শামেরান আবেদ আবারও বিকাশের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:০৭, অক্টোবর ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১১, অক্টোবর ২৯, ২০২০

শামেরান আবেদদেশের বৃহত্তম মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের পরিচালনা পর্ষদ শামেরান আবেদকে দ্বিতীয়বারের জন্য চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে। গত মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে তিনি আবারও চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর আগে ২০১৫ সালের নভেম্বরে তিনি প্রথমবার ৫ বছরের জন্য চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। শামেরান আবেদ ব্র্যাকের সিনিয়র ডিরেক্টর এবং ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডসহ বেশ কয়েকটি সংস্থার পরিচালনা পর্ষদের সদস্য।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বিকাশের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।পরিচালনা পর্ষদের ওই বৈঠকে ‘অ্যান্ট গ্রুপের’ মনোনীত পরিচালক ডগলাস ফেইগেনের পদত্যাগপত্র গৃহীত হয় এবং তার পদে গৌমিং চেং-কে স্বাগত জানানো হয়। বিকাশের পরিচালনা পর্ষদের অন্য সদস্যরা হলেন— ব্র্যাক ব্যাংক মনোনীত সেলিম আর. এফ. হোসেন, কাজী মাহমুদ সাত্তার, ব্যারিস্টার নিহাদ কবির ও রায়ান গিলবার্ট, মানি ইন মোশন মনোনীত নিকোলাস হিউজ ও অরুন গোর, আইএফসি মনোনীত অ্যান্ডি দেরভিশি এবং অ্যান্ট গ্রুপ মনোনীত কেনি ম্যান।

বিকাশ লিমিটেড (বিকাশ) বাংলাদেশের একটি ব্যাংক-লেড মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডার, যা ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের সাবসিডিয়ারি কোম্পানি হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক লাইসেন্স প্রাপ্ত। বিকাশ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার গ্রাহককে বিশেষ করে ব্যাংকিং সেবার বাইরে থাকা জনগোষ্ঠীকে বিবেচনায় রেখে সহজে, নিরাপদে এবং সুবিধাজনক উপায়ে পেমেন্ট এবং অর্থ স্থানান্তরের সেবা দিয়ে থাকে। এই মুহূর্তে বিকাশ বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। বিকাশ ২০১০ সালে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ এবং মানি ইন মোশন এলএলসি, ইউএসএ- এর  যৌথ উদ্যোগ হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের সদস্য ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) ইকুইটি পার্টনার হিসেবে এবং ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ইনভেস্টর হিসেবে বিকাশে যোগদান করে। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে বিকাশে বিনিয়োগ করে চীনের আলিবাবা গ্রুপের অ্যাফিলিয়েট  অ্যান্ট গ্রুপ (সাবেক অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল)।

 

/জিএম/এপিএইচ/

লাইভ

টপ