X
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সাড়ে ৪ হাজার টাকায় আধুনিক ফ্ল্যাটে থাকবেন বস্তিবাসীরা

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ১০:৩৩

ঢাকায় বসবাসরত বস্তিবাসীরাও থাকবেন এবার আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত বহুতল ভবনের নতুন ফ্ল্যাটে।

এর মধ্য দিয়ে আরেকটি মানবিকতার নজির সৃষ্টি করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৭ সালে  এই পরিকল্পনা গ্রহণ করেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। ওই বছরের ২৬ অক্টোবর এ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

সরকারি উদ্যোগে বস্তিবাসীদের জন্য নির্মিত এসব ফ্ল্যাটে আধুনিক সব সুবিধা রাখা হয়েছে। তবে ফ্রি নয়, মাত্র সাড়ে ৪ হাজার টাকা ভাড়ায় এখানে থাকবেন নগর জীবনের সবচেয়ে সুবিধাবঞ্চিত বস্তির মানুষেরা। 

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) মিরপুর-১১ নম্বর সেকশনে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্মিত বস্তিবাসীদের জন্য ৩০০  ফ্ল্যাটের বরাদ্দপত্র হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১১ নম্বর সেকশনে বস্তিবাসীদের জন্য সর্বমোট ১০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে মোট ১৪৮ কোটি টাকা। মঙ্গলবার ৩০০ পরিবারের হাতে বরাদ্দপত্র দেওয়ার পর দ্বিতীয় পর্যায়ে ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেওয়া হবে আরও ১০০১টি পরিবারকে। ওই বস্তিতে থাকা ১০ হাজার পরিবার নতুন ফ্ল্যাটে থাকার সুযোগ পাবেন।

এই বস্তির পরিবারগুলো আগে ফ্ল্যাটে বসবাস করার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

জাতীয় গৃহায়ন অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী জোয়ারদার তাবেদুন নবী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘২০১৭ সালের ২৬ অক্টোবর প্রকল্পটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। মিরপুর ১১ নম্বর সেকশনে ৫টি ভবনের ৩টি আগামীকাল (মঙ্গলবার) উদ্বোধন হচ্ছে। বাকি দুটি পরবর্তীতে উদ্বোধন করা হবে। এই ৫টি ভবনে ৫৩৩টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হচ্ছে। সেখান থেকে মঙ্গলবার ৩০০টি হস্তান্তর করা হবে। পরবর্তী প্রকল্পে ১ হাজার ১টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। এরকম ধাপে ধাপে ১০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। পার্শ্ববর্তী বস্তি এলাকায় ভবনগুলো নির্মাণ করে সেখানে বসবাসরত বস্তিবাসীদের বরাদ্দ দেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন যেখানে ৫টি ভবন করা হচ্ছে, সেখান থেকে যাদের উচ্ছেদ করা হয়েছিল, তাদেরই বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে।’

এই প্রকৌশলী বলেন, ‘বস্তিবাসীর মাঝে সার্ভে করে দেখা হয়েছে তারা দুই রুমের টিনশেড বাসা কত টাকা ভাড়া দিয়ে থাকেন। সার্ভের তথ্যানুযায়ী মন্ত্রণালয় থেকে সাড়ে চার হাজার টাকা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এই ভাড়া প্রতিদিন, সাপ্তাহিক ও মাসেও দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। ইচ্ছা করলে একবারেও সাড়ে চার হাজার টাকা দিতে পারবে।’

তিনি জানান, ১৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্প নির্মাণ করা হচ্ছে। একেকটি ফ্ল্যাটের মাপ হচ্ছে ৬৭৩ বর্গফুট।

মঙ্গলবার বস্তিবাসীদের হাতে বরাদ্দপত্র দেওয়া ছাড়াও উদ্বোধন করা হবে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য ২৪৭৪টি ফ্ল্যাট এবং মাদারীপুর সমন্বিত অফিস ভবন।

জানা গেছে, ছয় বিঘা জমির ওপর ১৪৯ কোটি ব্যয়ে ১৪ তলার পাঁচটি ভবন নির্মাণ করা হয়। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি ফ্ল্যাটের আয়তন ৬৭৩ থেকে ৭২০ বর্গফুট। প্রতিটি ভবনে রয়েছে কমিউনিটি হল, দুটি লিফট ও প্রশস্ত সিঁড়ি। এছাড়া রয়েছে অগ্নিনির্বাপণ ও সৌর বিদ্যুতের ব্যবস্থা, ৪০ কেভিএ জেনারেটর ও ২৫০ কেভিএ সাব-স্টেশন।  মঙ্গলবার ফ্ল্যাট বরাদ্দ প্রাপ্তদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে বরাদ্দপত্র বিতরণ করা হবে। বরাদ্দপ্রাপ্তরা আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে ফ্ল্যাটে বসবাস শুরু করতে পারবেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন।

এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য রাজধানীর মতিঝিল, আজিমপুর, মিরপুর, মালিবাগ ও তেজগাঁও এলাকায় পাঁচটি আবাসন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন। আজিমপুর সরকারি কলোনিতে রয়েছে ১৭টি ২০ তলা ভবনে ১ হাজার ২৯২টি ফ্ল্যাট, মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনে ২৮৮টি ফ্ল্যাট, মালিবাগে চারটি ২০ তলা ভবনে ৪৫৬টি ফ্ল্যাট এবং মতিঝিলে পাঁচটি ২০ তলা ভবনে ৩৮০টি ফ্ল্যাট। এছাড়াও উদ্বোধনের তালিকায় রয়েছে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে আটতলার দুটি আবাসিক ভবন। এগুলো প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ বলেন, ‘এর মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আবাসনের সুবিধা বেড়েছে। ৩০০ বস্তিবাসীর জন্য ভাড়াভিত্তিক ফ্ল্যাট একটি বিশাল উদ্যোগ। এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দরিদ্র মানুষের জন্য ভালোবাসার যে গভীরতা সেটা প্রমাণ করে।’

 

/পিএইচসি/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

পরীমণির রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা মামলার শুনানি বুধবার

পরীমণির রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা মামলার শুনানি বুধবার

পূর্বাচলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধন

পূর্বাচলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধন

লালমাটিয়ায় অবৈধ ভিওআইপি, ৩০ লাখ টাকার সরঞ্জাম জব্দ

লালমাটিয়ায় অবৈধ ভিওআইপি, ৩০ লাখ টাকার সরঞ্জাম জব্দ

করোনা এড়াতে হেঁটে-সাইকেলে স্কুলে যাতায়াতের প্রত্যয় শিক্ষার্থীদের

করোনা এড়াতে হেঁটে-সাইকেলে স্কুলে যাতায়াতের প্রত্যয় শিক্ষার্থীদের

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫১

বিভিন্ন সময় ডাকাতি করা স্বর্ণ স্ত্রী শাহানা আক্তারের কাছে রাখতো আনোয়ার দেওয়ান। পরবর্তীতে স্ত্রীর সেসব স্বর্ণ বাজারে বিক্রি করতো। রাজধানী এবং আশুলিয়ার বেশ কয়েকটি ডাকাতির ঘটনায় তদন্ত করতে গিয়ে এসব তথ্য জানতে পারে সিআইডি। ঢাকায় কার্যক্রমে জড়িত এবং ডাকাতি স্বর্ণ বিক্রির অভিযোগে শাহানা আক্তারকে বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মধ্যবাড্ডায় গুলশান লিংক রোড এলাকার একটি বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

মালিবাগে সিআইডি সদর দফতরে বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃত শাহানা আক্তারের কাছে তার স্বামী আনোয়ার দেওয়ান বিভিন্ন সময়ে ডাকাতি করা স্বর্ণ এনে রাখবো। আনোয়ার দেওয়ানকে আমরা এখনও গ্রেফতার করতে পারিনি । তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এই চক্রটি ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নয়া হাট বাজারে ১৯টি স্বর্ণের দোকানে লুট করে। এসময় স্বর্ণ ও রুপার অলঙ্কার এবং নগদ এক কোটির বেশি টাকা ডাকাতি করে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত শাহানা আক্তার জানিয়েছে, আনোয়ার দেওয়ান আন্তঃজেলা ডাকাত দলের নেতা। দীর্ঘদিন ধরে সে তার দলের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে টাকা স্বর্ণ ও মূল্যবান সামগ্রী ডাকাতি করে আসছে। ডাকাতির লুণ্ঠন হওয়া মূল্যবান সামগ্রী তার স্বামী আনোয়ার দেওয়ান তার কাছে এনে জমা রাখতো। এখন সময় সুযোগ বুঝে সে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি। ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালঙ্কার কোথায় বিক্রি করতো এ বিষয়গুলো খতিয়ে দেখছে সিআইডি। আর কারা এই ঘটনায় জড়িত রয়েছে সে বিষয়েও তদন্ত চলছে, এবং অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

/আরটি/এমআর/

সম্পর্কিত

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৪৩

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২১ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) ঢাকার অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূরের আদালত মামলাটির এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এই দিন ধার্য করেন। সংশ্লিষ্ট থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাতে আরিফ বাকের নামে একজন ভুক্তভোগী মামলাটি করেছেন। মামলায় অর্থ আত্মসাৎ ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, গত মে মাসে ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে আরিফ বাকের তার বন্ধুদের নিয়ে কিছু পণ্য অর্ডার করেন।  এ ছাড়া পণ্যের অর্ডার বাবদ সকল মূল্য বিকাশ, নগদ ও সিটি ব্যাংকের কার্ডের মাধ্যমে সম্পূর্ণ পরিশোধ করেন।

আরিফ অভিযোগ করেন, পণ্যগুলো ৭-৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে সরবরাহে ব্যর্থ হলে উক্ত প্রতিষ্ঠান সমুদয় টাকা ফেরত দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ ছিল। কিন্তু ওই সময়ের মধ্যে তারা পণ্য সরবরাহ করেনি।  ফোন করা হলে বারবারই তারা আমার পণ্যগুলো শিগগিরই দিচ্ছে বলে আশ্বস্ত করে যাচ্ছিল। এক পর্যায়ে ইভ্যালি পণ্য অথবা টাকা প্রদানে ব্যর্থ হওয়ার পর আমি তাদের অফিসে যাই। তখন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছি।

এজাহারে আরিফ জানান, গত ১০ সেপ্টেম্বর তিনিসহ তার বন্ধুরা ইভ্যালি অফিসে গিয়ে পণ্যের অর্ডার সম্পর্কে কথা বলতে চাইলে তারা উত্তেজিত হয়ে চিৎকার-চেঁচামেচি করে। এক পর্যায়ে অফিসের অভ্যন্তরে থাকা ইভ্যালির সিইও রাসেল উত্তেজিত হয়ে তার রুম থেকে বেরিয়ে আরিফকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে এবং পণ্য অথবা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এক পর্যায়ে প্রাণনাশের হুমকিও দেন বলেও অভিযোগ করেছেন আরিফ।

পণ্য না পাওয়ায় আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন জানিয়ে আরিফ বলেন, ইভ্যালি পণ্য বিক্রয়ের নামে নানা প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে আমার মতো বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তের অসংখ্য গ্রাহকের নিকট থেকে আনুমানিক ৭০০/৮০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে।

/এমএইচজে/এমআর/

সম্পর্কিত

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৯

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাসেল এবং তার স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাসেলের মোহাম্মদপুরের স্যার সৈয়দ রোডের বাসায় অভিযান পরিচালনা শেষে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে তাদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অর্থ আত্মসাৎ ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে মামলা করেন আরিফ বাকের নামে একজন ভুক্তভোগী।

র‍্যাবের গোয়েন্দা বিভাগের পরিচালক লে. কর্নেল খায়রুল ইসলাম জানান, ইভ্যালির বিষয়ে একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলার প্রেক্ষিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের র‍্যাব সদর দফতরে নেওয়া হচ্ছে।

অভিযানের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ভিড় করেছেন ইভ্যালির গ্রাহকরা এদিকে, অভিযানের খবর পেয়ে বেশ কয়েকজন গ্রাহক ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাসেলের বাসার সামনে অবস্থান নেন। তারা বলেন, রাসেলকে গ্রেফতার করা হলে গ্রাহকরা আরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। অতীত অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের যেসব কর্ণধারদের গ্রেফতার করা হয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠান দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত কেউই তাদের বিনিয়োগ করা অর্থ ফেরত পাননি।

রেদোয়ান নামে একজন গ্রাহক বলেন, ইভ্যালির রাসেলকে যথাযথ নজরদারির মধ্যে রেখে আরও কিছুদিন সময় দেয়া উচিত। একটা নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়ে তাকে গ্রাহকদের টাকা ফেরত বা পণ্য দিতে বাধ্য করা যেতে পারে। তাকে ধরে নিয়ে গেলে গ্রাহকরা পণ্য বা টাকা কিছুই পাবে না।

মোহাম্মদপুরের এই বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয় রাসেল ও তার স্ত্রীকে

আরও পড়ুন: স্ত্রীসহ ইভ্যালির রাসেলের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপে যাচ্ছে মন্ত্রণালয়

/এনএল/এমএস/

সম্পর্কিত

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু আগামী সপ্তাহে

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২৭

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা, রুটিন অনুযায়ী শ্রেণি পাঠদান চলছে কিনা ‑ এসব বিষয় সরেজমিন পর্যবেক্ষণে সারপ্রাইজ ভিজিটে যাচ্ছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের ৫৫ কর্মকর্তা। আগামী সপ্তাহ থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করবেন তারা।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মসনুরুল আলম বলেন, ৫৫ জন কর্মকর্তা সারা দেশের বিভিন্ন বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু করবেন। আগে থেকে না জানিয়েই বিদ্যালয় হঠাৎ করেই পৌঁছে যাবেন তারা।

মহাপরিচালক জানান, বিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা, শিখন ঘাটতি পূরণে রুটিন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে কিনা, শিক্ষকরা ঠিকমত বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকছেন কিনা তা পর্যবেক্ষণ করবেন ৫৫ জন কর্মকর্তা।

করোনার কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।  শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি পূরণের ব্যবস্থা রেখে রুটিন করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।  শিক্ষার্থীদের সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করে শ্রেণি পাঠদান করানোর নির্দেশনা রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচ্ছন্ন ও স্বাস্থ্যসম্মত ব্যবস্থাও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।  এসব বিষয় ঠিক মতো মানা হচ্ছে কিনা তা যাচাই করতে শিক্ষা কর্মকর্তাদের প্রতিও নির্দেশনা রয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন কতটুকু হচ্ছে তা যাচাইয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

/এসএমএ/এমএস/

সম্পর্কিত

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

স্কুল গেটে অভিভাবকদের জটলা, স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা!

স্কুল গেটে অভিভাবকদের জটলা, স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা!

কমপক্ষে এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ঢাবির হল  খুলে দেওয়ার সুপারিশ 

কমপক্ষে এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ঢাবির হল খুলে দেওয়ার সুপারিশ 

শিক্ষক দিবসে ঐচ্ছিক ছুটির দাবি

শিক্ষক দিবসে ঐচ্ছিক ছুটির দাবি

১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগের বিরুদ্ধে করা রিট খারিজ

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০৬

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ নিয়ে করা অন্তত ২০টি রিটের ওপর জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে ওই ১৬৫০ জনের নিয়োগ প্রক্রিয়া বৈধ থাকছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী রোকন উদ্দিন মাহমুদ, প্রবীর নিয়োগী, নসুব্রত কুমার কুণ্ডু ও সালাউদ্দিন রিগ্যান। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়। 

২০১৮ সালের ২৩ জানুয়ারি ১৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এর প্রেক্ষিতে সব ধরণের পরীক্ষা শেষে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি প্রকাশ করা হয় ফলাফল। কিন্তু এতে কোটা পদ্ধতি সঠিকভাবে অনুসরণ না করে প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে উল্লেখ করে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেন মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ৩৪ জন প্রার্থী। এতে ফল না পেয়ে মো. রাশেদুল ইসলামসহ চাকরিপ্রার্থী ৩৪ জন হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

/বিআই/এমএস/

সম্পর্কিত

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

ইভ্যালির চেয়ারম্যান-সিইও’র বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ অক্টোবর

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা গ্রেফতার

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

ইভ্যালির রাসেলের বাসায় র‍্যাবের অভিযান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পরীমণির রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা মামলার শুনানি বুধবার

পরীমণির রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা মামলার শুনানি বুধবার

পূর্বাচলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধন

পূর্বাচলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধন

লালমাটিয়ায় অবৈধ ভিওআইপি, ৩০ লাখ টাকার সরঞ্জাম জব্দ

লালমাটিয়ায় অবৈধ ভিওআইপি, ৩০ লাখ টাকার সরঞ্জাম জব্দ

করোনা এড়াতে হেঁটে-সাইকেলে স্কুলে যাতায়াতের প্রত্যয় শিক্ষার্থীদের

করোনা এড়াতে হেঁটে-সাইকেলে স্কুলে যাতায়াতের প্রত্যয় শিক্ষার্থীদের

‘নগর দরিদ্রদের কর্মসংস্থানে কাজ করছে ডিএনসিসি’

‘নগর দরিদ্রদের কর্মসংস্থানে কাজ করছে ডিএনসিসি’

বাড়ি ফেরার কারণে সারা দেশে করোনার বিস্তার: গবেষণা 

বাড়ি ফেরার কারণে সারা দেশে করোনার বিস্তার: গবেষণা 

নিঝুম দ্বীপের সংরক্ষিত বনাঞ্চলের সীমানা নির্ধারণের নির্দেশ

নিঝুম দ্বীপের সংরক্ষিত বনাঞ্চলের সীমানা নির্ধারণের নির্দেশ

ডেঙ্গুতে আরও তিন জনের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে আরও তিন জনের মৃত্যু

রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন

রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন

করোনায় মৃত্যু ২৭ হাজার ছাড়ালো

করোনায় মৃত্যু ২৭ হাজার ছাড়ালো

সর্বশেষ

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

জাকার্তার বায়ু দূষণ রোধে ব্যবস্থা নেননি ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট: আদালত

বায়ু দূষণ মামলায় ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে যুগান্তকারী রায়

গণমাধ্যম দেখে দেশ চালাই না: শেখ হাসিনা

গণমাধ্যম দেখে দেশ চালাই না: শেখ হাসিনা

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ডাকাতি করতো স্বামী, স্বর্ণ বিক্রি করতো স্ত্রী

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

© 2021 Bangla Tribune