাগরিকদের জীবন কঠিন করে তোলে, কেননা বিদেশে যেকোনও ব্যক্তির ক্ষেত্রে আগে দেশ দেখা হয়। ভালো বা মন্দ কাজের জন্য মুহূর্তে সে দেশ সম্পর্কে ধারনা তৈরি হয় এবং সেই মতো নাগরিকদের সঙ্গে আচরণ করে। তাই বিদেশে নাগরিকের যেকোনও কাজ দেশের ইমেজের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

বিদেশে আয় করে দেশে বাড়িতে টাকা পাঠিয়ে যেমন বলা হয় দেশের জন্য করছি, ঠিক তেমনি বিদেশের মাটিতে করা অনিয়ম বা খারাপ কাজের প্রতিক্রিয়াও নিজ দেশের ওপরই পড়ে অর্থাৎ দেশের ক্ষতি হয়। একজন প্রবাসী সুনাম ও দুর্নাম দুটোই দেশের ওপর পড়ে। মানুষ ভালোটা কমই মনে রাখে। তাই ব্যক্তিকে সাবধান হতে হবে। আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে যেমন যা ইচ্ছা করা যায় না, বিদেশ ঠিক তেমনই, যা ইচ্ছা তাই করা যায় না। বিদেশ অন্য দেশের নাগরিককে অতিথি হিসেবেই দেখে। যে দেশে বসে আয় করে নিজের পরিবারের উন্নতি করা হয়, সে দেশ ও কর্মক্ষেত্রের প্রতি দায় দায়িত্ব পালন করতে হয়, না হলে প্রত্যাখ্যান করে।

আটক প্রবাসী শ্রমিক একদিকে ভুলে বা ইচ্ছায় আইন কানুন বিধি ভঙ্গ করে প্রবাসীরা বিপদে নিপতিত হয়, অপরদিকে এসব নিয়ে প্রবাসীদের অধিকার ইত্যাদির কথা বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবাসীদের উস্কে দেওয়ার কথা পুলিশ বলে থাকে। এতে সে দেশ আরও কঠোর অবস্থানে যায়। ইমিগ্রেশন আইন বলে বিদেশিদের অধিকার হলো ভিসা, এই ভিসার শর্ত মেনে চললেই অধিকার সুরক্ষিত থাকে। বিদেশে ব্যক্তিকে সুরক্ষিত থাকতে হলে নিজেকে ঠিক করতে হবে।

এ বিষয়ে নন রেসিডেন্ট বাংলাদেশি সেন্টারের প্রেসিডেন্ট এস এম শাকিল চৌধুরী বলেন, ‘প্রবাসে যেই হোক না কেন শর্ত মেনে না চললে সে দেশ সহ্য করে না। তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসে, শাস্তি দেয় এবং বহিষ্কার করে। ফলে বিদেশে অবস্থান করে আয় রোজগার করা যায় না, খালি হাতে ফিরতে হয়। মুহূর্তের মধ্যে সব কিছু ধূলিস্যাৎ হয়ে যায়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এমন কি যে দেশ বিদেশিদের আশ্রয় দেয় সেখানেও নিয়মের বাইরে যা ইচ্ছা করার সুযোগ নেই।’

অভিবাসন বিষয়ক সাংবাদিক মিরাজ হোসেন গাজী বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে সব থেকে বেশি বিদেশে যায় কর্মীরা। তারা নিয়োগ চুক্তি সম্পাদনের পর, সে দেশ সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা নিয়েই যায়। এক সময় সে দেশের নিয়ম কানুন জেনে নেয়, বুঝে ও শিখে ফেলে। এমনকি সে দেশের ভাষা শিখে ফেলে। এসবই সেই দেশের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার প্রকাশ এবং দীর্ঘদিন অবস্থান করে আয় করার উপায়। এ কারণে অধিকাংশ প্রবাসীর সুনাম আছে। সামান্য অংশ নানান ধরনের প্রলোভনে বা নিজ ইচ্ছায় এমন কিছু করে, যার ফলে নিজেকে রক্ষা করতে পারে না; নিজের ও পরিবারের ভবিষ্যৎ নষ্ট করে। এ সবের প্রতিক্রিয়া হলো পরে সে দেশে লোক পাঠানো কঠিন হয়ে যায় এবং যারা সে দেশে অবস্থান করে তাদের জন্যও অনেক কঠিন হয়। পরিবারেও খারাপ অবস্থা হয়। তাই এসব বুঝে বিদেশে অবস্থান করতে হবে, যে সুযোগ পেয়েছে সেটার সঠিক ব্যবহার করতে হবে। সমস্যা হলে নিয়োগকর্তা এবং সে দেশে অবস্থিত দূতাবাসকে জানাতে হবে।’

 

 

 

/আইএ/

সম্পর্কিত

অস্ট্রেলিয়ার করপোরেট জগতে অনন্য প্রবাসী বাংলাদেশি জাহাঙ্গীর আলম

অস্ট্রেলিয়ার করপোরেট জগতে অনন্য প্রবাসী বাংলাদেশি জাহাঙ্গীর আলম

তাসনিম খলিলের বিরুদ্ধে স্টকহোমে মামলা

তাসনিম খলিলের বিরুদ্ধে স্টকহোমে মামলা

যুক্তরাজ্যে টপ ক্যাডেট পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের সিফাত

যুক্তরাজ্যে টপ ক্যাডেট পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের সিফাত

মালয়েশিয়ায় অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরানোর চেষ্টা

মালয়েশিয়ায় অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরানোর চেষ্টা

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৭

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি তিস্তার পানি বেড়ে গেলে ডিজিটাল ব্যবস্থায় স্থানীয় তিন হাজার  মানুষকে পূর্বাভাস মেসেজ দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর সময়োপযোগী পদক্ষেপে দুর্যোগ মোকাবিলা করেও বাংলাদেশে অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল রয়েছে।’

সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাজধানীর গ্রিনরোডে পানি ভবনে ‘ডিজিটাল বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ ব্যবস্থা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভার্চুয়ালি এ অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন।

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেক এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের তথ্য প্রযুক্তিলব্ধ জ্ঞানের বাস্তব প্রতিফলন আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য ‘সুখী, সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ’ গঠনে এবং ‘ডেল্টাপ্ল্যান-২১০০’ বাস্তবায়নে ডিজিটাল বাংলাদেশ একটি সহায়ক শক্তির নাম।’

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন,  ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বললে বিএনপি আগে টিপ্পনী কাটতো। কিন্তু আজ ডিজিটাল ব্যবস্থায় হাওরসহ সব এলাকায় আমরা সঠিক পূর্বাভাস পাঠাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার  দুর্যোগ মোকাবিলায় শিক্ষকের ভূমিকা পালন করছে।’

অনুষ্ঠানের সভাপতি পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার তার বক্তব্যে সারাদেশের জন্য সমন্বিত ডিজিটাল পূর্বাভাস ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উপসচিব মাহমুদুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন— পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক ফজলুর রশিদ। এছাড়াও এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি উপদেষ্টা আনির চৌধুরী, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্টের মহাসচিব ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসিন সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

এর আগে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে গুগলের ভাইস প্রেসিডেন্ট উশি মাতিয়াস বক্তব্য রাখেন। এ সময় মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সকল সংস্থা প্রধানসহ র্কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘করোনাকালে ৭২ লাখ মানুষ  টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছে। দেশের ৭১ শতাংশ মানুষ প্লাবন সমভূমিতে বাস করে। তাই এই পূর্বাভাস ব্যবস্থা ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে সাহায্য করবে।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১১

অনিবন্ধিত ও নির্ধারিত স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশে সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে খাদ্য তৈরির অপরাধে ধানমন্ডির আড্ডা রেস্টুরেন্টকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার (২৫ অক্টোবর) নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট উছেন মে অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন।

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষকে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরণ, মজুত ও বিক্রয়ে নিরাপদ খাদ্য আইনের বিধি অনুযায়ী পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, খাদ্য সংরক্ষণ ও ভোক্তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে নিয়ম মানতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

আড্ডা রেস্তোরাঁয় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পাওয়া খাদ্যপণ্য

অভিযানে সার্বিক সহায়তায় ছিলেন নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো. আসলাম ভূইয়া ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সহকারীরা। আনসার বাহিনীর একটি টিম ছিল আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে।

 

/এসও/এফএ/

সম্পর্কিত

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৬

উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুসারে সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠনের রায় বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দা নাসরিন ও মো. শাহীনুজ্জামান। 

এর আগে উচ্চ আদালতের দেওয়া নির্দেশনা বাস্তবায়ন অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠন না করায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। ওই রিটে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ ৪০টি মন্ত্রণালয়ের সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে বিবাদী করা হয়। একইসঙ্গে রিট আবেদনে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের আরজি জানানো হয়।

মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. শাহীনুজ্জামান রিটটি দায়ের করেন।  

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালের ৭ আগস্ট বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট সালমা আলী কর্মস্থল এবং শিক্ষাঙ্গনে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধের জন্য দিক-নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে জনস্বার্থে একটি রিট দায়ের করেন।
 
সে রিটের শুনানি শেষে ২০০৯ সালের ১৪ মে বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের (বর্তমানে প্রধান বিচারপতি) নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণা করেন। ওই রায়ে হাইকোর্ট দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সব প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধে অভিযোগ গ্রহণের জন্য ‘যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি’ গঠন সহ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছিলেন।

তবে ওই রায়ের পর প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় অতিবাহিত হলেও রায়টি বাস্তবায়ন হয়নি। তাই রায়টির বাস্তবায়ন চেয়ে পুনরায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করে আইন ও সালিশ কেন্দ্র।

/বিআই/এমআর/

সম্পর্কিত

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

যুগোপযোগী, আধুনিকায়ন ও বাংলা ভাষায় প্রণয়ন করা হচ্ছে ১৮৯৮ সালের ফৌজদারি কার্যবিধি। এ লক্ষ্যে ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে আইন মন্ত্রণালয়। কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব মইনুল কবিরকে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এ কমিটি গঠন করে দিয়েছেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন আইন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা ড. রেজাউল করিম।  

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আইন ও বিচার বিভাগের সিচিব গোলাম সারওয়ারকে কমিটিরকো-চেয়ারপারসন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন— অতিরিক্ত সচিব হাফিজ আহমেদ চৌধুরী, যুগ্মসচিব বিকাশ কুমার সাহা ও কাজী আরিফুজ্জামান, উপসচিব শেখ গোলাম মাহবুব, যুগ্মসচিব (চলতি দায়িত্ব) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান নূর, উপসচিব গাজী কালিমুল্লাহ ও যুগ্মসচিব (চলতি দায়িত্ব) মো. মুনিরুজ্জামান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আর বলা হয়েছে, কমিটি বিদ্যমান ফৌজদারি কার্যবিধির প্রয়োজনীয় সংশোধন, সংযোজন, পরিমার্জন এবং এতদ্বসংক্রান্ত সংস্কার ও গবেষণাপূর্বক  যুগোপযোগী, আধুনিকায়ন ও বাংলা ভাষায় প্রণয়নের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে।

কমিটির কার্যপরিধি হবে— ক. ফৌজদারি কার্যবিধির প্রয়োজনীয় সংশোধন, সংযোজন, পরিমার্জন এবং এতদ্বসংক্রান্ত সংস্কার ও গবেষণা এবং এটাকে যুগোপযোগী ও আধুনিকায়ন বিষয়ে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষাপূর্বক সুপারিশ প্রদান।

খ. ফৌজদারি কার্যবিধির বাংলা ভাষায় প্রণয়নের বিষয়ে প্রয়োজনীয় সুপারিশ প্রদান। গ. ফৌজদারি মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষ্যে বর্তমানে ফৌজদারি কার্যবিধির প্রয়োগের ক্ষেত্রে কী কী সমস্যার উদ্ভব হচ্ছে, সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষাপূর্বক সুপারিশ প্রদান।

ঘ. ফৌজদারি কার্যবিধির এবং এতদ্বসংক্রান্ত বিশ্বের অন্যান্য দেশের আইন পর্যালোচনাপূর্বক সুপারিশ প্রদান এবং,

ঙ. কমিটি প্রয়োজনে এক বা একাধিক সদস্যকে কমিটিতে কো-অপ্ট করতে পারবে।

কমিটি যতদ্রুত সম্ভব আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের কাছে উপর্যুক্ত বিষয়ে পর্যালোচনা সংক্রান্ত সুপারিশসহ প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

উল্লেখ্য, গত ১৯ অক্টোবর অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফৌজদারি কার্যবিধির প্রয়োজনীয় সংশোধন, সংযোজন, পরিমার্জন এবং এ সংক্রান্ত সংস্কার ও গবেষণাপূর্বক এটাকে যুগোপযোগী, আধুনিকায়ন ও বাংলা ভাষায় প্রণয়নের জন্য আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হককে নির্দেশনা প্রদান করেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক সোমবার এ কমিটি করেন।

এ বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘ব্রিটিশ উপনিবেশিক আমলে প্রণীত উপর্যুক্ত ফৌজদারি কার্যবিধি দিয়ে বর্তমান চতুর্থ শিল্পবিপ্লব, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, জিন প্রকৌশল ও ন্যানো প্রযুক্তির  এই যুগে সংঘটিত বিভিন্ন অপরাধ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মামলা পরিচালনা করা দুরূহ ও সময় সাপেক্ষ। এ কারণে ফৌজদারি মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি এবং জনগণের আইনি অভিগম্যতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ফৌজদারি কার্যবিধিতে প্রয়োজনীয় সংশোধন, সংযোজন, পরিমার্জন এবং এ সংক্রান্ত সংস্কার ও গবেষণাপূর্বক এটাকে যুগোপযোগী, আধুনিকায়ন ও বাংলা ভাষায় প্রণয়ন করা প্রয়োজন।’

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৫

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অভিযানে রাজধানীর দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী ও মাতুয়াইলের দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৮ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) পরিচালিত অভিযানে এই জরিমানা করা হয়। খাদ্য পরিদর্শক মো. কামরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রতিষ্ঠান দুটি হচ্ছে ২৫০ দক্ষিণ যাত্রাবাড়ীর মেসার্স মামুন ফুড প্রোডাক্টস ও ১ নং মাতুয়াইল যাত্রাবাড়ীর ঢাকা মেট্রো কনজুমার প্রোডাক্টস।

অভিযানে মেসার্স মামুন ফুড প্রোডাক্টসকে ৬ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গাওয়া ঘি সংরক্ষণ, বিভ্রান্তিকর তথ্যে পণ্যের লেবেল দেওয়া, ট্রেড লাইলেন্স ও বিএসটিআই লাইসেন্স না থাকায় এ জরিমানা হয়।

অপরদিকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে প্লাস্টিকের ড্রামে মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্যপণ্য সংরক্ষণ করায় ঢাকা মেট্রো কনজুমার প্রোডাক্টসকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে ওই পণ্য ধ্বংস করা হয়।

/এসএস/এফএ/

সম্পর্কিত

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

অস্ট্রেলিয়ার করপোরেট জগতে অনন্য প্রবাসী বাংলাদেশি জাহাঙ্গীর আলম

অস্ট্রেলিয়ার করপোরেট জগতে অনন্য প্রবাসী বাংলাদেশি জাহাঙ্গীর আলম

তাসনিম খলিলের বিরুদ্ধে স্টকহোমে মামলা

তাসনিম খলিলের বিরুদ্ধে স্টকহোমে মামলা

যুক্তরাজ্যে টপ ক্যাডেট পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের সিফাত

যুক্তরাজ্যে টপ ক্যাডেট পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের সিফাত

মালয়েশিয়ায় অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরানোর চেষ্টা

মালয়েশিয়ায় অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরানোর চেষ্টা

ব্যাগে ইয়াবা ঢুকিয়ে দেন বিমানবন্দরের কর্মী, সৌদিতে প্রবাসীর ২০ বছরের জেল

ব্যাগে ইয়াবা ঢুকিয়ে দেন বিমানবন্দরের কর্মী, সৌদিতে প্রবাসীর ২০ বছরের জেল

দুবাইতে বাংলাদেশি কর্মীদের খোঁজখবর নিলেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

দুবাইতে বাংলাদেশি কর্মীদের খোঁজখবর নিলেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

কর্মীদের স্বার্থ রক্ষায় তৎপর মালয়েশিয়া সরকার

কর্মীদের স্বার্থ রক্ষায় তৎপর মালয়েশিয়া সরকার

দ্রুতই মালয়েশিয়ায় ফিরতে পারছেন না ছুটিতে থাকা প্রবাসীরা

দ্রুতই মালয়েশিয়ায় ফিরতে পারছেন না ছুটিতে থাকা প্রবাসীরা

গ্রিসে ই-পাসপোর্ট সেবা চালু

গ্রিসে ই-পাসপোর্ট সেবা চালু

মেক্সিকোর স্বাধীনতা প্যারেডে বাংলাদেশের মনোমুগ্ধকর প্রদর্শনী

মেক্সিকোর স্বাধীনতা প্যারেডে বাংলাদেশের মনোমুগ্ধকর প্রদর্শনী

সর্বশেষ

‘কখনও শুনতে হয়নি, পাকিস্তান যাও’, সামির ট্রল নিয়ে ইরফান 

‘কখনও শুনতে হয়নি, পাকিস্তান যাও’, সামির ট্রল নিয়ে ইরফান 

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

সৈকত দখল করে রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

মাছ ও শুঁটকি আহরণ যাত্রা শুরু হচ্ছে জেলেদের

এসক্রো সার্ভিসে আটকে থাকা টাকার বিষয়ে যা বললেন বাণিজ্যমন্ত্রী

এসক্রো সার্ভিসে আটকে থাকা টাকার বিষয়ে যা বললেন বাণিজ্যমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune