X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ইউপি নির্বাচন: অভিযোগ প্রমাণ হলে প্রার্থী বদলাবে আ.লীগ

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩৯

নৌকা প্রতীক পাওয়া কোনও প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পেলে মনোনয়ন পুনর্বিবেচনা করবে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলী ও মনোনয়ন বোর্ডের দুই সদস্য এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলা ট্রিবিউনকে ওই দুই নেতা আরও বলেন, এজন্য ধানমন্ডির কার্যালয়ে অভিযোগ জমা দেওয়ার ব্যবস্থাও আছে।

বিকালে শুরু হওয়া সভা চলে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত। সভার মেয়াদ শনিবার (৯ অক্টোবর) শেষ হওয়ার কথা থাকলেও তৃণমূল পর্যায় থেকে আসা নানা আপত্তির কারণে মঙ্গলবার পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বোর্ড সদস্য ও দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চাল-গম চুরি ও অনিয়মে জড়িত ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান কোনও চেয়ারম্যানকেই মনোনয়ন দেওয়া হচ্ছে না। এ ছাড়া একাধিকবার নির্বাচিত চেয়ারম্যানদেরও মনোনয়ন দিতে চান না দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মনে করেন, বর্তমান চেয়ারম্যানরা অজনপ্রিয় হয়ে পড়েন। ফলে তাদের মনোনয়ন দেওয়া হলে হেরে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

তিনি আরও বলেন, চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া কোনও কোনও প্রার্থীর বিরুদ্ধে জমা পড়া অভিযোগ মনোনয়ন বোর্ডে আসছে। সেগুলো যাচাই করা হচ্ছে। সত্যতা পেলেই প্রার্থী বদলে যাবে। এজন্যই মনোনয়ন বোর্ডের সভা আরও তিন দিন বাড়ানো হয়েছে।

দলের অপর বোর্ড সদস্য ফারুক খান বলেন, কোনও জনপ্রতিনিধির নামে মাদক ব্যবসা বা কেউ মাদক গ্রহণ করছেন— এমন অভিযোগকেও আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি।

/এফএ/এমএস/

সম্পর্কিত

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি চরমোনাই পীরের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩০

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও  মন্দির সরকারিভাবে পুনর্নির্মাণ করার দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম। কুমিল্লার ঘটনা ও পরবর্তী ঘটনা তদন্তে বিচার বিভাগীয় কমিটি গঠনের দাবিও জানিয়েছেন তিনি। তবে এসব ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর  ব্যর্থতা রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাজধানীর পুরানা পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দেশের চলমান সংকট নিরসনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব দাবি জানান। এ সময় দলের মহাসচিব মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী উপস্থিত ছিলেন।

সাম্প্রতিক ঘটনার কয়েকটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ   উল্লেখ করে মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা বাংলাদেশের সাধারণ চরিত্র না। ঘটনার সূত্রপাত থেকে পরবর্তী প্রত্যেকটি ঘটনায় প্রশাসনের ব্যর্থতার ছাপ অতি স্পষ্ট। ৫০ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছ থেকে এ ধরনের ব্যর্থতা কল্পনাতীত।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, জন প্রশাসনে অতিমাত্রায় রাজনীতি প্রবেশের কারণে সামগ্রিকভাবে দেশের প্রশাসন ব্যবস্থায় এক ধরনের অদক্ষতা তৈরি হয়েছে। যার খেসারত এসব ঘটনা।’

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সমালোচনা করে চরমোনাই পীর আরও বলেন, ‘কুমিল্লার ঘটনার পর জনরোষ তৈরি হওয়া খুবই স্বাভাবিক। সেই রোষে মানুষ বিক্ষোভ করবে তাও স্বাভাবিক। বেসামরিক বাহিনীগুলোকে এই ধরনের গণবিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে প্রশিক্ষিত করার কথা। কিন্তু আমরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, ৫০ বছরের স্বাধীন একটি দেশের বেসামরিক বাহিনী গণবিক্ষোভ দমনে গুলি করার মতো চরম সিদ্ধান্ত সহজেই নিয়ে নিচ্ছে। যার প্রতিফলন নিকট অতিতে ভোলায়, হাটহাজারীতে ও বি-বাড়িয়ায় দেখা গেছে। চাঁদপুরেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী একই রকমভাবে বিক্ষোভ দমন করতে গিয়ে অন্তত পাঁচ জনকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে।’

মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, ‘ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির ও সংখ্যালঘুদের ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি সরকারিভাবে পুনর্নির্মাণ করে দিতে হবে এবং চাঁদপুরে পুলিশের গুলিতে যারা নিহত হয়েছেন, তাদের পরিবারসহ ক্ষতিগ্রস্ত সকল ব্যক্তি ও পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘কুমিল্লায় কোরআন অবমাননা, বিভিন্ন স্থানে মন্দির ও মূর্তি ভাঙা, রংপুরে আগুন দেওয়া এবং চাঁদপুরে বিক্ষোভে গুলি করে হত্যা করার বিষয়টি তদন্ত করতে হবে এবং সেই কমিটির তদন্ত রিপোর্ট নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জনসন্মুখে প্রকাশ করে অপরাধীদের কঠোর শাস্তির মুখোমুখি করতে হবে। ধর্ম অবমাননার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট আইন করতে হবে। সেই আইনের যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে। তাহলে কোনও ধরনের ধর্ম অবমাননার ঘটনা ঘটলে জনতা আর সহিংস হয়ে উঠবে না।’

মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম আরও বলেন, ‘কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে প্রতিবেশী দেশের একশ্রেণির মিডিয়া, সরকারি দলের রাজনৈতিক নেতৃত্ব ও সুশীল সমাজ যে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে, তা আধুনিক জাতিরাষ্ট্রের সব ধরনের নীতি-নৈতিকতা ছাড়িয়ে গেছে। তাদের এই ধরনের আগবাড়ানো প্রতিক্রিয়ালশীলতায় এই ঘটনার অন্তরালে আন্তর্জাতিক রাজনীতির নোংরা কৌশলের আভাস পাওয়া যায়।’

আগামী ২৭ অক্টোবর দেশের চলমান সংকট ও তা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে দেশের সর্ব-মহলের শীর্ষস্থানীয় পীর-মাশায়েখ, বুদ্ধিজীবী, রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী ও সমাজকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান চরমোনাই পীর।

/সিএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটে সরকারের লোকজন আছে: মান্না

ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটে সরকারের লোকজন আছে: মান্না

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

ইকবালকে ‘ভবঘুরে’ বলে লঘু করে দেখার অবকাশ নেই: মেনন

ইকবালকে ‘ভবঘুরে’ বলে লঘু করে দেখার অবকাশ নেই: মেনন

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:২৫

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘কুমিল্লার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্যে অনুমান হয় যে, তার কাছে অধিকতর তথ্য রয়েছে। আপনিই (মির্জা ফখরুল) তথ্য প্রমাণ দিয়ে বলুন- এ কয়দিন ইকবাল কোথায় ছিল।’ শনিবার (২৩ অক্টোবর) তার বাসভবনে ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

কুমিল্লার পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ রাখা ইকবাল হোসেন গ্রেফতারের পর বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম প্রশ্ন তুলেছেন- ‘গ্রেফতার হওয়া যুবক এতদিন কোথায় ছিল?’ মির্জা ফখরুলের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আসলে যেকোনও অর্জন বা সাফল্যকে বিতর্কিত করা বিএনপির স্বভাব। প্রতিটি বিষয়ে সন্দেহ করার বিরল প্রজাতির ভাইরাস আক্রান্ত বিএনপি। অবস্থাদৃষ্টে জনমনে প্রশ্ন ও সন্দেহ দেখা দিয়েছে যে, বিএনপির এই অতিপ্রতিক্রিয়া বা আগবাড়িয়ে কথা বলা তাদের নিজেদের অপরাধ লুকোনোর কৌশল কিনা।

বিএনপির দ্বিচারিতা সম্পর্কে দেশের মানুষ ভালো করেই জানেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা চোরকে বলে চুরি কর, আর গৃহস্থকে বলে সজাগ থাক। 

বিএনপি হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যদের সবসময় প্রতিপক্ষ ভেবে আসছে বলেও দাবি করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আর বিএনপি এখন সরকারের উপর দায় চাপাচ্ছেন আর হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য মায়াকান্না করছে।

বিএনপি মহাসচিবের কাছে প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে আপনাদের ভোট না দেওয়ার কথিত অপরাধে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর নির্মম নির্যাতন চালিয়েছিলেন কেন, ঘরবাড়ি পুড়িয়েছিলেন কেন, সম্পদ লুট করেছিলেন, আর নারীরা কেনইবা নির্যাতনের শিকার হয়েছিল?’

‘সরকারের মদদ ছাড়া সাম্প্রদায়িক সমস্যা তৈরি হয় না’- বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাহলে ২০০১ সালের সমস্যার দায় কি বিএনপি স্বীকার করে নিচ্ছেন?’ বিএনপি নেতারা বিষয়টি স্পষ্ট করবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জানান, ‘গাজীপুরের মেয়র ও গাজীপুর সিটি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচনসহ অন্যান্য আরো কিছু সাংগঠনিক শৃঙ্খলা বিরোধী উপস্থাপনীয় অভিযোগ আগামী ১৯ নভেম্বর শুক্রবার বিকাল ৪টায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভায় উত্থাপিত হবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, সভায় রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক আলোচনার পাশাপাশি দলীয় আদর্শ এবং শৃঙ্খলাবিরোধী বক্তব্যের জন্য গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে প্রদত্ত শোকজ নোটিশের উপর আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

/পিএইচসি/ইউএস/

সম্পর্কিত

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

নিত্যপণ্যের দাম কমাতে ব্যর্থ সরকার: মির্জা ফখরুল 

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:১৩

সরকার নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমাতে ব্যর্থ হয়েছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘মানুষ কী খাবে তার দিকে সরকারের কোনও খেয়াল নেই। তারা (আওয়ামী লীগ) খেতে পারলেই হলো; আওয়ামী লীগ খাবে, পেট মোটা করবে, শরীর মোটা করবে আর দুর্নীতি করে বিদেশে টাকা পাচার করে বিদেশে বাড়িঘর তৈরি করবে।’ 

শনিবার (২৩ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধনে এসব কথা বলেন। 

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকার সাধারণ মানুষের খাওয়া-পরাসহ সহজভাবে বসবাসের ব্যবস্থা করতে পারেনি। সরকার চাল, ডাল, তেল ও লবণের দাম কমাতে পারেনি। (নির্বাচনের আগে) কথা দিয়েছিল ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে, আর এখন চাল ৭০ টাকা (কেজি)। এক সপ্তাহের মধ্যে সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৭ টাকা। চিনি, লবণ, ডাল, সবজিরও দাম বেড়েছে।

সরকার নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমাতে ব্যর্থ হয়েছে দাবি করে বিএনপির এই অন্যতম শীর্ষ নেতা বলেন, ‘তারা দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ণ রাখতেও ব্যর্থ হয়েছে। আজকে পুলিশ দিয়ে পূজামণ্ডপে কোনোরকম নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয় না। সরকারের মদতেই আজকে সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। মানুষের নিত্যপণ্যের সমস্যা থেকে দৃষ্টি ভিন্ন খাতে নিতে এসব করা হচ্ছে। মানুষ এখন ঘুরে দাঁড়িয়েছে। তারা তাদের অধিকার চায়, ভোটের অধিকার চায়, দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি চায়।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ। 

/এসও/ইউএস/

সম্পর্কিত

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

সব অপকর্মের জবাবদিহি করতে হবে সরকারকে: মির্জা ফখরুল

সব অপকর্মের জবাবদিহি করতে হবে সরকারকে: মির্জা ফখরুল

পূজামণ্ডপে হামলা সরকারি মদতে: মির্জা ফখরুল

পূজামণ্ডপে হামলা সরকারি মদতে: মির্জা ফখরুল

২০ দলীয় জোট

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১৪

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক মুক্তিযুদ্ধবিরোধী সংগঠন জামায়াতে ইসলামী। ঢাকায় দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও মহানগর কার্যালয় দুটোই একদশক ধরে বন্ধ। এর মধ্যে একটিতে আগাছা জমে আছে। বর্তমানে জামায়াতের সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে অস্থায়ীভাবে। নেতাদের অনুসারীর বাসা কিংবা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে দলটি।

গত ১৪ অক্টোবর সরেজমিনে দেখা গেছে, বড় মগবাজারের এলিফ্যান্ট রোডে ৫০৫ ভবনের নিচতলায় অবস্থান করছেন কয়েকজন পাহারাদার। শীতলপাটিতে শুয়ে-বসে এখানে প্রতিদিন পালাক্রমে ডিউটি করে ছয় নিরাপত্তাকর্মী। তাদের মধ্যে একজন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ভবনটির মূল মালিকানা জামায়াতের দারুল ইসলাম ট্রাস্টের। ২০১১ সালে বন্ধের পর থেকে দলের কোনও নেতা অফিসে আসেননি। তবে গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তল্লাশি করেছে।

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ভেতরে দায়িত্বরত নিরাপত্তারক্ষী

নিরাপত্তারক্ষী মো. ইব্রাহিম উল্লেখ করেন, তারা প্রত্যেকে দলীয় আদর্শের কর্মী। তিনি বলেন, ‘দল থেকে বেতন-ভাতা ঠিকমতো পাচ্ছি। জীবন চলে যাচ্ছে।’

একইদিন দুপুরে জামায়াতের মহানগর কার্যালয়ে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। ভেতর থেকে বন্ধ রাখা ফটকে দফায়-দফায় টোকা দেওয়া হলেও কেউ সাড়া দেয়নি। প্রবেশপথে লতিয়ে ওঠা আগাছা চোখে পড়ার মতো। ফটকের সামনে জমে আছে পানি। অফিসটি ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর থেকে তালাবদ্ধ। এরপর আর এখানে দলের কার্যক্রম পরিচালিত হয়নি। 

মগবাজারে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়

৯ তলা ভবনটির অষ্টম ও নবম তলায় থাকে নিরাপত্তাকর্মীরা। অন্য ফ্লোরগুলো ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেন পাশের ভবনের একজন।

জামায়াতের ঢাকা মহানগর কার্যালয়ের সামনে একটি নির্মাণাধীন ভবন রয়েছে। সেখানে কর্মরত একজন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ১০ বছর আগে জামায়াতের অফিস বন্ধের শুরুর দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এসে তল্লাশি করতো। তবে গত কয়েক বছরে আর এমন দৃশ্য চোখে পড়েনি তার।

জামায়াতে ইসলামীর বন্ধ মহানগর কার্যালয়, প্রবেশপথে লতাপাতা

গত ১৬ অক্টোবর জামায়াতের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের একজন নেতা মোবাইল ফোনে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দলীয় কার্যালয় বন্ধ থাকায় বিভিন্ন পদ্ধতিতে কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। কিছু অফিস দায়িত্বশীল নেতাদের বাসাকেন্দ্রিক। এছাড়া বাইরে রেস্তোরাঁয় দলীয় বৈঠক হয়ে থাকে। তবে করোনা অতিমারি শুরুর পর থেকে অনলাইন মাধ্যমেই আমাদের কাজ বেশি হয়।’

দলের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের বক্তব্য, ‘নানান কারণে জামায়াতের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর অফিস তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে। এখন অফিসে বসা যাচ্ছে না। যাওয়াও যাচ্ছে না।’

সরকারবিরোধী কর্মসূচির অংশ হিসেবে নাশকতা করায় ২০১১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর জামায়াতের দুটি কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সেই থেকে মগবাজার ওয়্যারলেস এলাকায় কেন্দ্রীয় ও পুরানা পল্টনের মহানগর কার্যালয় বন্ধ রয়েছে।

এদিকে ২০ দলীয় জোটে বিতর্কিত দল জামায়াতে ইসলামীর থাকা নিয়ে বিএনপিতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে। তাদের সঙ্গে জোটগত সম্পর্ক ছেড়ে আসতে ২০১৮ সালের আগস্টে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে পরামর্শ দেয় বিএনপির তৃণমূল। এর প্রায় দুই বছর পর মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী দলটির সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগের পক্ষে অভিমত দেন দলের স্থায়ী কমিটির অধিকাংশ সদস্য।

আরও পড়ুন-

নেতা কানাডায়, রাজনৈতিক কার্যালয়ে বেসরকারি শিক্ষক সমিতির অফিস

নেতা যেখানে, অফিস সেখানে

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

২০ দলীয় জোট: এক ভবনেই তিন শরিক দলের অফিস

‘একদল-একনেতা’ ও ‘অনিবন্ধিত’দের ২০ দলীয় জোট, অনেকের অফিসও নেই

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি চরমোনাই পীরের

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি চরমোনাই পীরের

রাজনৈতিক ঐক্যে জামায়াত অন্তরায় হলে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান এলডিপির

রাজনৈতিক ঐক্যে জামায়াত অন্তরায় হলে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান এলডিপির

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

জনগণকে প্রতিমুহূর্তে বিভ্রান্ত-বিভাজনের চেষ্টা করছে সরকার: ফখরুল 

ইকবালকে ‘ভবঘুরে’ বলে লঘু করে দেখার অবকাশ নেই: মেনন

ইকবালকে ‘ভবঘুরে’ বলে লঘু করে দেখার অবকাশ নেই: মেনন

ইকবাল এতদিন কোথায় ছিল, প্রশ্ন মির্জা ফখরুলের

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫০

‘কুমিল্লার পূজামণ্ডপের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া যুবক ইকবাল হোসেন এতদিন কোথায় ছিল’—এমন প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘এটা তো পরিষ্কার, পত্রপত্রিকাগুলো সব দেখেন, দেখলেই বুঝতে পারবেন। সবাই এটা মেনে নেয় যে সরকারের মদত ছাড়া কখনও সাম্প্রদায়িক সমস্যা সৃষ্টি হয় না। যারা সরকারে থাকে তারাই করে।’

শারদীয়া দুর্গাপূজার সময়ে বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপে হামলার কয়েকটি ঘটনা প্রসঙ্গে শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে ২০ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টি তার ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে যে পত্রপত্রিকায় লেখা হচ্ছে, এই যে ইকবালের কথা কিছুক্ষণ আগে একজন বললেন, ইকবাল বলা যেতে পারে একজন অপ্রকৃতিস্থ ব্যক্তি এবং মাদকসেবী। সে এতদিন কোথায় ছিল? এই বিশ্বাসটা কে করবে? কারা তাকে সেখানে নিলো?’

সারাদেশে পূজামণ্ডপে হামলার প্রসঙ্গ টেনে সরকারকে উদ্দেশ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘কেন আপনারা (সরকার) ঘণ্টার পর ঘণ্টা চলে গেলো, সেখানে কোনও পুলিশ পাঠালেন না, পুলিশ গেলো না বা পুলিশ থেকেও কোনও ব্যবস্থা নিলো না। কেন এটা হলো?’

তিনি উল্লেখ করেন, ‘রংপুরের ঘটনায় দেখলাম আমরা একদিকে ওসি, চেয়ারম্যান সবাই মিলে আলোচনা করছে, একটা আপস করার চেষ্টা করছে। অন্যদিকে বাইরে থেকে এসে লোকজন মালোপাড়া জ্বালিয়ে দিচ্ছে। এটা দুর্ভাগ্যজনক। তাহলে কি আমরা বলবো যে তাদের ছত্রছায়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।’

ফখরুল বলেন, ‘কুমিল্লার ঘটনার পর ওবায়দুল কাদের সাহেব কী করলেন? যখন ঘটনাগুলো ঘটলো প্রথমে ওবায়দুল কাদের সাহেব বললেন, এটা বিএনপি-জামায়াতের লোকেরা করেছে। কথায় কথায় উনি একটাই কথা বলবেন, যত দোষ নন্দ ঘোষ।’

‘আপনাদের চরম ব্যর্থতা যে আজকে এই সমাজে কোনও মানুষের নিরাপত্তা দিতে পারেন না। হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ, তারা যে ধর্ম বিশ্বাস করেন, তারা তাদের ধর্ম পালন করবেন; মুসলিম ধর্মের মানুষ তাদের ধর্ম পালন করবেন; বৌদ্ধরা তাদের ধর্ম পালন করবেন; খ্রিষ্টানরা তাদের ধর্ম পালন করবেন—এটাই তো বাংলাদেশ। আপনারা (সরকার) কী করছেন? অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশে একটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছেন, যা হাজার বছর ধরে চলে আসছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে শুধু মানুষের দৃষ্টিটা, মানুষের মনোযোগকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য সরকার এই বিষয়টাকে সামনে নিয়ে এসেছে।’

 

 

/জেডএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি চরমোনাই পীরের

হিন্দুদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর ও মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি চরমোনাই পীরের

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

নিত্যপণ্যের দাম কমাতে ব্যর্থ সরকার: মির্জা ফখরুল 

নিত্যপণ্যের দাম কমাতে ব্যর্থ সরকার: মির্জা ফখরুল 

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

মনে হচ্ছে ইকবালের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ. লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক: ওবায়দুল কাদের

আ. লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভা বৃহস্পতিবার

আ. লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভা বৃহস্পতিবার

বিএনপি নেতারা মিথ্যাচারকে শিল্পে রূপ দিয়েছে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি নেতারা মিথ্যাচারকে শিল্পে রূপ দিয়েছে: ওবায়দুল কাদের

‘শেখ হাসিনা সরকারের ওপর আল্লাহর রহমত আছে’

‘শেখ হাসিনা সরকারের ওপর আল্লাহর রহমত আছে’

দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা খুবই অস্বস্তিকর: ১৪ দল

দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা খুবই অস্বস্তিকর: ১৪ দল

সম্প্রীতি বিনষ্টের উসকানি ভারতের মুসলমানদেরও বিপদে ফেলেছে: ওবায়দুল কাদের

সম্প্রীতি বিনষ্টের উসকানি ভারতের মুসলমানদেরও বিপদে ফেলেছে: ওবায়দুল কাদের

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মিছিল

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মিছিল

সর্বশেষ

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

হল খোলার দাবিতে বুয়েট শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি

হল খোলার দাবিতে বুয়েট শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি

© 2021 Bangla Tribune