X
বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪
৩ বৈশাখ ১৪৩১

মিতু হত্যা: বাবুল আক্তারকে চট্টগ্রাম থেকে পাঠানো হলো ফেনী কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
৩১ জানুয়ারি ২০২৪, ২১:৪২আপডেট : ৩১ জানুয়ারি ২০২৪, ২১:৪২

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় মামলায় গ্রেফতার সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ফেনী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) বিকালে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাকে ফেনী কারাগারে পাঠানো হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মুহাম্মদ মঞ্জুর হোসেন। তিনি বলেন, ‘স্ত্রী হত্যায় বাবুল আক্তারের চট্টগ্রাম আদালতে হাজিরা ছিল। এ কারণে গত ৫ এপ্রিল ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে চট্টগ্রাম কারাগারে আনা হয়। বুধবার বিকালে চট্টগ্রাম থেকে তাকে ফেনী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’ 

আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডে ২০২১ সালের ১২ মে বাবুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে তৃতীয় অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ জসিম উদ্দিনের আদালতে হত্যা মামলাটি বিচারাধীন। এটির সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।

২০১৬ সালের ৫ জুন ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে চট্টগ্রাম নগরের জিইসি এলাকায় মিতুকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। পরদিন ৬ জুন স্বামী বাবুল বাদী হয়ে নগরের পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেন। ২০২২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়। অভিযোগপত্রে বলা হয়, ২০১৩ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত কক্সবাজার জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থাকাকালে বাবুলের সঙ্গে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের নারী কর্মকর্তার সম্পর্ক হয়। ওই সম্পর্কের জেরে বাবুলের পরিকল্পনায় মিতুকে হত্যা করা হয়। নিজস্ব সোর্স দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করিয়েছেন বাবুল। অভিযোগে বাবুলসহ সাত জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

অভিযুক্ত বাকি ছয় আসামি হলেন মো. কামরুল ইসলাম শিকদার ওরফে মুসা, এহতেশামুল হক ওরফে ভোলা, মো. মোতালেব মিয়া ওরফে ওয়াসিম, মো. আনোয়ার হোসেন, মো. খাইরুল ইসলাম ওরফে কালু ও শাহজাহান মিয়া। অভিযোগপত্রভুক্ত সাত আসামির মধ্যে বাবুল, ওয়াসিম, শাহজাহান ও আনোয়ার কারাগারে। এহতেশামুল জামিনে, কামরুল শিকদার মুসা ও খাইরুল ইসলাম কালু শুরু থেকে পলাতক।

বাবুলের আইনজীবী কপিল উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বাবুল আক্তারের মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। এই মামলায় ৯৭ জন সাক্ষী রয়েছেন। ইতোমধ্যে ৩৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।’

/এএম/
সম্পর্কিত
হত্যা মামলায় ট্রান্সকম গ্রুপের দুই কর্মকর্তার জামিন
আদালত থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশে যা বললেন ড. ইউনূস
কোরআন পোড়ানোর অভিযোগে যুবক গ্রেফতার
সর্বশেষ খবর
অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনে বার্সাকে কাঁদিয়ে সেমিফাইনালে পিএসজি
চ্যাম্পিয়নস লিগঅবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনে বার্সাকে কাঁদিয়ে সেমিফাইনালে পিএসজি
গাজীপুরে ব্যাটারি কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে চীনা প্রকৌশলীর মৃত্যু, অগ্নিদগ্ধ ৬
গাজীপুরে ব্যাটারি কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে চীনা প্রকৌশলীর মৃত্যু, অগ্নিদগ্ধ ৬
নারিনকে ছাপিয়ে বাটলার ঝড়ে রাজস্থানের অবিশ্বাস্য জয়
নারিনকে ছাপিয়ে বাটলার ঝড়ে রাজস্থানের অবিশ্বাস্য জয়
সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু
সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু
সর্বাধিক পঠিত
ঘরে বসে আয়ের প্রলোভন: সবাই সব জেনেও ‘চুপ’
ঘরে বসে আয়ের প্রলোভন: সবাই সব জেনেও ‘চুপ’
ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো ১৩ জনের
ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো ১৩ জনের
উৎসব থমকে যাচ্ছে ‘রূপান্তর’ বিতর্কে, কিন্তু কেন
উৎসব থমকে যাচ্ছে ‘রূপান্তর’ বিতর্কে, কিন্তু কেন
চুরি ও ভেজাল প্রতিরোধে ট্যাংক লরিতে নতুন ব্যবস্থা আসছে
চুরি ও ভেজাল প্রতিরোধে ট্যাংক লরিতে নতুন ব্যবস্থা আসছে
প্রকৃতির লীলাভূমি সিলেটে পর্যটকদের ভিড়
প্রকৃতির লীলাভূমি সিলেটে পর্যটকদের ভিড়