সেকশনস

‘গণপরিবহন বন্ধ রেখে প্রাইভেট গাড়ি চলাচলের অনুমতি আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত’

আপডেট : ২৩ মে ২০২০, ১৬:৩৭

যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও ঈদের দুদিন আগে সারাদেশে প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাসে ঈদযাত্রার অনুমতি দেওয়াকে সরকারের আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত বলে দাবি করেছে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। ঈদুল ফিতরে ঈদযাত্রা ঠেকাতে না পারায় বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনা প্রতিরোধে ও ঝুঁকিপূর্ণ যাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণেও সরকার ব্যর্থ হবে বলে আশংকা প্রকাশ করেছে সংগঠনটি। শনিবার (২৩ মে) সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. সামসুদ্দীন চৌধুরীর সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি জানানো হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিশ্বজুড়ে মহামারি আকারে ছড়ানো করোনা প্রতিরোধের জন্য এবারের ঈদুল ফিতরের ঈদযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করেছিল সরকার। কয়েকদিন আগে ঈদে কঠোরভাবে যানবাহন নিয়ন্ত্রণের কথা বলেছিলেন পুলিশ প্রধান। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে ঈদের দু’দিন আগে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ রেখে প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাসে ঈদযাত্রার অনুমতি দেয় সরকার। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে এক শ্রেণির প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাসের মালিক অতিরিক্ত মুনাফা আদায়ের জন্য গাড়ি রিজার্ভ দেখিয়ে ভাড়ায় চলাচলের অনুমতি দেয়। এতে মানা হচ্ছে না কোনও স্বাস্থ্যবিধি। সড়ক-মহাসড়কে গাদাগাদি করে যাত্রী উঠা-নামা করছে এই ব্যক্তিগত পরিবহনগুলো। এদিকে সারাদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলছে। প্রতিদিন লাশের মিছিলে যোগ হচ্ছে বেশ কিছু মানুষ। শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি ও দৌলোদিয়া-পাটুরিয়া ফেরী ঘাটে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছে সাধারণ মানুষ।  

বিজ্ঞপ্তিতে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন চৌধুরী আরও বলেন,  ঈদের আমেজ নিয়ে সাধারণ যাত্রীরা যেভাবে প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাসে গাদাগাদি করে বাড়ি ছুটছে তাতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে।

সংগঠনটির দাবি, যদি শর্তসাপেক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নজরদারিতে সীমিত আকারে আন্তঃজেলা বাস চলাচলের অনুমতি দেওয়া হতো তাহলে করোনা সংক্রমণের হাত থেকে কিছুটা হলেও জনগণকে রক্ষা করা যেত। কিন্তু এখন যেভাবে প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাসে গাদাগাদি করে ঈদযাত্রা চলছে, আমি মনে করি সারাদেশে বিপুল ভাবে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে।

ঈদে বাড়ী যাওয়া ও ঈদফেরত যাত্রীদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করার দাবিও জানিয়েছে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

/এমআর/

সম্পর্কিত

সাতক্ষীরায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় সাহেদের বিচার শুরু

সাতক্ষীরায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় সাহেদের বিচার শুরু

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

শপথ নিলেন পিএসসি’র নতুন দুই সদস্য

শপথ নিলেন পিএসসি’র নতুন দুই সদস্য

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

শত কোটি টাকার সাপের বিষসহ গ্রেফতার ৩

শত কোটি টাকার সাপের বিষসহ গ্রেফতার ৩

‘পরিবেশবিষয়ক আইন ও বিধি যুগোপযোগী করা হবে’

‘পরিবেশবিষয়ক আইন ও বিধি যুগোপযোগী করা হবে’

পিতার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের মামলা: রায় ৯ ফেব্রুয়ারি

পিতার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের মামলা: রায় ৯ ফেব্রুয়ারি

৬৩ কেজি সোনা চোরাচালান: ৩ জনের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

৬৩ কেজি সোনা চোরাচালান: ৩ জনের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

দুদকের মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ মার্চ

দুদকের মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ মার্চ

রাজউকের প্লট জালিয়াতি: হাসেমপুত্রসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

রাজউকের প্লট জালিয়াতি: হাসেমপুত্রসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

হিন্দি সিনেমা দেখে ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবি এক কিশোরের

হিন্দি সিনেমা দেখে ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবি এক কিশোরের

৪ দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

৪ দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

সর্বশেষ

সাতক্ষীরায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় সাহেদের বিচার শুরু

সাতক্ষীরায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় সাহেদের বিচার শুরু

বড়বোনকে বিয়ে করতে না পেরে ছোটবোনকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা

বড়বোনকে বিয়ে করতে না পেরে ছোটবোনকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা

নির্মাণ ও সংস্কারের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য চেয়েছে সরকার

নির্মাণ ও সংস্কারের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য চেয়েছে সরকার

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

শপথ নিলেন পিএসসি’র নতুন দুই সদস্য

শপথ নিলেন পিএসসি’র নতুন দুই সদস্য

পশ্চিম তীরে মসজিদ গুড়িয়ে দিলো ইসরায়েল

পশ্চিম তীরে মসজিদ গুড়িয়ে দিলো ইসরায়েল

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

শত কোটি টাকার সাপের বিষসহ গ্রেফতার ৩

শত কোটি টাকার সাপের বিষসহ গ্রেফতার ৩

‘পরিবেশবিষয়ক আইন ও বিধি যুগোপযোগী করা হবে’

‘পরিবেশবিষয়ক আইন ও বিধি যুগোপযোগী করা হবে’

নেটফ্লিক্সে উঠছে ফারুকী-ইরফানের ‘ডুব’

নেটফ্লিক্সে উঠছে ফারুকী-ইরফানের ‘ডুব’

মুজিববর্ষে ঘর পেলো ৭০ হাজার পরিবার

মুজিববর্ষে ঘর পেলো ৭০ হাজার পরিবার

টলিউডের ‘ডিকশনারি’ নিয়ে হাজির মোশাররফ করিম

ভিডিওতে টলিউডের মোশাররফ করিম

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৭ জনের কারাদণ্ড

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

পিতার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের মামলা: রায় ৯ ফেব্রুয়ারি

পিতার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের মামলা: রায় ৯ ফেব্রুয়ারি

৬৩ কেজি সোনা চোরাচালান: ৩ জনের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

৬৩ কেজি সোনা চোরাচালান: ৩ জনের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

দুদকের মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ মার্চ

দুদকের মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২১ মার্চ

রাজউকের প্লট জালিয়াতি: হাসেমপুত্রসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

রাজউকের প্লট জালিয়াতি: হাসেমপুত্রসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

হিন্দি সিনেমা দেখে ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবি এক কিশোরের

হিন্দি সিনেমা দেখে ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবি এক কিশোরের

৪ দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

৪ দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

গ্রাম পুলিশদের বেতন গ্রেড নিয়ে হাইকোর্টের রায় স্থগিত

গ্রাম পুলিশদের বেতন গ্রেড নিয়ে হাইকোর্টের রায় স্থগিত


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.