X
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কংগ্রেস-সিপিএম জোটের ভাবনার পেছনে অংক

সেই হিসেবেও মমতাই ফের ক্ষমতায়

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, ০৭:৪৬

কংগ্রেস-সিপিএম তৃণমূল থেমে যাচ্ছে ১২৬ আসনে, বিজেপি পাবে ৪টে, বিমল গুরুংয়ের গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ৩। আর ১৬১টা আসন ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে পেয়ে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসতে চলেছে কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোট! পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় মোট আসন সংখ্যা ২৯৪। অর্থাৎ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা তো বটেই, কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোট তার চেয়ে ডজন খানেকেরও বেশি আসন পাচ্ছে!
কোনও প্রাক-নির্বাচনি সমীক্ষা নয়, নিখিল ভারত কংগ্রেস কমিটির সদস্য এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র ওমপ্রকাশ মিশ্র দলের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে সম্প্রতি যে চিঠি লিখে কংগ্রেস-সিপিএম জোটের পক্ষে সওয়াল করেন, তাতেই এই হিসেবটি দেওয়া আছে। ওমপ্রকাশবাবু শুধু একজন পুরনো কংগ্রেসিই নন, তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক জন সম্মাননীয় অধ্যাপকও বটে। কাজেই, নিছক ভাবাবেগ নয়, যুক্তি, বিশ্লেষণ ও হিসেবের ভিত্তিতেই তিনি দলের হাইকমান্ডের কাছে তার হিসেব পেশ করবেন, সেটাই স্বাভাবিক এবং ওমপ্রকাশবাবু সেটাই করেছেন।
কিন্তু এক্ষেত্রে যুক্তি ও বিশ্লেষণের মানদণ্ডটা কী?
এই হিসেবে প্রধানত ধরে নেওয়া হয়েছে, ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে প্রবল ‘মোদি হাওয়া’-য় এই রাজ্যে বিজেপি যত ভোট পেয়েছিল, তার অন্তত ৪০ শতাংশ কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোটের দিকে চলে আসবে এবং তাতেই বাজিমাত করবে অতীতে পরস্পর যুযুধান থাকা এই দু’পক্ষের বর্তমান সম্ভাব্য নির্বাচনি আঁতাত।

বস্তুত, ভারতে ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে চতুর্মুখী লড়াই হয়েছিল। ওই ভোটে ‘দুধ কা দুধ, পানি কা পানি’-র ব্যাপারটা স্পষ্ট হয়ে যায়। কারণ, চার রাজনৈতিক পক্ষ- তৃণমূল, বামফ্রন্ট, কংগ্রেস ও বিজেপি ‌লড়েছিল আলাদা আলাদাভাবে। কেউ কারও জোট বা প্রাক নির্বাচনি সমঝোতায় যায়নি। সেবার আসমুদ্র হিমাচল ভারতের জনাদেশ মোটামুটিভাবে নরেন্দ্র মোদির পক্ষে গিয়েছিল। মমতা এই রাজ্যের মোট ৪২টা আসনের মধ্যে ৩৪টা পেয়ে তার গড় অটুট রাখলেও ২টো আসন জিতে নেয় বিজেপি, অনেকটা ওই মোদি হাওয়ার কারণেই। বহু আসনে বিজেপি দ্বিতীয় স্থানে চলে আসে। কংগ্রেস জেতে ৪টেতে আর বামফ্রন্ট ২টোয়। ভোট শেয়ার দেখা যায়, তৃণমূল পেয়েছে ৩৯ শতাংশ, বামফ্রন্ট ৩০, কংগ্রেস ১০ এবং বিজেপি ১৭ শতাংশ। বিধানসভাওয়ারি ফল হিসেব করে দেখা যায়, তৃণমূল এগিয়ে ২১৪টা, বামফ্রন্ট ৩১, কংগ্রেস ২৯ আর বিজেপি ২০টা আসনে।

জোট করতে ইচ্ছুক কংগ্রেস এবং সিপিএম দু’দলের নেতাদের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, প্রবল মোদি হাওয়ায় বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে একক লড়ে ২০১৪-তে ১৭ শতাংশ ভোট পেয়েছে। ওটাই এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত বিজেপি-র সেরা ফল। এখন কিন্তু মোদি হাওয়া অনেকটাই ফিকে। ‘আচ্ছে দিন’ বা আর্থিক সুদিন এখনও আসেনি। তা ছাড়া, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতি ‘অসহিষ্ণুতা’ নিয়ে বিজেপি ও মোদি সরকারের প্রতি দেশের একটা বড় অংশ বিরূপ। তা ছাড়া, ২০১৪-রটা ছিল লোকসভা নির্বাচন, কেন্দ্রে ক্ষমতায় কে বসবে, তার ভোট। এই রাজ্যের শাসনক্ষমতায় তৃণমূলের বিকল্প হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে বিজেপি সুযোগ পেয়েও পুরোপরি ব্যর্থ। কাজেই, মমতাবিরোধী ভোটের বেশির ভাগটাই বিজেপি’র দিকে না গিয়ে যাবে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের দিকে, আর সেই ভোট ভাগাভাগি হওয়ার সুযোগ নিয়ে মমতা যাতে ফের কেল্লা ফতে করতে না পারেন, সেটা নিশ্চিত করতেই জোট প্রয়োজন। জোটে ইচ্ছুক আলিমুদ্দিন স্ট্রিট (রাজ্যে সিপিএমের সদর কার্যালয়) ও বিধানভবন (প্রদেশ কংগ্রেসের সদর দফতর)-এর নেতারা ভাবছেন, দু’দলের প্রায় ৪০ শতাংশ ভোট তো থাকবেই আর সেইসঙ্গে বিজেপি-র সেই ১৭ শতাংশ ভোটের ৪০ শতাংশ তাদের দিকে স্যুইং করলেই মমতার ক্ষমতায় ফেরা আটকানো যাবে।

কিন্তু যেসব যুক্তি পর পর সাজিয়ে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছানো হয়েছে, তাতেই গলদ আছে যে!

প্রথম কথা, জোটের কথা ভাবা মানেই অংক মাথায় রাখা। কিন্তু কংগ্রেস-সিপিএম জোটের প্রবক্তারা সম্ভবত অংকের কেবল বাইরেটা দেখাচ্ছেন, অন্দরমহলটা গোপন করে যাচ্ছেন। ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে চার দলের ভোট শেয়ার একটু তলিয়ে দেখলে যেটা পাওয়া যাচ্ছে, দক্ষিণবঙ্গে অর্থাৎ তৃণমূল তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুর্ভেদ্য ঘাঁটি বলে যা পরিচিত এবং মোট ২৯৪টি বিধানসভা আসনের মধ্যে রাজ্যের যে প্রান্তে আসন সংখ্যা ২১৮, সেই জায়গায় তৃণমূলের ঝুলিতে এসেছিল ৪৪.১৭ শতাংশ ভোট। বামফ্রন্ট ৩০.৬৬ আর কংগ্রেস ৫.৩৯ শতাংশ। বিজেপি পেয়েছিল ১৬ শতাংশ ভোট। অর্থাৎ বিজেপি-র প্রাপ্ত ওই ভোটের ৪০ শতাংশ কংগ্রেস-বামফ্রন্টের অনুকূলে স্যুইং করলেও তৃণমূলের দুর্গে আঁচড় কাটা যাচ্ছে না। সেক্ষেত্রে শুধু দক্ষিণবঙ্গের জোরেই খেলা শেষ করে দিতে পারে তৃণমূল।

২০১৪-র ভোটের অংকের হিসেব মাথায় রাখলে বামফ্রন্ট-কংগ্রেস জোট তৃণমূলকে বেগ দিতে পারে মধ্য ও উত্তরবঙ্গে। কারণ, দু’বছর আগের সেই ভোট শেয়ার অনুযায়ী, রাজ্যের ওই প্রান্তে বামফ্রন্টের ভোট আছে ২৭.৫২ শতাংশ- যা সবার চেয়ে বেশি। দ্বিতীয় স্থানে তৃণমূল, ২৬.৩৫ শতাংশ ভোট নিয়ে। তৃতীয় স্থানে থাকা কংগ্রেসের ভোট ২২.৭ শতাংশ। সবশেষে বিজেপি, যে দলের ভোট ১৮ শতাংশ।

জোটের প্রবক্তারা যেটা বলছেন না, তৃণমূল কিন্তু ২০১৪-র লোকসভা ভোটের আগে মধ্য ও উত্তরবঙ্গে ছিল তিন নম্বর জায়গায়। ক্রমশ মমতার দল কংগ্রেসের কাছ থেকে ওই জায়গাটা ছিনিয়ে নিয়েছে মূলত কংগ্রেস ভাঙিয়ে। ২০১৪-র পরে দিনকে দিন কংগ্রেস দুর্বল থেকে দুর্বলতর হয়েছে, তৃণমূল তার শক্তি কমিয়ে দেওয়ায়। যেমন, জলপাইগুড়ি ভেঙে নতুন জেলা আলিপুরদুয়ারে জেলা পরিষদের সভাধিপতি হলেন তৃণমূলের। কিন্তু কে তিনি? কালচিনি এলাকার বহু পুরনো কংগ্রেস নেতা মোহন শর্মা। তেমনই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর নিজের জেলা মুর্শিদাবাদে তৃণমূলের দলীয় জেলা সভাপতির নাম মান্নান হোসেন। কংগ্রেসেরই এক সময়ের সাংসদ ও অধীরের ঘোর বিরোধী। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির নিজের জেলাতেও গত দু’বছরে কংগ্রেসকে কিছুটা হীনবল করেই তৃণমূল শক্তিশালী হয়েছে।

অথচ দক্ষিণবঙ্গে নতুন করে কংগ্রেস মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি।

সিপিএম তথা বামফ্রন্টের বিভিন্ন কর্মসূচিতে, মিটিং-মিছিলে লোক হচ্ছে। সিপিএমের শরীরে-মনে বল এসেছে, সত্যি কথা। কিন্তু এ টুকুই তৃণমূলকে ক্ষমতা থেকে হটানোর জন্য যথেষ্ট কি?

আর এক সময়ে রাজ্যের ক্ষমতায় থাকা সেই সিপিএমের প্রতি আজন্ম ঘৃণা লালন করে রাখা কোনও কংগ্রেস সমর্থক কি কাস্তে-হাতুড়ি-তারায় ভোট দেবেন? তেমনই কংগ্রেসকে চিরকাল শত্রু ও শোষক বলে জেনে আসা বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত গ্রামের সিপিএম কর্মী হাত চিহ্নের প্রার্থী হয়ে খাটবেন তো?

অস্বীকার করা যাবে না, মমতার আমলে অপশাসন আছে, দুর্নীতি আছে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির খারাপ হওয়া আছে, মুখ্যমন্ত্রীর অবিবেচক মন্তব্য আছে, শাসক দলের দাদাগিরি আছে, তোলাবাজি আছে। অন্য দিকে, রাজ্যে ভারী শিল্প নেই, চাকরি নেই, সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ্য ভাতা বা ডিএ প্রচুর বকেয়া।

কিন্তু সেই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ক্ষমতা থেকে হটানোর হাওয়াটাও নেই। অন্তত এখনও পর্যন্ত।

/এএইচ/

সম্পর্কিত

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০১

রাশিয়ার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সোমবার এক বন্দুকধারী শিক্ষার্থীর গুলিতে অন্তত আট জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও অনেকে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মস্কো থেকে এক হাজার ৩০০ কিলোমিটার পূর্বে পিয়ার্ম স্টেট ইউনিভার্সিটিতে এই বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। গুলির শব্দে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষের ভেতরে দরজা বন্ধ করে অবস্থান নেন। অনেক শিক্ষার্থী একটি ভবনের জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়ে পালানোর চেষ্টা করে।

পুলিশ জানিয়েছে, কিছুক্ষণের মধ্যেই বন্দুকধারীকে আটক করা হয়েছে। তবে আটকের সময় সে আহত হয়েছে।

/এমপি/

সম্পর্কিত

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৪৬

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। রবিবার নিউ ইয়র্কে তার্কিশ আমেরিকান ন্যাশনাল স্টিয়ারিং কমিটি (টিএএসসি) আয়োজিত এক সম্মেলনে অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম ডেইলি সাবাহ।

এরদোয়ান বলেন, মুসলিমবিদ্বেষ এবং বিদেশিদের বিরুদ্ধে অসহিষ্ণু মনোভাব পশ্চিমের রাজনীতিকে জিম্মি করে রেখেছে। এই বিদ্বেষ ও অসহিষ্ণুতা মুসলমানদের দৈনন্দিন জীবনকে ব্যাহত করছে।

তিনি বলেন, ইসলামোফোবিয়া এবং জেনোফোবিয়া এই উভয় মতাদর্শই রাষ্ট্রীয় নীতি ঠিক করে দিচ্ছে। এটি একটি ধ্বংসাত্মক ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে যা সামাজিক শান্তির জন্য সরাসরি হুমকি।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমরা একটি মারাত্মক ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছি। কোভিডের মতোই বিপজ্জনক এই ভাইরাসের নাম ইসলামোফোবিয়া। যেসব দেশ বহু বছর ধরে গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার গহ্বর হিসেবে চিত্রিত হয়েছে সেসব দেশেই এই ভাইরাস অত্যন্ত দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।’

এরদোয়ান বলেন, ইসলামোফোবিয়া এবং আইএসের সন্ত্রাসবাদ একই ধরনের আদর্শিক ধর্মান্ধতা।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম সম্প্রদায় বিশেষ করে ৯/১১-এর পরে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। অথচ তারা বৈধ ও গণতান্ত্রিক উপায়ে ঘৃণা ও বিদ্বেষের বিরুদ্ধে সাড়া দিয়েছে।

/এমপি/

সম্পর্কিত

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৫

রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনের ফলাফল আসতে শুরু করেছে। সেখানেও বাজিমাত করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলের ভিত্তিতে তার দল ইউনাইটেড রাশিয়া ব্যাপক ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে। সোমবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

৬৪ শতাংশ ব্যালট গণনার পর ইলেকশন কমিশন জানিয়েছে, গণনাকৃত ভোটের প্রায় ৪৮ শতাংশ পেয়েছে ইউনাইটেড রাশিয়া। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কমিউনিস্ট পার্টি পেয়েছে ২১ শতাংশ ভোট। জাতীয়তাবাদী এলডিপিআর পার্টি পেয়েছে আট শতাংশ ভোট। ফেয়ার রাশিয়া পার্টির ঝুলিতে গেছে প্রাপ্ত ভোটের সাত শতাংশ। ইউনাইটেড রাশিয়ার বাইরে বাকি তিনটি দলও বেশিরভাগ বিষয়ে পুতিন সরকারকে সমর্থন দিয়ে থাকে।

আলেক্সি নাভালনির নেতৃত্বাধীন বিরোধীদের কঠোর হাতে দমনের পর রবিবার তিন দিনব্যাপী নির্বাচনের চূড়ান্ত পর্যায়ের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নাভালনি সমর্থক নেতারা জনগণের প্রতি পুতিনের দলকে প্রত্যাখ্যান এবং দলটির বিরুদ্ধে যেখানে যার বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে সেখানে তাকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। এমনকি অনেক জায়গায় তারা কমিউনিস্টদেরও ভোট দিতে বলেছেন। তবে বিশেষ করে অনলাইনে নাভালনি সমর্থকদের তৎপরতা বন্ধে সচেষ্ট ছিল কর্তৃপক্ষ।

এদিকে সোমবার আংশিক ফল ঘোষণার পর উল্লাসে ফেটে পড়ে ইউনাইটেড রাশিয়ার সমর্থকরা। মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিনকে দলের প্রধান কার্যালয়ে সমর্থকদের নিয়ে স্লোগান দিতে দেখা যায়।

৪৫০ আসনের রুশ পার্লামেন্টে বর্তমানে প্রায় তিন চতুর্থাংশই ইউনাইটেড রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে। ২০২০ সালে এই সংখ্যাগরিষ্ঠতার বলে সংবিধানে একটি নতুন সংস্কার আনা হয়। এতে ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও দুই মেয়াদে অর্থাৎ, ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ রাখা হয়। সমালোচকদের মতে, ওই সংস্কার ছিল পুতিনকে আমৃত্যু ক্ষমতায় রাখার একটি অপকৌশল মাত্র।

/এমপি/

সম্পর্কিত

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

সাবমেরিন উত্তেজনা, ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কথা বলবেন বাইডেন

সাবমেরিন উত্তেজনা, ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কথা বলবেন বাইডেন

কাবুল বিমানবন্দর নিয়ে বাইডেনের সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

কাবুল বিমানবন্দর নিয়ে বাইডেনের সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫১

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে যাত্রা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। মার্কিন নেতৃত্বাধীন চীন-বিরোধী সামরিক জোট কোয়াডের সম্মেলনে অংশ নিতেই তার এ সফর। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

কোয়াড শব্দটি হচ্ছে মূলত ইংরেজি কোয়াড্রিলেটারেল বা চতুর্পাক্ষিকের সংক্ষিপ্ত রূপ। বাস্তবেও এটি চার দেশের সামরিক জোট। এর সদস্য দেশগুলো হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও ভারত। এই সবকটি দেশের সঙ্গেই চীনের সম্পর্কে উত্তেজনা বা অস্থিরতা রয়েছে।

আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কোয়াড শীর্ষ সম্মেলন। ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মের বাইরে জোটের নেতাদের সরাসরি অংশগ্রহণে এটিই প্রথম কোনও কোয়াড সম্মেলন। তবে এ ধরনের জোট আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলার জন্য ক্ষতিকর বলে মন্তব্য করেছে চীন।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এমন সময়ে এ সম্মেলনে অংশ নিতে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে যাত্রা করলেন যখন কয়েকশ‌’ কোটি ডলারের সাবমেরিন নির্মাণের চুক্তি নিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়েছে দেশটি।

চীনকে মোকাবিলায় সম্প্রতি অকাস নামের একটি নিরাপত্তা চুক্তিতে উপনীত হয় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া। এতে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে অস্ট্রেলিয়াকে পারমাণবিক সাবমেরিন নির্মাণের জন্য উন্নত প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। ওই চুক্তির পরপরই প্যারিসের সঙ্গে কয়েকশ‌’ কোটি ডলারের সাবমেরিন নির্মাণ চুক্তি বাতিলের ঘোষণা দেয় ক্যানবেরা। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ফ্রান্স। যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূতদেরও দেশে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

/এমপি/

সম্পর্কিত

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

সাবমেরিন বিতর্কে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলো ফ্রান্স

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা বৈঠক বাতিল

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৫

আফগানিস্তানের জালালাবাদে গত দুই দিনে তালেবান সদস্যদের লক্ষ্য করে বিস্ফোরণ ঘটানোর দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস। রবিবার জঙ্গিদের প্রপাগান্ডা মাধ্যম আমাকে প্রকাশিত পৃথক দুই বিবৃতিতে এ দায় স্বীকার করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, শনি ও রবিবার তালেবানের গাড়ি লক্ষ্য করে পৃথক তিনটি বোমা হামলা চালিয়েছে ইসলামিক স্টেট-খোরাসান (আইএস-কে)।

সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, রবিবার তালেবান সরকারের বর্ডার পুলিশের গাড়িতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে প্রাথমিকভাবে দুই বেসামরিকসহ অন্তত পাঁচজন নিহতের কথা জানা গেছে।

আগের দিন শনিবার একই শহরে একাধিক বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই অন্তত দুই তালেবান কর্মকর্তা নিহত হন। এতে আহত হন আরও ১৯ জন। তবে আহতদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক। সূত্র: রয়টার্স, হিন্দুস্তান টাইমস।

/এমপি/

সম্পর্কিত

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পাকিস্তানের কাছ থেকে ১২টি জঙ্গিবিমান কিনছে আর্জেন্টিনা

পাকিস্তানের কাছ থেকে ১২টি জঙ্গিবিমান কিনছে আর্জেন্টিনা

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়বেন বক্সিং স্টার

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়বেন বক্সিং স্টার

তালেবান শাসনে নিজেদের যেভাবে মানিয়ে নিচ্ছে আফগানরা

তালেবান শাসনে নিজেদের যেভাবে মানিয়ে নিচ্ছে আফগানরা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

পশ্চিমা দুনিয়ার রাজনীতি ইসলামবিদ্বেষের কাছে জিম্মি: এরদোয়ান

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

রাশিয়ার সাধারণ নির্বাচনেও বাজিমাত পুতিনের

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

ফ্রান্সের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সফরে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

পাকিস্তানের কাছ থেকে ১২টি জঙ্গিবিমান কিনছে আর্জেন্টিনা

পাকিস্তানের কাছ থেকে ১২টি জঙ্গিবিমান কিনছে আর্জেন্টিনা

সাবমেরিন বিতর্কে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলো ফ্রান্স

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা বৈঠক বাতিল

ফের মালয়েশিয়ার ক্ষমতায় ফিরতে চান দণ্ডিত নাজিব রাজাক

ফের মালয়েশিয়ার ক্ষমতায় ফিরতে চান দণ্ডিত নাজিব রাজাক

গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জোহানেসবার্গের নতুন মেয়র

গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জোহানেসবার্গের নতুন মেয়র

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়বেন বক্সিং স্টার

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়বেন বক্সিং স্টার

সর্বশেষ

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

রাশিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুক হামলা, নিহত ৮

মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ 

মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ 

ধারাবাহিক নাটকে ক্রিকেটার জাভেদ ওমর

ধারাবাহিক নাটকে ক্রিকেটার জাভেদ ওমর

প্রথমবারের মতো ভোট দিচ্ছে দেবীগঞ্জ পৌরসভার মানুষ

প্রথমবারের মতো ভোট দিচ্ছে দেবীগঞ্জ পৌরসভার মানুষ

রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন ড্রাইভার মালেকের স্বজনরা

রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন ড্রাইভার মালেকের স্বজনরা

© 2021 Bangla Tribune