X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

অমিতাভ ফেরত দিচ্ছেন অনুদানের টাকা, সিনেমা না নির্মাণের সিদ্ধান্ত

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:১৮

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার আর সরকারি অনুদান প্রাপ্তি- প্রায় সমান সুখের বিষয় যেকোনও চলচ্চিত্র নির্মাতার জন্য। প্রথম ছবি ‘আয়নাবাজি’ (২০১৬) দিয়েই রাষ্ট্রীয় পুরস্কারের সুখ অনুভব করেছেন অমিতাভ রেজা চৌধুরী। বাকি ছিল সরকারি অনুদান। সেটিও পেলেন ২০২০-২১ অর্থবছরে। হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’র পাণ্ডুলিপি জমা দিয়ে।

ছবিটি নির্মাণের জন্য ৬০ লাখ টাকার প্রথম কিস্তি ১৮ লাখ টাকা সরকারি কোষাগার থেকে এরইমধ্যে জমা পড়েছে অমিতাভের অ্যাকাউন্টে। আগে থেকেই প্রস্তুত কাস্টিং, লোকেশনসহ প্রায় সবকিছু। কিন্তু মাঠে নামার আগেই অমিতাভ রেজা সিদ্ধান্ত নিলেন ছবিটি না বানানোর। এরমধ্যে সরকারের অনুদান কমিটির সঙ্গে আলাপও করেছেন, জানিয়েছেন তার সিদ্ধান্ত। কাল-পরশুর (১৫-১৬ সেপ্টেম্বর) মধ্যে পুরো টাকাটাই সরকারকে ফেরত দিচ্ছেন অভিমানী অমিতাভ।

এমন ঘটনা সচরাচর ঘটে না অনুদান শাখায়। উল্টো, অনুদানের টাকা নিয়ে বছরের পর বছর ছবি না বানানোর রীতি রয়েছে এখানে। তাহলে কী কারণে বা অভিমানে এমন সিদ্ধান্ত নিলেন অমিতাভ? জবাবে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি এ খবরটি মিডিয়াকে জানাতেই চাইনি। কারণ, এক অর্থে একজন নির্মাতা হিসেবে তো এটা আমার ব্যর্থতাই। কত মানুষ অনুদান চেয়ে পান না। আর আমি পেয়েও সেটা ফেরত দিচ্ছি।’

এই নির্মাতা জানান ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ ছবিটি নির্মাণের জন্য তার দশ বছরের প্রস্তুতির কথা। তিন বছর ধরে এর চিত্রনাট্য করেছেন রঞ্জন রব্বানীকে সঙ্গে রেখে। তারও আগে দুই দফা সরাসরি হুমায়ূন আহমেদের কাছ থেকে ছবিটি নির্মাণের জন্য অনুমোদন নিয়েছেন। এরপর পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে একাধিকবার এই ছবি নির্মাণের বিষয়ে পজিটিভ আলাপ হয়েছে। অবশেষে অনুদান প্রাপ্তি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে কেন পিছিয়ে গেলেন অমিতাভ?

‘‘মূল কারণ বলার আগে একটু প্রেক্ষাপট বলি। এই ছবিটি নির্মাণের জন্য প্রথম স্যারের কাছ থেকে অনুমতি নেন নির্মাতা আবু সাইয়ীদ ভাই। একসঙ্গে দুটি। এরমধ্যে ‘নিরন্তর’ তিনি নির্মাণ করেছেন। তখনই আমি সাইয়ীদ ভাইয়ের কাছ থেকে ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ নির্মাণের অনুমোদন নিই। এবং আমি আবার স্যারের কাছেও যাই। তিনি চোখ বন্ধ করে আমাকে অনুমোদন দেন। তা-ই নয়, স্যার চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার আগে যখন দেখা করতে যাই, তখনও তাগাদা দিচ্ছিলেন, ‘ছবিটা বানাও না কেন?’ তখন ‘আয়নাবাজি’র জন্য সুযোগ করতে পারিনি। এরপর স্যার মারা গেলেন। স্বাভাবিক নিয়মেই আমি সিনেমার বিষয়টি স্যারের পরিবারের অন্য সদস্যদেরও জানাই। তারা পজিটিভ ছিলেন। তাছাড়া এ ছবিটি অনুদান নিয়ে বানাবো, তেমন একটা বাসনাও ছিল আমার মধ্যে। সেটি পেলামও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বপ্নের ছবিটি আমি বানাতে পারছি না। এটাই হলো চরম বাস্তবতা।’’ আক্ষেপ নিয়ে বললেন অমিতাভ রেজা।

জানা যায়, হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুর পর তার সাহিত্য ও নির্মাণ বিষয়ে কিছু নিয়ম তৈরি করা হয়েছে ট্রাস্টি বোর্ড গঠনের মাধ্যমে। যে বোর্ডে হুমায়ূন পরিবারের সদস্যরা রয়েছেন। ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’ ছবিটি অনুদান পাওয়ার পর ট্রাস্টি বোর্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন নিতে গেলে বেশ কিছু নতুন শর্ত সামনে আসে অমিতাভ রেজার। যে শর্তগুলো মেনে ছবিটি নির্মাণ করতে গেলে ‘গল্পটি’র প্রতি অবিচার করা হবে বলে মনে করেন অমিতাভ। তার ভাষায়, ‘আমি শর্তগুলোর বিরোধিতা করছি না। নিশ্চয়ই স্যারের কর্মগুলোর সঠিক সুরক্ষা দেওয়ার জন্যই নিয়মগুলো করা হয়েছে। তবে সেটি পালন করে এই ছবি বানাতে গেলে ছবিটা আর হবে না। বরং স্যারের গল্পের অবমাননা করা হবে বলে আমি সিনেমাটি না নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অনুদান কমিটির সঙ্গেও বসেছেন অমিতাভ রেজা। কমিটির সদস্যরা বারবার তাকে অনুরোধ করেছেন, সবার সঙ্গে আবার বসে একটা সুরাহা করে ছবিটি নির্মাণের। কিন্তু অমিতাভ মনে করছেন, ছবিটি নির্মাণ হলে না হবে অনুদানের টাকাগুলোর সঠিক ব্যবহার, না হবে স্যারের গল্পটির যোগ্য উপস্থাপন। তার ভাষায়, ‘সরকারি টাকা মানে জনগণের টাকা। তো সেই টাকাগুলো নিয়ে আমি জনগণের সম্পদ নষ্ট করতে চাই না। আমি স্পষ্ট দেখতে পারছি, ছবিটি শেষ পর্যন্ত বানাতে পারবো না ট্রাস্টি বোর্ডের শর্তগুলো পূরণ করতে গেলে। তারচেয়ে সরকারের টাকাটা ফেরত দেওয়াই উত্তম।’

একাধিক সূত্র বলছে, অমিতাভের এই ছবিটি না করতে পারা বা অনুদান ফেরত দেওয়ার মূল কারণ হুমায়ূন আহমেদ ট্রাস্টি বোর্ডের বড় অংকের অর্থনৈতিক শর্ত। সিনেমা নির্মাণের আগে তো বটেই, মুক্তির পরেও রেভিনিউ শেয়ার করার নানা শর্ত রয়েছে।

তবে এসব প্রসঙ্গ এড়িয়ে অমিতাভ রেজা বলেন, ‘অর্থনৈতিক বিষয়ে আমি কিছু বলবো না। সেটা তো থাকবেই। তবে হুমায়ূন আহমেদ ট্রাস্টি বোর্ডের শর্ত বা নিয়মগুলোকে আমি রেসপেক্ট করি। বাস্তবতা হচ্ছে এই, ১০ বছর ধরে প্রস্তুতি নিয়ে সবকিছু চূড়ান্ত হওয়ার পরও ট্রাস্টি বোর্ডের নিয়মের মধ্যে থেকে ছবিটি আমি নির্মাণ করতে পারছি না। মনে রাখতে হবে, সরকার আমাকে ৬০ লাখ টাকা দিলেও এরসঙ্গে সমপরিমাণ টাকা লগ্নি করতে হবে, যদি ছবিটি প্রপারলি বানাতে চাই। সেই প্রস্তুতিও ছিল। কিন্তু শেষে এসে যখন জানলাম শর্তগুলো, তখন আসলে নিরুপায় হয়ে গেছি। সামনে অন্ধকার দেখছিলাম। তাই ১৮ হাজার টাকা জরিমানাসহ সরকারের কাছ থেকে প্রাপ্ত ১৮ লাখ টাকা আমি ফেরত দিচ্ছি কাল-পরশু।’

বিপরীতে অমিতাভ রেজা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন তার প্রথম ওয়েব ফিল্ম ‘মুন্সিগিরি’ নিয়ে। পূর্ণিমা-চঞ্চল চৌধুরী-শবনম ফারিয়া অভিনীত এ ছবিটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে উন্মুক্ত হচ্ছে শিগগিরই। এদিকে নির্মাতার মুক্তি প্রতীক্ষিত দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘রিক্সা গার্ল’ নিয়ে যাচ্ছেন উত্তর আমেরিকায়। ৭ থেকে ১৭ অক্টোবর মিল ভ্যালি চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হবে ছবিটি। যেখানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকছেন অমিতাভ রেজা নিজেও। ফিরেই দেবেন নতুন নির্মাণের ঘোষণা।

/এমএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

অনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

অনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৩৯

চলমান মহামারির সূত্র ধরে বিশ্বজুড়ে চলছে ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জোয়ার। সেই সুবাদে ঢালিউড, হলিউড, টলিউড আর বলিউড- সব যেন কাছাকাছি দূরত্বে পৌঁছে যাচ্ছে! বিশেষকরে শিল্পী-কুশলী-নির্মাতাদের দারুণ পালাবদল চলছে। আজ জয়া আহসান বলিউডের সিরিজে কাজ করছে তো, কাল শোনা যাচ্ছে সংগীতশিল্পী প্রীতম আহমেদ হলিউডে! 

একইভাবে দেশি ও বিদেশি ওটিটির মধ্যেও চলছে নানা চমকের প্রতিযোগিতা। তবে এ পর্যন্ত ঢাকাই শিল্পী-কুশলীদের নিয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছে ভারতীয় ওটিটি হইচই। সফলতার পরিমাণও তাদের বেশি। বয়সেও এগিয়ে। এবার পাঁচ বছরে পা রেখেছে হইচই। তাই আয়োজনটাও একটু বড়।

হইচই-এর বাংলাদেশ কান্ট্রি ম্যানেজার শাকিব আর. খান বাংলা ট্রিবিউনকে জানান পাঁচটি চমকের কথা। প্রতিষ্ঠানটি দেশের পাঁচ জন নামি নির্মাতাকে এক করলেন। উদ্দেশ্য, পাঁচটি নতুন সিরিজ উপহার দেওয়া। নির্মাতারা হলেন- অমিতাভ রেজা চৌধুরী, আশফাক নিপুণ, সৈয়দ আহমেদ শাওকি, শঙ্খ দাস গুপ্ত ও তানিম নূর।

কান্ট্রি ম্যানেজার বলেন, ‘শীর্ষস্থানীয় বাংলা ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচই পঞ্চম বর্ষে পা দিয়েছে। পৃথিবীব্যাপী বাংলা ভাষা-ভাষীদের কাছে মানসম্মত বাংলা কনটেন্ট পৌঁছে দেয়ার অব্যাহত প্রচেষ্টার চার বছরে হইচই শ্রেষ্ঠত্ব বজায় রেখেছে। বাংলাদেশের প্রতিটি প্রান্ত থেকে অভূতপূর্ব সাড়া পাওয়ায় পঞ্চম বর্ষে বাংলাদেশ থেকে পাঁচ জন সেরা নির্মাতাকে দিয়ে নতুন অরিজিনাল সিরিজ নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছি আমরা। যা শিগগিরই দর্শকদের সামনে হাজির হবে।’ হইচই-এর কো-ফাউন্ডার বিষ্ণু মোহতা

এবার যেনে নেওয়া যাক সিরিজগুলো সম্পর্কে আগাম ধারণা- 

বলি
সোহরাব–রুস্তম; নাম দুটির সাথে বাঙ্গালীর আবেগ জড়ানো। প্রাচীন এক লোককাহিনির ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে এই অ্যাকশন/থ্রিলার। মূল দুই চরিত্রে অভিনয় করছেন ‘তাকদীর’ দিয়ে দেশ মাতানো জুটি– চঞ্চল চৌধুরী ও সোহেল মণ্ডল। পরিচালনা করছেন শঙ্খ দাস গুপ্ত। 

কাইজার 

কাইজার একজন ভিডিও গেমে আসক্ত ডিটেকটিভ। অস্বাস্থ্যকর সব অভ্যাস তার ব্যক্তি ও পেশা জীবনে নানা নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। আরও শোনা যায়– কাইজার নাকি রক্ত ভয় পায়! পরিচালনায় তানিম নূর। 

বোধ 

একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির বোধের জাগরণ এবং বিবেকের দংশন নিয়ে এই সিরিজ। অমিতাভ রেজা চৌধুরীর বিশেষ নির্মাণ এটি। 

কারাগার

একটি জেল। সেল নাম্বার ৫০১। সেলটিতে রাখা বেশ কিছু কয়েদীর আত্মহত্যার পর থেকে সেটি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ। এক সকালে সেলটিতে এক কয়েদীকে খুঁজে পাওয়া যায়, যে দাবি করে সেলের ভেতরে সে ২০০ বছর ধরে বন্দী। ‘তাকদীর’ সিরিজের আকাশচুম্বী সাফল্যের পর সৈয়দ আহমেদ শাওকির নতুন ন্যারেটিভ থ্রিলার সিরিজ এটি। 

সাবরিনা 

দুই বাংলা কাঁপানো ওয়েব সিরিজ ‘মহানগর’র পর আশফাক নিপুণ নিয়ে আসছেন ‘সাবরিনা’। যেখানে সামাজিক অবস্থান নির্বিশেষে নারীদের ওপর নিপীড়নের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। দুই নারীকে কেন্দ্র করে শিহরণ জাগানো একটি গল্প।

/এমএম/

সম্পর্কিত

অমিতাভ ফেরত দিচ্ছেন অনুদানের টাকা, সিনেমা না নির্মাণের সিদ্ধান্ত

অমিতাভ ফেরত দিচ্ছেন অনুদানের টাকা, সিনেমা না নির্মাণের সিদ্ধান্ত

অনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

অনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি: এখন নয়, জবাব দেবো পর্দায়

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৩৬

এখন নয়, জবাব দেবো সিনেমার পর্দায়—জেল থেকে ফিরে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে এসে এমনটাই বললেন পরীমণি। যিনি এরইমধ্যে পরিচিতি পেয়েছেন ঢালিউডের বীরকন্যা প্রীতিলতা হিসেবে।

ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মাহুতিদানকারী প্রথম নারী শহীদ বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারকে নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন রাশিদ পলাশ। গোলাম রাব্বানীর চিত্রনাট্যে এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন পরীমণি।

মূলত ‘প্রীতিলতা’র বিষয়ে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয় বিএফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবে, শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টায়। এতে পরীমণি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এর নির্মাতা, নাট্যকার, অভিনেত্রী শম্পা রেজাসহ সংশ্লিষ্টরা।

জেল থেকে মুক্তির ২৪ দিনের মাথায় আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনের মূল চমক ছিলেন পরীমণি। শেষ পর্যন্ত তিনি সংবাদ সম্মেলনে আসবেন কিনা, সেটি নিয়েও ছিল মিডিয়াকর্মীদের মধ্যে সন্দেহের বলিরেখা। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে যথাসময়েই হাজির হলেন পরী। কথা বললেন, প্রাণখুলে। যদিও ‘প্রীতিলতা’ প্রসঙ্গের বাইরে একচুলও যাননি এই অভিনেত্রী।  
 
বললেন, ‘দুই বছর ধরে ছবিটি নিয়ে আমি প্রস্তুতি নিয়েছি। এটি একটি ঐতিহাসিক চরিত্র। এই চরিত্র ধারণ করা দুই দিনের ব্যাপার না। দীর্ঘ দুই বছর ধরে টিমের সঙ্গে কাজ করে চরিত্রটি ধারণ করছি।’

কিন্তু চরিত্রটিকে আরও পোক্ত করে তুলতে জেলজীবন থেকে কি বাড়তি কোনও অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে পরী বেশ সচেতন। বললেন, ‘আগেই বলেছি প্রীতিলতাকে ধারণ করছি দুই মাস ধরে নয়, দুই বছর ধরে। কতটা ধারণ করতে পেরেছি, সেটার জবাব দেবো সিনেমার পর্দায়। এখানে নয়।’  

এরমধ্যে ছবিটির ৩৫ ভাগ শুটিং শেষ হলো। বাকি অংশের কাজ শুরু হবে অক্টোবরে। সেসব পরিকল্পনা জানানোর জন্যই এই সংবাদ সম্মেলন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এই চলচ্চিত্রে শহীদ প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ছাড়াও অলিভিয়া নামের একজন চিত্রনায়িকার চরিত্রেও অভিনয় করছেন ‘স্বপ্নজাল’-খ্যাত পরীমণি।

/এমএম/এমওএফ/
টাইমলাইন: পরীমণি
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৪২
সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি: এখন নয়, জবাব দেবো পর্দায়
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১০
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৮
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১০
০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৩
০১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২৬
০১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৭
০১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩২
০১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৮
৩১ আগস্ট ২০২১, ১৯:২৯
৩১ আগস্ট ২০২১, ০৮:০০
২৪ আগস্ট ২০২১, ১১:৫৫

সম্পর্কিত

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি

পরীমণির ‘নতুন বাসা’ কোথায়?

পরীমণির ‘নতুন বাসা’ কোথায়?

নভেম্বরে পরীমণিকে নিয়ে শুটিং ফ্লোরে যাবেন চয়নিকা

নভেম্বরে পরীমণিকে নিয়ে শুটিং ফ্লোরে যাবেন চয়নিকা

নতুন ফ্ল্যাটে উঠলেন পরীমণি

নতুন ফ্ল্যাটে উঠলেন পরীমণি

সহশিল্পীর কারণে তারা ছবিগুলো করতে চাননি

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০৭

বলিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীরা অনেক সময়ই ফিরিয়ে দিয়েছেন অসাধারণ সব ছবির প্রস্তাব। এমন তারকাও আছেন, যারা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন কেবল সহশিল্পী পছন্দ হয়নি বলে। তেমন ছয় জনের কথা জানা যাক—

রণবীর সিং

‘বার বার দেখো’ ছবিটিতে ক্যাটরিনা কাইফের বিপরীতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল এই অভিনেতাকে। কিন্তু সায় দেননি রণবীর। কারণ, দীপিকা আর ক্যাটরিনার নীরব যুদ্ধটা তখন রীতিমতো টক অব দ্য বি-টাউন। তাই ক্যাটরিনার নায়ক সেজে দীপিকাকে রাগাতে চাননি রণবীর।

ঐশ্বরিয়া রাই

‘বাজিরাও মাস্তানি’তে মাস্তানি চরিত্রের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল ঐশ্বরিয়া রাইকে। তবে সহ-অভিনেতা হিসেবে সালমান খানের সম্ভাবনার কথা শুনেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন তিনি।

ক্যাটরিনা কাইফ

‘ফিতুর’ ও ‘জাগগা জাসুস’ বক্স অফিসে ফ্লপ হবার পর ক্যাটরিনা তার কাজ বাছাই নিয়ে সচেতন হন। পরে আদিত্য রায় কাপুরের বিপরীতে যখন তাকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়, নাকচ করেন এই অভিনেত্রী। কারণ, আদিত্যের সঙ্গেই ফ্লপ হয়েছিল ‘ফিতুর’।

রণবীর কাপুর

সোনাক্ষী সিনহার বিপরীতে এক ছবিতে রণবীরকে প্রস্তাব দেওয়া হলে তিনি তা গ্রহণ করেননি। কারণ, তিনি মনে করেন তার সঙ্গে ছবি করলে তাকে সোনাক্ষীর তুলনায় বয়সে ছোট মনে হবে।

কারিনা কাপুর

এই অভিনেত্রীর অভিনয়ের পূর্ব শর্ত হলো, তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ‘এ’ তালিকার অভিনেতা ছাড়া কাজ করবেন না। এ কারণে ইমরান হাসমির সঙ্গে ‘ব্যত্তমিজ দিল’ ফিরিয়ে দেন।

অমিতাভ বচ্চন

‘ব্ল্যাক’ ছবিটিতে একসঙ্গে দেখা যেতে পারতো অমিতাভ ও ক্যাটরিনাকে। তবে অমিতাভ এই অভিনয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন সহ-অভিনেত্রী কারিনা কাপুর খানের জন্য। পরিচালক ছবিটিতে অমিতাভ বচ্চনকেই চেয়েছিলেন। তাই শেষ পর্যন্ত অমিতাভ থাকলেও জায়গা পাননি কারিনা। তার জায়গায় এসেছিলেন রানি মুখার্জি।

সূত্র: পপজো

/এফএ/এমএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি: এখন নয়, জবাব দেবো পর্দায়

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণি: এখন নয়, জবাব দেবো পর্দায়

এটি আমার পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান: সুমন

এটি আমার পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান: সুমন

২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা

২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা

এটি আমার পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান: সুমন

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৮

বয়সের হিসাব পরের কথা, জীবনটাই তো ফেরার কথা নয় বেজবাবা সুমনের। শেষ দুই বছরের বেশিরভাগ সময় তিনি চিকিৎসকের সার্জারি টেবিল আর হাসপাতালের বিছানাতেই কাটিয়েছেন। ফেরা হয়নি মঞ্চে, বসা হয়নি নিজের সবচেয়ে প্রিয় স্থান স্টুডিওতে।

এসব জয় করে অথবা বাধা ডিঙিয়ে ফের নতুন গানে ফিরলেন অর্থহীন সুমন। উপহার দিলেন জীবনবোধ নিয়ে অনবদ্য কথায় মোড়া একটি গান। বোনাস হিসেবে রয়েছে বান্দরবানের নৈসর্গিকতা। 

‘বয়স হলো আমার’ শিরোনামের এ গানটি উন্মুক্ত হয় বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টায় সুমনের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে। মুক্ত হতে দেরি, প্রশংসার জোয়ারে ভাসতে বিলম্ব হলো না সুমন ও সতীর্থদের।  

গানটি প্রকাশ প্রসঙ্গে সুমনের প্রতিক্রিয়া এমন, ‘এ গানটিতে কোনও বেজ সোলো নেই, ভয়ংকর লিড নেই, ড্রামসের ক্যারিকেচার নেই! মহানের খুব সুন্দর বাজানো অ্যাকোস্টিক গিটারের ওপর খুব সাদামাটাভাবে আমার গাওয়া লিরিকনির্ভর গান এটি।’

গানটি তৈরি ও প্রকাশের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন এভাবে, ‘এটি আমার ধীরে ধীরে বয়স বেড়ে যাবার গান, এটি আমার গত দুবছরের প্রায় পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকার গান, এটি আমার অন্ধকারে ডুবে যাবার গান, এটি আমার রাতের পর রাত প্রচণ্ড ব্যথায় চিৎকার করার গান, পরিশেষে এটি আমার সব বাধা অতিক্রম করে আলোয় ফিরে আসার গান।’


  
কিছু দিন আগেও বিদেশের হাসপাতালে শুয়ে বেজবাবা সুমন ভেবেছিলেন, আর হয়তো বেঁচে দেশে ফেরা হবে না। ভেবেছিলেন, জীবনের সুরের ছেদটা বুঝি পড়েই গেলো। না, নানা ধকল কাটিয়ে ফিরেছেন তিনি। শরীরটা এখন অনেকটাই ভালো। চাইলে এখন বেশ কিছুক্ষণ বসে থাকতে পারেন। হাঁটতে পারেন ২-৩ কিলোমিটার। আর বড়জোর গাড়ির স্টিয়ারিং হাতে বসতে পারেন ৪-৫ ঘণ্টা।

এমন অবস্থাতেই ‘বয়স হলো আমার’ শুটিংয়ের জন্য বান্দরবানে গাড়ি নিয়ে ছুটে গেলেন সুমন। লেখা–সুরসহ গানের প্রযোজক সুমন। প্রযোজনায় তার সঙ্গে আছেন গিটারিস্ট মহান ফাহিম। 
 
অর্থহীন ব্যান্ডের এই দলনেতা ব্যাংকক ও দুবাইয়ে পাঁচ মাস চিকিৎসা শেষে গত আগস্টের প্রথম সপ্তাহে দেশে ফেরেন। তিনি ক্যানসার ও মেরুদণ্ডের কঠিন জটিলতায় কয়েক বছর ধরেই ভুগছেন। সর্বশেষ চিকিৎসার আগে লকডাউনের কারণে লম্বা সময় বিছানায় পড়ে ছিলেন তিনি।

২০১৭ সালে সার্জারির পর ব্যাংককের হাসপাতাল থেকে ফেরার পথে মারাত্মক সড়ক দুর্ঘটনার মুখোমুখি হন তিনি। সে সময় সুমনের শরীরে প্রায় ১১ ঘণ্টা ধরে ৯টি সার্জারি করা হয়। দুর্ঘটনায় তার স্পাইনাল কডের ক্ষতি হয়। তখন তার মেরুদণ্ডের দুটি ডিস্কও পরিবর্তন করা হয়েছিল। এখন তিনি সেই জটিলতাতেই ভুগছেন। সঙ্গে রয়েছে পুরনো অসুখ ক্যানসারের বিধিনিষেধও।

/এমএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

নায়ক-নেতার বিরুদ্ধে অশ্লীল কনটেন্ট, ডিবিতে অভিযুক্তদের তলব

নায়ক-নেতার বিরুদ্ধে অশ্লীল কনটেন্ট, ডিবিতে অভিযুক্তদের তলব

লিটল থিংস সিজন ৪: বেজেছে বিদায়ের সানাই

লিটল থিংস সিজন ৪: বেজেছে বিদায়ের সানাই

এবার লাইভে এসে কথা বলবেন শাবনূর

এবার লাইভে এসে কথা বলবেন শাবনূর

নভেম্বরে পরীমণিকে নিয়ে শুটিং ফ্লোরে যাবেন চয়নিকা

নভেম্বরে পরীমণিকে নিয়ে শুটিং ফ্লোরে যাবেন চয়নিকা

২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৮

২০০১ সালে ‘আজনবি’ ছবি দিয়ে বলিউডে অভিষিক্ত হন বিপাশা বসু। শুরুতেই ‘শ্যামবর্ণা সুন্দরী’র তকমা পেয়ে যান। বলিউডে তার ২০ বছর পূর্ণ হলো। সেই উপলক্ষে হিন্দুস্তান টাইমসকে জানালেন এতদিন চেপে রাখা নানান বিষয়। 

জানালেন, একটা সময় ছিল যখন তাকে সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরেও যেতে দেওয়া হতো না। এতে নাকি তিনি আরও কালো হয়ে যাবেন!

বিপাশা জানালেন, তাকে এমন সময়ের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে, যেখানে তাকে নিয়মিত পোশাক নিয়েও কথা শুনতে হয়েছিল।

বোহেমিয়ান থেকে আবেদনময়ী, গায়ের রঙ নিয়ে অহেতুক পরামর্শ—বলিউডে ঢোকার পর নানাভাবেই হেনস্তার শিকার হয়েছেন বিপাশা। দুই দশকে কখনও তেমন একটা অভিযোগ করতে দেখা যায়নি তাকে।

“এটা তখনকার কথা, যখন আমি আমার প্রথম হেয়ার-স্টাইলিস্ট কৌশলের সঙ্গে দেখা করি। সেও আমাকে নায়িকা হওয়ার ‘নিয়ম’ শিখিয়েছিল। সে বললো, জনসম্মুখে না গিয়ে আমি যেন আড়ালে থাকি।’’

কিন্তু বিপাশা তা না করে আরও বেশি মানুষের সঙ্গে মিশতে শুরু করেন। এ কারণে পান বোহেমিয়ান উপাধি।

‘এমনকি আমার করা চরিত্রগুলোও আমার মতো সাহসী, আবেদনময়ী এবং স্পষ্টভাষী ছিল’—জানালেন বিপাশা।

বয়স ৪২ হলেও আবেদন কিন্তু কমেনি। একসময় তাকে নিয়ে করা যাবতীয় প্রতিবেদনে ঘুরেফিরে গায়ের রঙটাই উঠে আসতো। তারপর যুক্ত হয় আবেদনময়ী শব্দটি। এ কারণেও বিপাশা অন্যদের চেয়ে খানিকটা আলাদা হয়ে পড়েন। তবে ২০ বছরের ক্যারিয়ার নিয়ে যোগে-বিয়োগে তুষ্ট বিপাশা।

সুইজারল্যান্ডে ‘আজনবি’র শুটিংয়ের এক ঘটনা। আইস টি খাওয়ার সময় তার হেয়ারস্টাইলিস্ট এসে তাকে বললো, ‘সবাই ভাবছেন যে আপনি হুইস্কি পান করছেন।’ তারপর সে তাকে পরামর্শ দেয়, তিনি যেন চা বা জুস কাপে নিয়ে খান। আরেক দিন একটা ব্যাকলেস ব্লাউজ পরে থাকায় তাকে বলা হয়, ‘অভিনেত্রীরা কেবল পর্দায় এমন পোশাক পরেন, বাস্তবে না।’

বিপাশা জানান, তখন থেকেই তার মনে হয়েছিল ওই সব পরামর্শ তার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে যায় না। এসব স্রেফ ভণ্ডামি। তিনি নিন্দুকদের কাছে জানতে চান, ‘আপনি স্বাভাবিক জীবনে যা পরতে পারেন না, সেটা কীভাবে পর্দায় পরছেন?’

বিপাশা বসু ও করণ সিং গ্রোভার হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে কথোপকথনে বিপাশা আরও জানান, অভিনেতা করন সিং গ্রোভারকে বিয়ে করার আগে শুটিং স্পটে তিনি জানিয়ে রেখেছিলেন যে তার প্রেমিক সেটে আসছে। এটাও সবাইকে বেশ বিচলিত করেছিল। কারণ, তাদের মনে হয়েছিল এটা যেন একটা নিষিদ্ধ ব্যাপার। ‘আমাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, কেন আপনি আপনার প্রেমিকের কথা বলছেন? এটা ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমি বললাম, আমি আমার প্রেমিকের জন্য লজ্জিত নই। তাকে আড়াল করারও দরকার দেখি না’—বললেন বিপাশা।

বলিউডে ২০ বছর পূর্ণ করার পর, বিপাশা তার প্রথম পরিচালক আব্বাস মাস্তানকে ধন্যবাদ দেন। এটাও জানালেন, শিগগিরই পর্দায় আবার তাকে দেখা যাবে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

/এফএ/এমএম/এমওএফ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

হইচইয়ের পাঁচ: অমিতাভ, আশফাক, শাওকি, শঙ্খ ও তানিম

অনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

২০২০-২১ অর্থবছরে অনুদানের ২০ চলচ্চিত্রঅনুদান পাচ্ছেন প্রযোজক জয়া, পরিচালক অমিতাভ

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

অস্কারে যাচ্ছে অমিতাভের ‌‘রিকশা গার্ল’!

সর্বশেষ

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

ছয় শিক্ষক ও ১৩ শিক্ষার্থী আক্রান্ত, চালু থাকবে বিদ্যালয়

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচাতে প্রাণ গেলো মায়েরও

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচাতে প্রাণ গেলো মায়েরও

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

© 2021 Bangla Tribune