X
শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ৮ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সুগন্ধী ফুলে অন্ধ স্ত্রীর জীবনে পূর্ণতা দিলেন প্রেমান্ধ স্বামী

আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, ১৮:৪৩
image

অন্ধ স্ত্রীকে মুগ্ধ করতে সুগন্ধী ফুলের চাষ করে বাড়ির চারপাশ ভরে ফেলেছেন ৮৬ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ। ভালোবাসার এই অপূর্ব দৃষ্টান্ত জাপানের পর্যটকদের অন্যতম প্রধান আকর্ষণে পরিণত হয়েছে।

জাপানের মিয়াজাকি অঞ্চলের এক ছোট শহর শিনতোমি। সেখানেই বাস করেন তোশিউকি এবং ইয়াসুকো। দুই সন্তান আর গোয়াল ভরা ৬০টি গরুর খামারবাড়ি নিয়ে সুখেই জীবন কাটাচ্ছিলেন এই দম্পতি।

ইয়াসুকো ও তোশিউকি

কিন্তু ৩০ বছর বিবাহিত জীবন কাটানোর পর, যখন ইয়াসুকোর বয়স ৫২, তার দৃষ্টিশক্তি কমতে শুরু করে। হঠাৎ করেই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়ে পুরোপুরি অন্ধ হয়ে যান তিনি। খামারের কাজ করতে অসমর্থ হয়ে পড়েন, জীবনের প্রতি সমস্ত আগ্রহও হারিয়ে ফেলেন একই সঙ্গে। এমনকি কারও সঙ্গে কথা বলা বা স্বাভবিক সব কাজ করাতেও অনীহা দেখা যায় তার মধ্যে।

ফুশিয়া ফুলে ছাওয়া খামারবাড়ি

সে সময় স্ত্রীকে জীবনে ফিরিয়ে আনতে অভূতপূর্ব এক পরিকল্পনা করেন তোশিউকি। নিজেদের বাগানেই ফুশিয়া নামের গোলাপি এক ফুলের সন্ধান পান তোশিউকি। তিনি টের পান, এই ফুল শুধু দেখতেই সুন্দর নয়, এতে রয়েছে অপূর্ব এক সৌরভ। তারপর থেকেই কাজে লেগে যান তোশিউকি। দুই বছর ধরে বাড়ি ও খামারের সর্বত্র ফুশিয়া ফুলের চাষ করেন এই বৃদ্ধ।

পর্যটকদের আকর্ষণ করছে এই ফুলের খামার

সুগন্ধী এই ফুলের আকর্ষণে আবারও জীবনের প্রতি আগ্রহ ফিরে পান তোশিউকির প্রিয়তমা স্ত্রী ইয়াসুকো। তিনি ঘর থেকে বের হয়ে আসেন, ঘুরে ফিরে বেড়ান বাড়ি আর খামারের আনাচে কানাচে।

শুধু তিনিই নন, প্রতি মার্চ এপ্রিলে এই খামারে ভিড় করেন শত শত পর্যটক। ফুলের সৌন্দর্যের পাশাপাশি তারা দেখতে পান প্রেমান্ধ এই বৃদ্ধ যুগলকেও। সূত্রঃ হাফিংটন পোস্ট

/ইউআর/বিএ/       

সম্পর্কিত

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২১:১২

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারিতেও থেমে নেই বাংলাদেশের অর্থনীতির সমৃদ্ধির চাকা। কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার হচ্ছে, এমন আশা-জাগানিয়া খবর দিলো এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক- এডিবি। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রফতানি ও রেমিট্যান্সের উপর ভর করে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার অব্যাহত বাংলাদেশে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (২৩ জুলাই) ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলা থেকে প্রকাশিত এশিয়ান ডেভলপমেন্ট আউটলুক (এডিও) সাপ্লিমেন্ট প্রতিবেদনে এশিয়ার অর্থনীতির ২০২১-২০২২ সালের পূর্বাভাস রয়েছে। গত এপ্রিলেও এডিও প্রকাশ করে এডিবি। তবে জুলাইতে এর সম্পুরক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো।
২০২০-২১ অর্থবছরে রপ্তানি, রেমিট্যান্স এবং রাজস্ব আয়ে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধির পরিসংখ্যান উল্লেখ করেছে তারা।

জুলাইয়ের আউটলুকে বলা হয়েছে, গত অর্থবছরের ২০২১ সালের জুনে শেষ হয়েছে। প্রথম ১১ মাসে বাংলাদেশের রফতানি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ৬ শতাংশে। প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মুদ্রার আয়ে ৩৯ দশমিক ৫ শতাংশে উন্নতি হয়েছে। ২০২১ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে দেশের রাজস্ব আদায় বেড়েছে ১২ দশমিক ৯ শতাংশ। আর এভাবেই বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার অব্যাহত রয়েছে।

তবে বাংলাদেশ, ভারতসহ কয়েকটি দেশে নতুন করে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এডিবি ২০২১ সালে এশিয়ার অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস আগের চেয়ে কিছুটা কমিয়েছে। এপ্রিলে ৭ দশমিক ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ছিল, যা এখন ৭ দশমিক ২ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। 

যদিও ২০২২ সালের জন্য আগের পূর্বাভাস ৫ দশমিক ৩ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৫ দশমিক ৪ শতাংশ ধরা হয়েছে। ২০২১ সালে দক্ষিণ এশিয়ার প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ৯ দশমিক ৫ থেকে ৮ দশমিক ৯ শতাংশে নামিয়েছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ব্লুমবার্গ-এ বাংলাদেশের প্রশংসায় ভারতীয় অর্থনীতিবিদ

ব্লুমবার্গ-এ বাংলাদেশের প্রশংসায় ভারতীয় অর্থনীতিবিদ

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:৫৯

সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসা ও আত্মত্যাগের নজির বারবার সামনে এসেছে। চীনের হেনান প্রদেশে ভয়াবহ বন্যার কবল থেকে সন্তানকে বাঁচাতে পারলেও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি মা। এমন হৃদয় বিদারক ঘটনা ছড়িয়ে পড়েছে সবর্ত্র।

গত কয়েদিন ধরে চীনের বেশ কয়েকটি অঞ্চল বন্যার পানিতে ভাসছে। প্রবল বর্ষণে হেনান প্রদেশেরও একই অবস্থা। বানের পানিতে তলিয়ে গেছে বহু ঘর-বাড়ি। আশ্রয়হীন বহু বাসিন্দা।

গত বুধবার হেনানের ওয়াংজংডিয়ান গ্রামে বন্যা-ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্ত একটি বাড়ির ভেতর থেকে এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। প্রায় ২৪ ঘণ্টা ধ্বংসস্তূপ আর কাঁদামাটির নিচে আটকা থেকেও অলৌকিকভাবে উদ্ধার হয় তিন থেকে চার মাস বয়সী শিশুটিকে। আর বৃহস্পতিবার মৃত অবস্থায় তার মাকে খুঁজে পাওয়া যায়।

খবরে বলা হয়েছে, ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়ে শিশু সন্তানসহ মা। কিন্তু সন্তানকে সুক্ষিত জায়গায় রেখে দেন তিনি। আর মায়ের দুই হাত উঁচু করা ছিল, ঠিক যেদিকে তার সন্তান সুরক্ষিত অবস্থায় বেঁচে রয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ঝৌহু স্থানীয় এক সংবদামাধ্যমকে বলেন, আমি শিশুটির কান্নার আওয়াজ শুনি। পরে উদ্ধারকর্মীরা ওই বাড়িতে এসে পৌঁছায় এবং শিশুটিকে বাঁচাতে সক্ষম হয়। তার মা তাকে সুরক্ষিত জায়গায় রেখে দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি আর বেঁচে নেই। শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চীনে বন্যায় এখন পর্যন্ত ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত কয়েক লাখ বাসিন্দাকে উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয় নেওয়া হয়েছে। ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতি সামনে আরও অবনিত আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

ভূমধ্যসাগরে ১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

ভূমধ্যসাগরে ১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:০২
video

উত্তর ভারতে বরযাত্রায় নাচ ও আতশবাজি ছাড়া বিয়ে অপূর্ণ থেকে যায়। তবে সম্প্রতি রাজস্তানে এমন একটি উদযাপনের আনন্দ মাঠে মারা গেছে যখন আতশবাজির শব্দে চমকে যাওয়া বিয়ের ঘোড়া বরকে দৌড় দেয়। ঘটনাটির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওটি আজমির জেলার নাসিরাবাদ শহরে রামপুরা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। বরযাত্রীরা যাত্রা শুরুর প্রস্তুতি নিতে রীতি হিসেবে ঘোড়াকে খাওয়াচ্ছিলেন। এমন সময় এক ব্যক্তি ঘোড়ার খুব কাছে একটি আতশবাজি ফোটান। এতে ওই প্রাণীটি ভয় পেয়ে যায়।

অকস্মাৎ ঘোড়াটি দৌড় দেয়। তখন পিঠে সওয়ার ছিলেন বর।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ঘোড়ার মালিক পিছনে ছুটছেন লাগাম ধরতে। তবে প্রাণীটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হন তিনি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ঘোড়াটি বরকে নিয়ে প্রায় চার কিলোমিটার দৌড়ানোর পর অবশেষে বরের পরিবার এটিকে ধরতে সক্ষম হন। তখন বরকে ঘোড়া থেকে নামানো হয়।

ভাগ্যবশত বর ও ঘোড়ার কোনও ক্ষতি হয়নি। কিছু সময় পর জয়পুরের উদ্দেশে ঘোড়ায় চড়েই বরযাত্রা শুরু করেন বর। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

/এএ/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

যুক্তরাষ্ট্রে বিমানযাত্রীর লাগেজে ১৫টি দৈত্যকার শামুক

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:৫১

পশ্চিম আফ্রিকার নিষিদ্ধ ১৫টি দৈত্যকার জীবন্ত শামুক, পাতা এবং গরুর মাংস পাওয়া গেছে একটি লাগেজের ভেতর। অবৈধভাবে বহন করায় যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস বিমানবন্দর থেকে এসব উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক এসব শামুক যুক্তরাষ্ট্রে আসায় চিন্তা পড়েছে প্রশাসন।

নাইজেরিয়া থেকে ফেরা যাত্রীর লাগেজের ভেতরে মাংস থাকার কথা উল্লেখ করলেও জীবন্ত শামুক পাওয়া যায়। পুলিশ শামুকগুলো উদ্ধার করে মার্কিন কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ)-এর কাছে হস্তান্তর করেছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, এগুলো অনুমতি ছাড়াই বহন করেছিল। এসব থেকে মানবদেহে মেনিনজাইটিস হতে পারে।

বিশ্বের সবেচেয় ক্ষতিকারক শামুকের তালিকায় রয়েছে। এগুলো পশ্চিম আফ্রিকায় পাওয়া যায়। সেখানকার লোকেরা এসব ক্ষতিকারক বড় শামুক তাদের খাদ্য তালিকায় রেখেছেন। এসব মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি)-এর তথ্য অনুসারে, এই রোগে বিশ্বের ৩০টি দেশের প্রায় ৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত। এই শামুক পরিবেশে গুরুতর ক্ষতির করার সক্ষমতা রয়েছে। ভবনেরও ক্ষতি করে থাকে। এটি পাঁচশ প্রকারের উদ্ভিদ খেতে পছন্দ করে, কিন্তু সবজি এবং ফল সহজে পাওয়া না গেলে গাছের ছাল এবং ভবনের রঙ নষ্ট করে থাকে।

ফ্লোরিডার দক্ষিণাঞ্চলে ১৯৬০ সালে এই আফ্রিকার শামুকের অস্তত্বি পাওয়া যায়। নির্মূল করতে ১০ বছর সময় লেগে যায়। ২০১১ সালে এই নিষিদ্ধ শামুক আবারও ফ্লোরিডায় ধরা পরে। এই শামুক বছরে ১২শ’ ডিম উৎপাদন করতে পারে। এখন নতুন করে অপসারণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

উত্তেজনার মধ্যেই চীন সফরে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী!

উত্তেজনার মধ্যেই চীন সফরে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী!

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

করোনারোধী পোশাক বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়ে বড় অংকের জরিমানা

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:২৪

অস্ট্রেলিয়ার একটি পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানকে ৫০ লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার জরিমানা করা হয়েছে। তাদের একটি পোশাক করোনাভাইরাস নির্মূল ও সংক্রমণ ঠেকায় দাবি করার পর এই জরিমানা করা হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে।

লোরনা জ্যান নামের প্রতিষ্ঠানটি একটি বিজ্ঞাপনে দাবি করে, তাদের যুগান্তকারী প্রযুক্তির এলজে শিল্ড নামের পোশাকটি সব ধরনের প্যাথোজেনের সংক্রমণ ঠেকায়।

তবে এক রুলে এক বিচারক বলেছেন, কোম্পানিটির এই দাবি ‘শোষণমূলক, লুণ্ঠনমূলক এবং সম্ভাব্য বিপজ্জনক’।

লোরনা জ্যান আদালতের সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছে।

পোশাকে করোনা ঠেকানোর দাবির বিজ্ঞাপন

কোম্পানিটির দাবি, তাদেরকে সরবরাহকারীরা ভুল পথে চালিত করেছে। কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী বিল ক্লার্কসন বলেন, এক বিশ্বস্ত সরবরাহকারী আমাদের কাছে এমন একটি পণ্য বিক্রি যা প্রতিশ্রুতি অনুসারে কাজ করেনি। তারা আমাদের বিশ্বাস করিয়েছে যে, এলজে শিল্ড পোশাক যে প্রযুক্তিতে তৈরি তা অস্ট্রেলিয়ার অন্য স্থানে, যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও তাইওয়ানে বিক্রি হচ্ছে। এটি ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসবিরোধী বলে সরবরাহকারীদের দাবি। আমরা ভেবেছি, পোশাকটি বিক্রির মাধ্যমে ক্রেতাদের উপকার করছি।

মহামারির মধ্যে জুলাই মাসে লোরনা জ্যান কোম্পানি পোশাকটির বিজ্ঞাপন শুরু করার পর অস্ট্রেলিয়ার কম্পিটিশন অ্যান্ড কনজ্যুমার কমিশন আদালতের দ্বারস্থ হয়।

শুক্রবার প্রকাশিত রায়ে বিচারক বলেছেন, লোরনা জ্যান ক্রেতাদের বলেছে এই পোশাকের পেছনে তাদের কাছে পর্যাপ্ত বৈজ্ঞানিক বা প্রযুক্তি রয়েছে। যদিও এই দাবির পক্ষে এমন কিছু তাদের ছিল না।

/এএ/

সম্পর্কিত

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

স্ত্রীর বেশ ধরে ইন্দোনেশীয় ফ্লাইটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

সম্পর্কিত

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তার বাসায় হানা মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর

জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তার বাসায় হানা মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর

জাপানে ভারী বর্ষণের পর ভূমিধস, নিখোঁজ ২০

জাপানে ভারী বর্ষণের পর ভূমিধস, নিখোঁজ ২০

আইসোলেশনে ১০ বছর!

আইসোলেশনে ১০ বছর!

টুনা মাছ ধরার কোটা বৃদ্ধির প্রস্তাব জাপানের

টুনা মাছ ধরার কোটা বৃদ্ধির প্রস্তাব জাপানের

জাপানের চিড়িয়াখানায় জায়ান্ট পান্ডার যমজ শাবকের জন্ম

জাপানের চিড়িয়াখানায় জায়ান্ট পান্ডার যমজ শাবকের জন্ম

জাপানের পানিসীমায় চীনা কোস্টগার্ডের জাহাজ

জাপানের পানিসীমায় চীনা কোস্টগার্ডের জাহাজ

৫০ বছরের অপেক্ষার পর!

৫০ বছরের অপেক্ষার পর!

জাপান ভ্রমণে সতর্ক করলো যুক্তরাষ্ট্র

জাপান ভ্রমণে সতর্ক করলো যুক্তরাষ্ট্র

সর্বশেষ

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

‘এক চীন’ নীতি থেকে সরে এলো জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

বাংলাদেশসহ ১৫ দেশকে এক কোটি ১০ লাখ টিকা দেবে জাপান

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে প্রবল বর্ষণ, লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

জাপানে ভূমিধসে নিখোঁজ বেড়ে ৮০, উদ্ধার তৎপরতায় সেনা

জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তার বাসায় হানা মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর

জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তার বাসায় হানা মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর

জাপানে ভারী বর্ষণের পর ভূমিধস, নিখোঁজ ২০

জাপানে ভারী বর্ষণের পর ভূমিধস, নিখোঁজ ২০

আইসোলেশনে ১০ বছর!

আইসোলেশনে ১০ বছর!

টুনা মাছ ধরার কোটা বৃদ্ধির প্রস্তাব জাপানের

টুনা মাছ ধরার কোটা বৃদ্ধির প্রস্তাব জাপানের

জাপানের চিড়িয়াখানায় জায়ান্ট পান্ডার যমজ শাবকের জন্ম

জাপানের চিড়িয়াখানায় জায়ান্ট পান্ডার যমজ শাবকের জন্ম

জাপানের পানিসীমায় চীনা কোস্টগার্ডের জাহাজ

জাপানের পানিসীমায় চীনা কোস্টগার্ডের জাহাজ

© 2021 Bangla Tribune