X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পাসপোর্ট করতে পারছেন না ট্রান্সজেন্ডাররা

আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫১

‘আমি ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠী নিয়ে কাজ করি, যে কারণে জেন্ডার সচেতনতায় কাজ করা আন্তর্জাতিক এনজিও থেকে বিভিন্ন কর্মশালায় অংশ নেওয়ার আমন্ত্রণ পাই। কিন্তু পাসপোর্ট না থাকায় কর্মশালায় অংশ নিতে পারি না।’ কথাগুলো বলেছেন ‘পথচলা ফাউন্ডেশন’র সিইও মনিষা মিম নিপুন।

পাসপোর্ট করতে বাধা কোথায় জানতে চাইলে নিপুন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রথমত আমরা নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। কারণ আমাদের অনেকের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। যে কারণে চাইলেও জাতীয় পরিচয়পত্র সংশ্লিষ্ট সেবা নিতে পারি না।’

মনিষা মিম নিপুন বলেন, ‘আমার জাতীয় পরিচয়পত্র আছে। সমস্যাটা হলো জাতীয় পরিচয়পত্রের সঙ্গে আমার নামের মিল নেই। আমার নাম মানিশা মিম নিপুন, আন্তর্জাতিক সংস্থা থেকে শুরু করে সবাই আমাকে এই নামেই চেনে। কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে আমার নাম মো. জাহিদুল ইসলাম আল আজাদ। আমি চাই মানিশা মিম নিপুন নামেই পাসপোর্ট হোক। সেক্ষেত্রে আমাকে অনেক ঝামেলায় পড়তে হয়। ২০২২ সালে শুরুর দিকে নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত একটি কর্মশালায় অংশ নেওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছি। কিন্তু কীভাবে পাসপোর্ট করবো, তা নিয়ে চিন্তায় আছি।’

নিপুনের মতো পাসপোর্ট করতে পারছেন না সুপ্তা আহসান। জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। তাই পাসপোর্টের আবেদন করতে পারছেন না সুপ্তা।

সুপ্তা আহসান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা কিন্তু বাসায় থাকতে পারি না। আমাদের ছোটবেলায় বাসা থেকে বের করে দেওয়া হয় অথবা বাসা থেকে চলে আসতে বাধ্য হই। আমি ছোটবেলায় বাসা থেকে বের হয়েছি। মা আমাকে বলেছিল, তুমি বাসা থেকে চলে যাও। বাসা থেকে বের হয়ে আসার সময় আমার কাছে জন্মসনদ ছিল না। মা-বাবার পরিচয় দিতে পারছি না। এ অবস্থায় জাতীয় পরিচয়পত্র কীভাবে করবো? কিন্তু এখন আমি বিদেশ যেতে চাই। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় পাসপোর্ট করতে পারছি না।’

করোনাকালীন টিকা কার্যক্রমের বাইরে রয়েছেন তারা

সুপ্তার মতো চট্টগ্রামের অধিকাংশ ট্রান্সজেন্ডারের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। যে কারণে পাসপোর্ট তৈরি থেকে শুরু করে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। যদিও ২০১৯ সালে স্বতন্ত্র পরিচয়ে ভোটাধিকার পান তারা। রাষ্ট্রীয়ভাবে স্বীকৃতি পেলেও এখন পর্যন্ত তারা সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী। কারণ তাদের অধিকাংশের জন্মনিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিচয় নেই। যে কারণে করোনাকালীন টিকা কার্যক্রমের বাইরে রয়েছেন। জন্মসনদ, বাবা-মায়ের নাম ব্যবহার করার জটিলতার কারণে এখনও তারা জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে পারছেন না।

পথচলা ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে চট্টগ্রামে প্রায় তিন হাজার ট্রান্সজেন্ডার আছেন। যাদের প্রায় ৯৫ শতাংশের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। 

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মনিষা মিম নিপুন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘চট্টগ্রামে জেন্ডার বৈচিত্র্য আছে এমন মানুষের সংখ্যা প্রায় ১০ হাজার। শুধু ট্রান্সজেন্ডার আছে প্রায় তিন হাজার। এর মধ্যে পথচলা ফাউন্ডেশন এক হাজার ১১২ জনকে সেবা দিচ্ছে। এর বাইরেও নগরীতে আরও অনেকে আছেন। চট্টগ্রামে ঠিক কতজন ট্রান্সজেন্ডার আছে এই তথ্য সমাজসেবা অধিদফতরের কাছেও নেই। যাদের তথ্য আমাদের কাছে আছে, তাদের ৯৫ শতাংশের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। যে কারণে তারা নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত।

জন্মসনদ, বাবা-মায়ের নাম ব্যবহার করার জটিলতার কারণে এখনও তারা জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে পারছেন না

বারবার ওয়ার্ড অফিসে গিয়েও জন্মসনদ নিতে পারেননি রিপন। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘গত মাসেও দুবার ওয়ার্ড অফিসে গেছি। সেখানে যাওয়ার পর তারা বলে বিদ্যুৎ বিলের কপি, মা-বাবার জাতীয় পরিচয়পত্র, না হয় জমির দলিল দিতে। তাহলে তারা জন্মসনদ আর কমিশনার সার্টিফিকেট দেবে। এগুলো না থাকলে কোনোভাবে দিতে পারবে না। জাতীয় পরিচয়পত্র নেওয়ার জন্য এখন আমি বিদ্যুৎ বিলের কপি, মা-বাবার জাতীয় পরিচয়পত্র এবং জমির দলিল কোথায় পাবো। তাই রাষ্ট্রীয়ভাবে আমাদের স্বীকৃতি দেওয়া হলেও সামাজিক বাস্তবতায় আমরা নাগরিক সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছি না।

চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, একজন সাধারণ নাগরিক যেসব কাগজপত্র দিয়ে ভোটার হন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষও একইভাবে ভোটার হবেন। একটি বিষয় তাদের ওপর ছেড়ে দেওয়া হয়। তারা যদি ছেলের রূপ নিতে চান, তাহলে আমরা পুরুষ বিবেচনা করি। মেয়ের রূপ নিতে চাইলে নারী বিবেচনা করি। তবে তাদের ভোটার হতে কোনও ঝামেলা নেই।

তিনি আরও বলেন, ভোটার হতে একজন ব্যক্তির জন্মসনদ, মা-বাবার পরিচয়পত্র, চেয়ারম্যান অথবা কমিশনারের সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়। তাদের ক্ষেত্রেও সেগুলো লাগবে। এগুলো ছাড়া তো আমরা কাউকে ভোটার করতে পারি না। তবে তাদের ক্ষেত্রে শর্ত শিথিলের সর্বোচ্চ চেষ্টা করি আমরা।

/এএম/

সম্পর্কিত

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

ভারতে পাচারকালে স্বর্ণের বারসহ আটক এক

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০১:১৩

দিনাজপুরের হিলি সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারকালে চার পিস স্বর্ণের বার এবং একটি মোটরসাইকেলসহ একজনকে আটক করেছে বিজিবি। আটককৃত ব্যক্তির নাম নজরুল ইসলাম (৪০)। মোটরসাইকেলের হেডলাইটের ভেতরে করে স্বর্ণের বারগুলো পাচার করতে চেয়েছিল সে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৯টায় হিলি সীমান্তের ২৮৬ নং মেইন পিলার এর ১৪ নং সাবপিলার সংলগ্ন রায়ভাগ এলাকা থেকে তাকে আটক করে বিজিবি। সে ওই গ্রামের মৃত আতাব উদ্দিনের ছেলে।

বিজিবি বাসুদেবপুর ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার নজরুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, গোপন সুত্রে জানতে পারি যে একটি মোটরসাইকেলযোগে স্বর্ণ নিয়ে একজন চোরাকারবারি ভারতের দিকে যাবে। সেই সংবাদের ভিত্তিতে ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের নির্দেশে ফোর্স নিয়ে সীমান্তের রায়ভাগ এলাকায় অবস্থান নেয় বিজিবি। এ সময় একটি মোটরসাইকেল বিপরীত দিক থেকে রায়ভাগ সীমান্তের কাঁচা রাস্তার দিকে আসলে সেটিকে থামার সংকেত দেওয়া হয়। কিন্তু দ্রুত পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে বিজিবি ধাওয়া দিয়ে নজরুল ইসলামকে আটক করে। তল্লাশি চালিয়ে তার মোটরসাইকেলের হেডলাইটের গ্লাসের ভেতর থেকে প্রায় ২৮ লাখ টাকার চার পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া তার কাছ থেকে চারটি সিমসহ দুইটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত মালামালের সর্বমোট সিজার মূল্য ৩০ লাখ ৩৯৮টাকা।

/এমপি/

সম্পর্কিত

‘ফেসবুক পোস্ট নিয়ে বাড়িঘরে আগুন মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন’

‘ফেসবুক পোস্ট নিয়ে বাড়িঘরে আগুন মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন’

কিশোরীর সঙ্গে বাল্যবিয়ে, বরের মামলায় চেয়ারম্যান-কাজি কারাগারে

কিশোরীর সঙ্গে বাল্যবিয়ে, বরের মামলায় চেয়ারম্যান-কাজি কারাগারে

শিক্ষিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

শিক্ষিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২৩:২৫

কুমিল্লা শহরের নানুয়াদিঘির উত্তর পাড়ে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা নিয়ে সর্বত্র চলছে আলোচনা-সমালোচনা। সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে ইকবাল হোসেন (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে ইতোমধ্যে শনাক্ত করেছে পুলিশ।

বুধবার দুটি সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশের পর বৃহস্পতিবার ১৬ মিনিট ৫২ সেকেন্ডের আরও একটি সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ করেছে পুলিশ। এই ফুটেজে পরিষ্কারভাবে দেখা যায়, ইকবাল কীভাবে মসজিদ থেকে কোরআন হাতে নিয়ে পূজামণ্ডপে গেছেন।

নতুন সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ইকবাল ১১ অক্টোবর দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টা ৪২ মিনিটে মাজার মসজিদে যান। এ সময় মসজিদে কেউ ছিল না। ১২ অক্টোবর রাত ১০টা ৩৪ মিনিটে নগরীর দারোগাবাড়ি মাজারের খাদেম ফয়সাল ও হুমায়ুন মসজিদে প্রবেশ করেন। তারা মাজার মসজিদের বারান্দায় বসেন। এ সময় ইকবালও মসজিদে প্রবেশ করেন। ইকবাল গিয়ে তাদের পাশে বসেন। তখন কিছুক্ষণ কথাবার্তা হয় তাদের। এরপর ইকবাল মসজিদ ত্যাগ করেন। ইকবাল মাজার মসজিদের উত্তর পাশে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করেন। পরে দুই খাদেম মসজিদ ত্যাগ করেন। কিছুক্ষণ পর ইকবাল মসজিদের দানবাক্সের ওপর থেকে পবিত্র কোরআন শরিফ সংগ্রহ করেন। এ সময় একটু দূরে এক ব্যক্তিকে মসজিদে নামাজ আদায় করতে দেখা যায়। আরেক ব্যক্তিকে ঘুমিয়ে থাকতে দেখা যায়। তখন ইকবাল মেঝেতে কোরআন রেখে আবার মসজিদ ত্যাগ করেন। ইকবালের পরনে সবুজ টি-শার্ট ও পরনে ট্রাউজার ছিল। পরে আবার মেঝেতে রাখা কোরআন শরিফ তুলে নিয়ে মসজিদ ত্যাগ করেন। মসজিদ থেকে কোরআন নিয়ে মণ্ডপের রাস্তার দিকে হাঁটতে থাকেন। 

বুধবার প্রকাশিত সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ইকবাল হোসেন ১২ অক্টোবর দিবাগত রাত ২টা ১০ মিনিটের সময় হাতে কোরআন নিয়ে মাজার মসজিদের উত্তর গেট দিয়ে বের হচ্ছেন। তখন কোরআন শরিফ ঢাকা ছিল না। গেটে কয়েক সেকেন্ড দাঁড়িয়ে ছিলেন। সেখান থেকে যখন কোরআন হাতে ২টা ১১ মিনিটে ইকবাল মসজিদের আঙিনা ত্যাগ করেন, তখন কোরআনে একটি সাদা কাপড় মোড়ানো দেখা গেছে। যদিও তা স্পষ্ট না। 

ভিডিওতে আরও দেখা যায়, মসজিদ থেকে বের হয়ে কোরআন নিয়ে ইকবাল সোজা বাঁ দিকের সড়ক ধরে হেঁটে চলে যান। কিন্তু ডান দিকের সড়ক দিয়ে দুই থেকে আড়াই মিনিট হেঁটে গেলেই পূজামণ্ডপ। মসজিদ থেকে নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপের দূরত্ব দুই থেকে আড়াইশো মিটার। ২টা ১১মিনিট থেকে ইকবাল কোরআন নিয়ে সড়কের বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করেছেন। এরপর পূজামণ্ডপে গিয়ে হনুমানের পায়ের ওপর থেকে গদাটি সরিয়ে নেন। সেই সঙ্গে কোরআন রেখে আসেন।

আরেকটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ওই দিন রাত ৩টা ১২ মিনিটে হনুমানের পায়ের ওপর রাখা গদা নিয়ে ইকবাল সড়কে ঘোরাঘুরি করছেন।

ইকবাল দীর্ঘ এক ঘণ্টা এক মিনিট কোথায় ছিলেন জানতে চাইলে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-সার্কেল) সোহান সরকার বলেন, মসজিদ থেকে কোরআন নিয়ে হাতে করে ইকবাল ডান দিকে না গিয়ে বাঁ দিকে যান। নগরীর রাজগঞ্জ হয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করে এরপর পূজামণ্ডপে যান। এক ঘণ্টা তিনি বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করেছেন। তবে এটি নিশ্চিত দারোগাবাড়ির মাজার মসজিদ থেকেই ইকবাল কোরআন নিয়ে গেছেন।  

গত ১৩ অক্টোবর ভোরে নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়া যায়। এরপরই দেশের কয়েক স্থানে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার জেরে ওই দিন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দুদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পাঁচ জন নিহত হয়।

পরদিন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা–ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানে হামলায় দুই জন নিহত হন। এরপর রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু বসতিতে হামলা করে ভাঙচুর, লুটপাট ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এরইমধ্যে শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

/এএম/

সম্পর্কিত

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২৩:২০

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। তিনি বলেছেন, ‘এখানে কোনও প্রতিহিংসার সুযোগ নেই। নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন। নির্বাচনি পরিবেশ সুন্দর ও সুস্থ রাখতে প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া আছে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আমরা প্রতিনিয়ত নির্বাচনি এলাকার নজর রাখছি।’

সিইসি আরও বলেন, ‘মাগুরা সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় আমরা বিব্রত। এটি একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে পরিবেশ এখন স্বাভাবিক।’

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাতে মানিকগঞ্জ সদর ও সিংগাইর উপজেলায় আসন্ন ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। জেলা সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সিইসি বলেন, ‘ইউপি নির্বাচনে রাজনৈতিকভাবে কোনও দল অংশগ্রহণ না করলে সেটা একান্তই রাজনৈতিক দলের বিষয়। আমরা আশা করব, সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ।’

সভায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, ঢাকা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার, জেলা নির্বাচন অফিসার হাবিবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৭

কুমিল্লায় মন্দিরে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনায় সন্দেহভাজন ইকবাল হোসেনকে আটক করেছে কক্সবাজার জেলা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারের পর রাতেই তাকে কুমিল্লা পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম।

গত ১৩ অক্টোবর ভোরে নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়া যায়। এরপরই দেশের কয়েক স্থানে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার জেরে ওই দিন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দুদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পাঁচ জন নিহত হয়।

পরদিন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা–ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানে হামলায় দুই জন নিহত হন। এরপর রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু বসতিতে হামলা করে ভাঙচুর, লুটপাট ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এরইমধ্যে শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে চিহ্নিত করে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠায় ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০০

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠার দায়ে টাঙ্গাইলের বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব রেল স্টেশনে ২১৫ যাত্রীকে জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা আদায় করেন রেলওয়ের ঈশ্বরদীর ট্রাফিক ইন্সপেক্টর অপু রায় চৌধুরী।

জানা গেছে, একতা এক্সপ্রেস, রংপুর এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস, সিল্কসিটি, জামালপুর এক্সপ্রেসসহ বিভিন্ন ট্রেনে বিনা টিকিটে ভ্রমণের দায়ে ২১৫ যাত্রীর কাছ থেকে ২২ হাজার ৪৭০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এ ছাড়াও ভাড়া বাবদ ২৬ হাজার ৪৬০ টাকা আদায় করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- রেলওয়ের টিটিই ইন্সপেক্টর আব্দুল আলিম বিশ্বাস মিঠু, বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব রেল স্টেশনে হেড বুকিং মাস্টার রেজাউল করিমসহ টিটিই ও অন্যান্য স্টাফ।

পাকশী রেলওয়ের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন বলেন, ‘অভিযান পরিচালনা করায় বিনা টিকিটে ভ্রমণ করা যাত্রীর সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

নির্বাচনে সব প্রার্থী সমান সুযোগ ভোগ করবেন: সিইসি

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

বাল্যবিয়ে হওয়া শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে কাজ করছি: শিক্ষামন্ত্রী

মোবাইলে পর্নো ভিডিও সরবরাহকারী ৪ জন গ্রেফতার

মোবাইলে পর্নো ভিডিও সরবরাহকারী ৪ জন গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

মাজার থেকে যেভাবে কোরআন নিয়ে পূজামণ্ডপে যান ইকবাল

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা সেই ইকবাল আটক

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর ফাঁসি

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর ফাঁসি

নোয়াখালীতে বিশৃঙ্খলায় গ্রেফতার ১৩০ 

নোয়াখালীতে বিশৃঙ্খলায় গ্রেফতার ১৩০ 

সর্বশেষ

ভারতে পাচারকালে স্বর্ণের বারসহ আটক এক

ভারতে পাচারকালে স্বর্ণের বারসহ আটক এক

মালয়েশিয়াকে ধন্যবাদ জানালো হামাস

মালয়েশিয়াকে ধন্যবাদ জানালো হামাস

ঢাকাতেও রোনালদোদের কাছে হারের বর্ণনা দিতে হলো গ্রান্টকে

ঢাকাতেও রোনালদোদের কাছে হারের বর্ণনা দিতে হলো গ্রান্টকে

জীবনানন্দ দাশ  একটি পথ দুর্ঘটনা বা পূর্বঘোষিত মৃত্যুর কালপঞ্জি

জীবনানন্দ দাশ একটি পথ দুর্ঘটনা বা পূর্বঘোষিত মৃত্যুর কালপঞ্জি

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

মনোনয়ন ফরমে অ্যানালগই রয়ে গেলো আওয়ামী লীগ

© 2021 Bangla Tribune