সেকশনস

সহকর্মীদের পেট্রোলের আগুনে দগ্ধ যুবক মারা গেছেন

আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০২:০৫

রিয়াদ হোসেন রাজধানীর শ্যামপুরে সহকর্মীদের দেওয়া পেট্রোলের আগুনে দগ্ধ যুবক রিয়াদ হোসেন (২০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১টার দিকে তিনি মারা যান। বাংলা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া।

এর আগে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) আশঙ্কাজনক অবস্থায় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয় রিয়াদকে। তার শরীরের ৪০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

ওই দিন সকালে শ্যামপুরের সালাউদ্দিন ফিলিং স্টেশনের কর্মচারী এই রিয়াদের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় তার সহকর্মীরা। দগ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। মজা করার ছলে একজন আরেক জনকে ক্ষেপাতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানায়।

এ বিষয়ে শ্যামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল ইসলাম বলেন, ‘এ ঘটনায় তিন জনকে আসামি করে থানায় মামলা হয়েছে। তিন জনকেই গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।’

রিয়াদের বাবা ফরিদ হোসেন জানান, রিয়াদ সিদ্ধেশ্বরী বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্সের শিক্ষার্থী। পড়াশোনার পাশাপাশি খণ্ডকালীন সালাউদ্দিন ফিলিং স্টেশনে কাজ করে। তার সহকর্মীরা তাকে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। তবে কী কারণে তারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু জানতে পারেননি।

শ্যামপুর থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) মাহাবুব জানান, এ ঘটনায় গ্রেফতার তিন জন হচ্ছে– মাহমুদ হাসান ইমন (২২), মো. ফরহাদ আহামেদ পাভেল (২৮) ও শহিদুল ইসলাম রনি (১৮)।

ঘটনার বর্ণনায় পুলিশের এই এসআই বলেন, ‘ইমন ঘুমিয়ে ছিল। পাভেল ও রনি মিলে রিয়াদকে দিয়ে ইমনকে ঘুম থেকে জাগানোর কথা বলে। রিয়াদ তাকে ডাকলে সে ঘুম থেকে উঠবে না বলে জানায়। তারা আবার রিয়াদকে দিয়ে জোর করে এক মগ (২৫০ গ্রাম) অকটেন তার শরীরের ঢেলে দেয়। পরে ইমন ঘুম থেকে উঠলে, পাভেল আর রনি রিয়াদের কথা বলে। ইমন রেগে গিয়ে রিয়াদের গায়ে পেট্রোল ঢেলে দেয়াশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে তারাই আবার আগুন নিভিয়ে, হাসপাতালে নিয়ে যায়।’

 

/এসএইচ/এআইবি/এমএএ/

সম্পর্কিত

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

হাজারীবাগে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে

হাজারীবাগে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে

চুরি হওয়া সেই নবজাতক ২৭ ঘণ্টা পর উদ্ধার

চুরি হওয়া সেই নবজাতক ২৭ ঘণ্টা পর উদ্ধার

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

এমপি একরামুলকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি

এমপি একরামুলকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি

সর্বশেষ

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে সরকার

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

উপহারের ঘর পেয়ে জেলায় জেলায় গৃহহীনদের হাসিমুখ

এতদিনে পাকির আলী হাসলেন

এতদিনে পাকির আলী হাসলেন

লালু প্রসাদ যাদবের স্বাস্থ্যের অবনতি, নেওয়া হচ্ছে দিল্লি

লালু প্রসাদ যাদবের স্বাস্থ্যের অবনতি, নেওয়া হচ্ছে দিল্লি

পরপর তিন বার দল ক্ষমতায় থাকায় অনেকের মাঝে আলস্য এসেছে: তথ্যমন্ত্রী

পরপর তিন বার দল ক্ষমতায় থাকায় অনেকের মাঝে আলস্য এসেছে: তথ্যমন্ত্রী

চীনের উহানে লকডাউন ঘোষণার বর্ষপূর্তি

চীনের উহানে লকডাউন ঘোষণার বর্ষপূর্তি

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

খুবির এক শিক্ষক বরখাস্ত, অপর ২ জনকে অপসারণে সিন্ডিকেটে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

সিলেট পেলো আরেকটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

সিলেট পেলো আরেকটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলবে পুলিশ সদস্যরাও: আইজিপি

হাজারীবাগে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে

হাজারীবাগে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে

এমপি একরামুলকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি

এমপি একরামুলকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি

রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল ছিটকে নিহত ২

রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল ছিটকে নিহত ২

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে ৬৩ জন গ্রেফতার

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে ৬৩ জন গ্রেফতার

সৃজনশীল বই বিক্রিতে হয়রানি বন্ধের দাবি

সৃজনশীল বই বিক্রিতে হয়রানি বন্ধের দাবি


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.