X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

জীবিত থেকেও এক জেলার শতাধিক মানুষ ‘মৃত’

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৪

‘জীবিত থাইকেও যদি জাতীয় পরিচয়পত্র তালিকায় মৃত থাকি, তাইলে মরে যাওয়া ভালো ছিল। তালিকায় মৃত দেখানোর কারণে করোনার টিকা নিতে পারতাছি না, ব্যাংক থেকে ঋণ উঠাইতে পারতাছি না, ছেলেমেয়েকে স্কুলে ভর্তি নিতাছে না, শুধু ভোগান্তিতে পড়তে হইতাছে।’ কথাগুলো বলেছেন ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার রাজীবপুরের স্বল্পা চরপাড়া এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে কৃষিশ্রমিক মোফাজ্জল হোসেন (৩৫)।

২০১৯ সালে মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে সর্বশেষ জাতীয় পরিচয়পত্র হালনাগাদের সময় মোফাজ্জল হোসেনকে মৃত দেখানো হয়। 

মোফাজ্জল হোসেন জানান, পাঁচ বছর আগে তার বড় ভাই তোফাজ্জল হোসেন মারা যান। সর্বশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় বড় ভাইয়ের সঙ্গে তাকেও স্থানীয় তথ্য সংগ্রহকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জাতীয় পরিচয়পত্রের হালনাগাদের তালিকায় মৃত দেখিয়েছেন। দুই বছর আগে ব্যাংকে ঋণ নিতে যাওয়ার পর ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার জাতীয় পরিচয়পত্র খুঁজে দেখেন মৃত। এরপর ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে সংশোধনের আবেদন করেন। বারবার নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে দুই বছরেও সমাধান হয়নি সমস্যা। তালিকায় মৃত দেখানোর কারণে করোনার টিকাসহ অনলাইনের কোনও সেবা নিতে পারছেন না তিনি। 

শুধু মোফাজ্জল নন, ২০১৯ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় জেলার শতাধিক জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখানো হয়েছে। এসব ব্যক্তি নির্বাচন অফিসে আবেদন করে দিনের পর দিন ঘুরছেন। কিন্তু কোনও সমাধান পাচ্ছেন না।

একই সমস্যায় পড়েছেন ঈশ্বরগঞ্জের মরিচারচর গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে জুবায়ের হোসেন (৩৫)। তিনি জানান, এক মাস আগে মোবাইলে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য বাজারের দোকানে যান। জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য বারবার চেষ্টা করেও খুলতে পারেননি। পরে বিকাশ এজেন্ট জানান তার আইডি কার্ডে সমস্যা আছে। পরে উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে আইডি কার্ডের সমস্যার কথা জানান। সেখানের কর্মকর্তা সার্ভারে তল্লাশি করে জানান তালিকায় তাকে মৃত দেখানো হয়েছে। এই কথা শোনার পর জুবায়ের হতবাক হয়ে যান। নির্বাচন কর্মকর্তার পরামর্শে সংশোধনের জন্য আবেদন করেন। কিন্তু আজও তার আইডি কার্ড সংশোধন হয়নি।

জুবায়ের আরও জানান, এ ধরনের ঘটনা কীভাবে ঘটলো বুঝতে পারছেন না। মৃত দেখানোর কারণে করোনার টিকার নিবন্ধনসহ অনলাইনে কাজ করতে পারছেন না।

এদিকে, করোনার গণটিকা নিতে গিয়ে উপজেলার মরিচারচর গ্রামের দিনমজুর শিপন মিয়া (৩২) জানতে পারেন মৃত। বারবার চেষ্টা করেও টিকা নিতে পারেননি। পরে উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে জানতে পারেন, সর্বশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় তাকে মৃত দেখানো হয়েছে।

শিপন মিয়া জানান, ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা তালিকা করতে গাফিলতি করেছেন। এ জন্য তার নাম মৃতদের তালিকায় উঠেছে। এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর এলাকার মানুষ তাকে নিয়ে হাসাহাসি করছেন। পরিচয়পত্রের সমস্যার কারণে করোনার টিকা নিতে পারেননি। এ ছাড়া জমি রেজিস্ট্রিসহ কোনও সেবাই নিতে পারছেন না। সংশোধনের জন্য নির্বাচন অফিসে বারবার ঘুরেও দেড় বছরেও না হওয়ায় হতাশ শিপন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সারওয়ার জাহান বলেন, জেলায় এ পর্যন্ত শতাধিক ব্যক্তিকে জাতীয় পরিচয়পত্রে মৃত দেখানো হয়েছে মর্মে সংশোধনের আবেদন করেছেন। তাদের আবেদন ঢাকার প্রধান নির্বাচন কমিশনার কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের জনবল কম থাকায় মাঠপর্যায়ে ২০১৯ সালে মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় এলাকাভিত্তিক তথ্য সংগ্রহের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সহযোগিতা নেওয়া হয়। তথ্য সংগ্রহের সময় শিক্ষকরা ভুলবশত মৃত ব্যক্তির পাশাপাশি জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে তালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন। এ কারণে এমন সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে নির্বাচন কমিশনের সার্ভারে একটি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট করা হচ্ছে; যার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান এবং সংশোধন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকেই করা যাবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের কাজ শেষ হবে। সেই সঙ্গে জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখানোর যে সমস্যা তা দ্রুতই সমাধান করা যাবে।

জেলা মানবাধিকার কমিশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট এএইচএম খালেকুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জীবিত ব্যক্তিকে জাতীয় পরিচয়পত্রে মৃত দেখানোর বিষয়টি মানবাধিকার লঙ্ঘন। এ ধরনের কাজের সঙ্গে জড়িতরা শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন। সরকার ইচ্ছা করলেই এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন। ভোগান্তিতে পড়া ব্যক্তিদের সমস্যা সমাধানে নির্বাচন কমিশন দ্রুত ব্যবস্থা নেবে বলে আশা করছি।’

/এএম/

সম্পর্কিত

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪৫

নারায়ণগঞ্জে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে সুজন ফকির (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সকাল ৮টায় ফতুল্লার নয়াবাজার মসলিমনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সুজন ফতুল্লার নবীনগরের শাহ আলমের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

সুজনের স্ত্রী মর্জিনা বেগম জানান, হত্যার ঘটনার আধঘণ্টা আগেই অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তাকে মোবাইল ফোনে কল করে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে যায়। সুজন কাজ করতেন বিসিকের একটি পোশাক কারখানায়। জটিল রোগে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার অস্ত্রোপচার হয়। সুস্থ হওয়ার পর চাকরি ছেড়ে ভাড়ায় ইজিবাইক চালানো শুরু করেন তিনি।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মো. রাকিবুজ্জামান জানান, ধারণা করা হচ্ছে, পরিকল্পিতভাবে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে সুজনকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

টিকার লাইনে দাঁড়ানো নারীর চেইন ছিনতাই, আটক ৫

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪৪

বগুড়ার শিবগঞ্জে করোনাভাইরাসের টিকা নিতে লাইনে দাঁড়ানো মরিয়ম বেগম (৫০) নামের এক নারীর গলা থেকে সোনার চেইন ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর সময় পাঁচ নারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে উপস্থিত জনতা। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে ঘটনাটি ঘটে।

আটকদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিকালে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, এদের বাড়ি হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে হলেও তারা স্থানীয় মোকামতলায় ভাড়া বাড়িতে থেকে চুরি, ছিনতাই, পকেটকাটাসহ বিভিন্ন অপরাধ করতেন।

গ্রেফতার নারীরা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার দলমডল গ্রামের ইউনুস আলীর স্ত্রী নাজমা বেগম (৩৫), একই এলাকার কাওসার আলীর স্ত্রী ফুলতারা বেগম (২৫), মো. শামীমের স্ত্রী রাবেয়া বেগম (২১) এবং হবিগঞ্জ জেলা সদরের উচাইল গ্রামের আলমগীর হোসেনের স্ত্রী শাহানা বেগম (২৫) ও একই জেলার চুনারুঘাট উপজেলার জোয়ার লালচাঁন গ্রামের বাশির উদ্দিনের স্ত্রী জোসনা বেগম (২৬)।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল ১০টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের চকপাড়া গ্রামের হুজ্জাতুল ইসলামের স্ত্রী মরিয়ম বেগম করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। তিনি টিকাদান কেন্দ্রের সামনে অন্যদের সঙ্গে লাইনে দাঁড়ান। এ সময় নাজমা বেগম ও তার চার সহযোগী মরিয়মের গা ঘেঁষে দাঁড়ান। তাদের সরে যেতে বলা হলেও কর্ণপাত করেননি। এক পর্যায়ে পেছনে থাকা নাজমা বেগম বোরকার ভেতরে হাত দিয়ে গলা থেকে সোনার চেইন ছিনিয়ে নিয়ে দৌড় দেন। মরিয়ম বেগম টের পেয়ে চিৎকার দিলে উপস্থিত জনতা তাকে হাতেনাতে আটক করেন। এছাড়া পলায়নরত তার চার সহযোগীকেও আটক করা হয়। পরে তাদের শিবগঞ্জ থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়। এ বিষয়ে মরিয়ম বেগমের ছেলে হাসান আলী থানায় ওই পাঁচ নারীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম আরও জানান, উদ্ধার করা চেইনটি মালিককে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। গ্রেফতার পাঁচজনকে বিকালে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৫

মৌলভীবাজারে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ২৬ বই ও লিফলেটসহ শিবিরের দুই নেতাকে আটক করেছে মডেল থানা পুলিশ। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) রাতে মৌলভীবাজার পৌর শহরের ৬৪১ পূর্ব সুলতানপুর এলাকায় চাঁদ মিয়ার বসত বাড়ি থেকে বৈঠক করার সময় তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- মৌলভীবাজার টাউন সিনিয়র মাদ্রাসার ছাত্র শিবিরের সভাপতি সাব্বির ইসলাম তানভির ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন মোহাম্মদ বখতিয়ার। তাদের মধ্যে সাব্বিরের বাড়ি রাজনগর উপজেলায় ও কুতুব উদ্দিনের বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার টাট্রিউলি গ্রামে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) হাসান মো. নাসের রিকাবদার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। তারা ঘটনাস্থলে রাষ্ট্রদ্রোহী ও ধ্বংসাত্মক এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রমের জন্য গোপনে বৈঠক করছিল। এ সময় অন্যান্যরা দৌড়ে পালিয়ে গেলেও তানভির ও বখতিয়ারকে পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়।

তিনি আরও জানান, তাদের কাছ থেকে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের জিহাদি বই, লিফলেট, চাঁদা আদায়ের রশিদ, মোবাইল ফোনসহ ২৬ ধরনের বই উদ্ধার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, সম্প্রতি পূজামণ্ডপে হামলার সঙ্গে তাদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই। রিমান্ডের জন্য আদালতে আবেদন জানানো হবে। এছাড়া দুর্গাপূজার সময় সংঘটিত কর্মকাণ্ডে কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলায় পৃথক পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

সন্তানদের সাঁতার শেখাতে গিয়ে পাইলটের মৃত্যু

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৩

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সন্তানদের পুকুরে সাঁতার শেখানোর সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে কাজি মফিজুর রহমান (৪৪) নামে বিমান বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক উইং কমান্ডারের (পাইলট) মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টায় উপজেলার মধ্য কেরোয়া গ্রামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মফিজুর রহমান ওই গ্রামের মৃত কাজি সিদ্দিকুর রহমানের তৃতীয় সন্তান। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

পাইলট মফিজুর রহমানকে দুপুর আড়াইটার দিকে তার ঢাকার বসুন্ধরা গ্রিন সিটির বাসায় নেওয়া হয়েছে। বিকালে বিমানবাহিনীর সদর দফতরে জানাজা শেষে তাকে ঢাকাতেই দাফন করা হবে বলে পারিবারিক সূত্র জানা গেছে।

মৃতের স্বজন কাজি ফরিদ হোসেন ও কাজি এরফান জানান, মফিজুর রহমান ১৯ বছর চাকরিজীবন শেষে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। গত দুই বছর ধরে তিনি একটি বেসরকারি বিমান সংস্থায় পাইলট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। বৃহস্পতিবার ছুটিতে মধ্য কেরোয়া গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসেন তিনি। শনিবার সকাল ১১টায় ওই এলাকার সাত জন অসহায় পরিবারকে সেলাইমেশিন দান করেন। দুপুর ১২টার সময় নিজেদের বাড়ির পুকুরে ছেলেমেয়েকে সাঁতার শেখাচ্ছিলেন। এ সময় বুকে হঠাৎ ব্যথা উঠে ডুবে যান তিনি। ছেলেমেয়ের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে গিয়ে মফিজকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নেন। কর্তব্যরত ডাক্তার তাহমিনা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, ‘বেসরকারি বিমানের পাইলট মফিজুর রহমান ভালো লোক ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৯

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালের চেলেরঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাত জনে দাঁড়িয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৪৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মারা যান।

এর আগে, বিকাল ৩টায় মহাসড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী রহিম পরিবহনের বাসটি (ময়মনসিংহ গ ১১-০৯৪৮) ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের চার জনসহ পাঁচ জন নিহত হন। এ ঘটনায় ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে আরেকজন মারা যান। এই নিয়ে হাসপাতালে দুই জনের প্রাণ গেছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. জাকিউল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- ফুলপুর উপজেলা হুজু (৩০), তার স্ত্রী ফাতেমা (২৮), ছেলে আব্দুল্লাহ (১০) ও মেয়ে আজমিনা (৮)। বাকি তিন জনের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় আহতদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন জানান, উপজেলার চেলেরঘাট নামক স্থানে দাঁড়িয়ে থাকা ড্রাম ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী বাস ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। মহাসড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনাপরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

জিয়া ও এরশাদ সরকার রেলপথ ধ্বংস করেছে: রেলমন্ত্রী

জিয়া ও এরশাদ সরকার রেলপথ ধ্বংস করেছে: রেলমন্ত্রী

যাত্রীবেশে অটোরিকশা চুরি করতো তারা

যাত্রীবেশে অটোরিকশা চুরি করতো তারা

ঘরের মেঝে খুঁড়ে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ১

ঘরের মেঝে খুঁড়ে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ১

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ৫ জনের মৃত্যু 

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ৫ জনের মৃত্যু 

ঘরের মেঝে খুঁড়ে মিললো বৃদ্ধের লাশ

ঘরের মেঝে খুঁড়ে মিললো বৃদ্ধের লাশ

সর্বশেষ

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

কাল থেকে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা শুরু‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

টিকার লাইনে দাঁড়ানো নারীর চেইন ছিনতাই, আটক ৫

টিকার লাইনে দাঁড়ানো নারীর চেইন ছিনতাই, আটক ৫

ওমান-পাপুয়া নিউগিনি যা, বাংলাদেশও তাই!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপওমান-পাপুয়া নিউগিনি যা, বাংলাদেশও তাই!

© 2021 Bangla Tribune