X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

নরওয়েতে তীর-ধনুক নিয়ে হামলায় সন্দেহভাজনকে চিনতো পুলিশ

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২১

নরওয়েতে তীর-ধনুক নিয়ে প্রাণঘাতী হামলা চালানোর ঘটনায় আটক ব্যক্তি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। পুলিশ বলছে তার উগ্রবাদী হয়ে ওঠার আশঙ্কা রয়েছে। ৩৭ বছর বয়সী ওই ড্যানিশ নাগরিকের বিরুদ্ধে চার নারী ও এক পুরুষকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। বুধবার রাতে ওই হামলা চালানোর কয়েক ঘণ্টা পর তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বিশ্বের অন্যতম শান্তিপূর্ণ দেশ বিবেচিত নরওয়ে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) স্থানীয় সময় সাড়ে ৬টার দিকে দেশটির রাজধানী অসলো থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে কংসবার্গ শহরে তীর-ধনুক নিয়ে হামলা চালানো হয়। এতে পাঁচ জনের প্রাণহানির পর সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।

আঞ্চলিক পুলিশ প্রধান ওলে ব্রেড্রাপ সেভারুড জানিয়েছেন সন্দেহভাজন হামলাকারীর সঙ্গে ২০২০ সাল থেকেই পুলিশের জানাশোনা রয়েছে।  বৃহস্পতিবার সকালে তিনি জানান, নিহতদের বয়স ৫০ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে।

সন্দেহভাজন হামলাকারীকে ড্রাম্মেন শহরের একটি থানায় নেওয়া হয়। সেখানে তার আইনজীবী ফ্রেডেরিক নিউম্যান জানান তাকে তিন ঘণ্টারও বেশি সময় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আর তিনি পুলিশকে সহায়তা করেছেন। সন্দেহভাজনের মা ড্যানিশ নাগরিক আর বাবা নরওয়ের।

পুলিশ প্রসিকিউটর অ্যান আইরেন জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি গত কয়েক বছর ধরেই কংসবার্গ শহরে বসবাস করেন।

নরওয়ের পুলিশ সাধারণত অস্ত্র সঙ্গে রাখে না। তবে ওই হামলার পর দেশের সব কর্মকর্তাকে সতর্কতা হিসেবে আগ্নেয়াস্ত্র বহনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে এখনই ভ্রমণই সতর্কতার মাত্রা পরিবর্তনের কোনও ইঙ্গিত নেই বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

 

/জেজে/

সম্পর্কিত

প্রায় চার কোটি নাগরিককে নগদ অর্থ দেবে ফ্রান্স

প্রায় চার কোটি নাগরিককে নগদ অর্থ দেবে ফ্রান্স

রাষ্ট্রদূতদের ওপর ক্ষেপেছেন এরদোয়ান

রাষ্ট্রদূতদের ওপর ক্ষেপেছেন এরদোয়ান

‘গণতান্ত্রিক পরিস্থিতি তার নাগরিকের চাহিদা পূরণে সক্ষম’

‘গণতান্ত্রিক পরিস্থিতি তার নাগরিকের চাহিদা পূরণে সক্ষম’

জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেবেন না পুতিন

জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেবেন না পুতিন

মিয়ানমারে সেনা মোতায়েন, ব্যাপক নৃশংসতার আশঙ্কা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫২

ভারী অস্ত্রসহ মিয়ানমারের উত্তরের দিকে মোতায়েন করা হয়েছে হাজার হাজার সেনা। সেখানে ব্যাপক নৃশংসতার আভাস দিয়ে সতর্ক করেছেন মিয়ানমার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত টম অ্যান্ড্রুজ। গত ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের পর থেকেই সেখানে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

শুক্রবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘে বার্ষিক মানবাধিকার রিপোর্ট উপস্থাপনকালে অ্যান্ড্রুজ বলেন, 'আমি তথ্য পেয়েছি যে মিয়ানমারের দুর্গম উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে হাজার হাজার সৈন্যসহ ভারী অস্ত্র মোতায়েন করা হয়েছে। এই তথ্যগুলো ইঙ্গিত দেয় যে, জান্তা সরকার মানবতার বিরুদ্ধে সম্ভাব্য অপরাধ এবং যুদ্ধাপরাধের প্রস্তুতি নিচ্ছে'।

গত ১ ফেব্রুয়ারি সু চি সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতায় বসে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। এরপর থেকেই দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে সাধারণ মানুষের ওপর দমন-পীড়ন অব্যাহত রেখেছে জান্তা সরকার। জান্তা বিরোধীদের ওপর চালানো রক্তক্ষয়ী অভিযানে ১ হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। বিক্ষোভের শুরু থেকে গ্রেফতারের সংখ্যা ৮ হাজার ছাড়িয়েছে।

অ্যান্ড্রুজ বলেন, ‘আমাদের সকলের প্রস্তুত থাকা উচিত, যেমন মিয়ানমারের এই অংশের লোকেরা আরও বেশি গণহত্যার মুখোমুখি। আমি আশা করছি আমার আশঙ্কা ভুল প্রমাণিত হোক’। 

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বাড়ি-ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় সেনা সদস্যরা। ফাইল ছবি

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে পুলিশ চেকপোস্টে সহিংসতার পর বহুদিন ধরে চালানো রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞ জোরালো করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। হত্যা ও ধর্ষণ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা। সব মিলিয়ে বাংলাদেশে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী অবস্থান করছে। জাতিসংঘ এই ঘটনাকে জাতিগত নিধনযজ্ঞের ‘পাঠ্যপুস্তকীয় উদাহরণ’ বলে উল্লেখ করেছে। একে নিধনযজ্ঞ বলেছে যুক্তরাষ্ট্রও।

 

/এলকে/

সম্পর্কিত

মিয়ানমারের জান্তা প্রতিরোধ বাহিনীর হাতে ১১ সেনা নিহত

মিয়ানমারের জান্তা প্রতিরোধ বাহিনীর হাতে ১১ সেনা নিহত

রেকর্ড মূল্যে বিক্রি হলো মিয়ানমারের রক শিল্পীর উকুলেলে

রেকর্ড মূল্যে বিক্রি হলো মিয়ানমারের রক শিল্পীর উকুলেলে

মুক্তি পেলেন মিয়ানমারের শত শত রাজনৈতিক বন্দি

মুক্তি পেলেন মিয়ানমারের শত শত রাজনৈতিক বন্দি

সহিংসতার জন্য জান্তাবিরোধীদের দুষলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

সহিংসতার জন্য জান্তাবিরোধীদের দুষলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

ফিলিস্তিনের ৬ মানবাধিকার গ্রুপকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ অ্যাখা ইসরায়েলের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৪:২৩

ফিলিস্তিনের প্রথম সারির ৬টি মানবাধিকার গ্রুপকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ আখ্যায়িত করেছে ইসরায়েল। শুক্রবার ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই ছয় মানবাধিকার বিষয়ক গ্রুপ ফিলিস্তিনের পপুলার ফ্রন্ট দ্য লিবারেশন অব প্যালেস্টাইন (পিএফএলপি)-এর সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে।

এমন ঘোষণায় সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান ও গ্রেফতার পরিচালনা করতে পারবে ইসরায়েলি বাহিনী। সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে অ্যামনেস্টিসহ জাতিসংঘও।

হঠাৎ করেই ফিলিস্তিনের ৬ টি প্রথম সারির মানবাধিকার গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিলো তেল আবিব। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরায়েলের বিতর্কিত পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন ফিলিস্তিনিরা। এই ঘটনাকে ফিলিস্তিনের নাগরিক সমাজের উপর নিরচ্ছিন্ন আক্রমণ হিসেবে দেখছে পিএ।

ইসরায়েলের ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’-এর তালিকায় যুক্ত হওয়া মানবাধিকার সংগঠনগুলো হলো ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত আল হক, আদামীর রাইট গ্রুপ, ডিফেন্স ফর চিলড্রেন ইন্টারন্যাশনাল-প্যালেস্টাইন, দ্য বিসান সেন্টার ফর রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, দ্য ইউনিয়ন অব প্যালেস্টাইনিয়ান ওমেন্স কমিটিজ এবং দ্য ইউনিয়ন অব এগ্রিকালচারাল ওয়ার্ক কমিটিজ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

লেবাননে অস্থিতিশীলতার জন্য ইসরায়েলকে দোষারোপ ইরানের

লেবাননে অস্থিতিশীলতার জন্য ইসরায়েলকে দোষারোপ ইরানের

ইসরায়েলের হামলার ষড়যন্ত্র নস্যাতের দাবি আলজেরিয়ার

ইসরায়েলের হামলার ষড়যন্ত্র নস্যাতের দাবি আলজেরিয়ার

পারমাণবিক অস্ত্র অর্জনের ধারেকাছেও নেই ইরান: সাবেক মোসাদ প্রধান

পারমাণবিক অস্ত্র অর্জনের ধারেকাছেও নেই ইরান: সাবেক মোসাদ প্রধান

সাদ রিজভীর মুক্তির দাবিতে রণক্ষেত্র লাহোর, ৩ পুলিশ নিহত

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:২৭

পাকিস্তানের ডানপন্থি রাজনৈতিক দল তেহেরিক-ই-লাব্বাইক (টিএলপি) সদস্যদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৩ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। উভয়পক্ষের অনেকেই আহত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশ করেছে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন।

দলীয় শীর্ষ নেতা প্রধান নেতা সাদ রিজভীর মুক্তির দাবিতে শুক্রবার লাহোরের পূর্বাঞ্চলীয় শহরে টিএলপির ডাকে বিক্ষোভে অংশ নেন হাজার হাজার মানুষ। মিছিলটি রাজধানী ইসলামাবাদের দিকে লং মার্চ শুরু করলে পুলিশ বাধা দেয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষে রূপ নেয়।

লাহারের ডিআইজির মুখপাত্র মাজহার হুসাইন জানান, নিহত দুই পুলিশ কর্মকর্তার মধ্যে একজন আয়ুব অন্যজন খালিদ। সংঘর্ষে নিহত তৃতীয়জনের পরিচয় এখনও শনাক্ত করা যায়নি। গুরুতর আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিক্ষোভকারী পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এছাড়া দোকানপাট ও অফিসের বাইরে ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে তারা। এতে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সহিংসতা থামাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়ে। তবে, সংঘর্ষ সৃষ্টির জন্য পুশিকেই দায়ী করেন টিলপির সমর্থক। তিনি বার্তা সংস্থা রয়র্টাসকে বলেন, কোনও কারণ ছাড়াই আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে নিরাপত্তা বাহিনী হামলা চালায়।

চলতি বছরের এপ্রিলে তেহরিক-ই লাব্বাইক পাকিস্তান (টিএলপি) রাজনৈতিক দলকে নিষিদ্ধের ঘোষণা করে পাকিস্তান সরকার।

/এলকে/

সম্পর্কিত

নতুন আইএসআই প্রধান নিয়োগ দিচ্ছেন ইমরান খান

নতুন আইএসআই প্রধান নিয়োগ দিচ্ছেন ইমরান খান

আফগান জনগণের কঠিন মুহূর্তে পাশে আছে পাকিস্তান

আফগান জনগণের কঠিন মুহূর্তে পাশে আছে পাকিস্তান

মিয়ানমারের জান্তা প্রতিরোধ বাহিনীর হাতে ১১ সেনা নিহত

মিয়ানমারের জান্তা প্রতিরোধ বাহিনীর হাতে ১১ সেনা নিহত

পাকিস্তানে নিরাপত্তাবাহিনীর ৬ সদস্য নিহত

পাকিস্তানে নিরাপত্তাবাহিনীর ৬ সদস্য নিহত

কাশ্মির সফরে অমিত শাহ, উপত্যকাজুড়ে নজিরবিহীন নিরাপত্তা ব্যবস্থা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৯

তিনদিনের সফরে জম্মু-কাশ্মিরে পৌঁছেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ২০১৯ সালে মোদি সরকার জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে দেওয়ার পর এটিই তার প্রথম সফর। শনিবার শ্রীনগর বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহা। এই সফরকে কেন্দ্র করে উপত্যাকাজুড়ে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। 

২০১৯ সালে বিজেপি দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় এসেই জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধারা বাতিল করে। একইসঙ্গে রাজ্যের মর্যাদা হারিয়ে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয় জম্মু-কাশ্মীর। এমন বিতর্কিত পদক্ষেপের প্রায় দু’বছর পর এই প্রথম উপত্যকায় পা রাখলেন অমিত শাহ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জম্মু-কাশ্মিরের উন্নয়ন প্যাকেজে যেই সমস্ত পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিলেন, তার অগ্রগতি দেখতেই কাশ্মির সফরে তিনি।

যেকোনও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে শ্রীনগর। অমিতের সফরকে কেন্দ্র করে হামলার আশঙ্কা থাকায় শ্রীনগরজুড়ে বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা সদস্য। ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত বুলেভার্ড রোডে সমস্ত রকম যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। উপত্যকার স্পর্শকাতর এলাকাগুলোতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এমন সময়ে জম্মু-কাশ্মিরে যাচ্ছেন, যখন নতুন করে হামলার ঘটনা বেড়েছে উপত্যকায়। সম্প্রতি নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে অস্ত্রধারীদের সংঘাতে সেনা কর্মকর্তাসহ ১১ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

তুষারপাত ও বৈরী আবহাওয়ায় ভারতে ১১ পর্বতারোহীর মৃত্যু

তুষারপাত ও বৈরী আবহাওয়ায় ভারতে ১১ পর্বতারোহীর মৃত্যু

এক সপ্তাহে কলকাতায় করোনা রোগী দ্বিগুণ

এক সপ্তাহে কলকাতায় করোনা রোগী দ্বিগুণ

বিজেপির ফেক নেটওয়ার্ক বন্ধ করেনি ফেসবুক: বিস্ফোরক সোফি

বিজেপির ফেক নেটওয়ার্ক বন্ধ করেনি ফেসবুক: বিস্ফোরক সোফি

নেতাদের সামনেই বিজেপি কর্মীদের মারপিট

নেতাদের সামনেই বিজেপি কর্মীদের মারপিট

মার্কিন ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা নিহত

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:২০

সিরিয়ায় আল-কায়েদার এক শীর্ষ নেতাকে ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করেছে মার্কিন সেনাবাহিনী। মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র জানান, নিহতের নাম আব্দুল হামিদ আল-মাতার।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর মেজর জন রিগসবি জানান, আল-কায়েদার এই জ্যেষ্ঠ নেতাকে অপসারণ করা না হলে মার্কিন নাগরিক, বেসামরিক মানুষ, আমাদের মিত্র এবং বিশ্বের জন্য হুমকি ছিল।

জেনারেল অ্যাটোমিকস এমকিউ র‌্যাপর-৯ দিয়ে হামলা পরিচালনা করা হয়। এতে অন্য কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেও দাবি করে মার্কিন সামরিক বাহিনী। ড্রোন হামলা পরিচালনার দু'দিন আগে দক্ষিণ সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক ঘাঁটিতে হামলার ঘটনা ঘটে। এরপরই সন্ত্রাসীবিরোধী অভিযান চালালো যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা রিবগবি আরও বলেন, নিষিদ্ধ জঙ্গি গোষ্ঠী আল-কায়েদা আমেরিকা এবং আমাদের মিত্রদের জন্য হুমকি। এই গোষ্ঠীটি সিরিয়াকে নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।

গত সেপ্টেম্বরেও সিরিয়ার বিদ্রোহী অধ্যুষিত উত্তরাঞ্চলে মার্কিন ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার আরেক সিনিয়র নেতা সেলিম আবু-আহমদ নিহত হন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

প্রপ গানও বিপজ্জনক, আসল বন্দুকের সঙ্গে পার্থক্য কী?

প্রপ গানও বিপজ্জনক, আসল বন্দুকের সঙ্গে পার্থক্য কী?

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

লম্বা চুল নিষিদ্ধের প্রতিবাদে আদালতে শিক্ষার্থীরা

লম্বা চুল নিষিদ্ধের প্রতিবাদে আদালতে শিক্ষার্থীরা

উইঘুর ইস্যুতে চাপ বাড়ছে চীনের ওপর

উইঘুর ইস্যুতে চাপ বাড়ছে চীনের ওপর

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রায় চার কোটি নাগরিককে নগদ অর্থ দেবে ফ্রান্স

প্রায় চার কোটি নাগরিককে নগদ অর্থ দেবে ফ্রান্স

রাষ্ট্রদূতদের ওপর ক্ষেপেছেন এরদোয়ান

রাষ্ট্রদূতদের ওপর ক্ষেপেছেন এরদোয়ান

‘গণতান্ত্রিক পরিস্থিতি তার নাগরিকের চাহিদা পূরণে সক্ষম’

‘গণতান্ত্রিক পরিস্থিতি তার নাগরিকের চাহিদা পূরণে সক্ষম’

জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেবেন না পুতিন

জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেবেন না পুতিন

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

অনূর্ধ্ব ১২ বছরের শিশুদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার চিন্তা ইইউ-এর

অনূর্ধ্ব ১২ বছরের শিশুদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার চিন্তা ইইউ-এর

জার্মানিতে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু এ সপ্তাহেই!

জার্মানিতে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু এ সপ্তাহেই!

পতিতাবৃত্তি বিলুপ্তির অঙ্গীকার স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রীর

পতিতাবৃত্তি বিলুপ্তির অঙ্গীকার স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রীর

ঔপনিবেশিক অপরাধ, ফ্রান্সকে আন্তর্জাতিক আদালতের মুখোমুখি করার দাবি

ঔপনিবেশিক অপরাধ, ফ্রান্সকে আন্তর্জাতিক আদালতের মুখোমুখি করার দাবি

ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বেলারুশ ত্যাগের নির্দেশ

ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বেলারুশ ত্যাগের নির্দেশ

সর্বশেষ

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

অভ্যন্তরীণ সমস্যা ভুলে একসঙ্গে সংগ্রামের অনুরোধ মির্জা ফখরুলের

অভ্যন্তরীণ সমস্যা ভুলে একসঙ্গে সংগ্রামের অনুরোধ মির্জা ফখরুলের

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

‘মরীচিকা’র পর ওয়েবে তাদের নতুন ‘সিন্ডিকেট’

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

© 2021 Bangla Tribune