X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

সেই দুই শিশুর জিম্মার বিষয়ে আবারও দুই পক্ষকে আলোচনার নির্দেশ

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০০

জাপানি মা নাকানো এরিকো ও দেশি বাবা ইমরান শরীফের দুই শিশুর জিম্মার বিষয়টি সুরাহা করতে আবারও দুইপক্ষের আইনজীবীদের পরষ্পর আলোচনায় বসার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানির দিন এবং এ সময়ের মধ্যে শিশুর দুজনের বাবা-মা পর্যায়ক্রমে তাদের সঙ্গে গুলশানের বাসায় থাকতে পারবে বলেও আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন।

আদালতে শিশুদের বাবার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও ফাওজিয়া করিম ফিরোজ। জাপানি মায়ের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির।

গত ১৯ আগস্ট শরীফ ইমরানের জিম্মায় থাকা দুই শিশু সন্তানকে ৩১ আগস্ট হাজির করার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে তাদের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন আদালত। শিশুদের মা জাপানি নাগরিক নাকানো এরিকোর করা রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট এসব আদেশ দেন।

পরে দুই শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগে তাদের মা পৃথক মামলা দায়ের করলে গত ২২ আগস্ট শিশুদের উদ্ধার করে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ সিআইডি। এরপর তাদের তেজগাঁওয়ের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছিল।

পরে গত ৩১ আগস্ট সেখান থেকে দুই শিশুকে গুলশানস্থ বাসায় একসঙ্গে ১৫ দিন বসবাস করার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ঢাকার সমাজ সেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক পদের একজনকে বিষয়টি তদারকির নির্দেশ দেন। পাশাপাশি ডিএমপি কমিশনারকে তাদের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২১ ফেব্রুয়ারি ইমরান তার দুই মেয়ে জেসমিন ও লাইলাকে নিয়ে দুবাই হয়ে বাংলাদেশে চলে আসেন। পরে দুই মেয়েকে জিম্মায় চেয়ে বাংলাদেশের হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন দুই শিশুর মা জাপানি নাগরিক এরিকো।

/বিআই/এমআর/

সম্পর্কিত

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৫

আরব-বাংলাদেশ ব্যাংকের চৌমুহনী শাখা থেকে টাকা স্থানান্তরে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার ঘটনায় দুদকের সহকারী পরিচালক মো. মশিউর রহমানকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। দুদকের নোয়াখালী সমন্বতি জেলা কার্যালয়ের এই সহকারী পরিচালককে আগামী ৭ নভেম্বর সকালে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

ওই গ্রাহকের আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলি ও মো সাইফুর রহমান সিদ্দিকী সাইফ। আর রিভিশন আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী একেএম নুরুল আলম।

এর আগে আরব-বাংলাদেশ ব্যাংক চৌমুহনী শাখায় গ্রাহক মো. আবদুল মমিনের লোনের জন্য জমা দেওয়া ৩ কোটি ১৮ লাশ ২০ হাজার ৪০০ টাকা তার অ্যাকাউন্ট থেকে বেআইনিভাবে স্থানান্তর করে আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে। ওই ঘটনায় ব্যাংকটির কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন আহমেদ, তপনকান্তী পোদ্দার, মো. নাজিম উদ্দিন, মো. হানিফের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়।

পরে একই বিষয়ে আবদুল মমিন নোয়াখালীর বিশেষ জজ আদালতে মামলা করতে গেলেও অনুসন্ধানকারী দুদক কর্মকর্তা মো. মশিউর রহমান আদালতে লিখিত আপত্তি দাখিল করেন। পরে এ বিষয়ে হাইকোর্টে রিভিশন আবেদন করেন আবদুল মবিন।

 

/বিআই/আইএ/

সম্পর্কিত

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৫

‘হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছেন’- এই কথা বলে নাসির নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলেন এক নারী। নাসিরেরও এক রোগী ভর্তি রয়েছেন একই হাসপাতালে। দুজনই রোগীর স্বজন হিসেবে প্রথমে নানা বিষয়ে গল্পগুজব করেন। হাসপাতালের বারান্দায় বসে আলাপ আলোচনার এক পর্যায়ে দুজনে বাইরে বের হন। একসঙ্গে নাস্তা খেয়ে হাসপাতালে ফিরে অচেতন হয়ে পড়েন নাসির। আর এই সুযোগে তার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে পালিয়ে যায় অজ্ঞাত সেই নারী। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ঘটেছে এই ঘটনা।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ব্রাহ্মণবাবাড়িয়া থেকে গোলেনা বেগম নামে এক রোগীকে নিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আসেন নাসির। গাইনি ওয়ার্ডে রোগী ভর্তি করার পর বারান্দায় বসে ছিলেন নাসির। এসময় সেখানে অজ্ঞাত এক নারীর সঙ্গে পরিচয়। ওই নারী তাদের জানান, তারও রোগী আছে গাইনি ওয়ার্ডে। রোগী ও চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে নানা কথাবার্তা বলার পর তারা একসঙ্গে হাসপাতাল থেকে বাইরে বের হন। ফুটপাতের চায়ের দোকানে বসে একসঙ্গে খাবার খান তারা। এরপর আবার গাইনি ওয়ার্ডের বারান্দায় ফিরে এসে ধীরে ধীরে অচেতন হয়ে পড়েন নাসির। এসময় আরেক স্বজন তাকে ডাকাডাকি করে সাড়া না পেয়ে উদ্ধার করে জরুরি বিভাগে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসক তার পাকস্থলী পরিষ্কার করেন।

নাসিরের স্বজনরা জানান, নাসিরের কাছে চিকিৎসা খরচ বাবদ ২০ হাজার টাকা ছিল, তা আর পাওয়া যায়নি। আর ঘটনার পর থেকে ওই নারীকেও হাসপাতাল এলাকায় দেখা যায়নি। তাদের ধারণা অজ্ঞাত ওই নারী কৌশলে নাসিরকে হাসপাতালের বাইরে নিয়ে চেতনানাশক কিছু খাইয়ে টাকাগুলো নিয়ে গেছে।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক এএসআই আব্দুল খান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। ওই রোগীর পাকস্থলী পরিষ্কার করা হয়েছে। তিনি চিকিৎসাধীন। অজ্ঞাত ওই নারীর খোঁজ করা হচ্ছে। ঢামেক হাসপাতালের নিরাপত্তা কাজে নিয়োজিত থাকা আনসারের প্লাটুন কমান্ডার মো. শাহ আলম বলেন, বিষয়টি জানার পর যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ওই নারীকে খোঁজা হচ্ছে।

/এআইবি/এনএল/এমআর/

সম্পর্কিত

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৭

শিশুদের স্কুলে ফেরাকে নিরাপদ করার লক্ষ্যে সরকারের সঙ্গে সম্মিলিতভাবে ‘নিরাপদ ইশকুলে ফিরি’ ক্যাম্পেইন চালু করেছে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মোট ১৯টি উন্নয়ন সংস্থা। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে সংবাদ সম্মেলনে ১৯টি উন্নয়ন সংস্থা তাদের ক্যাম্পেইন পরিকল্পনা এবং ফলাফল তুলে ধরে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ব্র্যাকের সিনিয়র ডিরেক্টর ও অ্যাডভোকেসি কেএএম মোর্শেদ বলেন, ‘শিশুদের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বিবেচনায় করোনা মহামারির দুঃসময় পার করে দীর্ঘ প্রায় ১৮ মাস পর গত ১২ সেপ্টেম্বর সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছে সরকার, যা একটি সময়োপযোগী ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পর সবচেয়ে বড় বিবেচ্য বিষয় হচ্ছে, শিশুদের স্কুলে ফেরাকে নিরাপদ করা, যাতে করে তারা কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে সুরক্ষিত থেকে নিয়মিত আগের মতো লেখাপড়া চালিয়ে যেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘শিশুদের নিরাপদে স্কুলে ফেরা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশে শিশু, অভিভাবকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে সচেতনার বার্তা পৌঁছে দিতে ক্যাম্পেইনটি ‘৩৬০ ডিগ্রি এডুটেইনমেন্ট’ বা আনন্দের সঙ্গে শিক্ষা পদ্ধতিতে সাজানো হয়েছে। যাতে এর বার্তা যেকোনও মাধ্যমে, যেকোনও উপায়ে সব শিশু এবং তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছানো যায়। ক্যাম্পেইনটির বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যোগাযোগের সব মাধ্যম ব্যবহার করা হচ্ছে।’

কেএএম মোর্শেদ বলেন, ‘দেশব্যাপী সচেতনতামূলক প্রচারণার অংশ হিসেবে স্কুল এবং কর্ম এলাকায় পোস্টার, স্টিকার, লিফলেট বিতরণ; স্থানীয় পর্যায়ে রেডিও অনুষ্ঠান, গান, নাটক, শিশু থিয়েটার, এলাকাভিত্তিক মাইকিং রিকশা ও অটোরিকশা পেইন্ট, টিভি বিজ্ঞাপন এবং মোবাইল ভয়েস এসএমএস-এর মাধ্যমে বার্তা পাঠানো হচ্ছে। এমনকি গানে গানে শিশুদের সচেতন করতে আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে জলের গান। এছাড়াও ক্যাম্পেইনে আরও যুক্ত হয়েছেন ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অনেকে।’

দেশব্যাপী সচেতনতামূলক প্রচারণা ছাড়াও ৫৬ জেলার ১০ হাজারের বেশি স্কুলে ক্যাম্পেইন পরিচালিত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘উল্লেখযোগ্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত স্কুলের শিক্ষকদের জন্য কোভিড-১৯ নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ স্কুলগুলোতে মাস্ক, হাত ধোয়ার স্যানিটাইজেশন উপকরণ, থার্মাল ডিটেক্টর, শিক্ষা উপকরণ ইত্যাদি সরবরাহসহ হতদরিদ্র পরিবারের শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রমে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা হচ্ছে।’

ক্যাম্পেইনের সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলো হলো—ব্র্যাক, গণসাক্ষরতা অভিযান, ঢাকা আহছানিয়া মিশন, এডুকো বাংলাদেশ, এফআইডিডিবি, ফ্রেন্ডশিপ, হ্যাবিট্যাট ফর হিউম্যানিটি বাংলাদেশ, হ্যান্ডিক্যাপ ইন্টারন্যাশনাল, হিউম্যানিটি অ্যান্ড ইনক্লুশন, জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ, রুম টু রিড বাংলাদেশ, সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশ, সাইটসেভারস বাংলাদেশ, সিনেমি ওয়ার্কশপ বাংলাদেশ, অষ্টমী ফাউন্ডেশন, টিচ ফর বাংলাদেশ, ভিএসও, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং ইপসা।

 

/জেডএ/আইএ/

সম্পর্কিত

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

‘নগদ-ডিআরইউ’ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ ২২ জন

‘নগদ-ডিআরইউ’ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ ২২ জন

ক্যাবল টিভি খাতে নীতিমালা প্রণয়নে ফিড অপারেটরদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

ক্যাবল টিভি খাতে নীতিমালা প্রণয়নে ফিড অপারেটরদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়ম ও ধীরগতিতে সংসদীয় কমিটির ক্ষোভ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৩৩

প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতি, আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি সমান, বার বার সময় বাড়ানোসহ উন্নয়ন প্রকল্পের অনিয়মে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এসব অনিয়ম নিয়ে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়কে প্রশ্নবানে জর্জরিত করেছে কমিটি। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মন্ত্রণালয় কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি। পরে সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে আগামী এক মাসের মধ্যে সার্বিক বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের অধীন ঢাকা, সিলেট, ময়মনসিংহ ও গোপালগঞ্জ জোন এবং সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের চলমান প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়।

জানা গেছে, বৈঠকের বেশিরভাগ সময় সড়ক বিভাগের চলমান প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় প্রকল্প কেন সময় মতো বাস্তবায়ন হয় না, বার বার কেন সময় বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়, বাস্তবে হওয়ার কথা না থাকলেও প্রকল্পের আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি কেন সমান হয়েছে, তার ব্যাখ্যা চাওয়া হয় কমিটির পক্ষ থেকে। এ সময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তাদের মত ও যুক্তি দিলে কমিটি তাতে সন্তুষ্ট হয়নি। এ সময় কয়েকটি প্রকল্পে ব্যয় না বাড়িয়ে মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা হয়। অবশ্য কমিটি ব্যয় না বাড়িয়ে মেয়াদ বাড়ানোকেও এক ধরনের অনিয়ম বলে উল্লেখ করে। এ বিষয়ে কমিটির এক সদস্য বলেন, বুঝলাম ব্যয় বাড়ছে না। কিন্তু প্রকল্প সময় মতো শেষ না হওয়ায় জনগণ তো সুবিধা বঞ্চিত হচ্ছে। তাছাড়া ওই প্রকল্প শেষ না হওয়ার কারণে মানুষকে দুর্ভোগও পোহাতে হচ্ছে।  

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি আব্দুস শহীদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা সড়কের চারটি জোন নিয়ে আলোচনা করেছি। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, কিন্তু কাজ শেষ হয়নি। ওই কাজ কবে শেষ হবে, সেটাও তারা জানাতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে যে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়েছে, সেখানে দেখা গেছে— প্রকল্পের আর্থিক ও বাস্তব অগ্রগতি সমান। কিন্তু কোনোভাবেই সমান হওয়ার কথা নয়। এক শতাংশ হলেও তো পার্থক্য থাকবে। এসব বিষয়ে তারা যুক্তি দিতে পারেনি। আমাদের অনেক প্রশ্নের তারা সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি। কোথায় কী অনিয়ম বা সমস্যা হয়, তার বিষয়ে আমরা এক মাসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেছি।’

আপনারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আব্দুস শহীদ বলেন, ‘উনারা শিক্ষিত মানুষ। আমরা তাদের অশ্রাব্য ভাষায় কিছু বলিনি। তবে এটা বলেছি যে, আপনারা মেধা কাজে লাগিয়ে তামাশা করতেছেন।’

সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে সড়কের ঢাকা জোনের অসমাপ্ত ৯টি প্রকল্পের সময় বৃদ্ধির কারণ ও ব্যাখ্যাসহ প্রতিবেদন কমিটির কাছে পাঠানোর সুপারিশ করা হয়। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের যাত্রাবাড়ী ইন্টারসেকশন থেকে মাওয়া পর্যন্ত এবং পাচ্চর-ভাঙ্গা প্রকল্পে কাজ শেষ না হওয়ার কারণ তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মো. আব্দুস শহীদের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটি সদস্য চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন, এ বি তাজুল ইসলাম, আহসান আদেলুর রহমান, ওয়াসিকা আয়শা খান এবং খাদিজাতুল আনোয়ার অংশগ্রহণ করেন।

/ইএইচএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

স্ত্রীকে নির্যাতন না করার শর্তে স্বামীর চাকরি ফেরানোর আদেশ

স্ত্রীকে নির্যাতন না করার শর্তে স্বামীর চাকরি ফেরানোর আদেশ

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রিট

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রিট

সংশোধন হচ্ছে আরপিও, কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সময় বাড়ছে

সংশোধন হচ্ছে আরপিও, কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সময় বাড়ছে

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’র দ্বিতীয় আসর ২২ ডিসেম্বর

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০০

আগামী ২২ ডিসেম্বর ‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’ টানা দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে নগর ভবনের মেয়র হানিফ অডিটোরিয়ামে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দ্বিতীয় পরিষদের দশম বোর্ড সভায় ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এই তথ্য জানান।

শেখ তাপস বলেন, ধারাবাহিক এই আয়োজন আরও বড় করে অনুষ্ঠিত হবে। আশা করছি আরও বেশি উৎসাহ-উদ্দীপনার মাধ্যমে এবারের আয়োজন সম্পন্ন করতে পারবো।

এবারের আয়োজনে নিবন্ধন প্রক্রিয়াসহ অন্যান্য প্রাথমিক কার্যক্রম দ্রুতই শুরু করা হবে জানিয়ে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, আগামী ২২ ডিসেম্বর প্রতিযোগিতা শুরু হবে। গতবার আমরা যে সফলতা দেখাতে পেরেছি, আশা করি এবার তার চাইতেও বেশি সফলতা আসবে।

করপোরেশনের কাউন্সিলররা ছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর সিতওয়াত নাঈম, সচিব আকরামুজ্জামান প্রমুখ।

/এসএস/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজধানীর বংশালে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

রাজধানীর বংশালে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে লড়তে পারবে না সিঙ্গাপুরের গ্যারিনা

ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে লড়তে পারবে না সিঙ্গাপুরের গ্যারিনা

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে দুদক, সিআইডি ও সিটিটিসির তদন্ত চলবে

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে দুদক, সিআইডি ও সিটিটিসির তদন্ত চলবে

আগের শর্তেই পরীমণিসহ তিন জনের জামিন

আগের শর্তেই পরীমণিসহ তিন জনের জামিন

আত্মসমর্পণ করে পরীমণির আবারও জামিনের আবেদন

আত্মসমর্পণ করে পরীমণির আবারও জামিনের আবেদন

আদালতে পরীমণি

আদালতে পরীমণি

সর্বশেষ

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

প্রথম দিনেই বরিশালের মোকামে ২০ হাজার মণ ইলিশ

প্রথম দিনেই বরিশালের মোকামে ২০ হাজার মণ ইলিশ

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

দুদকের এক সহকারী পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোকে বাঁচাতে প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়ন জরুরি: স্পিকার

জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোকে বাঁচাতে প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়ন জরুরি: স্পিকার

© 2021 Bangla Tribune