X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বেড়েছে এলপিজি গ্যাসের দাম, ১০ টাকার ভাড়া ১৫

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫২

বরিশালে বোতলজাত গ্যাসের দাম বেড়ে যাওয়ায় মধ্যবিত্ত থেকে শুরু করে নিম্নবিত্ত পরিবারগুলো পড়েছে বিপাকে। বিকল্প হিসেবে কাঠের চুলার পাশাপাশি ইলেকট্রিক চুলা ব্যবহার করছে তারা। গ্যাসের দাম বাড়ায় গ্যাসচালিত যানেও বেড়েছে ভাড়া। এ অবস্থায় গ্যাসে সরকারকে ভর্তুকি দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন নগরবাসী।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, বরিশালে ১২ কেজির টোটাল গ্যাস পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ১১৯০ টাকা, খুচরা বাজারে ১২৩০-১২৪০ টাকা। বসুন্ধরার এলপিজি পাইকারি ১২০০ টাকা, খুচরা বাজারে ১২২০ টাকা। ক্লিনহিট পাইকারি ১১৪০ টাকা এবং খুচরা বাজারে ১১৭০ টাকা। যমুনা পাইকারি ১১৭০ টাকা, খুচরা ১২০০ টাকা। উমেরা পাইকারি ১১৬০ টাকা, খুচরা ১১৮০ টাকা। পেট্রোম্যাক্স পাইকারি ১১৪০ টাকা, খুচরা বিক্রি হচ্ছে ১১৭০ টাকা।

নগরীর কাউনিয়ার বাসিন্দা হোটেল ব্যবসায়ী শোয়াইব সাকির বলেন, গ্যাসের দাম বাড়লেও আয় বাড়েনি। বরং আয় কমেছে। হোটেল থেকে প্রতিদিন ৫০০-৬০০ টাকা আয় হতো। গ্যাসের দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আয় কমেছে। খাবারের দাম বাড়ায় বেচাকেনা কমেছে। প্রতিদিন ৩০০-৪০০ টাকা আয় হয়। তা দিয়ে তিন সদস্যের পরিবারে তিনবেলা খাবার জোগাড় কষ্টকর। কাঠের ব্যবহার শুরু করতে বাধ্য হয়েছি। তবে কাঠের দামও কম নয়। মধ্য ও নিম্নবিত্ত পরিবারগুলো পড়েছে বিপাকে। এ জন্য সরকারকে গ্যাসে ভর্তুকি দেওয়ার দাবি জানাই। এতে গ্যাসের দাম বাড়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে সবাই।

চাকরিজীবী মিজানুর রহমান বলেন, শুধু গ্যাস কেন; নিত্যপ্রয়োজনীয় সব জিনিসের দাম বেড়েছে। আমি যা বেতন পাই তা দিয়ে পাঁচ সদস্যের পরিবার চালাতে হিমশিম খাই। প্রতি মাসে মুদি দোকানে বকেয়া বাড়ছে। সেখান থেকে তাগাদা দেওয়া হয়। আগামী চৈত্র মাসের মধ্যে সব টাকা না দিলে বাকি দেবে না। টাকা কীভাবে জোগাড় করবো তা ভেবে চিন্তিত। তার মধ্যে রয়েছে ছেলেমেয়ের টিউশনি ও স্কুলের ফি। খাতা-কলম এবং যাতায়াত ভাড়া। কীভাবে চলবো ভেবে পাচ্ছি না।

বরিশালের কর্মজীবী সুলতানা বেগম বলেন, যেভাবে পাল্লা দিয়ে গ্যাসের দাম বাড়ছে, সেভাবে আয় বাড়ছে না। করোনাকালীন সংকটে চাকরি হারিয়ে স্বামী-স্ত্রী উপার্জনহীন। ঢাকা থেকে বরিশালে এসে আশ্রয় নিয়ে প্রথমে একেকটা সিলিন্ডার কিনতাম ৮৫০ টাকা। এখন ১২০০-১৩০০ টাকায় কিনতে হয়। দাম বাড়লে যে ব্যবহার কমাবো কিংবা বাদ দেবো সেই উপায় নেই। বাসায় যেটুকু দরকার, তা তো লাগবেই। সরকারের উচিত সাধারণ মানুষের দিকে তাকিয়ে হলেও গ্যাসে ভর্তুকি দেওয়া।

নগরীর বাংলাবাজারের মুদি ব্যবসায়ী মো. ধলু বলেন, গ্যাসের দাম বাড়ার আগেই বিভিন্ন কোম্পানির ডিলার সিলিন্ডার দেওয়া বন্ধ করে দেন। বিভিন্ন অজুহাতে সিলিন্ডার নেই বলে জানান। আবার বেশি টাকা দিলে সিলিন্ডার দিয়ে যান। প্রত্যেক সিলিন্ডার কোম্পানির এজেন্ট আছে। এদের মধ্যে বেশিরভাগ ডিলারের ম্যানেজার গ্যাসের দাম বাড়ার সুযোগে নিজেদের পকেট ভর্তি করেন।

গ্যাসের দাম বাড়ায় গ্যাসচালিত যানেও বেড়েছে ভাড়া

একাধিক এলপিজি ব্যবসায়ী জানান, গ্যাসের দাম বাড়ার পরপরই গ্যাস বিক্রি কমেছে। একটি সিলিন্ডার থেকে ২০-৩০ টাকার ওপরে লাভ করা যায় না। এখন গ্যাস বিক্রি করতে হচ্ছে মাসিক ক্রেতাদের জন্য। তাদের গ্যাস দিতে না পারলে প্রতিযোগিতার বাজারে অন্য দোকানে চলে যাবে। এতে বছরে ওই ক্রেতার কাছ থেকে যে আয় হতো তা থেকে বঞ্চিত হতে হবে। এ জন্য গ্যাস বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

বসুন্ধরা এলপিজির বরিশালের ডিলারের ম্যানেজার মো. আজাদ, যমুনার ডিলারের ম্যানেজার মো. শাহিন ও পেট্রোম্যাক্সের ম্যানেজার মো. রুবেল জানান, গ্যাসের দামের বিষয়টি তাদের হাতে নেই। ঢাকা থেকে নিয়ন্ত্রণ হয়। সেখানে দাম বাড়লে তাদেরও বাড়াতে হয়। 

দাম বাড়ার আগেই সিলিন্ডার আটকে রাখার অভিযোগের বিষয়ে তারা জানান, এটা তারা করেন না। যদি কেউ এভাবে করে থাকেন তাহলে এমন কাজ করা ঠিক হয়নি।

অপরদিকে, নগরীতে গ্যাসচালিত যানবাহনেও বাড়ানো হয়েছে ভাড়া। যেখানে আগে ১০ টাকা ভাড়া ছিল, সেখানে ১৫ টাকা করা হয়েছে। পাঁচ টাকার স্থলে বাড়ানো হয়েছে ৮-১০ টাকা পর্যন্ত। এ নিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে যান চালকের বাগবিতণ্ডা চলছে।

চালকদের দাবি, আগে গ্যাসের দাম যা ছিল তা দিয়ে গাড়িয়ে চালিয়ে আয় হতো। এখন গ্যাসের দাম বাড়ায় ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। না হলে সারাদিন গাড়ি চালানোর পর কীভাবে পরিবার-পরিজন নিয়ে খেয়ে পরে বাঁচবেন তারা। 

এ ব্যাপারে সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম বলেন, গ্যাসের সংকট নেই। কেন গ্যাসের দাম কয়েক দফা বাড়ানো হয়েছে তা সরকারকে খতিয়ে দেখতে হবে। এতে মারাত্মক দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে মধ্য ও নিম্নবিত্ত পরিবারগুলোকে। একই সঙ্গে জনস্বার্থে সরকারকে গ্যাসে ভর্তুকি দেওয়ার দাবি জানাই।

/এএম/

সম্পর্কিত

ইলিশের উৎপাদন বাড়লেও ভালো নেই জেলেরা

ইলিশের উৎপাদন বাড়লেও ভালো নেই জেলেরা

শত বছরের খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ

শত বছরের খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ

পাকিস্তানি সমর্থকদের ওপর ভারতীয় সমর্থকদের হামলায় দুই ভাই আহত

পাকিস্তানি সমর্থকদের ওপর ভারতীয় সমর্থকদের হামলায় দুই ভাই আহত

ফেরি যুগের অবসান, খুললো সম্ভাবনার নতুন দুয়ার 

ফেরি যুগের অবসান, খুললো সম্ভাবনার নতুন দুয়ার 

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:১০

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার চরমল্লিকপুর গ্রামে পলাশ মাহমুদ (৩৩) নামে এক ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। 

সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে নিজ বাড়ির পাশে তাকে হত্যা করা হয়। পলাশের বাবার নাম খোকন শেখ। লোহাগড়া বাজারে তার ফলের ব্যবসা ছিল।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু হেনা মিলন জানান, পলাশ মাহমুদকে কী কারণে কে বা কারা হত্যা করেছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে আটকের চেষ্টা চলছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তরুণীকে পিটিয়ে ও অ্যাসিড ঢেলে হত্যা

বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তরুণীকে পিটিয়ে ও অ্যাসিড ঢেলে হত্যা

আ.লীগ প্রার্থীর নির্বাচনি সভায় বিএনপি নেতা প্রধান অতিথি

আ.লীগ প্রার্থীর নির্বাচনি সভায় বিএনপি নেতা প্রধান অতিথি

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৫

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালতে শুরু হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মামলার আসামি টেকনাফ থানার বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাসসহ ১৫ জনকে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে আনা হয়েছে। আজ সিনহার লাশ থেকে উদ্ধার গুলি ও জব্দ করা বিভিন্ন মালামালের রাসায়নিক পরীক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সাক্ষ্যগ্রহণের মধ্য দিয়ে এই মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরু হবে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম জানান, মঙ্গলবার সকালে মামলার ৪৪ নম্বর সাক্ষী হিসেবে একটি মোবাইল ফোনের কর্মকর্তা আহসানুল হককে দিয়ে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। লাশ থেকে উদ্ধার গুলি ও জব্দ করা বিভিন্ন মালামালের রাসায়নিক পরীক্ষা যারা করেছেন, তাদের মধ্যে সিআইডির রাসায়নিক পরীক্ষক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, পিংকু পোদ্দারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সাক্ষী দেবেন। এ ছাড়া মোবাইল অপারেটর কোম্পানির আরও একজন সৈকত সিপলু আজ আদালতে সাক্ষী দেবেন। আজ দ্বিতীয় দিন এই মামলায় মোট ১৭ জন সাক্ষীকে আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে।  

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) রাশেদ খান। তার সঙ্গে থাকা সাহেদুল ইসলাম সিফাতকে পুলিশ আটক করে। এরপর সিনহা যেখানে ছিলেন সেই নীলিমা রিসোর্টে ঢুকে তার ভিডিও দলের দুই সদস্য শিপ্রা দেবনাথ ও তাহসিন রিফাত নুরকে আটক করা হয়। পরে তাহসিনকে ছেড়ে দিলেও শিপ্রা ও সিফাতকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। এই দুজন পরে জামিনে মুক্তি পান।

সিনহা হত্যার ঘটনায় মোট চারটি মামলা হয়েছে। ঘটনার পরপরই পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি মামলা করে। এর মধ্যে দুটি মামলা হয় টেকনাফ থানায়, একটি রামু থানায়। ঘটনার পাঁচ দিন পর অর্থাৎ ৫ আগস্ট কক্সবাজার আদালতে টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ নয় পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। চারটি মামলা তদন্তের দায়িত্ব পায় র‍্যাব।

২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও র‍্যাব-১৫ কক্সবাজারের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. খাইরুল ইসলাম।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

মাদক মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ড

মাদক মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ড

বাবার নির্বাচনি কার্যালয়ের ছাদ থেকে পড়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

বাবার নির্বাচনি কার্যালয়ের ছাদ থেকে পড়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫২

হবিগঞ্জের মাধবপুরে দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চালক নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ভোরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শাহজিবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ জানায়, সিলেট থেকে ঢাকাগামী একটি ট্রাকের সঙ্গে বিপরীতে দিক থেকে আসা অপর একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঢাকা সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শাহজিবাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনায় দুই ট্রাকের চালক নিহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠায়। 

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি মাইনুল ইসলাম দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তাদের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ভোরে কুয়াশার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

মাইক্রোর ধাক্কায় মহাসড়কে পড়া ছাত্রকে পিষে দিলো ট্রাক

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩১

খুলনার কয়রা উপজেলার বাগালী ইউনিয়নের একটি পুকুর থেকে একই পরিবারের তিন সদস্যের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। খবর পেয়ে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকালে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন—বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের পাশে বসবাসকারী হাবিবুল্লাহ গাজী (৩৩), তার স্ত্রী বিউটি বেগম (২৮) ও মেয়ে টুনি (১৩)।

স্থানীয়রা জানান, হাবিবুল্লাহ পেশায় দিনমজুর। তার মেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। লাশ উদ্ধারের পর তিন জনের মাথা ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে।

বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ গাজী বলেন, তাদেরকে কেন বা কী কারণে হত্যা করা হয়েছে, এ সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি।

কয়রা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, সকালে খবর পেয়ে তিন জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর ঘটনা আড়াল করতে লাশ পুকুরে ফেলা হতে পারে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ ধরতে নদী ও সাগরে জেলেরা

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪১

চট্টগ্রাম নগরীর এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পের একটি পিলারে ফাটল দেখা দিয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) ওই পিলারে ফাটল দেখার পর রাত ১০টা থেকে ফ্লাইওভারের কালুরঘাটমুখী র‌্যাম্প দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

চান্দগাঁও থানার ওসি মো. মাঈনুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, র‌্যাম্পের পিলারে ফাটলের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর রাতেই আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে দেখতে পাই বহদ্দারহাট মোড় থেকে আরাকান সড়কের দিকে যাওয়া র‌্যাম্পের একটি পিলারে ফাটল দেখা দিয়েছে। পরে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে ওই র‌্যাম্প দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছি। পরবর্তী সিদ্ধান্ত না নেওয়া পর্যন্ত ওই র‌্যাম্প দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকবে।

তিনি আরও বলেন, এ সম্পর্কে সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে আমরা অবহিত করেছি।

প্রায় দেড়শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে এক দশমিক চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ও ১৪ মিটার প্রস্থ ফ্লাইওভারটি নির্মাণ শেষে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছিল। এরপর ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩০০ মিটারের কালুরঘাটমুখী এই র‌্যাম্প যুক্ত হয় ফ্লাইওভারে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে র‌্যাম্পটি নির্মাণের কাজ করেছিল সিডিএ। বর্তমানে ফ্লাইওভারটি রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে আছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।

স্থানীয় কাউন্সিলর এসরারুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বিষয়টি জানার পর আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি মেয়রকে জানিয়েছি, আজ সিডিএ’র সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আপাতত নিরাপত্তার স্বার্থে উড়ালসড়কের র‌্যাম্পটি দিয়ে যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ফ্লাইওভারের নিচে ভাসমান দোকানগুলো সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী হাসান বিন শামস বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, র‌্যাম্পের পিলারে ফাটলের বিষয়টি শুনেছি। ওই প্রকল্পটির পরিচালক ছিলেন প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান। এ বিষয়ে আপনি তার সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

পরে এ বিষয়ে জানতে প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমানকে একাধিকবার কল করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ইলিশের উৎপাদন বাড়লেও ভালো নেই জেলেরা

ইলিশের উৎপাদন বাড়লেও ভালো নেই জেলেরা

শত বছরের খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ

শত বছরের খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ

পাকিস্তানি সমর্থকদের ওপর ভারতীয় সমর্থকদের হামলায় দুই ভাই আহত

পাকিস্তানি সমর্থকদের ওপর ভারতীয় সমর্থকদের হামলায় দুই ভাই আহত

ফেরি যুগের অবসান, খুললো সম্ভাবনার নতুন দুয়ার 

ফেরি যুগের অবসান, খুললো সম্ভাবনার নতুন দুয়ার 

স্বামীকে হত্যার পর ঘরের সামনে দা হাতে বসেছিলেন স্ত্রী

স্বামীকে হত্যার পর ঘরের সামনে দা হাতে বসেছিলেন স্ত্রী

বেপরোয়া গতির ২ বাসের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো মা-ছেলের

বেপরোয়া গতির ২ বাসের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো মা-ছেলের

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লঞ্চের কেবিনে অজ্ঞাত তরুণীর লাশ

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লঞ্চের কেবিনে অজ্ঞাত তরুণীর লাশ

উন্নয়নের পথে বাধা সৃষ্টি করলে মোকাবিলা করবো: পরিকল্পনামন্ত্রী

উন্নয়নের পথে বাধা সৃষ্টি করলে মোকাবিলা করবো: পরিকল্পনামন্ত্রী

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

সর্বশেষ

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

তবু আগ্রাসী ব্যাটিং ছাড়বে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ

তবু আগ্রাসী ব্যাটিং ছাড়বে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

নতুন স্টার্টআপআসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আগের শর্তেই পরীমণিসহ তিন জনের জামিন

আগের শর্তেই পরীমণিসহ তিন জনের জামিন

ছায়াপথের বাইরে প্রথম কোনও গ্রহের লক্ষণ দেখতে পেলেন বিজ্ঞানীরা

ছায়াপথের বাইরে প্রথম কোনও গ্রহের লক্ষণ দেখতে পেলেন বিজ্ঞানীরা

© 2021 Bangla Tribune