X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সিনহা হত্যার এক বছর

সাক্ষী হারানোর ‘শঙ্কা’ মেজর সিনহার পরিবারের

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ১৯:১৭

কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর তদন্তকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার এক বছর পূর্ণ হলো আজ। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় করা মামলার কার্যক্রম অনেকদূর এগিয়েছে। তবে বর্তমানে লকডাউনের কবলে পড়ে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ থেমে আছে। কিন্তু এখনও নেভেনি মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের পরিবারের সদস্যদের মনের আগুন। প্রতিনিয়ত সেই আগুনে পুড়ছেন সিনহার মা, বোন ও পরিবারের সদস্যরা।

সিনহার স্মৃতি মনে করে প্রতিনিয়তই কান্নায় ভেঙে পড়ছেন তার মা। তাই যতদ্রুত সম্ভব মামলার কার্যক্রম শেষ করে প্রদীপ কুমার দাশ ও লিয়াকত আলীসহ মামলার অন্য আসামিদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে পরিবার। ‘অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত হলে দেশে কেউ আর এমন অপরাধ করার সাহস পাবে না’ বলে মন্তব্য করেছেন মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস।

বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘মামলার অগ্রগতি চার্জশিট ও সাক্ষ্যগ্রহণের পর্যায়ে পৌঁছানো পর্যন্ত ঠিক ছিল। কিন্তু লকডাউন মামলার কার্যক্রম পিছিয়ে দিয়েছে। এভাবে যদি মামলার কার্যক্রম আরও দীর্ঘায়িত হয়, তাহলে আমার মনে হয় সাক্ষীদের ধরে রাখা কঠিন হয়ে পড়বে। কারণ সাক্ষীরা কে কোথায় থাকবে, কোথায় চলে যাবে- এর কোনও ঠিক নেই। লকডাউনটা শেষ হলে আজ কিংবা একমাস পরে দ্রুত সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ করে বিচারকাজ সম্পন্ন করে আসামিদের শাস্তি নিশ্চিত করা হোক। সুষ্ঠু বিচার ও সঠিক রায়ের মাধ্যমে ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতদের যেন মৃত্যুদণ্ড হয়, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

মামলা চার্জশিটের বিষয়ে জানতে চাইলে শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বলেন, ‘চার্জশিট নিয়ে এই মুহূর্তে বলার কিছুই নেই। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে জমা দেওয়ায় তদন্তকারী সংস্থাকে ধন্যবাদ জানাই। যেদিন মামলার রায় হবে এবং আসামিদের মৃত্যুদণ্ড হবে, সেদিনই সন্তুষ্টির কথা বলতে পারব।’

গ্রেফতার বরখাস্ত হওয়া টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ দাশ

প্রদীপের জামিন আবেদনের বিষয়ে মেজর সিনহার বড় বোন বলেন, ‘দেশের যেকোনও নাগরিক আদালতের আশ্রয় নিতে পারেন। কিন্তু আমার অবাক লাগে, ওসি প্রদীপ কুমার দাশ টেকনাফে থাকাকালীন ২০০/২৫০ লোককে গুলি করে মেরেছে। তারা যে সবাই ইয়াবা কারবারি ছিল তা নয়। এর মধ্যে তাকে চাঁদা না দেওয়ায় অনেকেই হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। ধরে নিলাম, সবাই ইয়াবা কারবারি। তাদের কি আইনের আশ্রয় নেওয়ার অধিকার নেই? তাদের কি ধরে এনে বিচারের মুখোমুখি করা যেত না? এটি তো মানবাধিকারের লঙ্ঘন। ওসি প্রদীপ এত মানুষ হত্যা করার পর এখন যদি সে আইনের আশ্রয় চাওয়ার জন্য আদালতে যায়, তখন কিছুই বলার থাকে না।’

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ মোস্তফা বলেন, ‘আলোচিত সিনহা হত্যা মামলাটি এখন সাক্ষ্যগ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে। লকডাউনের কারণে তা থমকে আছে। সাক্ষ্যগ্রহণ হয়ে গেলে রায় হয়ে যাবে। এটি সম্পূর্ণ আদালতের ওপর নির্ভর করছে। গত ২৬, ২৭ ও ২৮ জুলাই মামলার ৮৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ১০ জনের সাক্ষগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু লকডাউন এতে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

মামলার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে জানতে চাইলে কক্সবাজারের প্রবীণ এ আইনজীবী বলেন, ‘দেশের বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ নির্ভর করে সাক্ষীদের ওপর। তাই যত দ্রুত সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হবে, তত দ্রুত মামলার রায় হবে।’

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাত ৯টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর তদন্তকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল। কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার কারণ ও উৎস অনুসন্ধান করে সুপারিশসহ প্রতিবেদন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমাও দিয়েছিল।

সহকর্মীদের সঙ্গে মেজর সিনহা

হত্যাকাণ্ডের পাঁচ দিনের মাথায় অর্থাৎ ২০২০ সালের ৫ আগস্ট মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও শামলাপুর তদন্তকেন্দ্রের বরখাস্ত হওয়া এসআই লিয়াকত আলীসহ ৯ জনকে আসামি করে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্তে কক্সবাজারের র‌্যাব-১৫-কে নির্দেশ দেন আদালত।

২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলীসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে এবং ৮৩ জনকে সাক্ষী উল্লেখ করে মামলার চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম। সেখানে সিনহা হত্যাকাণ্ডকে একটি ‘পরিকল্পিত ঘটনা’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। তাদের মধ্যে ১২ জন নিজের দোষ স্বীকার করে আদালতের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। তবে মামলার অন্যতম আসামি প্রদীপ কুমার দাশের সাক্ষ্যগ্রহণ এখনও হয়নি। এ মামলার সব আসামিকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম জানান, লকডাউনের কারণে আলোচিত মেজর সিনহা হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ হয়নি। আদালতের স্বাভাবিক কার্যক্রম চললে মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণসহ অন্যান্য আইনি কার্যক্রমও স্বাভাবিক নিয়মে চলবে। বিচারকাজ শুরুর অন্যান্য কাজ এগিয়ে রয়েছে। আদালত খুললে এই মামলার কাজও শুরু হবে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩১

মামলার নথি থেকে ডিজঅনার হওয়া ২৮ কোটি টাকার একটি চেক চুরির ঘটনায় অভিযুক্ত আইনজীবী জোবায়ের মো. আরঙ্গজেবের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছে আদালত। চেক চুরির ঘটনায় আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলার পর সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শফিউদ্দিন অভিযোগ আমলে নিয়ে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। 

বাদীর আইনজীবী সুলতান মো. অহিদ এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, শিল্প প্রতিষ্ঠান এসএ গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এসএ অয়েল রিফাইনারি লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার সৈয়দ ফরিদুল আলম মামলাটি করেন। 

সোমবার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণের পর আদালত আসামি জোবায়েরের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। ১৫ নভেম্বরের মধ্যে তাকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

এর আগে, এসএ গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এসএ অয়েল রিফাইনারি লিমিটেডের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক লিমিটেড আগ্রাবাদ শাখা ২৭ কোটি ৯৭ লাখ ৮৮ হাজার ৭২০ টাকার চেক প্রত্যাখ্যাত (ডিজঅনার) হওয়ার অভিযোগে মামলা করে। মামলায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. শাহাবুদ্দিন আলম ও তার স্ত্রী ইয়াসমিন আলমকে অভিযুক্ত করা হয়। মামলাটি চট্টগ্রাম মহানগর ৫ম যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। গত ৯ সেপ্টেম্বর বিকালে ওই আদালতে মামলার নথি দেখার সময় চেকটি কৌশলে নিয়ে যান জোবায়ের। পরে রাত ১০টায় তার কাছ থেকে এটি উদ্ধার করা হয়।

জোবায়েরের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার অভিযোগে বলা হয়, জোবায়ের আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্তির আগে এসএ রিফাইনারিতে চাকরি করতেন। নানা অনিয়মের কারণে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। জোবায়ের চেক ডিজঅনার মামলায় কখনও প্রতিষ্ঠানটির আইনজীবী ছিল না। জোবায়েরকে কখনও ওকালতনামাও দেওয়া হয়নি। এরপরও তিনি মামলার নথি পর্যবেক্ষণ করেন। চেক চুরি করে ধরা পড়ার ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লেনদেন ও ব্যাংকিং লেনদেনে সমস্যার মুখে পড়েছে। চেক চুরির ঘটনার পর প্রতিষ্ঠানটি লেনদেনে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে ১০ কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়। এ ঘটনায় ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে বলে দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ ফেলে স্বামীর পরিবার উধাও

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৮

জেলা সদর হাসপাতালে রিমু আক্তার নামের এক গৃহবধূর লাশ রেখে পালিয়ে গেছে স্বামীর পরিবার। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে। তবে নিহতের বাবা আলম হোসেনের অভিযোগ, একটি হত্যা মামলা দায়ের করতে থানায় গেলে অভিযোগ গ্রহণ করেনি পুলিশ।

মৃত রিমু আক্তার শহরের দক্ষিণ সালন্দর শান্তি নগরে তার স্বামী তামিম হোসেনের পরিবারের সঙ্গে বাস করতেন। 

হাসপাতাল সূত্র জানায়, রবিবার (২৬) সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় এক মৃত মেয়েকে নিয়ে কিছু মানুষ হাসপাতালে আসে। তবে কিছু সময় পরেই হাসপাতালের জরুরি ওয়ার্ডে লাশটি ফেলে পালিয়ে যায় তারা। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে খবর দেয়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে পেরেই অজ্ঞাত পরিচয়ের লাশ উদ্ধার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি জিয়ারুল জিয়া। 

তিনি বলেন, লাশটি থানায় আনার পর আমরা গৃহবধূর পরিবারের সন্ধান করতে থাকি। পরে মৃতের পিতার পরিবারের সন্ধান পেয়ে তাদের অবগত করা হয়। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে ও তদন্ত চলছে।

এদিকে ঘটনা জানতে শান্তিনগরে রিমুর শ্বশুড়বাড়িতে গেলে দেখা যায় পরিবারের সবাই বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন। 

তবে পুলিশ কেন মৃতের পিতার অভিযোগ গ্রহণ করেনি, জানতে চাইলে ওসি জিয়ারুল বলেন, সুরতহাল রিপোর্টে দেখা যায়, লাশের শরীরে কোনও ক্ষতচিহ্ন ছিল না। একই ঘটনায় একই সময় একটা মামলা হলে তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত আরেকটি মামলা হতে পারে না। এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে, ময়না তদন্ত, ভিসেরা রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ বোঝা যাবে। তখন পরিবারের লোকের জবানবন্দি নিয়ে যদি হত্যাকাণ্ড হিসেবে এটা প্রতীয়মান হয়, তাহলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে নীলফামারীতে ২০২ জনকে সহায়তা

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে নীলফামারীতে ২০২ জনকে সহায়তা

সাবেক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ৩৫ কোটি টাকা লন্ডারিংয়ের মামলা

সাবেক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ৩৫ কোটি টাকা লন্ডারিংয়ের মামলা

ভারত থেকে আমদানি হচ্ছে চুল, কেজি ৫৩০০ টাকা

ভারত থেকে আমদানি হচ্ছে চুল, কেজি ৫৩০০ টাকা

কুড়িগ্রামে সাহিত্যিক সৈয়দ শামসুল হকের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

কুড়িগ্রামে সাহিত্যিক সৈয়দ শামসুল হকের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

রানীই সবচেয়ে ছোট গরু

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৫

আশুলিয়ার চারিগ্রাম এলাকার শিকড় অ্যাগ্রোর রানী সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি পেয়েছে। সোমবার রাতে (২৭ সেপ্টেম্বর) প্রতিষ্ঠানটির মালিক আবু সুফিয়ান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে বিকালে ই-মেইলের মাধ্যমে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করে।

জানা গেছে, প্রায় এক বছর আগে নওগাঁ জেলা থেকে গরুটি সংগ্রহ করেছিল ফার্ম কর্তৃপক্ষ। গিনেজ বুকে নাম লেখানোর জন্য গত ২ জুলাই গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়। এর পর গত ১৯ আগস্ট বক্সার ভুট্টি জাতের খর্বাকৃতির গরুটির পেটে গ্যাস জমে মারা যায় বলে নিশ্চিত করেন সাভার উপজেলার উপ-সহকারী প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল মোতালিব ।

গিনজ বুকের স্বীকৃতি শিকড় অ্যাগ্রোর মালিক আক্ষেপের সঙ্গে বলেন, রানী বেঁচে থাকলে আজকের দিনটি অনেক আনন্দময় হতো। তবে রানী মারা যাওয়ার পর তার পোস্টমর্টেম রিপোর্ট গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছিল। তারা মূলত হরমোন জাতীয় ইনজেকশন পুশ করে গরুটিকে বামন করা হয়েছিল কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে চেয়েছিল। তবে এ ধরনের কোনও রিপোর্ট না পেয়ে তিন দিন আগেই রানীকে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি দেওয়া হয়। সোমবার এই সংক্রান্ত একটি সার্টিফিকেট মেইলের মাধ্যমে পাঠানো হয় বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, শিকড় অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ফার্মের বক্সার ভুট্টি জাতের দুই দাঁতের খর্বাকৃতির গরুটির ওজন ছিল ২৬ কেজি আর উচ্চতা ২০ ইঞ্চি। গরুটির বয়স হয়েছিল দুই বছর। গিনেজ বুকে এর আগের রেকর্ড অনুযায়ী বিশ্বের সবেচেয়ে ছোট গরুটি ছিল ভারতের কেরালা রাজ্যের। চার বছর বয়সী ওই গরুটি উচ্চতায় ২৪ ইঞ্চি, আর ওজন ২৬ কেজি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

আ.লীগের দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি, ১৪৪ ধারা জারি

আ.লীগের দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি, ১৪৪ ধারা জারি

১৬ কেজির কাতল ২৪ হাজার টাকায় বিক্রি

১৬ কেজির কাতল ২৪ হাজার টাকায় বিক্রি

গাজীপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

গাজীপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪১

অসাবধানতাবশত ড্রেনে পড়ে ব্যবসায়ী ছালেহ উদ্দিন নিখোঁজের এক মাসের মাথায় এবার সাদিয়া নামে এক কলেজছাত্রী ড্রেনে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার পর আগ্রাবাদ বাদামতলী এলাকায় নালার পাশ দিয়ে হেঁটে বাসায় যাওয়ার সময় ওই তরুণী নালায় পড়ে ময়লা আবর্জনার মধ্যে ডুবে যান।  

আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ম্যানেজার মো. কফিল উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম তাকে উদ্ধারে কাজ শুরু করে।  

নিখোঁজ সাদিয়া (২০) নগরীর সদরঘাট ইসলামীয়া ডিগ্রি কলেজের ছাত্রী বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা জানান, সাদিয়া তার মামার সঙ্গে আগ্রাবাদ এলাকার একটি মার্কেট থেকে চশমা কিনে বাসায় ফিরছিলেন। এসময় ফুটপাত ধরে হাটার সময় তিনি পা পিছলে খোলা ড্রেনে পড়ে যান। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মো. কফিল উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সাদিয়া নামের ওই ছাত্রী রাত সোয়া ১০ টার দিকে আগ্রাবাদ মাজারগেট এলাকার ড্রেনে পড়ে যান। খবর পেয়ে আমাদের একটি ডুবুরি দল, একটি স্পেশাল দলসহ মোট চারটি টিম উদ্ধারে কাজ শুর করে। তবে এখন পর্যন্ত আমরা তার কোনও সন্ধান পায়নি। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

রানীই সবচেয়ে ছোট গরু

রানীই সবচেয়ে ছোট গরু

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

গভীর রাতে পালানো ৩৫ রোহিঙ্গাকে জঙ্গল থেকে আটক

গভীর রাতে পালানো ৩৫ রোহিঙ্গাকে জঙ্গল থেকে আটক

কনস্টেবল তারেক হত্যা

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:০০

আট বছর আগে দায়ের হওয়া পুলিশ কনস্টেবল মো. তারেককে হত্যা মামলায় চট্টগ্রামের শীর্ষ জামায়াত নেতা সাবেক এমপি আ ন ম শামসুল ইসলাম, শাহজাহান চৌধুরীসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ কে এম মোজাম্মেল হক চৌধুরীর আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

ট্রাইব্যুনালের পিপি আইয়ূব খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আদালত ৯৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার কার্যক্রম শুরুর আদেশ দিয়েছেন। আগামী রবিবার (৩ অক্টোবর) থেকে এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হবে।’

এর আগে, মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায় দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ফাঁসির রায়ের পর ঢাকা-চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক এবং সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, বাঁশখালী, সীতাকুণ্ডসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলায় সহিংস তাণ্ডব শুরু করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। ওই সময় চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় পুলিশ কনস্টেবল মো. তারেককে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় তখন লোহাগাড়া থানায় মামলাটি দায়ের হয়।

ওই মামলার আজ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পর দেশজুড়ে তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের একটি মামলার বিচার শুরু হলো। অভিযোগ গঠনের শুনানিতে জামায়াতের সাবেক সংসদ সদস্য শাহজাহান চৌধুরী ও আ ন ম শামসুল ইসলাম এবং দক্ষিণ জেলা জামায়াতের সাবেক আমির জাফর সাদেকসহ ৬৫ জন আসামি আদালতে হাজির ছিলেন। এর মধ্যে শাহজাহান ও শামসুলসহ কয়েকজন কারাগারে থাকায় তাদের সেখান থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

পাচারকালে ৪টি বাংলাদেশি পাসপোর্টসহ ভারতীয় নাগরিক আটক

পাচারকালে ৪টি বাংলাদেশি পাসপোর্টসহ ভারতীয় নাগরিক আটক

৬ মাসের ব্যবধানে ভুয়া চিকিৎসকের দ্বিতীয়বার কারাদণ্ড

৬ মাসের ব্যবধানে ভুয়া চিকিৎসকের দ্বিতীয়বার কারাদণ্ড

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

এবার চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে কলেজছাত্রী নিখোঁজ

জামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

কনস্টেবল তারেক হত্যাজামায়াতের দুই শীর্ষ নেতাসহ ৯৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

কাটা পড়তে পারে চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’

গভীর রাতে পালানো ৩৫ রোহিঙ্গাকে জঙ্গল থেকে আটক

গভীর রাতে পালানো ৩৫ রোহিঙ্গাকে জঙ্গল থেকে আটক

ভোগান্তি কমলো ঢাকা-চট্টগ্রামসহ ৪ রেলপথের যাত্রীদের

ভোগান্তি কমলো ঢাকা-চট্টগ্রামসহ ৪ রেলপথের যাত্রীদের

টেকনাফে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক ৩

টেকনাফে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক ৩

বিপুল পরিমাণ মাদক-অস্ত্রসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক

বিপুল পরিমাণ মাদক-অস্ত্রসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক

নির্মাণাধীন ভবন থেকে মালিকের মরদেহ উদ্ধার

নির্মাণাধীন ভবন থেকে মালিকের মরদেহ উদ্ধার

সর্বশেষ

সাংবাদিক হামিদুজ্জামান রবি মারা গেছেন

সাংবাদিক হামিদুজ্জামান রবি মারা গেছেন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ ফেলে স্বামীর পরিবার উধাও

হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ ফেলে স্বামীর পরিবার উধাও

প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনে ৭৫ লাখ টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু 

প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনে ৭৫ লাখ টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু 

রানীই সবচেয়ে ছোট গরু

রানীই সবচেয়ে ছোট গরু

© 2021 Bangla Tribune