X
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪
২১ ফাল্গুন ১৪৩০

ইউএনওকে সরতে বলায় চাকরি গেলো ইমামের

কুমিল্লা প্রতিনিধি
১৫ অক্টোবর ২০২৩, ১২:১৩আপডেট : ১৫ অক্টোবর ২০২৩, ১৫:৩০

কুমিল্লার লালমাইয়ে নামাজে ইউএনওকে সরতে বলায় চাকরি হারিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন এক মসজিদের ইমাম। শুক্রবার নামাজের পর থেকে ওই ইমামকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) কুমিল্লার লালমাই উপজেলার পেরুল ইউনিয়ন ভূমি অফিস সংলগ্ন ভাটরা কাছারি কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা গেছে, শুক্রবার ওই মসজিদে নামাজ পড়তে যান লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ফোরকান এলাহি অনুপম। সেখানে তিনি ইমামের বরাবর পেছনের কাতারে দাঁড়ান। ইকামাত দিয়ে নামাজে দাঁড়ানোর আগে মুয়াজ্জিন ওই ইউএনওকে ইমামের বরাবর পেছন থেকে একটু সরে দাঁড়াতে বলেন। এ সময় তিনি আপত্তি জানালে ইমাম সাহেবও মুয়াজ্জিনের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে ওই ইউএনওকে পাশে দাঁড়াতে বলেন। নামাজ শেষ হওয়ার পর ওই ইউএনও ইমাম-মুয়াজ্জিন দুজনকে ডেকে পাঠান। ইমাম ও মুয়াজ্জিন আগে ইউএনওকে না চিনলেও ডেকে পাঠানোর পর পরিচিত হলে হতচকিত হয়ে পড়েন। বেশ কিছুক্ষণ কথা বলার পর ফিরে আসেন দুজনে। এসে জানতে পারেন মসজিদের ওই ইমামের চাকরি আর নেই। শনিবার (১৪ অক্টোবর) বিষয়টি জানাজানি হলে বেশ আলোচনায় আসে।

তবে এ ঘটনার পেছনে কোনও ইন্ধন বা অন্য কোনও বিষয় থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ইউএনও মো. ফোরকান এলাহি অনুপম। তার দাবি, সেদিন চাকরিচ্যুত করার কোনও কথাই ছিল না। শুধু ওই ইমামের সঙ্গে পরিচিত হয়েছেন এই কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ‘ওই ইমামের বক্তব্য নিয়ে বিচার দিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান। আমি উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে নামাজ পড়ার চেষ্টা করি। সেদিন ওই মসজিদে পড়েছি। তখন তার বক্তব্যে কিছুটা ভিন্নতা দেখেছি। তা ছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আমাকে বলেছেন ওই ইমামের বিরুদ্ধে দেশবিরোধী কাজের জন্য মামলা ছিল। তিনি জেলও খেটেছেন। পরে ওই দিন নামাজের পর আমি চেয়ারম্যানকে ডেকে বললাম, ওনার বিরুদ্ধে একটু খবর নেন। তদন্ত করেন। কিন্তু উনি নিজে গিয়ে ওই লোককে চাকরিচ্যুত করেছেন। ওনারা ওই ইমামকে রাখবেন না বলেই চাকরিচ্যুত করেছেন। এটা আমি জানতামও না। আজ সন্ধ্যায় জানার পর তাকে আবার চাকরিতে ফেরাতে নির্দেশ দিয়েছি। এবং তিনি সেখানে আছেনও।’

মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আবুল বাশার ঘটনার বর্ণনায় বলেন, ‘খুতবা পড়ার শেষ পর্যায়ে ইমামের বরাবর প্রথম সারিতে শার্ট-প্যান্ট পরা একজন ভদ্রলোক আসেন। ইকামাত শেষে নামাজে দাঁড়ানোর সময় মুয়াজ্জিন ওই ভদ্রলোককে একটু সরতে বলেন। এরপর আমি নামাজ পড়াই। নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হলে ওই ভদ্রলোক আমাকে ও মুয়াজ্জিনকে মসজিদের দক্ষিণে সরকারি পুকুরপাড়ে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে উপস্থিত একজন আমাকে প্রশ্ন করেন, আপনি ওনাকে চেনেন? আমি বললাম, না। তখন তিনি বললেন, ওনি আমাদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার। আমি তাৎক্ষণিক বললাম, স্যার আমরা আপনাকে চিনতে পারিনি। তখন ইউএনও স্যার উত্তেজিত হয়ে বললেন, কোনও কথা নেই। তোকে এখন পানিতে চুবামো। তুই কত বড় মাওলানা হয়েছিস তোর ইন্টারভিউ নেবো। তখন তিনি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার সাইফুল্লাহ ও মেম্বার গোলাপ হোসেনকে মোবাইল ফোনে কল করে দ্রুত পুকুরপাড়ে আসতে বলেন। এরপর তিনি বড়শি দিয়ে মাছ ধরতে ধরতে আমাকে কোরআন-হাদিস ও ইসলামের ঐতিহাসিক বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করেন। বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর আমি দিতে পেরেছি। কিছু কিছু প্রশ্নের উত্তর প্রস্তুতি না থাকায় দিতে পারিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘চেয়ারম্যান-মেম্বার পুকুরপাড়ে আসার পর ইউএনও স্যার আমাকে প্রশ্ন করেন, আমাকে সরতে বললেন কেন? কোন কিতাবে আছে মুয়াজ্জিন ইমামের বরাবর দাঁড়াতে হবে? তখন স্যারকে বললাম, ইমাম যদি কোনও কারণে নামাজ পড়াতে ব্যর্থ হয় সেক্ষেত্রে ইমামের বরাবর যিনি থাকেন তিনি ইমামের দায়িত্ব পালন করেন। তা ছাড়া আমরা আপনাকে চিনতে পারিনি। তখন তিনি বলেন, আপনি নাকি অংহকারী। আমি বললাম, স্যার আমরা অহংকার করে আপনাকে সরতে বলিনি। তখন স্যার ক্ষুব্ধ হয়ে দ্বিতীয়বারের মতো আমাকে পানিতে চুবাবেন বলেন।’

ওই ইমামের কথায়, একপর্যায়ে তিনি (ইউএনও) চেয়ারম্যান-মেম্বারকে বলেন, আমি যখন বলবো তখন ইমাম, মুয়াজ্জিন ও কমিটির লোকদের আমার অফিসে নিয়ে আসবেন। উত্তরে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, এমনি গেলে যাবে, না গেলে ধরে নিয়ে আসবো। প্রায় ২ ঘণ্টা জেরার পর আমি বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে পুকুরপাড় থেকে পাকা সড়কের দিকে গেলে মসজিদের মুসল্লি ও স্থানীয় ভাটরা গ্রামের জহিরুল ইসলাম নামের একজন আমাকে বলেন, হুজুর আপনি ভালো মানুষ। আপনাকে আমরা অনেক সম্মান করি। ইউএনও স্যার এবং চেয়ারম্যান সাহেব আমাকে পাঠাইছে। কালকে থেকে আপনি আর মসজিদে আসবেন না। আসলে অপমান হবেন।’

মসজিদের মুয়াজ্জিন হাফেজ পারভেজ হোসেন বলেন, ‘আমি ইউএনও স্যারকে চিনতে না পেরে সরতে বলেছিলাম। সে কারণে নামাজের পরে ইউএনও স্যার পুকুরপাড়ে নিয়ে আমাকে ও ইমাম সাহেবকে অনেক প্রশ্ন করেন। উত্তেজিত হয়ে ইমাম সাহেবকে কয়েকবার পানিতে চুবাতে বলেছেন।’

মুসল্লি ও স্থানীয় মাসুদ বলেন, ‘সরকারি অফিসারের বিষয়ে সত্য কথা বলে না জানি কোন বিপদে পড়ি। তারপরও বলছি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকারি পুকুরে সকাল থেকে বড়শি দিয়ে মাছ ধরছিলেন। জুমার নামাজে সামনের কাতারে তিনি ইমামের বরাবর বসেছিলেন। ইমাম ও মুয়াজ্জিন ওনাকে চিনতে না পেরে সরতে বলেছিলেন। এতে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে নামাজের পরে পুকুরপাড়ে নিয়ে ইমামকে অনেক বকাবকি করেন। পুলিশ ডেকে আনার হুমকি দেন।’

মসজিদ পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারি জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি শুক্রবার অন্য মসজিদে নামাজ পড়েছি। আমাদের মসজিদে উপস্থিত ছিলাম না। কিন্তু বিকালে শুনেছি জুমার নামাজের পরে ইমামের সঙ্গে নির্বাহী অফিসারের সমস্যা হয়েছে।’

স্থানীয় পেরুল দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান খন্দকার সাইফুল্লাহ বলেন, ‘ইউএনও স্যার ইমামকে পানিতে চুবাতে বলেছে কিনা আমি শুনিনি। তবে ইমাম-মুয়াজ্জিন সঠিক কাজ করে নাই। ইউএনও স্যারকে নামাজের সময় সরতে বাধ্য করেছে। এটা তারা করতে পারে না। তা ছাড়া ইমামের এলেম অনেক কম। ইউএনও স্যারের অনেক সহজ প্রশ্নের উত্তর তিনি দিতে পারেননি। সেকারণে আমি কমিটির লোকজনকে বলেছি ইমামকে বাদ দিতে।’

ইউএনও মো. ফোরকান এলাহি অনুপম বলেন, ‘পানিতে চুবানোর কথা আমি বলিনি। একজন ইউএনও কি এটা বলতে পারে? তা ছাড়া ওই ইমামকে চেয়ারম্যান বাদ দিয়েছেন। আমি দিইনি।’

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
‘হিজাব না পরায়’ ছাত্রীদের চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগে শিক্ষিকা বরখাস্ত
গ্রেফতারের পর সাময়িক বরখাস্ত ভিকারুননিসার সেই শিক্ষক
শিক্ষাসফরের বাসে মদপান, দুই শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত
সর্বশেষ খবর
গর্ভপাতকে সাংবিধানিক অধিকার দিলো ফ্রান্স
গর্ভপাতকে সাংবিধানিক অধিকার দিলো ফ্রান্স
চাকরি না করেই নিয়েছেন বেতন-ভাতা, শখ অধ্যক্ষ হওয়া
চাকরি না করেই নিয়েছেন বেতন-ভাতা, শখ অধ্যক্ষ হওয়া
প্রার্থিতা বাতিলের মামলায় জিতলেন ট্রাম্প
প্রার্থিতা বাতিলের মামলায় জিতলেন ট্রাম্প
ভেঙে পড়বো না, কীভাবে জেতা যায় সেই চেষ্টা করবো: জাকের
ভেঙে পড়বো না, কীভাবে জেতা যায় সেই চেষ্টা করবো: জাকের
সর্বাধিক পঠিত
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র