X
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

করোনায় শনাক্ত নামলো হাজারের নিচে

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০৪

করোনায় দৈনিক শনাক্ত নেমে এলো হাজারের নিচে। একদিনে ভাইরাসটিতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৮১৮ জন। এর আগে গত ১৭ মে ৬৯৮ জন শনাক্তের কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। একই সময়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ২৫ জন। তাদের নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে ভাইরাসটিতে মোট মারা গেলেন ২৭ হাজার ৩৯৩ জন। 

একদিনে নতুন শনাক্ত ৮১৮ জনকে নিয়ে দেশে করোনায় সরকারি হিসাবে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা সাড়ে ১৫ লাখ ছাড়িয়ে গেলো। দেশে এখন করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৫০ হাজার ৩৭১।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় রোগী শনাক্তের হার চার দশমিক ৫৯ শতাংশ। আর আজকের শনাক্তের হার নিয়ে টানা পঞ্চম দিনের মতো দৈনিক শনাক্তের হার পাঁচ শতাংশের নিচে।

একই সময়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন ৯৬৫ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হলেন মোট ১৫ লাখ ১০ হাজার ১৬৭ জন। এখন পর্যন্ত রোগী শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ১৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৪১ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে পুরুষ ১৪ জন আর নারী ১১ জন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট পুরুষ মারা গেলেন ১৭ হাজার ৫৯৮ জন আর নারী মারা গেলেন নয় হাজার ৭৯৫ জন।

মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে রয়েছেন দুই জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে তিন জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে সাত জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ছয় জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে চার জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুই জন আর ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছে একজন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ১১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ছয় জন, খুলনা বিভাগের চার জন আর সিলেট ও রংপুর বিভাগের আছেন দুই জন করে। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১৯ জন আর বেসরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ছয় জন।

/জেএ/এনএইচ/

সম্পর্কিত

একমাস ধরে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

একমাস ধরে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৭

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ। ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকার ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কের বাসায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৭৫ সালে সেনাবাহিনীর বিপথগামী সদস্যরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সময় এই শিশুকেও ছাড়েনি। বেঁচে থাকলে তাঁর বয়স হতো ৫৮ বছর। বড় বোন শেখ হাসিনা দুঃখ-ভারাক্রান্ত মন নিয়ে স্মরণ করেন শিশু রাসেলকে।

রাসেলের নাম রাখার স্মৃতিচারণ করে গতকাল (১৭ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী জানান, বঙ্গবন্ধুর অত্যন্ত প্রিয় লেখক ছিলেন খ্যাতনামা দার্শনিক ও নোবেলজয়ী লেখক বার্ট্রান্ড রাসেল। তার বই পড়ে বঙ্গমাতাকে ব্যাখ্যা করে শোনাতেন জাতির পিতা। তাই বঙ্গবন্ধু আর বঙ্গমাতা মিলে শখ করে আদরের ছোট ছেলের নাম রাখেন ‘রাসেল’।

শেখ হাসিনার কথায়, ‘নামটি শুনলেই প্রথমে যে ছবি সামনে ভেসে আসে তা হলো- হাস্যোজ্জ্বল ও প্রাণচঞ্চল এক ছোট্ট শিশুর দুরন্ত শৈশব; যে শিশুর চোখ হাসি-আনন্দে ভরপুর। মাথাভর্তি অগোছালো চুলের সুন্দর একটি মুখাবয়ব, যে মুখাবয়ব ভালোবাসা ও মায়ায় মাখা।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিজীবনের অজানা-অদেখা গল্প নিয়ে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’-এ তিনি তুলে ধরেন ছোট্ট রাসেলকে। মাত্র ১০ বছর ১০ মাসের জীবন তাঁকে যে গভীর ক্ষতবোধ দিয়েছিল তা সবসময়ই ফুটে ওঠে বড় বোনের কণ্ঠে, ‘রাসেল জন্মানোর পর আমরা ভাইবোনেরা খুব খুশি হই। যেন খেলার পুতুল পেলাম হাতে। ও খুব আদরের ছিল আমাদের। একটা ব্যক্তিত্ব নিয়ে চলতো। ওইটুকু একটা মানুষ, খুব স্ট্রং পার্সোনালিটি।’

২০১৯ সালে রাসেলের জন্মদিনে আলোচনা সভায় শেখ হাসিনা না বলা অনেক কথা ভাগাভাগি করেন। স্মৃতিচারণে তিনি বলেন, ‘বন্দিখানায় থাকা অবস্থায় যখন যুদ্ধ শুরু হয়েছিল, সেই যুদ্ধের সময় যখন আক্রমণ হতো, রাসেল পকেটে সবসময় একটু তুলা রাখতো। নিজের কানে দেওয়ার পাশাপাশি ছোট্ট জয়ের কানেও তুলা দিয়ে দিতো, যেন ওই আওয়াজে জয়ের কোনও ক্ষতি না হয়। জয়ের প্রতি রাসেল খুব খেয়াল রাখতো। সবসময়ই তার সেদিকে বিশেষ নজর ছিল।’

কোমলমতি শিশু রাসেলসহ পুরো পরিবারকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ইতিহাসের এক নির্মম, জঘন্য ও বিভীষিকাময় রাতে হারিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

গতকালের বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘স্বাধীনতাবিরোধী, ষড়যন্ত্রকারী ও বিশ্বাসঘাতকদের হাতে স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের ১৮ জন সদস্য শহীদ হন। সেদিন ছোট্ট শিশু রাসেলও খুনিদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। রাসেল তো বাঁচতে চেয়েছিল। বাঁচার জন্য ঘাতকদের কাছে আকুতি জানিয়েছিল, মায়ের কাছে যাওয়ার কথা বলেছিল। মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ঘাতকরা তাকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে।’

/ইউআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

রাসেল বেঁচে থাকলে আদর্শ নেতা পেতাম: প্রধানমন্ত্রী

রাসেল বেঁচে থাকলে আদর্শ নেতা পেতাম: প্রধানমন্ত্রী

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী 

রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী 

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৫

‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস’- এ প্রতিপাদ্য নিয়ে আজ  ১৮ অক্টোবর প্রথমবারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে দেশব্যাপী জেলা-উপজেলা এবং বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোতে যথাযথ মর্যাদায় উদযাপিত হবে ‘শেখ রাসেল দিবস ২০২১’।

দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। 

দিবসটি উপলক্ষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু এবং শিক্ষা, শিল্পকলা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি, ক্রীড়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ১০টি ‘শেখ রাসেল স্বর্ণপদক’, শেখ রাসেল পদকপ্রাপ্ত ও অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের ২০টি ল্যাপটপ, এলইডিপির আওতায় মূল অনুষ্ঠানে পাঁচটি এবং বিভিন্ন জেলায় ৩ হাজার ৯৯৫টিসহ মোট ৪ হাজারটি ল্যাপটপ দেওয়া হবে।

এছাড়া শেখ রাসেল শিশু-কিশোর পরিষদ ৬০টি পুরস্কার বিতরণ করবে। দিবসটির গুরুত্ব তুলে ধরে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে ক্রোড়পত্র প্রকাশিত হবে।

এছাড়া আইসিটি বিভাগ ও বাংলাদেশ শিশু অ্যাকাডেমির যৌথ উদ্যোগে ১৮ অক্টোবর সকাল ৬টায় বনানী কবরস্থানে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সকাল ৭টায় সরকারের মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দফতর, সংস্থা, প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হবে।

সকাল সাড়ে ৯টায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং শেখ রাসেল শিশু-কিশোর পরিষদের যৌথ উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের (বিআইসিসি) হল অব ফেম-এ শেখ রাসেল দিবসের উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন।

দিবসটি উপলক্ষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র, হল অব ফেম-এ বিকাল ৩টায় ‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস’ শীর্ষক জাতীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। একই মিলনায়তনে ‘কনসার্ট ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে বাংলাদেশ শিশু অ্যাকাডেমির উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ’ বিষয়ক পুস্তক প্রদর্শিত হবে।

সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকায় ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে’ পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন, দুপুর ১২টায় শিশু অ্যাকাডেমি অডিটোরিয়ামে শিশুতোষ চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। বেলা ১টা ৪৫ মিনিটে শিশু অ্যাকাডেমির মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, দুপুর ২টায় ‘মৃত্যুঞ্জয়ী শেখ রাসেল’ গ্যালারিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনী।

এছাড়া বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ নিজস্ব কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল দিবস পালনের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর, কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর এবং মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতর।  

এ উপলক্ষে দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘শেখ রাসেল বুক কর্নার’ স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। চলতি মাসের মধ্যেই দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই কর্নার করা হবে।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সেনাবাহিনীর কতিপয় বিপদগামী সদস্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার সময় তার ছোট ছেলে শেখ রাসেলকেও হত্যা করে। ওই সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরি স্কুলে (বর্তমানে ঢাকা ইউনিভার্সিটি স্কুল অ্যান্ড কলেজ) চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন শেখ রাসেল। তার  জন্ম ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর।

শেখ রাসেলের জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখতে ১৮ অক্টোবর ‘শেখ রাসেল দিবস’ হিসেবে পালন এবং দিবসটিকে ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত ঘোষণা করে সরকার। 

 

/এসএমএ/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

মডার্নার টিকা কেউ পাননি আজ 

মডার্নার টিকা কেউ পাননি আজ 

শেখ রাসেল দিবসে দেওয়া হচ্ছে ১০টি স্বর্ণপদক ও ৪ হাজার ল্যাপটপ 

শেখ রাসেল দিবসে দেওয়া হচ্ছে ১০টি স্বর্ণপদক ও ৪ হাজার ল্যাপটপ 

দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৪২ হাজার প্রার্থী

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২৩:২৭

দ্বিতীয় ধাপের ৮৪৬ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪১ হাজার ৭৯০ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪ হাজার ৮০, সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ হাজার ৫৬১ জন এবং সদস্য পদে ২৮ হাজার ১৪৯ জন প্রার্থী হয়েছেন। রবিবার (১৭ অক্টোবর) মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় শেষ হয়েছে। আগামী ১১ নভেম্বর এসব ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। তবে মনোনয়নপত্র দাখিল হয়েছে ৮৪৬টিতে। দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। এ ধাপের ৮৪৬টি ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪ হাজার ৮০জন। তাদের মধ্যে ২ হাজার ৬৫৫ জনই স্বতন্ত্র। বাকিরা ১৭টি রাজনৈতিক দলের। এ নির্বাচনে ৮৩৮টিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। 

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার ৭টিতে এবং রাঙ্গামাটি জেলার বরকল উপজেলার একটিতে এ দলটির কোনও প্রার্থী নেই। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে এসব ইউপিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।

এছাড়া অন্যান্য দলের মধ্যে জাতীয় পার্টির ১০৭, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ৩৬৮, জাপা-জেপির ৩, জাকের পার্টির ৪৯, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের ২৬ ও বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। অন্যান্য দলগুলোর ২ থেকে ৫ জন প্রার্থী হয়েছেন। বিএনপির কেউ এ নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেননি। 

ইসি জানিয়েছে, জমা পড়া মনোনয়নপত্র আগামী ২১ অক্টোবর বাছাই করবেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। বাছাইয়ে বাতিল বা গ্রহণ হওয়া মনোনয়নপত্রের বিরুদ্ধে আপিল করা যাবে আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত। ২৫ অক্টোবরের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ আগামী ২৬ অক্টোবর। চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ ও আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু ২৭ অক্টোবর এবং ভোটগ্রহণ হবে ১১ নভেম্বর।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

১০০৭ ইউপিতে ভোট ২৮ নভেম্বর

১০০৭ ইউপিতে ভোট ২৮ নভেম্বর

ময়মনসিংহ বিভাগের ইউপিতে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

ময়মনসিংহ বিভাগের ইউপিতে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের তফসিল বৃহস্পতিবার

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের তফসিল বৃহস্পতিবার

দ্বিতীয় ধাপে যেসব ইউপিতে ভোট

দ্বিতীয় ধাপে যেসব ইউপিতে ভোট

রাসেল বেঁচে থাকলে আদর্শ নেতা পেতাম: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাসেল যদি বেঁচে থাকতো, তাহলে হয়তো একজন মহানুভব, দূরদর্শী ও আদর্শ নেতা আজ আমরা পেতাম, যাকে নিয়ে দেশ ও জাতি গর্ব করতে পারতো।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাসেল আজ বেঁচে থাকলে কী করতো-এই ভাবনাটা আমাকে প্রায়ই ভাবায়। আজ এত বছর পরেও শেখ রাসেলকে জাতি শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করছে। কারণ রাসেল তার মহানুভবতা ও ব্যবহারে ছিল অমায়িক।’

তিনি বলেন, বিভীষিকাময় সেই রাতের প্রতিটি ক্ষণ, প্রতিটি মুহূর্ত এখনও গভীর শোকের সঙ্গে স্মরণ করি। এখনও ভাবি, কারও বিরুদ্ধে শত্রুতা থাকতেই পারে, কিন্তু সেই ক্ষোভ একজন কোমলমতি শিশুকে কেন কেড়ে নেবে? এই শিশু কী দোষ করেছিল? সে তো কোনও রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল না। সে কেন এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের অংশ হবে? এতসব স্মৃতি স্মরণ করতে কষ্ট হয়। বুকে পাথর বেঁধে সেইসব স্মৃতির সাগরে ডুব দেই। কারণ সেদিন ঘাতকের বুলেট যে কোমলমতি শিশুটির প্রাণ কেড়ে নিয়েছিল, সে ছিল নির্দোষ-নিষ্পাপ। 

শেখ হাসিনা বলেন, শেখ রাসেল এর ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে আমি তাকে গভীর ভালোবাসা ও পরম মমতায় স্মরণ করি এবং তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিশু রাসেলের জীবন সম্পর্কে শিশু-কিশোরদের কাছে তুলে ধরতে প্রতি বছর তাঁর জন্মদিনকে ‘শেখ রাসেল দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রথমবারের মতো পালিত ‘শেখ রাসেল দিবস ২০২১’ এর প্রতিপাদ্য ‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস’-যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

তিনি বলেন, শেখ রাসেল ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকার ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কের বাসায় জন্মগ্রহণ করে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের অত্যন্ত প্রিয় লেখক ছিলেন খ্যাতনামা দার্শনিক ও নোবেলজয়ী লেখক বার্ট্রান্ড রাসেল। জাতির পিতা বার্ট্রান্ড রাসেলের বই পড়ে বঙ্গমাতাকে ব্যাখ্যা করে শোনাতেন। তাই বঙ্গবন্ধু আর বঙ্গমাতা দু’জনে মিলে শখ করে তাদের আদরের ছোটো ছেলের নাম রেখেছিলেন ‘রাসেল’। রাসেল নামটি শুনলেই প্রথমে যে ছবিটি সামনে আসে তা হলো- হাস্যোজ্জ্বল, প্রাণচঞ্চল এক ছোট্ট শিশুর দুরন্ত শৈশব; যে শিশুর চোখগুলো হাসি-আনন্দে ভরপুর। মাথা ভর্তি অগোছালো চুলের সুন্দর একটি মুখাবয়ব, যে মুখাবয়ব ভালোবাসা ও মায়ায় মাখা।

শেখ হাসিনা বলেন, এই কোমলমতি শিশু রাসেলকে আমরা হারিয়েছি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের ইতিহাসের এক নির্মম, জঘন্য ও বিভীষিকাময় রাতে। স্বাধীনতা বিরোধী, ষড়যন্ত্রকারী ও বিশ্বাসঘাতকদের হাতে স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের ১৮ সদস্য শহীদ হন ওই কালরাতে। সেদিন ছোট্ট শিশু রাসেলও খুনিদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। রাসেল তো বাঁচতে চেয়েছিল। বাঁচার জন্য ঘাতকদের কাছে আকুতি জানিয়েছিল, মায়ের কাছে যাবার কথা বলেছিল। মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ঘাতকরা তাকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে।

তিনি বলেন, শেখ রাসেল আজ আমাদের মাঝে নেই, কিন্তু আছে তার পবিত্র স্মৃতি। বাংলাদেশের সকল শিশুর মধ্যে আজও আমি রাসেলকে খুঁজে ফিরি। এই শিশুদের রাসেলের চেতনায় গড়ে তুলতে হবে। এমন এক উজ্জ্বল শিশুর সত্তা বুকে ধারণ করে বাংলাদেশের শিশুরা বড় হোক। খুনিদের বিরুদ্ধে তারা তীব্র ঘৃণা বর্ষণ করুক। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে তারা এগিয়ে আসুক- আজ এ প্রত্যাশাই করি।
  
প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ রাসেল দিবস ২০২১’ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

/এমআর/

সম্পর্কিত

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী 

রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী 

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

দেশ বিক্রি করে তো আমি ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী

দেশ বিক্রি করে তো আমি ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী

শিশু-কিশোর, তরুণদের কাছে ভালোবাসার নাম শেখ রাসেল: রাষ্ট্রপতি

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৮

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, দেশের শিশু-কিশোর, তরুণ প্রজন্মের কাছে শেখ রাসেল এক ভালোবাসার নাম। সোমবার (১৮ অক্টোবর) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে  এক বাণীতে তিনি একথা বলেন।  রাষ্ট্রপতি তার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান এবং শেখ রাসেলের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, শেখ রাসেল ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে রাসেল ছিলেন সবার ছোটো, অনেক আদরের। রাসেল নামটি বঙ্গবন্ধু নিজেই রেখেছিলেন তার প্রিয় ব্যক্তিত্ব বিখ্যাত দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেলের নামে। রাজনৈতিক কারণে বঙ্গবন্ধুকে জীবনের একটি দীর্ঘ সময় কাটাতে হয়েছে কারাগারে। এজন্য শিশু রাসেল পিতার সান্নিধ্য ও আদর-যত্ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতে স্বাধীনতা বিরোধী ঘাতকচক্রের হাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নির্মমভাবে শহীদ হন। ঘাতকরা দশ বছরের ছোট্ট রাসেলকেও সেদিন রেহাই দেয়নি। ছোট্ট রাসেল সেদিন ঘাতকদের মিনতি করে বলেছিলেন, ‘আমি মায়ের কাছে যাব’। কিন্তু ছোট্ট শিশুর এ মিনতি ঘাতকদের মন একটুও গলাতে পারেনি। নিমিষেই তারা বুলেটের আঘাতে শিশু রাসেলের প্রাণ কেড়ে নেয়।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মৃত্যুকালে রাসেল ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিল। ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুর রক্তের উত্তরাধিকারদের নিশ্চিহ্ন করে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা সফল হয়নি।

আবদুল হামিদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শিশুদের খুবই ভালোবাসতেন। তিনি জানতেন সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শৈশব থেকেই তাদের মধ্যে চারিত্রিক গুণাবলির উন্মেষ ঘটাতে হবে। জ্ঞান-গরিমা, শিক্ষা-দীক্ষা, সততা, দেশপ্রেম ও নিষ্ঠাবোধ জাগ্রত করার মাধ্যমে তাদের প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, শিশুদের মাঝে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে তুলে ধরতে সংশ্লিষ্ট সকলে আন্তরিক প্রয়াস অব্যাহত রাখবে। খবর : বাসস

/এমআর/

সম্পর্কিত

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৪২ হাজার প্রার্থী

দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৪২ হাজার প্রার্থী

রাসেল বেঁচে থাকলে আদর্শ নেতা পেতাম: প্রধানমন্ত্রী

রাসেল বেঁচে থাকলে আদর্শ নেতা পেতাম: প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

একমাস ধরে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

একমাস ধরে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

পাঁচ মাস পর সর্বনিম্ন শনাক্ত

পাঁচ মাস পর সর্বনিম্ন শনাক্ত

করোনায় ৪ বিভাগ মৃত্যুহীন

করোনায় ৪ বিভাগ মৃত্যুহীন

পিছিয়ে যাচ্ছে সরকারিভাবে করোনা টিকা উৎপাদন

পিছিয়ে যাচ্ছে সরকারিভাবে করোনা টিকা উৎপাদন

করোনায় বেড়েছে মৃত্যু

করোনায় বেড়েছে মৃত্যু

সর্বশেষ

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

© 2021 Bangla Tribune