X
সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
১০ আষাঢ় ১৪৩১

গরু মোটাতাজা করতে ২০ লাখ টাকা ঋণ পাবেন কৃষক

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২১ নভেম্বর ২০২৩, ১৯:০১আপডেট : ২১ নভেম্বর ২০২৩, ১৯:৩২

গরু মোটাতাজা করতে এতদিন একজন কৃষককে ব্যাংক ২ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিতে পারতো ব্যাংক। এখন থেকে একজন কৃষককে গরু মোটাতাজা করতে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিতে পারবে ব্যাংকগুলো। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে।

সার্কুলারের তথ্য অনুযায়ী, ধান চাষ, মাছ চাষ, শাকসবজি, ফল ও ফুল চাষ, প্রাণিসম্পদ খাতের আওতায় পোলট্রি ও দুগ্ধ উৎপাদনের জন্য ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন কৃষক।

দেশে খাদ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ ব্যাংক ৫ হাজার কোটি টাকার যে তহবিল করেছে, সেখান থেকে ব্যাংকগুলো এই ঋণ দিয়ে আসছে। মাত্র ৪ শতাংশ সুদে মিলছে এই ঋণ। এই তহবিল থেকে ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত ঋণ দিতে পারবে ব্যাংকগুলো।

এর আগে গত বছরের ১৭ নভেম্বর জারি করা ‘দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কৃষি খাতের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল’ গঠন করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ কর্মসূচির ফলে কৃষি ও প্রাণিসম্পদ খাতে উৎপাদন বাড়বে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সার্কুলারে বলা হয়, বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে খাদ্যদ্রব্যের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে। এতে বিশ্বে খাদ্যসংকটের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে উৎপাদন বাড়ানো প্রয়োজন। কৃষি খাতে স্বল্প সুদে ঋণপ্রবাহ বজায় রাখার জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার একটি তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়, এই তহবিলের অধীনে ব্যাংকগুলো নিজস্ব নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ঋণ বিতরণ করবে। ক্ষুদ্র, প্রান্তিক, বর্গাচাষি ও ফসল (ধান, শাকসবজি, ফুল ও ফল) চাষের জন্য শুধু ফসল দায়বন্ধনের বিপরীতে এককভাবে জামানতবিহীন সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ বিতরণ করতে পারবে ব্যাংকগুলো।

শস্য ও ফসল খাতে সর্বোচ্চ পাঁচ একর জমিতে ফসল চাষের জন্য ঋণ পাবেন কৃষক। এসব ছাড়া অন্য খাতে ঋণের ক্ষেত্রে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে ন্যূনতম জামানত গ্রহণের বিষয়ে ব্যাংক সিদ্ধান্ত নেবে।

ঋণ পরিশোধে কৃষক বা গ্রাহক তিন মাসের গ্রেস পিরিয়ডসহ ১৮ মাস সময় পাবেন। এই তহবিলের ঋণ কোনোভাবেই গ্রাহকের পুরোনো ঋণের সঙ্গে সমন্বয় করা যাবে না। কোনও ঋণখেলাপি গ্রাহক এই ঋণ পাবেন না।

কৃষক পর্যায়ে ঋণ আদায়ের দায়িত্ব ব্যাংকের ওপরই থাকবে। ঋণ আদায়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের পাওনাকে সম্পর্কিত করা যাবে না। ঋণের বকেয়া নির্ধারিত মেয়াদের মধ্যে শোধ না হলে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে রক্ষিত সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের চলতি হিসাব সমন্বয় করে আদায় করা হবে।

/জিএম/এফএস/এমওএফ/
সম্পর্কিত
সুইস ব্যাংকে কমলো বাংলাদেশিদের জমানো অর্থ
ব্যাংক খাতে তারল্যের সংকট কোন পর্যায়ে
কাঁচা চামড়া সংরক্ষণে অর্থায়ন বাড়ালো ব্যাংক, এবার দাম কি বাড়বে?
সর্বশেষ খবর
সোনাক্ষী-জহিরের বিয়েতে মাঝরাতে হাজির ‘ঘটক’!
সোনাক্ষী-জহিরের বিয়েতে মাঝরাতে হাজির ‘ঘটক’!
দুর্নীতিতে অভিযুক্তদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা পেলে ব্যবস্থা: আইজিপি
দুর্নীতিতে অভিযুক্তদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা পেলে ব্যবস্থা: আইজিপি
বরিশালে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ২ জনের
বরিশালে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ২ জনের
১০ দিন পর ক্যালিফোর্নিয়ার পর্বতারোহী উদ্ধার
১০ দিন পর ক্যালিফোর্নিয়ার পর্বতারোহী উদ্ধার
সর্বাধিক পঠিত
ভারত, অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের সেমিফাইনালে ওঠার সমীকরণ
ভারত, অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের সেমিফাইনালে ওঠার সমীকরণ
‘কক্সবাজারে সেনানিবাস না থাকলে দখল করে নিতো আরাকান আর্মি’
‘কক্সবাজারে সেনানিবাস না থাকলে দখল করে নিতো আরাকান আর্মি’
হিজবুল্লাহ’য় যোগ দিতে ইচ্ছুক ইরান-সমর্থিত হাজারো যোদ্ধা
ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধহিজবুল্লাহ’য় যোগ দিতে ইচ্ছুক ইরান-সমর্থিত হাজারো যোদ্ধা
ওসিকে ধাক্কা দিয়ে চাকরি হারালেন সেই এএসআই
ওসিকে ধাক্কা দিয়ে চাকরি হারালেন সেই এএসআই
আঠাবিহীন কাঁঠাল চাষে চমক, তিন মাসেই ফল, দেবে বারো মাস
আঠাবিহীন কাঁঠাল চাষে চমক, তিন মাসেই ফল, দেবে বারো মাস