X
সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

এই স্কটল্যান্ডের কাছে কিন্তু হেরেছে বাংলাদেশ!

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৪

ইচ্ছার আকাশে কল্পনার রঙ ছিটিয়ে রঙিন স্বপ্ন বুনলেও বাস্তবটা বড্ড নির্মম! আশা আর প্রাপ্তিতে বিস্তর ফারাক। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এক যন্ত্রণার নাম বাংলাদেশের কাছে। ওয়ানডে ফরম্যাটে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি কিংবা বিশ্বকাপে পায়ের নিচের মাটি শক্ত করলেও সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে পারফরম্যান্স যেন ‘সংক্ষিপ্ত’ হয়ে আসে খেলোয়াড়দের। তবে ক্রীড়াঙ্গনে অতীত নিয়ে কে পড়ে থাকতে চায়! ওমানে উড়ে যাওয়ার আগে মাহমুদউল্লাহও বলে গেছেন কথাটা। অতীতের ভুল ‘শুধরে’ কতটা সাফল্য ধরা দেয়, আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান দিয়ে প্রমাণের পালা বাংলাদেশের।

সেই প্রমাণের শুরুটা হচ্ছে আগামীকালই (রবিবার)। র‌্যাঙ্কিংয়ের হিসাব-নিকাশে এবারও প্রাথমিক পর্বে নামতে হচ্ছে মাহমুদউল্লাহদের। শুরুতেই প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড। বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে ক্রিকেট বিশ্লেষক ও বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা একটা হিসাব কষে নিয়েছেন— প্রাথমিক পর্বে নিশ্চিতভাবেই পেরিয়ে যাবে! এরপর সুপার-১২ রাউন্ডে কতদূর যেতে পারবে, এ নিয়েই চলছে গবেষণা। যদিও প্রাথমিক পর্বে, বিশেষ করে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে কঠিন চ্যালেঞ্জই হয়তো অপেক্ষা করছে। মুখোমুখি লড়াইয়ের গ্রাফ দেখলে তো বাংলাদেশ পিছিয়েই আছে!

ক্রিকেট ঐতিহ্য-ইতিহাসে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে। কিন্তু শুধু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের পরিসংখ্যানে এলে এগিয়ে স্কটিশরা। দুই দলের একবারই দেখা হয়েছিল। ২০১২ সালের একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি জিতেছিল স্কটল্যান্ড। সেবার আয়ারল্যান্ড-নেদারল্যান্ডস সফরে গিয়েছিল মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে। আয়ারল্যান্ডে খেলে নেদারল্যান্ডস পৌঁছে স্বাগতিকদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে স্কটল্যান্ডের সঙ্গে একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। হেগের ম্যাচটি ৩৪ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। স্কটল্যান্ডের ৭ উইকেটে করা ১৬২ রানের জবাবে ১৮ ওভারে ১২৮ রানে গুটিয়ে যায় মুশফিকরা।

হেগের ওই ম্যাচের তিন সদস্য আছেন এবারের বিশ্বকাপের দলে। কোনও অঘটন না ঘটলে ওই তিনজন- মাহমুদউল্লাহ, মুশফিক ও সাকিব আল হাসান খেলবেন আগামীকালের ম্যাচে। ৯ বছর আগের ওই ম্যাচে সাকিব খেলেছিলেন সর্বোচ্চ ৩১ রানের ইনিংস। ২৯ বলের ইনিংস সাজিয়েছিলেন ১ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায়। মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ দুজনই করেছিলেন ৯ রান।

যদিও ক্রিকেটে একটা কথা আছে- পরিসংখ্যান সবসময় সত্যি কথা বলে না! হেগের ম্যাচটির পর কেটে গেছে অনেকটা সময়। সময়ের পালা বদলে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ এখন নিজেদের অবস্থান শক্তিশালী করেছে। জিম্বাবুয়ের পর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতে গিয়েছে বিশ্বমঞ্চে। তাই আত্মবিশ্বাসে ভরপুর থাকার কথা মাহমুদউল্লাহদের।

আবার আশঙ্কাও আছে! আইসিসির বিশ্ব আসরের আগে প্রস্তুতির অংশ হিসেবে থাকে ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ। ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ খেলেছে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ। হেরেছে দুটিতেই। হার-জিত যদিও বড় বিষয় নয়, নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার ব্যাপারটাই এখানে মুখ্য। মুশফিক-লিটনরা সেই কাজটাও করতে পারেননি। শ্রীলঙ্কা ও আয়ার‌ল্যান্ডের কাছে বাজেভাবে হেরে ব্যাটিং-বোলিংয়ের পাশে এঁকে দিয়েছে প্রশ্নবোধক চিহ্ন!

সে যা-ই হোক, মূল লড়াইয়ে অন্যরকম বাংলাদেশেকেই দেখার আশা। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে পাওয়া গিয়েছিল যেমন। তাহলেই আত্মবিশ্বাসের হাওয়ায় উজ্জীবিত দলের ছবি ফুটে উঠবে স্পষ্ট হয়ে!

/কেআর/

সম্পর্কিত

ভারত বসলো টেস্টের সিংহাসনে

ভারত বসলো টেস্টের সিংহাসনে

দুই পেনাল্টি মিস ও লাল কার্ডের ম্যাচে কেউ জেতেনি

দুই পেনাল্টি মিস ও লাল কার্ডের ম্যাচে কেউ জেতেনি

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে আল আমিনের ২ উইকেট

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে আল আমিনের ২ উইকেট

বিপিএলে দল পেতে ৮ ফ্র্যাঞ্চাইজির আগ্রহ

বিপিএলে দল পেতে ৮ ফ্র্যাঞ্চাইজির আগ্রহ

quiz
সর্বশেষসর্বাধিক
© 2021 Bangla Tribune