X
মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

ফেসবুকের ‘ভুয়া খবরেই’ দেশের সব সাম্প্রদায়িক হামলা

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০৩

দেশে গত দশকে যত সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছে তার নেপথ্যে কলকাঠি নাড়িয়েছে নানা প্রকারের গুজব। একটি চক্র ভুয়া খবর ও ষড়যন্ত্রমূলক পোস্ট ফেসবুকে ছড়িয়ে দিতেই সংখ্যালঘুদের ওপর একই ছকে হামলা হয়। প্রতিবারই এসব ঘটনা মোকাবিলায় হিমশিম খায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

গত এক দশকে গুজব ছড়ানোতে বেশি ‘অবদান’ ছিল ফেসবুকের। এর গতি এত তীব্র ছিল যে সেটা দমানোর মতো প্রযুক্তি আমাদের দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছেও নেই। গুজবের পাশাপাশি একটি মহল থেকে আবার বক্তব্য বিবৃতি দিয়ে উসকানিও চালানো হয় সমানতালে। বেশ কয়েকটি ঘটনা পর্যালোচনা করে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।

নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, একটি চক্রের উদ্দেশ্যই হলো দেশকে অস্থিতিশীল করা। তারাই এসব গুজবের হোতা।

ভোলায় আইডি হ্যাক করে গুজব

ভোলার বোরহানউদ্দিনে ২০১৯ সালের ২০ অক্টোবর হিন্দুদের একটি এলাকায় সংঘবদ্ধ হামলা চালিয়ে মন্দির, বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করা হয়। অভিযোগ করা হয়, বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য নামের এক তরুণ তার ফেসবুকের মেসেঞ্জারে মহানবীকে (সা.) নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য ছড়িয়েছে। সেই মেসেঞ্জার-বার্তার স্ক্রিনশট ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপর চালানো হয় হামলা। পুলিশ ও জনতার সংঘর্ষে নিহত হয় পাঁচজন। আহত হন অনেকেই। হিন্দুদের অসংখ্য বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়।

অথচ হামলার দুদিন আগে ১৮ অক্টোবর নিজের ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে বলে বোরহানউদ্দিন থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন বিপ্লব চন্দ্র। পুলিশ বিপ্লবের অ্যাকাউন্ট হ্যাকের প্রমাণও পায় এবং দুজনকে গ্রেফতার করে।

ভুয়া আইডির কারণে হামলা

২০১৬ সালের ৩০ অক্টোবর। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রসরাজ দাস নামের এক দরিদ্র জেলের নামে একটি আইডি খুলে ফেসবুকে ইসলাম নিয়ে অবমাননাকর পোস্ট দেওয়ার খবর ছড়িয়ে জেলার নাসিরনগরের হরিপুরে হামলা করা হয়। রসরাজকে মারধর করে পুলিশেও দেওয়া হয়। পরে জানা গেলো, ফেসবুক কী, সেটাই জানেন না অক্ষরজ্ঞানহীন রসরাজ। তার নামে থাকা আইডিও ভুয়া। এমনকি ফরেনসিক রিপোর্টেও পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে রসরাজের মোবাইল থেকে ফেসবুকে কোনও স্ট্যাটাসও দেওয়া হয়নি। এটা জানার আগেই তছনছ হয়ে যায় নাসিরনগরের হিন্দুদের ৫টি মন্দির ও কয়েক শ’ বাড়ি। নাসিরনগরে হামলার ঘটনায় মোট আটটি মামলা হয়। বেশিরভাগ মামলার তদন্ত এখনও চলছে।

. বৌদ্ধ তরুণের নামে গুজব ছড়িয়ে রামুতে হামলা

উত্তম বড়ুয়া নামের এক বৌদ্ধ তরুণ ফেসবুকে ইসলাম অবমাননাকর কন্টেন্ট আপলোড করেছে—এমন অভিযোগ করে ২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর একদল দুষ্কৃতকারী সংঘবদ্ধ হয়ে কক্সবাজারের রামুর বৌদ্ধপল্লীতে হামলা চালায়। তবে আজও উত্তম বড়ুয়া নামে সেখানে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। অথচ, এ নিয়ে স্থানীয়রা রীতিমতো সমাবেশ করে হামলা চালিয়েছিল।

ওই হামলায় বৌদ্ধপল্লীর ১৯টি বৌদ্ধমন্দির ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। এ ছাড়াও বৌদ্ধদের অসংখ্য বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছিল। সরকারের পক্ষ থেকে পরে মন্দির ও মূর্তি নির্মাণ করে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় রামু, উখিয়া ও টেকনাফে ১৯টি মামলা হয়। এরমধ্যে একটি মামলা প্রত্যাহার হয়। তবে কোনওটির বিচার শেষ হয়নি।

. ফেসবুকের কথিত পোস্ট নিয়ে রংপুরে হামলা

ফেসবুকের কথিত স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে ২০১৭ সালের ১০ নভেম্বর রংপুরের গঙ্গাচড়ায় হিন্দু এলাকায় হামলা চালায় সংঘবদ্ধ মুসলিম সম্প্রদায়। নারায়ণগঞ্জে থাকা টিটু রায় নামে এক ব্যক্তির ফেসবুকের আইডি থেকে অবমাননাকর পোস্ট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। যার জেরে মিছিল নিয়ে হিন্দুদের বাড়িতে হামলা করা হয়।

সর্বশেষ কুমিল্লা

গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখাকে কেন্দ্র করে দেশের রংপুর, চাঁদপুর, সিলেট, কিশোরগঞ্জসহ বেশকয়েকটি জেলার হিন্দুদের ঘরবাড়ি ও মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে নিহত হয় পাঁচজন। মামলা হয়েছে অন্তত ৭২টি। এখন পর্যন্ত গ্রেফতার পাঁচ শতাধিক।

কুমিল্লা পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, ইকবাল নামের এক তরুণ একটি মাজারের মসজিদ থেকে কোরআন নিয়ে মণ্ডপের মূর্তির পায়ের কাছে রেখে আসে। পরের দিন ওরাই আবার ফেসবুকে লাইভ করে সবাইকে উত্তেজিত করে। এরপর সারাদেশে উত্তেজনা ও সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।

ফেসবুক কেন এসব ঘটানো হচ্ছে?

বাংলাদেশে গত একযুগে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা পর্যালোচনায় দেখা যায়, দুই-এক বছর পরপরই এমন গুজব বা ষড়যন্ত্রমূলক হামলার ঘটনা ঘটেছে। ধর্মীয় স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে কেন এসব ঘটানো হয় জানতে চাইলে নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ বলেন, ‘একটি চক্র পরিকল্পনা করে এই অস্থিরতা সৃষ্টি করে। ধর্মীয় বিষয় নিয়ে কোনও কিছু ছড়ালে তাতে মানুষ দ্রুত প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করে। অনেক মানুষ সম্পৃক্ত হয়। এই অস্থিরতার মধ্যে একটি গোষ্ঠী ফায়দা নিতে চায়। তারা এটা পরিকল্পনা করেই করে।’

এই নিরাপত্তা বিশ্লেষক আরও বলেন, ‘মানুষের মধ্যে ফেসবুক ব্যবহারের সংখ্যা বাড়ছে। ষড়যন্ত্রকারীদের বানানো তথ্য দ্রুত পৌঁছে যাচ্ছে সবার কাছে। এমনভাবে তারা খবর বানায় যা সাধারণ মানুষ বিশ্বাস করে। যাচাই করতেও যায় না।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কারও ব্যক্তিগত পোস্ট বা অখ্যাত কোনও ওয়েবসাইটের খবরকে বিশেষ প্রাধান্য না দেওয়ার কথাই বলেছেন আব্দুর রশীদ।

তিনি বলেন, ‘জনগণকে সচেতন হতে হবে। ফেসবুকে যা আসবে সব তো সত্য নয়। মূলধারার গণমাধ্যম ছাড়া অন্য যেকোনও মাধ্যমের তথ্য বিশ্বাস করার আগে তা যাচাই করে নিতে হবে।’

দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল

সাম্প্রদায়িক হামলায় যে মামলাগুলো হচ্ছে সেগুলোর বিচার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, ‘পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়ার পরই বিচার শুরু হবে। এ সংক্রান্ত ভিডিও ফুটেজ তুলে ধরা হবে। চার্জশিট দেওয়া হলেই সেটা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে দেওয়া হবে।’

/এফএ/

সম্পর্কিত

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

পার্বত্য চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবি বিশিষ্টজনদের

পার্বত্য চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবি বিশিষ্টজনদের

র‍্যাব হেফাজতে চিত্রনায়ক ইমন

র‍্যাব হেফাজতে চিত্রনায়ক ইমন

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের পরিপত্র কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের পরিপত্র কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

‘সংবাদপত্র রুগ্ন হয়ে পড়েছে’

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৪১

সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজপেপার্স ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) সভাপতি এ কে আজাদ বলেছেন, সংবাদপত্র শিল্প এখন রুগ্ন হয়ে পড়েছে। এর অন্যতম কারণ কাগজের উচ্চমূল্য। এ ছাড়া বেতন-ভাতাসহ অন্য খরচও বেড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সংবাদপত্র শিল্পে সহযোগিতা দরকার।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) আয়োজিত দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় গণমাধ্যমের ভূমিকা, সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে নোয়াবের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ কে আজাদ বলেন, সংবাদপত্রের আয় বাড়েনি, বিজ্ঞাপন কমে গেছে। এখন বিজ্ঞাপনে ডিসকাউন্টও দিতে হচ্ছে অনেক। পত্রিকা বিক্রি ও বিজ্ঞাপন বাবদ অনেক টাকা অনাদায়ী থাকছে।

তিনি বলেন, করোনার সময় সরকার বিভিন্ন খাতে প্রণোদনা দিলেও সংবাদপত্র শিল্পে দেওয়া হয়নি। প্রণোদনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিবের কাছে নোয়াবের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছে। হকারদের জন্য সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার মেয়রদের কাছে জায়গা চাওয়া হয়েছে।

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম, প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ, দ্য ফাইন্যান্সিয়াল হেরাল্ডের সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদসহ এফবিসিসিআইয়ের কর্মকর্তারা।

/জিএম/এফএ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

পার্বত্য চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবি বিশিষ্টজনদের

পার্বত্য চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবি বিশিষ্টজনদের

র‍্যাব হেফাজতে চিত্রনায়ক ইমন

র‍্যাব হেফাজতে চিত্রনায়ক ইমন

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের পরিপত্র কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের পরিপত্র কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

ডেসটিনির প্রতিবেদন গ্রহণে নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে হাইকোর্টের রুল

ডেসটিনির প্রতিবেদন গ্রহণে নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে হাইকোর্টের রুল

পাঁচ মামলায় আরজে নীরবের জামিন 

পাঁচ মামলায় আরজে নীরবের জামিন 

শিশুসহ পলাতক বাবাকে দেশে ফিরিয়ে আনার নির্দেশ

শিশুসহ পলাতক বাবাকে দেশে ফিরিয়ে আনার নির্দেশ

জাপানি দুই শিশুকে নিয়ে আপিল শুনানি ১২ ডিসেম্বর

জাপানি দুই শিশুকে নিয়ে আপিল শুনানি ১২ ডিসেম্বর

হাফ ভাড়া তদারকিতে মালিক সমিতির ৯ টিম

হাফ ভাড়া তদারকিতে মালিক সমিতির ৯ টিম

সর্বশেষ

নোবিপ্রবি শিক্ষার্থী নিহত, সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

নোবিপ্রবি শিক্ষার্থী নিহত, সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ মানব ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ভাষণ: শিক্ষামন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ মানব ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ভাষণ: শিক্ষামন্ত্রী

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

ওবায়দুল কাদেরসহ ৭ মুক্তিযোদ্ধাকে স্বর্ণপদক দিলেন কাদের মির্জা

ওবায়দুল কাদেরসহ ৭ মুক্তিযোদ্ধাকে স্বর্ণপদক দিলেন কাদের মির্জা

ডিজিটাল বিপ্লব বাংলাদেশ থেকেই সূচিত হয়েছে: মোস্তাফা জব্বার

ডিজিটাল বিপ্লব বাংলাদেশ থেকেই সূচিত হয়েছে: মোস্তাফা জব্বার

© 2021 Bangla Tribune