X
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

নীলফামারীতে পাল আমলের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের সন্ধান

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০১৬, ১২:৪১
image

নীলফামারী প্রত্নতত্ত্ব

নীলফামারীতে এই প্রথম প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের সন্ধান পেয়েছে সংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়। জেলার জলঢাকা উপজেলার গড় ধর্মপাল ইউনিয়নের পূর্ব খেরকাটি গ্রামে এর সন্ধান পাওয়া গেছে। গত তিনদিন খনন করার পর মঙ্গলবার পাল সম্রাট ধর্মপালের আমলের নিদর্শনের সন্ধান মেলে।

এছাড়াও ওই খনন এলাকা থেকে ২০০ গজ উত্তরে সবুজপাড়া নামক স্থানে আরেকটি প্রত্নতত্ত্বের সন্ধান পাওয়া গেছে। এর খনন কাজ কিছুদিনের মধ্যে শুরু হবে।

১৯৯০ সালে এলাকাবাসীর আবেদনে স্থানটিতে প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর খনন কাজ পরিচালনা করেছিল। ওই সময় তারা কিছু পায়নি।

নীলফামারী খনন কাজ

এদিকে চলমান খনন কাজে ধর্মপাল গড়ের দুর্গ প্রাচীরগুলো আবিস্কারের চেষ্টা করছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়টি।

বগুড়ার মহাস্থানগড় খনন কাজের দলনেতা মুজিবুর রহমান বলেন, ‘খনন কাজের সফলতা আসতে শুরু করেছে। আশা করা হচ্ছে বিশাল এলাকাজুড়ে পাল সম্রাট ধর্মপালের আমলের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শক করা সম্ভব হবে। এটি পূর্ণাঙ্গরূপে সফলতা পেলে ধর্মপাল এলাকাটি আলোকিত হয়ে উঠবে। আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।’

মঙ্গলবার বিকালে স্থানটিতে পরিদর্শন করেন নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা। এসময় উপস্থিত ছিলেন  রাজশাহী বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক নাহিদ সুলতানা, রাজশাহী বিভাগের আফজাল হোসেন, বিভাগীয় আলোকচিত্রকর আবুল কালাম আজাদ, লোকমান হোসেন প্রমুখ।

খনন কাজ

পাল সম্রাট ধর্মপাল সম্পর্কে জানা যায়, তিনি ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের বাংলা অঞ্চলের পাল সাম্রাজ্যের দ্বিতীয় শাসক। তিনি ছিলেন পাল রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা গোপালের ছেলে। তিনি রাজত্বের সীমানা বৃদ্ধি করেন এবং পাল সাম্রাজ্যকে উত্তর ও পূর্ব ভারতের প্রধান রাজনৈতিক শক্তিতে পরিণত করেন।

পাল রাজা ধর্মপাল এবং প্রতীহার রাজা বৎসরাজের মধ্যে সংঘর্ষের মাধ্যমে ৭৯০ খ্রিস্টাব্দের দিকে ত্রিপক্ষীয় যুদ্ধের প্রথম পর্ব শুরু হয়। এতে ধর্মপালের পরাজয় ঘটে এবং পরে দাক্ষিণাত্য থেকে আগত রাষ্ট্রকূট রাজা ধ্রুব ধারা বর্ষের হাতে দুজনেই পরাজিত হন।

সে সময় থেকে নীলফামারীর ওই স্থানটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল। ধীরে, ধীরে সেখানকার অবকাঠামোগুলো মাটির নিচে চাপা পড়ে। তার নাম অনুসারে এলাকাটির নাম গড় ধর্মপাল হিসাবে প্রতিষ্ঠা পায়।

/এআর/এসটি/

সম্পর্কিত

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৫০

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে জুয়ার আসর থেকে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন—গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ১নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু (৫২), সদর উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে হুমায়ুন কবীর (৬৩), দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের রামপাড়া গ্রামের শামীম মিয়া (৪৫), নুরপুর গ্রামের রাইনুর ইসলাম রানু সরকার (৪৫), কশিগাড়ী গ্রামের শ্রী বকুল সরকার (৪৫) এবং সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার শহিদুল ইসলাম (৪২)।

গ্রেফতারকালে তাদের কাছ থেকে নগদ তিন লাখ ৯৪ হাজার টাকা, তিনটি মোটরসাইকেল ও পাঁচটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে আমরা জুয়া খেলার বিভিন্ন সরঞ্জাম ও নগদ অর্থসহ প্রায় সাড়ে আট লাখ টাকার মালামাল উদ্ধার করেছি। তাদের বিরুদ্ধে জুয়া আইনে মামলার পর আজ সকালে দিনাজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

বিয়ের দিন ধর্ষণের শিকার তরুণী

বিয়ের দিন ধর্ষণের শিকার তরুণী

বিলীন হওয়ার পথে ৩ গ্রাম

বিলীন হওয়ার পথে ৩ গ্রাম

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কারদাতারা অন্ধকারে হারিয়ে গেছে’

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কারদাতারা অন্ধকারে হারিয়ে গেছে’

যৌন হয়রানির অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার

যৌন হয়রানির অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩৩

কক্সবাজারের মহেশখালী এবং কুতুবদিয়ায় নির্বাচনি সহিংসতায় দুই জন প্রাণ হারিয়েছেন। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে মহেশখালীর কুতুবজোম ইউনিয়নের নোয়াপাড়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনায় একজন নিহত হন।

অন্যদিকে কুতুবদিয়া উপজেলার পিলটকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখলের সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে গুলিতে একজন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। ঘটনার পর দুটি কেন্দ্রেই ভোটগ্রহণ স্থগিত রয়েছে। 

মহেশখালীতে দুই পক্ষের গোলাগুলিতে নিহত হন আবুল কালাম (৪০) নামে এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় আরও সাত জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সকাল ১০ টার দিকে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী শেখ কামাল ও বিদ্রোহী প্রার্থী মোশাররফ হোসেন খোকনের সমর্থকরা কেন্দ্র দখলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে এ সময় গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে আবুল কালাম নামের একজন মারা যান।

মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, কেন্দ্র দখলের চেষ্টার সময় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে একজন নিহত হয়েছেন, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সাত জনকে কক্সবাজারের জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত রয়েছে বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে স্থানীয়রা জানান, কুতুবদিয়া উপজেলার পিলটকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় গুলিতে স্থানীয় মো. হোসেনের ছেলে আব্দুল হালিম (৩৫) গুলিতে হয়ে প্রাণ হারান। 

কুতুবদিয়া থানার ওসি ওমর হায়দার নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ঘটনার পর কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত আছে বলে জানান তিনি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩২

যশোরের নওয়াপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে। তবে রবিবার রাত থেকে বৃষ্টি হওয়ায় সকালে ভোটারের উপস্থিতি ছিল কম। অধিকাংশ কেন্দ্রে পানি জমে আছে। তবে এই পৌরসভায় প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোটগ্রহণ হওয়ায় ভোটারদের মাঝে ছিল ব্যাপক উৎসাহ। তাই কষ্ট হলেও বৃষ্টি ও কেন্দ্রের জলাবদ্ধতা উপেক্ষা করে এসে ভোট দিতে পেরে সন্তুষ্ট তারা।

বাংলা ট্রিবিউনের যশোর প্রতিনিধির পাঠানো ছবিতে দেখুন ভোট কেন্দ্রের পরিস্থিতি-

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

বৃষ্টিতে ভোটকেন্দ্রের চাল দিয়ে পড়ছে পানি 

বৃষ্টিতে ভোটকেন্দ্রের চাল দিয়ে পড়ছে পানি 

ছাতা মাথায় কেন্দ্রে খুলনার ভোটাররা 

ছাতা মাথায় কেন্দ্রে খুলনার ভোটাররা 

মোংলায় ভোটের আগের রাতে সহিংসতায় নারীর মৃত্যু

মোংলায় ভোটের আগের রাতে সহিংসতায় নারীর মৃত্যু

বেনাপোল ইমিগ্রেশনে ভারতফেরত বাংলাদেশির মৃত্যু

বেনাপোল ইমিগ্রেশনে ভারতফেরত বাংলাদেশির মৃত্যু

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪

শক্তিশালী বিরোধী দলগুলোর প্রার্থী না থাকায় রঙ হারিয়েছিল সোনাগাজী পৌর নির্বাচন। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে ভোটগ্রহণ শুরুর পর বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠে। ভোটকেন্দ্রে বহিরাগতদের ব্যাপক উপস্থিতির বিষয়ে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ভোটাররা। পুলিশ কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ জন বহিরাগতকে আটকও করেছে। 

সকাল ৮টা থেকে তিন স্তরের নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে পৌর এলাকার ৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। তবে কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। 

নির্বাচনে মেয়র পদে চার জন, সাধারণ ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ২৩ জন এবং সংরক্ষিত দুটি ওয়ার্ডে চার জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সংরক্ষিত ২ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে তাছলিমা আক্তার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

মেয়র পদের প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র অ্যাড. রফিকুল ইসলাম (নৌকা), ইসলামি আন্দোলনের হাফেজ মো. হিজবুল্লাহ (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ সেলিম (জগ) ও আবু নাছের (মোবাইলফোন)।

প্রথমবারের মতো এ পৌরসভার সব কটি কেন্দ্রেই ইভিএমে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। ৯টি কেন্দ্রের ৪৯ বুথে ৭৫টি ইভিএম মেশিনে ভোট দিচ্ছেন ১৫ হাজার ৯৮৫ জন ভোটার। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

নির্যাতন সইতে না পেরে গোপনাঙ্গ কেটে স্বামীকে হত্যা

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:০৯

ভোলার লালমোহন উপজেলায় পুরুষাঙ্গ ও গলাকেটে স্বামী হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত নারীকে (৩২) গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে উপজেলার ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের বালুর টেক এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। নিহতের বাড়ি উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নে।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাকসুদুর রহমান মুরাদ জানান, গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই নারী হত্যার কথা স্বীকার করে বলেছেন, তার স্বামী তাকে বিভিন্ন সময় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন। নির্যাতনে অসহ্য হয়ে রবিবার সকালে তাকে হত্যা করেন তিনি।

এ ঘটনায় রাতে লালমোহন থানায় প্রেস ব্রিফিং করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবুল কালাম আজাদ বলেন, রবিবার সকাল ৬টার দিকে নিজ ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় গলা ও পুরুষাঙ্গ কেটে স্বামীকে হত্যা করেন ওই নারী। পরে নিজের দুই সন্তান নিয়ে পালিয়ে যান। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তাকে ধলীগৌরনগর বালিরটেক থেকে তাকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে লালমোহন থানায় মামলা করেছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

এহসান এমডি রাগীবের প্রতারণা খতিয়ে দেখছে সিআইডি 

এহসান এমডি রাগীবের প্রতারণা খতিয়ে দেখছে সিআইডি 

এসপি কার্যালয়ের সামনে কনস্টেবলের ২ সন্তানকে ফেলে গেলেন মা

এসপি কার্যালয়ের সামনে কনস্টেবলের ২ সন্তানকে ফেলে গেলেন মা

হাজার কোটি টাকা ফেরত চান গ্রাহকরা

হাজার কোটি টাকা ফেরত চান গ্রাহকরা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

সোনাগাজীতে কেন্দ্রের গোপন কক্ষ থেকে ৯ বহিরাগত আটক  

নির্যাতন সইতে না পেরে গোপনাঙ্গ কেটে স্বামীকে হত্যা

নির্যাতন সইতে না পেরে গোপনাঙ্গ কেটে স্বামীকে হত্যা

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

মহেশখালীতে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে নিহত ১  

বিয়ের দিন ধর্ষণের শিকার তরুণী

বিয়ের দিন ধর্ষণের শিকার তরুণী

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশের খালে হাতির লাশ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশের খালে হাতির লাশ

চলছে ১৬০ ইউপির নির্বাচন, কেন্দ্রে নারী ভোটার বেশি

চলছে ১৬০ ইউপির নির্বাচন, কেন্দ্রে নারী ভোটার বেশি

সিনহা হত্যা মামলা: তৃতীয় দফা সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সিনহা হত্যা মামলা: তৃতীয় দফা সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সর্বশেষ

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঠিকভাবে কাজ করানোর দায়িত্ব আমার: এলজিআরডিমন্ত্রী

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঠিকভাবে কাজ করানোর দায়িত্ব আমার: এলজিআরডিমন্ত্রী

পারিশ্রমিকে ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কঙ্গনা

পারিশ্রমিকে ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কঙ্গনা

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

জুয়ার আসর থেকে ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

৬ ব্রোকারেজকে সতর্ক করলো বিএসইসি

৬ ব্রোকারেজকে সতর্ক করলো বিএসইসি

© 2021 Bangla Tribune