X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

শহীদ মিনারে নেওয়া হবে অভিনেতা ইনামুল হককে

আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৩

সর্বস্তরের শ্রদ্ধাজ্ঞাপনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হবে একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনেতা-নাট্যকার ড. ইনামুল হকের মরদেহ।

আগামীকাল (১২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় সেখানে তাকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হবে। এরপর ইনামুল হককে নেওয়া হবে তার দীর্ঘদিনের কর্মস্থল বুয়েটে। সেটা বেলা ১২টায়। সেখানে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে বাদ জোহর তাকে সমাহিত করা হবে।

আজ (১১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় প্রয়াতর জামাই অভিনেতা সাজু খাদেম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‌‘আমরা বাবাকে শিল্পকলা নিয়ে যাচ্ছি। আজ রাতে বেইলী রোডের বাসাতেই মরদেহ রাখা হবে। আর আগামীকাল কয়েকটি আয়োজনের পর তাকে সমাহিত করা হবে।’

বর্ষীয়ান এ অভিনেতা সকালে নিজ বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। জানা যায়, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা গেছেন। 

ড. ইনামুল হকের জন্ম ১৯৪৩ সালের ২৯ মে ফেনী জেলার মটবী এলাকায়। তার বাবা ওবায়দুল হক ও মা রাজিয়া খাতুন। ফেনী পাইলট হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ঢাকার নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি এবং পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ থেকে অনার্স ও এমএসসি সম্পন্ন করেন। মানচেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি পিএইচডি লাভ করেন ইনামুল হক। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি দীর্ঘ ৪৩ বছর শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। নটরডেম কলেজে পড়াশোনাকালীন সময়েই তিনি প্রথম মঞ্চে অভিনয় করেন। ফাদার গাঙ্গুলীর নির্দেশনায় তিনি ‘ভাড়াটে চাই’ নাটকে প্রথম অভিনয় করেন।

১৯৬৮ সালে বুয়েট ক্যাম্পাসেই ‘নাগরিক নাট্যসম্প্রদায়’র যাত্রা শুরু হয়। এই দলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন তিনি। এই দলের হয়ে প্রথম মঞ্চে অভিনয় করেন। নাটকটি ছিল আতাউর রহমানের নির্দেশনায় ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রো’। এরপর দলটির হয়ে ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’, ‘নূরুল দীনের সারা জীবন’সহ আরও বহু নাটকে অভিনয় করেন। ১৯৯৫ সালের তিনি এই দল থেকে বের হয়ে প্রতিষ্ঠা করেন ‘নাগরিক নাট্যাঙ্গন’। নিজ দলের জন্য প্রথম লেখা নাটকের নাম ‘গৃহবাসী’। ১৯৮৩ সালে লেখা হয় নাটকটি। ঢাকার মঞ্চে বেশ আলোচিত নাটক এটি।

এ পর্যন্ত টেলিভিশনের জন্য ৬০টি নাটক লিখেছেন তিনি। তার লেখা আলোচিত টিভি নাটকের মধ্যে রয়েছে ‘সেইসব দিনগুলি’ (মুক্তিযুদ্ধের নাটক), ‘নির্জন সৈকতে’ ও ‘কে বা আপন কে বা পর’।

গুণী এই অভিনেতার পুরো পরিবার নাটকে সম্পৃক্ত। তার স্ত্রী লাকী ইনামও কিংবদন্তি অভিনেত্রী। মেয়ে হৃদি হক নির্দেশক এবং অভিনেত্রী। তার জামাই অভিনেতা লিটু আনাম। ড. ইনামুলের অপর মেয়ে পৈত্রি হকের স্বামী সাজু খাদেম।

/এম/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪১

নোনা জলের কাব্য এক বছর ধরে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে আলোচনায় ছিল বাংলাদেশের ছবি ‘নোনা জলের কাব্য’। অবশেষে ঘোষণা এলো দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির বিষয়ে। সঙ্গে এলো আন্তর্জাতিক চমকও!

রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত পরিচালিত ছবিটি দেশে মুক্তি পাচ্ছে ২৬ নভেম্বর। তারও আগে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগো শহরে অনুষ্ঠিতব্য জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনে ছবিটি প্রদর্শিত হবে ২৯ অক্টোবর ও ৮ নভেম্বর। এই সম্মেলনে পৃথিবীর প্রায় সকল দেশের রাষ্ট্র প্রধানরা অংশগ্রহণ করবেন। যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও।   

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। 

বাংলাদেশে এ ছবির পরিবেশক স্টার সিনেপ্লেক্স। ছবিটিতে মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, তিতাস জিয়া, তাসনোভা তামান্না প্রমুখ। আবহ সংগীত পরিচালনা করেছেন অর্ণব। শনিবারের আয়োজনে তারাও উপস্থিত ছিলেন।

দেশের সমুদ্র উপকূলবর্তী প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রান্তিক জেলেদের দৈনন্দিন জীবনযাপন, আবহাওয়ার প্রতিকূলতার মুখে টিকে থাকার লড়াই এবং তাদের সামাজিক রীতিনীতি ও সংস্কার এই চলচ্চিত্রের মূল বিষয়। সমাজ, সংস্কৃতির উন্নয়ন এবং পরিবেশের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন রোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে চলচ্চিত্র তথা বিনোদন অত্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারে– এই বিশ্বাস নিয়েই পরিচালক রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত নির্মাণ করেছেন ‘নোনা জলের কাব্য’। 

তিনি বলেন, ‘ছবিটি নির্মাণ করতে আজ থেকে তিন বছর আগে আমি গিয়েছিলাম পটুয়াখালীর প্রত্যন্ত এক জেলেপাড়ায়। খুবই দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, উপকূলবর্তী সেই গ্রামটির এখন আর কোনও অস্তিত্ব নেই। মহামারির কারণে প্রায় দেড় বছর আমার সেখানে যাওয়া হয়ে ওঠেনি, কিন্তু এবার যখন পরিচিত সেই জায়গার খোঁজে, প্রিয় সেই মানুষগুলোর খোঁজে গেলাম, গিয়ে দেখি সেখানে কেবলমাত্র কিছু গাছপালা ভেঙে পড়ে রয়েছে। জানতে পারলাম, এই অঞ্চলে গত ২-৩ বছর ধরে সমুদ্রের পানির উচ্চতা খুব দ্রুত গতিতে বাড়ছে।’

নির্মাতা আরও বলেন, ‘ছবিতে যে সকল জেলে ভাই-বোনেরা অভিনয় করেছিলেন, তাদের কারও কারও সাথে আমার এবার দেখা হয়েছে। তাদের মুখে শুনেছি, ইলিশ মাছও নাকি এখন অপ্রতুল। শুনে বুঝলাম তাদের জীবনের এই কঠিন বাস্তবতা আমার সিনেমার গল্পকেও হার মানিয়েছে। সংগ্রামী এই মানুষগুলোর গল্প বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরা খুব জরুরি, সেই সূত্রেই জাতিসংঘের জলবায়ু কনফারেন্সে আবেদন করা। আয়োজকদের আমি বিশেষ ধন্যবাদ দিতে চাই, কারণ তারা আমার ছবিকে এবং ছবিটির মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনকে তুলে ধরার সুযোগ করে দিয়েছেন।’

শনিবারের সংবাদ সম্মেলনে সিনেমা সংশ্লিষ্টরা এর আগে লন্ডন, বুসান, গুটেনবার্গ, সাও পাওলো, তুরিন, সিয়াটল, সিঙ্গাপুরসহ বেশ কিছু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দর্শক ও সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে ‘নোনাজলের কাব্য’।

ছবির প্রধান অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু বলেন, ‘‘একটি চমৎকার আবহে, আমরা ‘নোনা জলের কাব্য’তে কাজ করেছি। আমি বিশ্বাস করি, সততা এবং নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করলে, একটা সিনেমা মানসম্মত হয়। আমি সিনেমায় চেয়ারম্যানের ভূমিকায় অভিনয় করেছি। আমি আপামর সিনেমাপ্রেমীদের অনুরোধ করবো, আপনারা সিনেমাহলে আসবেন এবং বড়পর্দায় দেখবেন আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় তৈরি করা সিনেমাটি।”
 
‘নোনা জলের কাব্য’ প্রযোজনা করেছেন রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত ও ফরাসি প্রযোজক ঈলান জিরার্দ। জিরার্দ, ‘মার্চ অব দ্য পেঙ্গুইন‘, ‘গুডবাই বাফানা‘, ‘ফাইনাল পোর্ট্রেট’-এর মতো বিখ্যাত কিছু চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেছেন। সিনেমাটোগ্রাফি করেছেন লস অ্যাঞ্জেলসে বসবাসরত থাই শিল্পী চানানুন চতরুংগ্রোজ, তিনি ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের স্পিরিট অ্যাওয়ার্ড-এর মনোনয়ন পেয়েছিলেন। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে ছবিটির নির্মাণ সহযোগী প্রতিষ্ঠান অমিতাভ রেজার হাফ স্টপ ডাউন। সম্পাদনা করেছেন আমেরিকার ক্রিস্টেন স্প্রাগ, রোমানিয়ার লুইজা পারভ্যু ও ভারতের শঙ্খ। শব্দ ও রঙ সম্পাদনার কাজটি হয়েছিল প্যারিসের দুটি বিখ্যাত স্টুডিওতে। 

২০১৬ সালে চিত্রনাট্যের জন্য ‘নোনা জলের কাব্য’ পেয়েছিল ‘স্পাইক লি রাইটিং গ্রান্ট’।  একই বছর ভারতের ফিল্ম বাজারের কে-প্রোডাকশন মার্কেটে নির্বাচিত হয়েছিল সিনেমাটির চিত্রনাট্য। ২০১৭ সালে ছবিটি বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র অনুদান পেয়েছিল ৫০ লাখ টাকা। ২০১৮ সালে ৮০ লাখ টাকা অনুদান পেয়েছিল ফরাসি সরকারের সিএনসির ‘সিনেমা দ্যু মন্ড’ ফান্ড থেকে। ২০২০ সালে ছবিটি টরিনো ফিল্ম ল্যাব অডিয়েন্স (টিএফএল) ডিজাইন ফান্ড জিতেছে। এর ফান্ডের আওতায় পেয়েছে ৪৫ হাজার ইউরো, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৪৫ লাখ টাকার সমান। এ অর্থের মাধ্যমে চলচ্চিত্রটিকে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের সিনেমা হলে পৌঁছে দেয়ার কাজ করছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। নোনা জলের কাব্য

/এমএম/

সম্পর্কিত

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫৬

ঢাকাই সিনেমার একসময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানীর অভিষেক হয়েছিল ১৯৯২ সালে। নুর হোসেন বলাইয়ের ‘এই নিয়ে সংসার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পর্দায় তাকে প্রথম পাওয়া যায়। 

এরপর নায়ক থেকে খল, এমনকি পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবেও কাজ করে চলেছেন এই তারকা। বড় পর্দার পাশাপাশি নাটক-বিজ্ঞাপনেও দেখা গেছে তাকে। তবে কখনও মিউজিক ভিডিওর জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়াননি। এবার সেটাই করলেন। 

সানীর বাসাতেই শুরু হয়েছে এর কাজ। বিষয়টি নিয়ে বেশ রহস্য করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট দিয়েছেন এই অভিনেতা। এক নারীর সঙ্গে দুটি ছবি প্রকাশ করেছেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে না ওই নারীর মুখ। শুধু লিখেছেন, ‘তোমাকে সামনে আনবো, অপেক্ষা করো।’ 

ছবি দুটি প্রকাশের এক ঘণ্টার মাথায় মন্তব্যের ঘরে জমা পড়েছে প্রায় ২৮০টি মন্তব্য। ইতিবাচক আলোচনার পাশাপাশি নেতিবাচক কথাও সেখানে আছে। তবে সানী জানালেন, কাজের সূত্রেই এই ছবিগুলো। 

যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘এটি আসলে মিউজিক ভিডিওর শুটিং দৃশ্য। অভিনয় ক্যারিয়ারে এবারই প্রথম এতে কাজ করলাম। তবে আপাতত বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না। পুরোপুরি জানতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।’

পাশের নারী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার পাশে যিনি দাঁড়িয়ে আছেন, তিনি আমার ভক্ত। এই গানের মাধ্যমে আমরা তাকে সামনে আনতে যাচ্ছি। শুটিং হয়েছে আমার উত্তরার বাসায়।’

এদিকে সম্প্রতি সানীর স্ত্রী চিত্রনায়িকা মৌসুমী মেয়ে ফাইজাকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র গেছেন। ভিসা জটিলতায় সানী যেতে পারেননি। ফাঁকা সময়টাতে তাই নতুন কাজে মনোযোগ দিয়েছেন এই তারকা।

/এম/এমএম/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৫

‘মরীচিকা’ ওয়েব সিরিজ দিয়ে দারুণ সফল শিহাব শাহীন-আফরান নিশো জুটি। নির্মাতা শিহাব অবশ্য তারও আগে ওয়েবে জাত চিনিয়েছেন ‘আগস্ট ১৪’ বানিয়ে। সে ক্ষেত্রে ‘মরীচিকা’ দিয়ে আফরান নিশোর ওটিটি সিরিজে অভিষেক ভালোই জমকালো হলো।

সেই রসদ নিয়ে দু’জনে এক হলেন আবারও, পরিকল্পনা করছেন নতুন ‘সিন্ডিকেট’ তৈরির। বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করলেন শিহাব শাহীন।  

বললেন, ‘ক্রাইম থ্রিলার ঘরানার হবে নতুন সিরিজটি। নিশো থাকছে এবারও। সঙ্গে তাসনিয়া ফারিণ। আরও কিছু চমক রয়েছে, চূড়ান্ত করেই জানাবো।’

তাসনিয়া ফারিণ নাম থেকে আগাম স্পষ্ট, শিহাব শাহীন এবার ওয়েবে তুলে আনবেন সিন্ডিকেট বাণিজ্য বা দুর্নীতির বিষয়টি। হতে পারে কোনও সত্য ঘটনার ছায়া ধরেই আগাবেন তিনি। যদিও এসব বিষয়ে এখনই বেশি কিছু বলতে চাইছেন না ওটিটিতে শক্ত ভিত গড়ে তোলা এই নির্মাতা।

এই সিরিজ নিয়ে বরাবরের মতো এবারও মুখফুটে কিছু বলছেন না আফরান নিশো।

তবে কথা বলেছেন তার নায়িকা, তথা ‘লেডিস এন্ড জেন্টলম্যান’-খ্যাত তাসনিয়া ফারিণ। বললেন, ‘ওটিটি প্ল্যাটফর্মে এ পর্যন্ত যে কয়টি কাজ করেছি, ভালো সাড়া পেয়েছি। টিভিতেও, প্রস্তাব পেলেই সব কাজ করি না। ওটিটিতে এসে সেটি আরও মানার চেষ্টা করছি। খুব সিলেক্টিভ কাজগুলোই করছি। নতুন সিরিজটি সেই বিশেষ তালিকারই অংশ বলে মনে হয়েছে।’

শিহাব শাহীন জানান, ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ডিসেম্বর থেকে শুটিং শুরু করবেন ‘সিন্ডিকেট’র। কারণ, এই সিরিজে কুয়াশাও নাকি নির্মাতার চোখে দরকারি চরিত্র!

/এমএম/

সম্পর্কিত

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

টাইগারদের নিয়ে নতুন গান ‘লড়বে এবার বাংলাদেশ’

টাইগারদের নিয়ে নতুন গান ‘লড়বে এবার বাংলাদেশ’

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩২

বাংলাদেশের জন্ম ও ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে দীর্ঘ ও সমৃদ্ধ রকসংগীতের ইতিহাস। মূলত ৬০-এর দশকে বাংলায় রকসংগীতে নতুন বিপ্লবের সূচনা ঘটে। ৭০ ও ৮০’র দশকে যা অগণিত ব্যান্ডের মাধ্যমে গানে গানে ছড়িয়ে পড়ে গোটা দেশ। মূলত ৮০’র দশকের মাঝামাঝিতে এসে রকের সঙ্গে যুক্ত হয় বাংলাদেশি হেভি মেটাল। যেটি নানা ধারায় বিস্তৃত হয়ে আজও জাগিয়ে রেখেছে বাংলার রক মিউজিক। 

মূলত বাংলার এই রক বিপ্লবের দীর্ঘ ইতিহাস এবং ব্যান্ডগুলোর জন্ম-সৃষ্টি ও বর্তমান অবস্থার পুরোটা উঠে আসছে এক মলাটে! যেটা এতকাল সংগীতপ্রেমি কিংবা পাঠকদের কাছে ছিলো অবিশ্বাস্য। সেটাকেই এবার বিশ্বাসের তালিকায় তুলে আনছেন মিলু আমান ও হক ফারুক। দুজনেই পরিচিত লেখক, তবে রক ঘরানায় তাদের চলাচল দীর্ঘ দিনের। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই তথ্যনির্ভর ভিন্ন ধারার এই সংকলন করছেন তারা। নাম দিয়েছেন ‘বাংলার রক মেটাল’। যা প্রকাশ হচ্ছে ২০২২ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায়।  
  
বইটির অন্যতম লেখক-সাংবাদিক হক ফারুক জানান, এই বইয়ে ৬০ দশক থেকে শুরু করে ২০২১ সাল পর্যন্ত বাংলা রক ও মেটাল মিউজিকের পূর্ণ ইতিহাস তুলে ধরা হবে। থাকবে শতাধিক রক ও হেভি মেটাল ঘরানার ব্যান্ডের জন্মকথা, পথচলার ইতিবৃত্ত ও ডিসকোগ্রাফি।

বইটির অন্য লেখক মিলু আমান বলেন, ‘আমরা উইকিপিডিয়া, বাংলাপিডিয়া বা ইন্টারনেট থেকে কোনও তথ্য নিয়ে এই বইটি সাজাতে চাই না। বরং সরাসরি ব্যান্ড সংশ্লিষ্ট মিউজিশিয়ান বা সদস্যদের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে কাজটি করছি। বইতে আমরা চেষ্টা করছি শতাধিক ব্যান্ডের সর্বশেষ তথ্যটি তুলে ধরতে। রক ও মেটাল ধারার সব ব্যান্ডের তথ্যই থাকবে। বাদ  যাবে না ৯০ বা ২০০০ পরবর্তী সময়ের আন্ডারগ্রাউন্ড ব্যান্ডগুলোও।’

হক ফারুক বলেন, ‘‘আমাদের গবেষণায় পেয়েছি পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম ব্যান্ড হলো ‘আইওলাইটস’। সেটি থেকে শুরু করে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম ব্যান্ড ‘আন্ডারগ্রাউন্ড পিস লাভারস’ বা তার পরবর্তীতে ‘সোলস’, ‘মাইলস’, ‘এলআরবি’ থেকে আজকের ‘ট্রেইনরেক’ বা ‘গ্রাউন্ড ফোর্স’- সবার তথ্য নিয়ে সাজানো হচ্ছে গ্রন্থটির ইতিহাস পর্ব। যেখানে ইতিহাসের পাশাপাশি ব্যান্ডগুলোর সকল অ্যালবাম ও জনপ্রিয় গানের কথাও থাকবে।’’
 
মিলু-ফারুক লেখকদ্বয় জানান, দেশের প্রথম হেভি মেটাল ব্যান্ড ‘ওয়েভস’ থেকে শুরু করে ‘ওয়ারফেজ’, ‘রকস্ট্রাটা’, ‘ইন ঢাকা’, ‘এসেস’; তারও পরে ‘ক্রিপটিক ফেইট’, ‘আর্টসেল’, ‘ব্ল্যাক’, ‘মেটাল মেইজ’ হয়ে ‘নেমেসিস’, ‘এভোয়েড রাফা’- সবার আলাদা আলাদা ইতিহাস, ডিসকোগ্রাফি তুলে ধরা হবে এই গ্রন্থে। ‘সুইট ভেনম’, ‘লেজেন্ড’, ‘পেপার রাইম’ বা ‘স্বাধীনতা’র মতো ব্যান্ড- যাদের কোনও তথ্যই সে অর্থে পাওয়া যায় না, তাদের পূর্ণাঙ্গ ইতিহাসও থাকবে এতে।

এরমধ্যে বইয়ের পাণ্ডুলিপি ও প্রচ্ছদ শেষ। প্রচ্ছদ এঁকেছেন মোস্তাফিজ কারিগর। প্রকাশনা সংস্থার বিষয়টিতে থাকছে চমক, তাই সেটির ঘোষণা এখনই দিতে চাইছেন না লেখকদ্বয়।

/এমএম/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৫৪

মা দেশের অন্যতম লোকসংগীতশিল্পী দিলরুবা খান। লম্বা সময় ধরে একই পথে হাঁটছেন মেয়ে শিমূল খানও। মায়ের গান তো বটেই, লোকগান কণ্ঠে নিয়ে যোগ্য উত্তরসূরির ছাপ রেখে চলেছেন ঢাকা টু নিউইয়র্কের পথে। কারণ, তিনি এখন অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রে।

নিউইয়র্ক থেকে শিমূল খান বাংলা ট্রিবিউনকে জানালেন মজার একটি তথ্য। বললেন, ‘আমি মায়ের সঙ্গে অসংখ্য গান করেছি মঞ্চে ও রেকর্ডিংয়ে। তবে এবারই প্রথম দু’জনে একটি মিউজিক ভিডিও করলাম।’

‘গোলাপী’ নামের এই ভিডিওটি সম্প্রতি ঢাকঢোল বাজিয়ে উন্মুক্ত হলো দিলরুবা খান নামের ইউটিউব চ্যানেল। পুরো ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন লোকেশনে। ট্র্যাডিশনাল এই গানটির নতুন সংগীতায়োজন করেছেন এমএমপি রনি। ভিডিও নির্মাণ করেছেন সরদার ইকবাল। তান্না খানের কোরিওগ্রাফিতে এতে গানের তালে নেচেছেন সামিয়া, নারমিন, রুদবা ও মাহিমা। তাদের সঙ্গে ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন মা-মেয়ে (দিলরুবা খান ও শিমূল খান) দু’জনেই।    

শিমূল খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মায়ের সঙ্গে এটা আমার প্রথম মিউজিক ভিডিও। তাই এ কাজটি নিয়ে আমার ভেতরে আনন্দ একটু বেশিই। গানটি প্রকাশ উপলক্ষে ১৮ অক্টোবর নিউইয়র্কের জুইস সেন্টারে মোড়ক উন্মোচনের অনুষ্ঠান করি আমরা। সেখানে আমাদের শুভেচ্ছা জানাতে ছুটে আসেন অনেক বন্ধু-স্বজন-শিল্পী। আমি তাদের সবার প্রতি জানাই কৃতজ্ঞতা।’ 

জানা গেছে, ‘গোলাপী’ মুক্তির অনুষ্ঠানে এদিন হাজির হন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ঢাকাই তারকা অভিনেত্রী বন্যা মির্জা, কণ্ঠশিল্পী রিজিয়া পারভিন, প্রমিথিউস ব্যান্ডের বিপ্লব, নায়িকা শাহনূর প্রমুখ। এতে অংশ নিয়ে কাটা হয় কেক, প্রকাশ করেন অনুভূতি আর পরিবেশন করেন গান ও নাচ। 

/এমএম/

সম্পর্কিত

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

টাইগারদের নিয়ে নতুন গান ‘লড়বে এবার বাংলাদেশ’

টাইগারদের নিয়ে নতুন গান ‘লড়বে এবার বাংলাদেশ’

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

ফারহান ও ফারিণ দম্পতির গল্প...

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

এক মলাটেই থাকছে দেশীয় ব্যান্ডের ৬ দশক!

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

মায়ের সঙ্গে মেয়ের প্রথম মিউজিক ভিডিও

সিমলার সাবেক স্বামীর বিমান ছিনতাই নিয়ে সিনেমা, নায়িকা ববি

সিমলার সাবেক স্বামীর বিমান ছিনতাই নিয়ে সিনেমা, নায়িকা ববি

সেটের পেছনেই এত টাকা!

সেটের পেছনেই এত টাকা!

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

নায়ক তাহসান, প্রযোজক সুস্মিতা (ভিডিও)

১৪ বছর পর প্রথম বিজ্ঞাপন!

১৪ বছর পর প্রথম বিজ্ঞাপন!

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে ‌‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে ‌‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’

সর্বশেষ

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

হলিডে প্যাকেজ ঘোষণা১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

‘কুমিল্লার ঘটনা কীভাবে ঘটেছে ফখরুলকে জিজ্ঞাসা করলেই জানা যাবে’

‘কুমিল্লার ঘটনা কীভাবে ঘটেছে ফখরুলকে জিজ্ঞাসা করলেই জানা যাবে’

উন্নয়নের পথে বাধা সৃষ্টি করলে মোকাবিলা করবো: পরিকল্পনামন্ত্রী

উন্নয়নের পথে বাধা সৃষ্টি করলে মোকাবিলা করবো: পরিকল্পনামন্ত্রী

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

দেশের মানুষ কখনোই সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয়নি: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

দেশের মানুষ কখনোই সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয়নি: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune