সেকশনস

এমন ‘স্বাভাবিক’ মানেই সামনে বিপদ!

আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:৪০

লোকারণ্য নিউ মার্কেট এলাকা, স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা নেই কোভিড ১৯-এর মধ্যে জনজীবনে ছন্দ ফেরাতে শর্তসাপেক্ষে অনেক কিছু চালুর অনুমতি দিয়েছিল সরকার। আশপাশে তাকালে মনে হবে নিঃশর্তেই স্বাভাবিক হয়ে আছে যাবতীয় চলাফেরা। তবে এ অবস্থাকে ‘স্বাভাবিক’ বলতে রাজি নন সচেতন নাগরিকরা। তাদের মতে, করোনার মধ্যে এত ‘স্বাভাবিক’ চিত্র মানেই সামনে বড় বিপদ আসন্ন।
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে বাকি সব শর্ত শিথিল করে শুধু মাস্ক ব্যবহারের কথা বলেছে সরকার। মানুষ তাতেও উদাসীন। মাস্ক ব্যবহারে বাধ্য করতে কিছু এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা ও অফিস আদালতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ শর্ত জুড়ে দিতে বাধ্য হয় সরকার। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাধারণ মানুষের খামখেয়ালি দেখলে মনে হবে বিশ্বকে স্থবির করে দেওয়া করোনা মহামারি বাংলাদেশকে স্পর্শই করেনি। অথচ প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। মারাও যাচ্ছেন অনেকে।
বুধবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে করোনা বিষয়ক নিয়মিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অফিদফতর জানিয়েছে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত আরও ৩৮ জন মারা গেছে। এ নিয়ে মারা গেলো ৬ হাজার ৭১৩ জন।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, শনাক্ত বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতি ১০০ জনে শনাক্ত হয়েছেন ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ। এবং এখন পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার নমুনা পরীক্ষার ১৬ দশমিক ৭৪ শতাংশ। একই সময়ে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৫ হাজার ৮৮৪টি। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ১৯৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৪২৩ জন।
জানা গেছে, কোভিউ ১৯-এর বিস্তার রোধ এবং পরিস্থিতির উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার দেশের সাধারণ মানুষের চলাফেরায় নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ ৩০ জুনের পর থেকে না বাড়িয়ে কয়েকটি শর্তে স্বাভাবিক করার সিদ্ধান্ত নেয়। ১ জুলাই থেকে সরকারি অফিস আদালত খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
শর্তগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল, বাজার, শপিং মল, দোকানপাট রাত ৮টার মধ্যে এবং মহল্লার দোকানপাট রাত ১০টার মধ্যে বন্ধ করা। মাস্ক ছাড়া শপিং মলে প্রবেশ করতে না দেওয়া। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না আসা। জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বের হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। একইসঙ্গে সব ধরনের যানবাহনে দাঁড়ানো যাত্রী বহন না করা এবং চালক, হেলপারসহ যাত্রীদের অবশ্যই মাস্ক পরা ও হাত স্যানিটাইজ করার ব্যবস্থা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।
সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য ছিল ১২ দফা নির্দেশনা। অফিস চালুর আগে প্রতিটি কক্ষ, আঙিনা, রাস্তা জীবাণুমুক্ত করা, প্রবেশপথে থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা, অফিস পরিবহন জীবাণুমুক্ত করা, যানবাহনে বসার সময় ন্যূনতম তিন ফুট দূরত্ব বজায় রাখা ও সার্বক্ষণিক মাস্ক ব্যবহার করা, দৃশ্যমান একাধিক স্থানে ছবিসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা নির্দেশনা ঝুলিয়ে রাখা এবং অসুস্থ কর্মচারীকে তাৎক্ষণিক আইসোলেশন বা কোয়ারেন্টাইনে রাখার ব্যবস্থা করাও ছিল নির্দেশনায়। ভিজিলেন্স টিমের কাজ ছিল এসব নিয়ম মানা হচ্ছে কিনা তা দেখা।
খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, রাজধানীসহ দেশের কোথাও শপিং মল রাত ৮টায় বন্ধ হচ্ছে না। মহল্লার দোকানপাট খোলা থাকছে মধ্যরাত পর্যন্ত। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজার ব্যবহারের দৃশ্যও এখন বিরল। সরকারি সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রেও পকেটে করে মাস্ক নিয়ে অফিসের গেটে গিয়ে তারপর তা মুখে লাগানো হচ্ছে। বের হওয়া মাত্রই তা খুলে আবার পকেটে রাখা হচ্ছে বা থুতুনিতে ঝুলিয়ে রাখা হচ্ছে। বাসেও দাঁড়িয়ে যাচ্ছে যাত্রী। অধিকাংশ বাসচালক বা হেলপারের মুখে মাস্ক নাই। যাত্রীদেরও অধিকাংশ চলাফেরা করছেন মাস্কবিহীন।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাজধানীর একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান জানিয়েছেন, এমন স্বাভাবিক চলাফেরা মোটেও স্বাভাবিক নয়। এটা বরং বড় বিপদ ডেকে আনবে। সবার ভ্যাকসিন পেতে বহু সময় লাগবে। তখন আবার ঘুরে দাঁড়ানোর একটা সম্ভাবনা আছে। কিন্তু কিছু মানুষের সচেতনতার অভাব ও উদাসীনতা সেই সম্ভাবনার আলো নিভিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।
জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে বাঁচতে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করাসহ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগ নিতে বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মোবাইল কোর্ট পরিচালনারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে জরিমানা বাড়ানো হবে। কারাদণ্ড দেওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে।

/এসআই/এফএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অর্থপাচার মামলার প্রতিবেদন ৩ মার্চ

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অর্থপাচার মামলার প্রতিবেদন ৩ মার্চ

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

ঈদের মতো আনন্দমুখর পরিবেশে টিকা দেওয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঈদের মতো আনন্দমুখর পরিবেশে টিকা দেওয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দুদকের 'সরল বিশ্বাসে' জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ

‘নির্দোষ’ কামরুলের দণ্ড বাতিলদুদকের 'সরল বিশ্বাসে' জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ

সবাইকে টিকা নিতে বললেন তারা (ফটোস্টোরি)

সবাইকে টিকা নিতে বললেন তারা (ফটোস্টোরি)

'এনআইডি নম্বর না মিললে গ্রহণ হচ্ছে না ভ্যাকসিনের আবেদন'

'এনআইডি নম্বর না মিললে গ্রহণ হচ্ছে না ভ্যাকসিনের আবেদন'

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে সরকারকে আইনি নোটিশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে সরকারকে আইনি নোটিশ

৬০ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হবে মুগদা হাসপাতালে

৬০ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হবে মুগদা হাসপাতালে

ভ্যাকসিন এলেও মাস্ক বাধ্যতামূলক

ভ্যাকসিন এলেও মাস্ক বাধ্যতামূলক

সর্বশেষ

রোনালদোকে ছাড়াই সেমিতে জুভেন্টাস

রোনালদোকে ছাড়াই সেমিতে জুভেন্টাস

নিজের পোস্টার অপসারণ করলেন মেয়র কাদের মির্জা

নিজের পোস্টার অপসারণ করলেন মেয়র কাদের মির্জা

নতুন বৈশিষ্ট্যের করোনা ছড়িয়েছে ৭০টি দেশে: ডব্লিউএইচও

নতুন বৈশিষ্ট্যের করোনা ছড়িয়েছে ৭০টি দেশে: ডব্লিউএইচও

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

তৃতীয় ধাপে ভাসানচরের উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের যাত্রা শুরু

তৃতীয় ধাপে ভাসানচরের উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের যাত্রা শুরু

জীবনদৃষ্টির অনন্য শিল্পী কামাল চৌধুরী

জীবনদৃষ্টির অনন্য শিল্পী কামাল চৌধুরী

৬ ঘণ্টা বন্ধের পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক

৬ ঘণ্টা বন্ধের পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অর্থপাচার মামলার প্রতিবেদন ৩ মার্চ

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অর্থপাচার মামলার প্রতিবেদন ৩ মার্চ

ঢাবির চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করলো বার্জার

ঢাবির চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করলো বার্জার

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

'সাংবাদিকরা বিরাগভাজন হয়ে এনআইডি সেবা নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন করেন'

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

কোভিড কিছুটা থমকে দিলেও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি: সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

টিকা নিয়ে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানালেন, কোনও অসুবিধা হয়নি

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

আগেরগুলো বিকল, নতুন প্রকল্পে আরও ১৬টি চলন্ত সিঁড়ি!

ঈদের মতো আনন্দমুখর পরিবেশে টিকা দেওয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঈদের মতো আনন্দমুখর পরিবেশে টিকা দেওয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সবাইকে টিকা নিতে বললেন তারা (ফটোস্টোরি)

সবাইকে টিকা নিতে বললেন তারা (ফটোস্টোরি)

'এনআইডি নম্বর না মিললে গ্রহণ হচ্ছে না ভ্যাকসিনের আবেদন'

'এনআইডি নম্বর না মিললে গ্রহণ হচ্ছে না ভ্যাকসিনের আবেদন'

৬০ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হবে মুগদা হাসপাতালে

৬০ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হবে মুগদা হাসপাতালে

টিকা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানালেন ঢামেক চিকিৎসক

টিকা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানালেন ঢামেক চিকিৎসক

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম টিকা নিলেন ভিসি


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.