X
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২
২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বঙ্গবন্ধুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা মসজিদে শোক দিবস পালন

তৈয়ব আলী সরকার, নীলফামারী
১৫ আগস্ট ২০২২, ২০:২৯আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০২২, ২০:৪৩

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নীলফামারী সদরের চড়াইখোলা ইউনিয়নের পশ্চিম কুচিয়া মোড় গ্রামে তার স্মৃতিবিজড়িত শেখ জামে মসজিদে দোয়া-মাহফিল এবং বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৫ আগস্ট) বাদ জোহর এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে নীলফামারী জেলা প্রশাসন।

এলাকাবাসী জানান, ১৯৭০ সালে নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দলীয় ব্যানারে জনসভা করার জন্য ঢাকা থেকে মাইক্রোবাসে করে আসছিলেন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগের সভাপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। পথে সফরসঙ্গীদের নিয়ে ওই মসজিদে নামাজ আদায় করেন তিনি। ওইদিনই মসজিদটি পাকা করে নির্মাণের জন্য বঙ্গবন্ধু ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। পরে উপস্থিত গণ্যমান্য ব্যক্তিরা মসজিদের নামকরণ করেন ‘শেখ জামে মসজিদ’।

সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ বলেন, ‘৫২ বছর পর জাতির পিতার স্মৃতিবিজড়িত শেখ জামে মসজিদে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দোয়া-মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। মসজিদটি আমাদের গর্বের।’

উপজেলার চড়াইখোলা ইউনিয়নের পশ্চিম কুচিয়ামোড় গ্রামের বাসিন্দা মনতাজ মুন্সি (৬৮) বলেন, ‘আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনের প্রচারণা চালাতে ১৯৭০ সালে বঙ্গবন্ধু নীলফামারী এসেছিলেন। দিনটি ছিল শুক্রবার। সেদিন ওই মসজিদে নামাজ আদায় করেন বঙ্গবন্ধু। তিনি খড়ের ঘরের মসজিদ দেখে স্থানীয় উমর শেখের হাতে ৫০০ টাকা দিয়ে বলেন, “দোয়া করবেন, আমার দল ক্ষমতায় এলে পাকা মসজিদ করে দেবো।’’ ’

শেখ জামে মসজিদে দোয়া-মাহফিল এবং বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে একই গ্রামের বাসিন্দা ও শেখ জামে মসজিদের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য তসলিম উদ্দিন (৭১) স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘১৯৭০ সালে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের সময় উপস্থিত থাকার ভাগ্য হয়েছিল আমার।’

স্থানীয় তফেল উদ্দিন (৭৩) বলেন, ‘গ্রামের মানুষ ওইদিন নিয়ত করে নতুন মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের আয়োজন করেন। ঠিক নামাজের সময় হঠাৎ চার-পাঁচটা মাইক্রোবাস ও জিপ গাড়ি এসে থামে মসজিদের কাছে। বঙ্গবন্ধু দ্রুত ওজু করে নামাজে দাঁড়িয়ে যান। নামাজ শেষে সবার উদ্দেশে পরিচয় দিয়ে বলেন, “আমি শেখ মুজিবুর রহমান।” ’

জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু একজন ধর্মপ্রাণ মানুষ ছিলেন। তবে তার মধ্যে সম্প্রদায়িক কোনও চেতনা ছিল না। বঙ্গবন্ধু নিজ হাতে শেখ জামে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করায় তার স্মৃতিচারণ করে সেখানে জাতীয় শোক দিবসে বিশেষ মোনাজাতের আয়োজন করা হয়েছে। আমরা তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন– পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আজাহারুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক (ডিডিএলজি) মুরাদ হাসান বেগ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক একেএম জাকিউজ্জামান, শেখ জামে মসজিদের কার্যনির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি ওজমান গনি টুনু, সাধারণ সম্পাদক বকুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর মসজিদ কমিটিকে ২৫ হাজার টাকা দেন। সেই টাকা দিয়ে প্রথমে ২০ হাত দৈর্ঘ্য ও ১০ হাত প্রস্থের একটি পাকা শেড ‍মসজিদ নির্মাণ করা হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলে ২০১৪ সালে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ৭১ লাখ টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত স্থানে একটি মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হয়। বর্তমানে মসজিদটি রয়েছে ৬৪ শতাংশ জমির ওপর।

 

 

/আরকে/এমএএ/
১০ তারিখের সমাবেশের দিকে দেশবাসী তাকিয়ে আছে: মির্জা ফখরুল
১০ তারিখের সমাবেশের দিকে দেশবাসী তাকিয়ে আছে: মির্জা ফখরুল
‘৭ ডিসেম্বর কক্সবাজার জনসমুদ্রে পরিণত হবে’
কক্সবাজারে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা‘৭ ডিসেম্বর কক্সবাজার জনসমুদ্রে পরিণত হবে’
বিএনপির গণসমাবেশ: ব্যস্ততা বেড়েছে পল্টন থানায়
বিএনপির গণসমাবেশ: ব্যস্ততা বেড়েছে পল্টন থানায়
ব্রাজিলের বিপক্ষে ‘অঘটন’ চান সনও
ব্রাজিলের বিপক্ষে ‘অঘটন’ চান সনও
সর্বাধিক পঠিত
আজ অব্দি শাকিব খানের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নিইনি: বুবলী
আজ অব্দি শাকিব খানের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নিইনি: বুবলী
কাতার থেকে অভিযোগ, শাহজালালে ধরা
কাতার থেকে অভিযোগ, শাহজালালে ধরা
ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় যারা
ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় যারা
সিঁড়ি থেকে পড়ে গেছেন পুতিন, অসুস্থতা নিয়ে বাড়ছে জল্পনা
সিঁড়ি থেকে পড়ে গেছেন পুতিন, অসুস্থতা নিয়ে বাড়ছে জল্পনা
নেতানিয়াহুকে সতর্ক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
নেতানিয়াহুকে সতর্ক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী