X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

১৭ বছর প্রিয় নেত্রীর স্নেহবঞ্চিত ভৈরবের নেতাকর্মীরা

আপডেট : ২৪ আগস্ট ২০২১, ০২:১৭

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী জনসভায় গ্রেনেড হামলায় গুরুতর আহত হন কিশোরগঞ্জের ভৈরবের কৃতী সন্তান আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক, নারীনেত্রী ও মুক্তিযোদ্ধা আইভি রহমান। এরপর ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) তিন দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে ২৪ আগস্ট শেষ নিশ্বাস ত‌্যাগ করেন তিনি।

প্রয়াণ দিবসে প্রিয় নেত্রীকে স্মরণ করছে ভৈরববাসী। আইভি রহমান আওয়ামী লীগের জাতীয় পর্যায়ের নেতা হয়েও ভৈরবের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের খোঁজখবর রাখতেন নিয়মিত। ভৈরবের নেতাকর্মীদের কাছে এক ভরসার নাম ছিলেন আইভি রহমান। তাদের সবার প্রিয় এই নেত্রী একবাক‌্যে দলমত নির্বিশেষে ‘আপা’ হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা আপা ডাকলেও তিনি তাদের আগলে রাখতেন মাতৃস্নেহে।

ভৈরবের নেতাকর্মীরা ১৭ বছর ধরে মাতৃস্নেহ থেকে বঞ্চিত। তারা মমতাময়ী নেত্রী আইভি রহমানকে এখনও এক মুহূর্তের জন‌্য ভুলতে পারেন না। ভৈরববাসীর জন‌্য আইভি রহমানের বাড়ির দরজা দিন-রাত সব সময়ের জন‌্য খোলা থাকতো। আজ প্রিয় নেত্রীর ১৭তম প্রয়াণ দিবসে শ‌্রদ্ধার সঙ্গে তাকে স্মরণের পাশাপাশি ২১ আগস্টের হামলা এবং এর পরিকল্পনাকারীদের বিচারের আশায় পথ চেয়ে আছেন তারা।

ভৈরব শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিক আহমেদ সৌরভ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আপা ছিলেন কর্মীবান্ধব একজন নেত্রী। তিনি কর্মীদের সঙ্গে সহজভাবে মিশতেন। আমি তখন ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বিভিন্ন দুর্দিন-দুঃসময়ে আন্দোলন-সংগ্রামে যেকোনও কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলার জন‌্য আপা সাহস জোগাতেন। নেতাকর্মীদেরকে নিজের সন্তানের মতো ভালোবাসতেন, আগলে রাখতেন। যেকোনও সংকটে ভৈরবে চলে আসতেন এবং মানুষের পাশে দাঁড়াতেন। আইভি রহমান ছিলেন ভৈরবের মেয়ে, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী হিসেবে ভৈরবের বউ। তাই ভৈরবে দলমত নির্বিশেষে আপার একটা গ্রহণযোগ‌্যতা ছিল। রাষ্ট্রপতির স্ত্রী হয়েও তিনি নিজ আলোয় আলোকিত ছিলেন।’

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের চাচাতো ভাই ও আইভি রহমানের দেবর সাখাওয়াত মোল্লা বলেন, ‘আইভি ভাবি রাজনীতিতে যেমন সবার প্রিয়ভাজন ছিলেন তেমনি পারিবারিক জীবনেও একজন সফল মানুষ ছিলেন। পরিবার-পরিজন আত্মীয়-স্বজন সবার খোঁজখবর রাখতেন। ভাবির মৃত্যু রাজনীতিতে বা ভৈরববাসীর জন‌্য যতটা ক্ষতি হয়েছে, আমাদের পরিবারেও তার শূন্যতা পূরণ হওয়ার নয়। তিনি সব আত্মীয়-স্বজনের হাড়ির খবর রাখতেন। আমাদের সবার ভালোবাসার আশ‌্রয় ছিলেন ভাবি। আমরা এই হত‌্যাকাণ্ডের বিচার চাই।’

ভৈরব শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি বাকী বিল্লাহ বলেন, ‘দ্রুত এ হত‌্যাকাণ্ডের বিচার করতে করতে হবে। আমাদের দাবি, আইভি রহমানের নামে বাংলাদেশের জাতীয় কোনও বড় স্থাপনার নামকরণ করা হোক। যেন মানুষ এই ত‌্যাগী নেত্রীকে সব সময় মনে রাখে।’

ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমরা আইভি আপার মমতা বঞ্চিত হয়েছি। আপা আমাদের সব কথা শুনতেন। সমাধানের চেষ্টা করতেন। ২১ আগস্টের ঘটনার সাত দিন আগেও তিনি ভৈরবে এসেছিলেন। বন‌্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছিলেন। আমাদের কথা দিয়ে গিয়েছিলেন এক সপ্তাহ পর ঢাকা থেকে প্রচুর ত্রাণ নিয়ে আবার ফিরবেন। কিন্তু তিনি আর ফিরলেন না ফিরলো তার নিথর দেহ। আমরা দ্রুত এ হত‌্যাকাণ্ডের বিচার চাই।’

আইভি রহমানের ১৭তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দিনব‌্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।সকালে দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। এরপর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে আইভি রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ‌্রদ্ধা নিবেদন  করবেন নেতাকর্মীরা। তাছাড়াও দুপুরে কেবি সরকারি উচ্চ বিদ‌্যালয়ে স্মরণসভা এবং পাঁচ হাজার দরিদ্র মানুষের জন‌্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।  

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩০

কক্সবাজারের উখিয়ায় দুই রোহিঙ্গা গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুই জন মারা গেছেন। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ছয় জন হয়েছেন। সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুই জনের মৃত্যু হওয়ার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম।

তিনি জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংগঠিক ঘটনায় এই পর্যন্ত ছয় জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এসব মৃতদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে, ভোররাতে ঘটনাস্থলে চার জন রোহিঙ্গা নিহত হওয়ার খবর জানায় পুলিশ। এ সময় আহত হয়েছে ১০ থেকে ১২ জন। তাদের মধ্যে চার জনকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোরে উখিয়ার ১৮ নম্বর ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রোহিঙ্গারা হচ্ছে উখিয়ার বালুখালী-২ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মো. ইদ্রিস (৩২), ইব্রাহিম হোসেন (২২), আজিজুল হক (২৬), মো. আমীন (৩২) ।

সত্যতা নিশ্চিত করে কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে চার জন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি। নিহতদের তাৎক্ষণিক পরিচয় পাওয়া যায়নি। আমি ঘটনাস্থলের রয়েছি।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিএনের অধিনায়ক পুলিশ সুপার শিহাব কায়সার জানান, শুক্রবার ভোরে উখিয়া বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চার রোহিঙ্গা নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ১০-১২ জন রোহিঙ্গা।
 
ঘটনার পর পরই এপিবিএন পুলিশ এবং জেলা পুলিশ বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিহতদের উদ্ধার এবং অস্ত্রধারীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছে। পুলিশ এ পর্যন্ত একজনকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।  

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৩

চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানা এলাকায় সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলার ঘটনায় মিরসরাই সদর ইউনিয়ন জামায়াতের সাবেক আমির মো. কফিল উদ্দিন লতিফীকে (৪৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মিরসরাই পৌর সদর থেকে তাকে গ্রেফতার করে হাটহাজারী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে মিরসরাই থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মিরসরাই থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, হাটহাজারীতে মন্দিরে ভাঙচুর ও সহিংসতার মামলায় জামায়াত নেতা কফিল উদ্দিন লতিফীকে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে তাকে হাটহাজারী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

হাটহাজারী থানার এসআই আকরাম হোসেন বলেন, হাটহাজারী থানা এলাকায় মন্দিরে ভাঙচুর ও সহিংসতার ঘটনায় গত ১৪ অক্টোবর মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত মিলে ২০০ জনকে আসামি করা হয়। ওই মামলায় জামায়াত নেতা কফিল উদ্দিন লতিফীকে মিরসরাই থানা পুলিশের সহায়তায় গ্রেফতার করা হয়েছে। 

এর আগে, গত ১৭ অক্টোবর হাটহাজারী থানা এলাকায় মন্দিরে ভাঙচুর ও সহিংসতার ঘটনায় মিরসরাই পৌরসভা বিএনপির আহবায়ক ফকির আহম্মদ (৬০), যুগ্ম আহবায়ক মো. জাহিদ হুসাইন (৩০) ও বিএনপি নেতা নজরুল ইসলামকে (৩৫) গ্রেফতার করেছিল মিরসরাই থানা পুলিশ।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৪

পটুয়াখালীতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সাবেক ইউপি সদস্য আশরাফুল আলম (৪৫) ও তার স্ত্রী খাদিজা বেগমকে (৪০) মারধরের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার জেরে ওই ইউপি সদস্যের বাড়ির প্রবেশপথের সড়ক কেটে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। কেটে ফেলা হয়েছে তার শতাধিক গাছ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) বাউফল উপজেলার কনকদিয়া ইউনিয়নের ঝিলনা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের সময় ওই পরিবারটি জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল দিয়ে সাহায্য চায়। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছানোর আগেই হামলাকারীরা পালিয়ে যায় । 

মারধরের শিকার ইউপি আশরাফুল আলম বলেন, পাঁচ বছর আগে আপোসে প্রতিবেশী মো. মোস্তফা আকনের জমি দিয়ে একটি রাস্তা নির্মাণ করেন তিনি। শর্ত ছিল এর পরিবর্তে তিনি মোস্তফা আকনকে  অন্যত্র জায়গা দেবেন। কিন্তু মোস্তফা আকন এখন ওই জমি নিতে রাজি না। এ কারণে মোস্তফার ছেলে মো. মামুন আকনের নেতৃত্বে  ৫-৬ জনের একটি দল বাড়ির প্রবেশপথের রাস্তা কেটে ফেলে। এ সময় আমার স্ত্রী খাদিজা বেগম বাধা দিলে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে পৌঁছালে আমাকে মারধর করা হয়। এরপর মামুন তার সহযোগীদের নিয়ে রাস্তার পাশে শতাধিক ফলদ ও বনজ গাছ কেটে ফেলে। তাদের বেপরোয়া অবস্থা দেখে জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল করি। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই ওরা পালিয়ে যায়।  

গাছও কেটে ফেলেন হামলাকারীরা এ বিষয়ে অভিযুক্ত মোস্তফা আকনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তার ভাই আবদুর রব আকন বলেন, রাস্তাটি আমাদের জমির ওপর দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। এ কারণে রাস্তা কেটে দিয়েছি।
 
বাউফল থানার ওসি আলম মামুন জানান, মারামারির ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

ভোলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

ভোলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

প্রণোদনা পেতে শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের নার্সদের বিক্ষোভ

প্রণোদনা পেতে শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের নার্সদের বিক্ষোভ

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:২০

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কক্সবাজারে আটক ইকবাল হোসেনকে কুমিল্লায় আনা হচ্ছে। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে তাকে নিয়ে কুমিল্লার উদ্দেশে রওনা হয় পুলিশ। 

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে সমুদ্রসৈকত এলাকায় ঘোরাফেরা করার সময় ইকবাল হোসেনকে জেলা পুলিশের একটি দল আটক করে। পরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে এসে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তাকে নিতে ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লা জেলা পুলিশের একটি টিম কক্সবাজারে আসে। ভোর সাড়ে ৬টার দিকে ইকবালকে কুমিল্লা জেলা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপরই কুমিল্লা জেলা পুলিশের ওই টিম ইকবালকে নিয়ে রওনা দেয়।  ইকবালের বিষয়ে কুমিল্লা জেলা পুলিশ আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমকে জানাবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম।

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত এলাকার সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর রাতে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

গত ১৩ অক্টোবর ভোরে নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়া যায়। এরপরই দেশের কয়েক স্থানে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার জেরে ওই দিন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পাঁচ জন নিহত হন। পরদিন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মন্দির, মণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা–ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানে হামলায় দুই জন নিহত হন। এরপর রংপুরের পীরগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বসতিতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এরইমধ্যে শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকেও চিহ্নিত করে।

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা কে এই ইকবাল?

/এএম/

সম্পর্কিত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৩

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে চার জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০ জন। হতাহত সবাই রোহিঙ্গা। আহতদের মধ্যে চার জনকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোরে উখিয়ার ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রোহিঙ্গারা হলেন, উখিয়ার বালুখালী-২ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মো. ইদ্রীস (৩২), ইব্রাহীম হোসেন (২২), আজিজুল হক (২৬) ও মো. আমীন (৩২)।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম। তিনি জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে চার জন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি। আমি ঘটনাস্থলে আছি। পরে বিস্তারিত জানাবো।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার শিহাব কায়সার বলেন, শুক্রবার ভোরে উখিয়া বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চার রোহিঙ্গা নিহত হয়। এ সময় আহত হয়েছে আরও ১০ রোহিঙ্গা। 

ঘটনার পরপরই এপিবিএন এবং জেলা পুলিশ বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে নিহতদের লাশ উদ্ধার এবং অস্ত্রধারীদের আটকে অভিযান শুরু করেছে। পুলিশ এ পর্যন্ত একজনকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন শিহাব কায়সার।

/এএম/ইউএস/

সম্পর্কিত

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনছে পুলিশ 

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

মোবাইলে পর্নো ভিডিও সরবরাহকারী ৪ জন গ্রেফতার

মোবাইলে পর্নো ভিডিও সরবরাহকারী ৪ জন গ্রেফতার

মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে প্রাণ গেল ২ বন্ধুর

মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে প্রাণ গেল ২ বন্ধুর

সাফারি পার্কে জোড়া মিললো সাম্বার হরিণের

সাফারি পার্কে জোড়া মিললো সাম্বার হরিণের

জেলেদের হামলায় নৌ-পুলিশের ইনচার্জসহ আহত ৪

জেলেদের হামলায় নৌ-পুলিশের ইনচার্জসহ আহত ৪

৫ কোটি টাকায় হলো শ্রীপুর পৌর ভবন 

৫ কোটি টাকায় হলো শ্রীপুর পৌর ভবন 

টাঙ্গাইলে একই ইউনিয়নে দুই স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

টাঙ্গাইলে একই ইউনিয়নে দুই স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

সর্বশেষ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

প্রেমিক থেকে ধর্ষণ মামলার আসামি

প্রেমিক থেকে ধর্ষণ মামলার আসামি

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় জামায়াত নেতা গ্রেফতার

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

© 2021 Bangla Tribune