X
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

আফগানিস্তান ত্যাগের পর প্রথমবারের মতো তালেবানের সঙ্গে বসছে যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ০৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৯

মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগের পর প্রথমবারের মতো তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসছে যুক্তরাষ্ট্র। উভয় পক্ষের কর্মকর্তারা সংবাদমাধ্যম এপি-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কাতারের রাজধানী দোহায় এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, শনি ও রবিবার দুই দিনের এই বৈঠকে আফগানিস্তানে উগ্রবাদী গোষ্ঠীগুলোকে নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে আলোচনা হবে। এছাড়া আফগানিস্তানে অবস্থানরত বিদেশি নাগরিক ও কিছু আফগান নাগরিককে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে কথা হবে।

২০২১ সালের ১৫ আগস্ট প্রায় বিনা বাধায় কাবুলে প্রবেশ করে তালেবান। পালিয়ে দেশ ছাড়েন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। এক পর্যায়ে তালেবানের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে আফগানিস্তান ছাড়ে মার্কিন বাহিনী। ২০ বছর পর দেশটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের পর তালেবানের সঙ্গে মার্কিন কর্মকর্তাদের এটিই প্রথম আনুষ্ঠানিক বৈঠক।

দোহায় অবস্থানরত তালেবান মুখপাত্র সুহাইল শাহিন বার্তা সংস্থা এপি-কে বলেন, আলোচনায় ২০২০ সালে স্বাক্ষরিত তালেবান-ওয়াশিংটন শান্তিচুক্তি পুনর্বিবেচনা হবে। ওই চুক্তিই মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগের পথ সুগম করে।

সুহাইল শাহিন বলেন, বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং দোহা চুক্তির বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

আরেকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বৈঠকে সন্ত্রাসবাদ নিয়েও আলোচনা হবে। তবে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি না হওয়ায় তিনি নাম প্রকাশে রাজি হননি।

এমন সময়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে যখন আফগানিস্তানে আইএসের হামলা বেড়ে গেছে। জঙ্গিরা তালেবানকে শত্রু হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। ইতোপূর্বে দলটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন হামলার দায় স্বীকার করেছে তারা।

সর্বশেষ গত শুক্রবার কুন্দুজ প্রদেশের শিয়া মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস। ওই বিস্ফোরণে অন্তত ৪৬ জন নিহত হয়।

/এমপি/

সম্পর্কিত

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

ফের আফগান কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছে যুক্তরাষ্ট্র

ফের আফগান কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছে যুক্তরাষ্ট্র

ভারতে আসলেই পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি?

ভারতে আসলেই পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি?

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ

নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো ইরান

নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো ইরান

নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে সতর্ক ইউরোপ-এশিয়া, সীমান্তে কড়াকড়ি

নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে সতর্ক ইউরোপ-এশিয়া, সীমান্তে কড়াকড়ি

মধ্যম আয়ের দেশ হচ্ছে নেপাল

মধ্যম আয়ের দেশ হচ্ছে নেপাল

সর্বশেষ

বিএনপি’র ফন্দি-ফিকির আমরা বুঝি: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি’র ফন্দি-ফিকির আমরা বুঝি: তথ্যমন্ত্রী

১৫ গুণ ভোট বেশি পেয়ে লক্ষ্মীপুরের মেয়র হলেন মোজাম্মেল

১৫ গুণ ভোট বেশি পেয়ে লক্ষ্মীপুরের মেয়র হলেন মোজাম্মেল

ভয়ানক চোটে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ভয়ানক চোটে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ট্রেনের বগিভর্তি লাশ, নির্মিত হলো ‘শ্বাপদ’

ট্রেনের বগিভর্তি লাশ, নির্মিত হলো ‘শ্বাপদ’

বিজয়ী নারী সদস্যের ভাগনেকে কুপিয়ে হত্যা

বিজয়ী নারী সদস্যের ভাগনেকে কুপিয়ে হত্যা

© 2021 Bangla Tribune