X
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪
১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ওঠানামা করছে মুরগির দাম, বাড়ছে সবজির

আসাদ আবেদীন জয়
১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:৩০আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১৮:৪৯

ঈদের আগে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ২৩৫ থেকে ২৫০ কেজিতে। কিছু কিছু জায়গায় এর থেকেও বেশি দামে বিক্রি হয়েছে। ঈদ ও পহেলা বৈশাখের পর গত সোমবার (১৫ এপ্রিল) ক্রেতাশূন্য বাজারেও ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ২৩০-২৩৫ টাকায়। আজ শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) তা আরও কিছুটা দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ২১০-২২০ টাকা কেজি দরে। ব্রয়লারের দাম কমলেও বেড়েছে কক মুরগির দাম। আর অপরিবর্তিত আছে গরু ও খাসির মাংসের দাম।

কেবল মাংসের বাজার ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে তাই নয়। রমজান শেষ হওয়ার পর থেকেই বাড়তে শুরু করেছে সবজির দাম। সাধারণ মানুষের ঘাড়ে আবারও ভর করছে দ্রব্যমূল্যের বাড়তি চাপ।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাজধানীর মিরপুর ১ নম্বরের কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বর্তমান পরিস্থিতি। 

ব্রয়লারের দাম একটু কমলেও বেড়েছে কক মুরগির দাম

ঈদের আগে থেকেই চড়ছিল মাংসের বাজার। ঈদ শেষেও তা ওঠানামায় আছে। ব্রয়লার মুরগির দাম কমলেও সেটাকে আসলে দাম কমা বলা চলে না।  আজ বাজারে ওজন অনুযায়ী ব্রয়লার মুরগি ২১০-২২০  টাকা, কক মুরগি ৩৪০-৩৫০ টাকা, লেয়ার মুরগি ৩২৫-৩৩০ টাকা, দেশি মুরগি ৬৫০ টাকা, গরুর মাংস ৭৮০ টাকা, খাসির মাংস ১১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর মুরগির লাল ডিম ১২০  টাকা এবং সাদা ডিম ১১০ টাকা প্রতি ডজন বিক্রি হচ্ছে।

গত সোমবারের তুলনায় ব্রয়লার মুরগি ও লেয়ার মুরগির দাম কমেছে যথাক্রমে ১৫-২০ ও ১০-১৫ টাকা। কক মুরগির দাম বেড়েছে ১০ টাকা। আর গরু ও খাসির মাংসের উচ্চমূল্য অপরিবর্তিত রয়েছে।

ব্রয়লার মুরগির দাম কেন কমছে না জানতে চাইলে দোকানি মাসুদ বলেন, দাম বাড়ানো-কমানোয় আমাদের হাতে নেই। আমরা যেমন দামে কিনি তেমন দামেই বিক্রি করি।

আরেক বিক্রেতা ইকবাল বলেন, অনেক আগে একসময় গরু আর মুরগির মাংসের দাম এক ছিল। এখন গরুর মাংস ৮০০ টাকা, তাহলে মুরগির মাংস তো ২০০ টাকার উপরেই হবে।

ব্রয়লার মুরগি কিনতে এসেছিলেন রিজু। তিনি বলেন, ব্রয়লার মুরগির দাম যদি ২০০ টাকার ওপরে হয় তাহলে আমরা খাবো কীভাবে?

আরেক ক্রেতা মনসুর আহমেদ বলেন, ঈদ তো চলেই গিয়েছে, কিন্তু মাংসের দাম কমছে না। যারা গরিব মানুষ তাদের মাংস খাওয়া বন্ধ করে দিতে হবে।

রমজান শেষ হওয়ার পর থেকেই বাড়ছিল সবজির দাম, এখন গরম বাড়ায় এই দামবৃদ্ধির পালে যেন আরও হাওয়া লেগেছে

মাংসের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে সবজির দামও। রোজার সময় দাম কমলেও ঈদের পরে সবজির বাজার রয়েছে ঊর্ধ্বমুখী। আজ বাজারে টমেটো ৫০ টাকা, টক টমেটো ৬০ টাকা, দেশি গাজর ৬০ টাকা, লম্বা বেগুন ৬০ টাকা, সাদা গোল বেগুন ৭০ টাকা, কালো গোল বেগুন ৮০ টাকা, শসা ৪০-৬০ টাকা, উচ্ছে ৮০ টাকা, করল্লা ৮০ টাকা, কাঁকরোল ১২০ টাকা, পেঁপে ৬০ টাকা,  মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা, ঢেঁড়স  ৫০ টাকা, পটল ৮০ টাকা,  চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, ধুন্দল ৬০ টাকা, ঝিঙা ৮০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, কচুর লতি ৭০-৮০ টাকা, সজনে ১০০-১২০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১০০ টাকা, ধনেপাতা ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। মানভেদে প্রতিটি লাউ ৬০-৮০ টাকা, চাল কুমড়া ৪০-৬০ টাকা, ফুলকপি ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি হালি লেবু বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা করে। এক্ষেত্রে দেখা যায়, বেশিরভাগ সবজির দাম বেড়েছে ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত। তবে কিছু সবজির দাম কমেছে ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত। 

বিক্রেতারা বলছেন, ক্রেতা ও গরম বাড়ার কারণে সবজির দামও বাড়ছে। সবজি বিক্রেতা খলিল বলেন, অনেক দিন মানুষ কম দামে সবজি পেয়েছে, এখন কিছুটা বাড়বে। আর গরমের কারণে অনেক সবজি নষ্ট হয়ে যায়, এটাও দাম বাড়ার একটা কারণ।

বৃষ্টি হলে সবজির দাম আরও বাড়বে জানিয়ে আরেক বিক্রেতা জাফর বলেন, এখন তো দাম বেশিই আছে কিছুটা। বৃষ্টি হলে সবজির আরও দাম বেড়ে যাবে।

এ বিষয়ে এক ক্রেতা বলেন, সবজির দাম ব্যবসায়ীরা বাড়াবে এটাই হচ্ছে আসল কথা। এখন রোদ বৃষ্টি হচ্ছে একটা উছিলা।

ঈদ চলে গেলেও পেঁয়াজ-রসুনের দাম কমছে না

এদিকে আজ বাজারে মানভেদে দেশি পেঁয়াজ  ৬০-৭০ টাকা, লাল ও সাদা আলু ৫৫ টাকা, বগুড়ার আলু ৭০ টাকা, নতুন দেশি রসুন ১৬০ টাকা, চায়না রসুন ২২০ টাকা, চায়না আদা ২২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

আলু পেঁয়াজ বিক্রেতা শরীফ বলেন, আলু পেঁয়াজের দাম বাড়ার পর মানুষের কেনা আরও বেড়ে গিয়েছে। আজ তো মনে হয় আমি চাঁদরাতের মতো বিক্রি করলাম।

দেশি রসুনের দাম কমেছে কিনা জানতে চাইলে শরীফ বলেন, দাম কমে নাই। আজকের রসুনের সাইজ ছোট বলে দাম কিছুটা কম। আসলে দাম কমে নাই।

মাছের বাজারে দাম আগের মতোই

এছাড়া আজকের বাজারে ইলিশ ওজন অনুযায়ী ১৪০০-২০০০ টাকা, রুই ৪০০-৭০০ টাকা, কাতল ৪০০-৬০০ টাকা, কালিবাউশ ৫০০- ৭০০ টাকা, চিংড়ি মাছ ৮০০-১২০০ টাকা, কাঁচকি ৫০০ টাকা, কৈ ৩০০-৫০০ টাকা, পাবদা ৪০০-৬০০ টাকা, শিং ৪০০-১৪০০ টাকা, টেংরা ৫০০-১০০০ টাকা, মেনি ৫০০-৮০০ টাকা, বেলে ৮০০-১৪০০ টাকা, বোয়াল ৭০০-১২০০ টাকা, রূপচাঁদা মাছ ৮০০-১৪০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এদিকে সবকিছুর দাম বাড়তে থাকলেও মুদি পণ্যের দাম রয়েছে অপরিবর্তিত। তবে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে প্রতি লিটারে ৪ টাকা, খোলা সয়াবিন তেলের দাম কমেছে প্রতি লিটারে ২ টাকা। আর ছোট মুগডালের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ১০ টাকা।

মুগডাল ছাড়া মুদি দোকানের সব পণ্য বিক্রি হচ্ছে আগের দামে

আজ প্যাকেট পোলাওর চাল ১৫৫ টাকা, খোলা পোলাওর চাল মানভেদে ১১০-১৪০ টাকা, ছোট মসুরের ডাল ১৪০ টাকা, মোটা মসুরের ডাল ১১০ টাকা, বড় মুগ ডাল ১৬০ টাকা, ছোট মুগ ডাল ১৯০ টাকা, খেসারি ডাল ১২০ টাকা, বুটের ডাল ১১৫ টাকা, ডাবলি ৮০ টাকা, ছোলা ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আর প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৬৭ টাকা, খোলা সয়াবিন তেল ১৪৭ টাকা, কৌটাজাত ঘি ১৩৫০ টাকা, খোলা ঘি ১২৫০ টাকা, প্যাকেটজাত চিনি ১৪৫ টাকা, খোলা চিনি ১৩৫, টাকা, দুই কেজির প্যাকেট ময়দা ১৫০ টাকা, আটা দুই কেজির প্যাকেট ১৩০ টাকা, খোলা সরিষার তেল প্রতি লিটার ১৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ছবি: প্রতিবেদক

/এফএস/এমওএফ/
সম্পর্কিত
খালের টেকসই উন্নয়নে নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে কাজ করবে ডিএনসিসি
দিনে-দুপুরে ব্যবসায়ীর ৭০ লাখ টাকা ডাকাতি, গ্রেফতার ৩
পানির দাম বাড়ালো ওয়াসা, জুলাই থেকে কার্যকর
সর্বশেষ খবর
পিতার নাম পাল্টে ফেলেছে বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিনের সন্তানরা
ইসিকে ব্যবস্থা নিতে সরকারের চিঠিপিতার নাম পাল্টে ফেলেছে বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিনের সন্তানরা
রাঙামাটির দুই উপজেলার নির্বাচনে জয় পেলেন যারা
রাঙামাটির দুই উপজেলার নির্বাচনে জয় পেলেন যারা
বাংলাদেশে অস্ট্রেলিয়ার বিনিয়োগ চায় এফবিসিসিআই
বাংলাদেশে অস্ট্রেলিয়ার বিনিয়োগ চায় এফবিসিসিআই
খাদ্যপণ্যে মূল্যস্ফীতির লাগাম টানবে কে?
খাদ্যপণ্যে মূল্যস্ফীতির লাগাম টানবে কে?
সর্বাধিক পঠিত
ধান বিক্রি করে ৯৬ হাজার টাকা পেলেন প্রধানমন্ত্রী
ধান বিক্রি করে ৯৬ হাজার টাকা পেলেন প্রধানমন্ত্রী
ট্রান্সকম গ্রুপের সিইও সিমিন রহমানসহ ৪ জনের রিমান্ড নামঞ্জুর
ট্রান্সকম গ্রুপের সিইও সিমিন রহমানসহ ৪ জনের রিমান্ড নামঞ্জুর
শান্তি সম্মেলনে বাইডেনের অনুপস্থিতিতে হাততালি দেবেন পুতিন: জেলেনস্কি
শান্তি সম্মেলনে বাইডেনের অনুপস্থিতিতে হাততালি দেবেন পুতিন: জেলেনস্কি
ব্যাংক বাড়ায় সুদ, টাকা যায় মানুষের পকেটে!
ব্যাংক বাড়ায় সুদ, টাকা যায় মানুষের পকেটে!
কলা সহজে কালো হবে না এই ৪ টিপস মানলে
কলা সহজে কালো হবে না এই ৪ টিপস মানলে